ক্যাডেট

আজকে শাকুর মজিদ স্যারের বইটা পরতেসিলাম, “ক্লাস সেভেন, ১৯৭৮”। মাঠে বসে আছি, সামনে খেলা হচ্ছে। eee করসে ২২২, আর আমাদের ডিপার্টমেন্ট সর্বসাকুল্যে ৬৫ করে অলআউট।
পাশ থেকে ডিপার্টমেন্টের এক বড় ভাই জিজ্ঞাস করলেন -“কি পড়?” দেখালাম।
-কেমন?
একটুক্ষণ ভাবলাম, ক্যাডেটদের খুবই ভাল্লাগবে অবশ্যই, কিন্তু নন-ক্যাডেট যারা তাদের? ভাষাটা খুব ফ্লুয়েন্ট না, সামান্য জড়তা আছে। তাই বললাম, জ্বী ভাইয়া, আছে ভালোই।
-কি নিয়ে?
এইবার একান ওকান হাসি নিয়ে বললাম, ক্যাডেট লাইফ।
পাশে নাবিলা বসে ছিলো, ও সাথে কিছু কাহিনীও যোগ করে দিলো।
-ওও। তোমার কেউ পড়ত নাকি?
-জ্বি ভাইয়া, আমি নিজেই (সব কয়টা দাঁত বের হয়ে আছে)
-তুমি? (এইটা নাবিলা কে উদ্দেশ্য করে)
-জ্বি আমিও।
-খারাপ, খুব খারাপ।
আমি আর নাবিলা ভুরু কুঁচকায় তাকালাম।
-কেন ভাইয়া?
এইবার ভাইয়া এইকান ওইকান হাসি নিয়ে বললেন,
আমিও ক্যাডেট। rcc.

তিনজনের মিলিত হাসি ছড়ায় গেলো সবখানে।
উনাকে এই addressটা দেয়া হইল সঙ্গে সঙ্গে
আর চললো ক্যাডেটীয় গল্প।
ভাইয়া আপনি তাড়াতাড়ি আপনাদের বেঞ্চ বিদ্রোহ দিবস নিয়ে লিখে ফেলেন।

১,৫৬৯ বার দেখা হয়েছে

১৫ টি মন্তব্য : “ক্যাডেট”

  1. আসাদুজ্জামান (১৯৯৬-২০০২)

    ডিপার্টমেন্টের এক বড় ভাইয়ের সাথে (বেশ স্মার্ট কিন্তু তখনও চিনিনা) পিং পং খেলায় টানা তিনটা ডিউস হলো। শেষ পর্যন্ত টাইব্রেক। জিতলেন বড় ভাই। খুব আফসোস লাগলো। ধুর, কার না কার কাছে হারলাম।

    আমার বদঅভ্যাস হলো কারো কোন আচরন বা গুন ক্যাডেটীয় মনে হইলেই কোন না কোন ছুতায় জিজ্ঞেস করে ফেলি কলেজ কই ছিল। তো এইক্ষেত্রেও ব্যতিক্রম হলো না। এবং যথারীতি আবিষ্কার করলাম উনি এক্স-ক্যাডেট। পরে আফসোসটা দূর হল এই ভেবে যে, যাক টি টি খেলা যেমনই পারি, ক্যাডেটের কাছেই তো হারছি।

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।