সবার জন্য… বন্ধু প্যাকেজ

১.
বিজ্ঞাপনটা বোধ হয় সবারই দেখা। সোলসের বিভিন্ন সদস্যের কাছে খরব এসেছে নকীব অসুস্থ। যে যার মতো তাড়াহুড়ো করে বেড়িয়ে পড়ে তাকে দেখতে। পৌঁছে দেখে নকীব সাহেব সুস্থ, তবে অনেকদিন পুরোনো বন্ধুদের না দেখায় খানিকটা মনোকষ্টে আছেন।
ঠিক যেমনটা থ্রি ইডিয়েটস ছবিতে বন্ধু আসার খবরে প্যান্ট ছাড়াই একজনকে দৌঁড়ে যেতে দেখি বাড়ির বাহির।
এমনও হয় নাকি!!

২.
সুমন গাইলেন- বন্ধু কি খবর বল, কতদিন দেখা হয়নি…। আর আমার অনেকদিন থেকেই গাইতে ইচ্ছে হয়-লেখারা কি খবর বল, কতদিন লেখা হয়নি
ঠিক গতকাল সেকথাগুলোই ফেসবুকে মনে করিয়ে দিলো ওরা-
রাশেদ-টিটো ভাই আছেন কেমন? অনেকদিন আপনাকে দেখা টেখা যায় না
রোজোয়ান- আই এ্যাম ব্যাক, লেটস গেট অন দ্য ট্যাবল
তুহিন-কেমন আছেন? ফ্রিজ থিকা মিষ্টি
জিহাদ- ফ্রিজ কি নষ্ট? না মিষ্টি শেষ? ম্যালাদিন আপনারে দেখা যায় না
তারপর যথারীতি মিষ্টি নিয়ে যুদ্ধ
রেজোয়ান- ফ্রিজ থেকে বলছি
আহসান আকাশ- আপনারা সবাই ফেসবুকে আপডেট দিতে থাকেন এই ফাকে আমি যাই মিষ্টি খায়া আসি
লজিক রে নষ্ট(নষ্টালজিক) করার জন্য এর যে কোনো একটা বাক্যই যথেষ্ট।

৩.
হ্যা, সে এক সময় ছিলো বটে। তখন আমাদের কি-বোর্ড আর মাউসেরা ব্যস্ত থাকত এক অসুস্থ্ প্রতিযোগিতায়। কে কত কমেন্ট করতে পারে। কে কত মজার কমেন্ট করতে পারে। কে কত দ্রুত মজার কমেন্ট করতে পারে। সেই থেকেই মিষ্টি খাওয়া, পিরা যাওয়া, সহমত, ঐ, হাহাপিগে, জামাই, লুঙ্গি আরো কত কি?
খুব মিস করি সেই দিনগুলি।
ব্যস্ততা আর কাউকে দেয় না ছুটি( সম্পাই ফয়েজ ভাইরে ছাড়া কাউরে দেয় না তারপর তো ছুটি) ।

৪.
ফেসবুকের পোস্ট দেখেই রবিনের ফোন।
সিসি ক্লাবে আয়।
দুজনে মিলে সেই অসুস্থ প্রতিযোগিতার স্মৃতিচারণ করলাম অনেক্ষণ। অনেকবারই হাহাপিগে হলো। এবং ভাবলাম- আমরাও অসুস্থ। নকীব খানের মতই অসুস্থ্। সেই অসুস্থ্ প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে না পেরে অসুস্থ।
তখনই প্লান। তখনই ফোন। অতঃপর . . . . . . . . .
এমনও হয় নাকি!!
হা হয়, খুব হয়।
সারাদিন সেই অসুস্থ প্রতিযোগিতার পর এখন খানিকটা সুস্থ বোধ করছি।

৫.
আত্মীয়তায় বাঁধা নই, তবুও মোরা স্বজন
সিনিয়র জুনিয়র মিলে, বন্ধু মোরা ক’জন

[তাইফুর ভাই আর কাইয়ুম ভাই, এখনও লেখা পাওনা আছি…ভুলি নাই.. ভুলি নাই]

১,০১৯ বার দেখা হয়েছে

৫০ টি মন্তব্য : “সবার জন্য… বন্ধু প্যাকেজ”

  1. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    আহা টিটু ভাই... কি পোস্ট দিলেন... প্রাণটা জুড়ায়া গেল...

    সারাদিন সেই অসুস্থ প্রতিযোগিতার পর এখন খানিকটা সুস্থ বোধ করছি। :thumbup: :thumbup: :thumbup:


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
  2. তানভীর (৯৪-০০)

    ধন্যবাদ দোস্ত, এরকম একটা সুন্দর দিনের আইডিয়া দেয়ার জন্য।

    সারাদিন সেই অসুস্থ প্রতিযোগিতার পর এখন খানিকটা সুস্থ বোধ করছি।

    যাই এই খুশিতে ফ্রিজ থেকে... 😀

    জবাব দিন
  3. জুনায়েদ কবীর (৯৫-০১)
    আত্মীয়তায় বাধা নই, তবুও মোরা স্বজন
    সিনিয়র জুনিয়র মিলে, বন্ধু মোরা ক’জন

    জটিল... :clap:
    এক্কেবারে মনের কথা... 😀


    ঐ দেখা যায় তালগাছ, তালগাছটি কিন্তু আমার...হুঁ

    জবাব দিন
  4. তানভীর (০২-০৮)
    আত্মীয়তায় বাধা নই, তবুও মোরা স্বজন
    সিনিয়র জুনিয়র মিলে, বন্ধু মোরা ক’জন

    :clap: :clap: :thumbup:
    অ .ট. ফেসবুকে আমিও আপনারে কৈছিলাম , আমার নাম না লেখার জন্য কইষা :thumbdown:

    জবাব দিন
  5. সামিয়া (৯৯-০৫)
    হ্যা, সে এক সময় ছিলো বটে। তখন আমাদের কি-বোর্ড আর মাউসেরা ব্যস্ত থাকত এক অসুস্থ্ প্রতিযোগিতায়। কে কত কমেন্ট করতে পারে। কে কত মজার কমেন্ট করতে পারে। কে কত দ্রুত মজার কমেন্ট করতে পারে। সেই থেকেই মিষ্টি খাওয়া, পিরা যাওয়া, সহমত, ঐ, হাহাপিগে, জামাই, লুঙ্গি আরো কত কি?

    অনেক অনেক অনেক অনেএএএএএএএএএএএক মিস করি 🙁

    জবাব দিন
  6. কাইয়ূম (১৯৯২-১৯৯৮)

    আরে টিটো নাকিরে? 😛
    তুই আর রবিন সিসিক্লাবে যাস?
    আমি লেখা দিসিলামতো, পেন্ডিং এ আসে মনে হয় 🙁 এডু স্যারের মনে হয় পছন্দ হয়নাই দেইখা এখনো পাবলিশ হইতাসেনা :((


    সংসারে প্রবল বৈরাগ্য!

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।