“জিনিস বুক” সরি “গিনেস বুক” নিয়ে লাফালাফি

-এই জানিস অমুক জায়গায় এক কোটি কাউয়া এক লগে এক লগে ডাকাডাকি করছে? হেইডা নাকি আবার বিশ্ব রেকর্ড ও হইছে।
– কিসের রেকর্ড?
-আরে ওই যে “জিনিস বুক” আছে না; ওইটাতে লেখছে।
-ধুর ব্যাটা, জিনিস বুক না। গিনেস বুক। এরা দুনিয়ার সব কিছু নিয়া রেকর্ড বানায়। কোন খুটিনাটিও বাদ দেয় না।
আমি অনেক আগে শুনছিলাম যে কই জানি ২ লাখ গরু একসাথে পায়খানা করছে; সেইটাও ওদের রেকর্ডে আছে।
– বলিস কি? তাইলে ওই এক কোটি কাউয়া ডাকার সময় ও নিশ্চয়ই পায়খানা করছিলো। অইডা রেকর্ড করলো না ক্যান??

এই যখন Guinness World Records এর অবস্থা, তখন আমাদের দেশে এই গিনেজ বুক নিয়া খুব লাফালাফি শুরু হয়ে গেছে। এই আজকে সবচে বড় মানব পতাকা বানাও তো কালকে এক লক্ষ লোক দিয়ে জাতীয় সংগীত গাও। রেকর্ড একটা করতেই হবে।
ফাজলামির একটা সীমা আছে। এই সব লোক দেখানো মূল্যহীন রেকর্ড নিয়া এত বাড়াবাড়ি খুবই ফালতু মনে হয়।
এই Guinness World Records প্রথম চালু করেছিলো Guinness Brewery in Dublin এর ম্যানেজার। যাদের কাজই হচ্ছে মদ তৈরি করা। মুল উদ্দেশ্য ছিল Guinness Brewery এর বিজ্ঞাপন আর মদের বিক্রি বৃদ্ধি করা।

দেখে নিন-
http://en.wikipedia.org/wiki/Guinness_World_Records

http://askville.amazon.com/Guinness-Brewery-Dublin-affiliated-Book-World-Records-completely-separate/AnswerViewer.do?requestId=8530915

http://www.wisegeek.com/is-guinness-beer-related-to-the-guinness-book-of-world-records.htm

কেউ কেউ হয়তো বলতে পারেন যে- “না, না ব্যাবসায়িক কোন উদ্দেশ্য ছিল না। ওরা এমনি এমনি মানব কল্যাণে ওই রেকর্ড শুরু করেন”। তাদের বলছি- এই বইয়ের কোন রেকর্ড মাইনসের কামে লাগে? আর ব্যাবসার উদ্দেশ্য না থাকলে রেকর্ডের নামে কোম্পানির নামের অংশ “Guinness” থাকতো না।

যাই হোক, এই রেকর্ডগুলা খুবই অদ্ভুত আর হুদাই বানানো হয়। এখানকার লোকেরা স্পন্সরদের কাছ থেকে কাড়ি কাড়ি টাকা পায়। খায়া-দায়া কাম-কাজ নাই। যা পায় তাই দিয়া রেকর্ড বানায়।

প্রথম কথা হচ্ছে এইসব রেকর্ডের কোন মূল্যই নাই। আর দ্বিতীয় কথা, যখন তখন এই রেকর্ড ভেঙ্গে ফেলতে পারে যে কেউ।
কিছু ফালতু রেকর্ডের নমুনা দেখুন-

http://www.mirror.co.uk/news/weird-news/guinness-book-bizarre-records-12-1930240

http://www.upi.com/News_Photos/Features/16-weird-world-record-holders-and-attempts/fp/5201/

এই রেকর্ড গুলোর মধ্যে আছে-
## GREATEST EYEBALL POP (চোখের মণি ফুলায়া কত বড় করতে পারে তার রেকর্ড)

## MOST PEOPLE IN ONE PAIR OF UNDERPANTS (একটা জাঙ্গিয়া ১৬৯ জন লোক পড়ছে, সেটার রেকর্ড)।

## THE MOST PEOPLE DRESSED AS SUPERHEROES (সবচে বেশি লোক একসাথে সঙ সেজে ঢং করার রেকর্ড)

## Longest growing finger nails (এক গান্ধা মহিলা ১৮ বছর ধরে হাতের নখ কাটেনা, সেটার রেকর্ড)

আর কিছু বলা লাগবে?? এছাড়া খুঁজলে হয়তো পাওয়া যাবে- কেউ একজন ৩০ বছর গোসল না করে রেকর্ড করছে। কিংবা ১০ দিন পায়ু দিয়ে বায়ু ত্যাগ না করে আছে তার রেকর্ড।

এত কথা বলার কারণ মাইনসের হুজুগ নিয়া লাফালাফি দেখতে আর ভাল্লাগে না। গত বছর যে বাংলাদেশ ১৬ই ডিসেম্বরে ২৭১১৭ জন লোক দিয়ে যে মানব পতাকা তৈরী করেছিল, এই বছরের ১৬ই ফেব্রুয়ারি পাকিস্তান ২৯০৪০ জন লোক দিয়ে পতাকা বানিয়ে তার রেকর্ড ভেঙ্গে দিয়েছে।

পাকিস্তানের রেকর্ড ভাঙ্গার খবর-

http://tribune.com.pk/story/672169/pakistan-reclaims-record-for-largest-human-flag/

তাহলে লাভটা কী হল? আবার কী আমরা ৪০০০০ লোক নিয়ে আরেকটা পতাকা বানাবো?? পাকিস্তান যদি তার এক মাস পরে ৫০০০০ লোক দিয়ে পতাকা বানায়? তারপর কী আমরা ১০০০০০ মানুষ নিয়ে মাঠে নামবো?

আজকে “লাখো কন্ঠে সোনার বাংলা” গাওয়া হবে। দেখা যাবে দুইদিন পরে পাকিস্তান ২ লাখ মানুষ নিয়া ওদের জাতীয় সংগীত গাইবে।
ভাগ্য ভাল চীন কিংবা ভারত এখনো মাঠে নামে নাই। ওদের দেশে শত কোটি মানুষ। তার মধ্যে এক কোটি লোক দিয়ে ওরা যদি রেকর্ড করে? তখন আমরা কী করব?

আর দেশ বিরোধী রাজাকার, জামাতিদের প্রতিষ্ঠান “ইসলামী ব্যাংকের” টাকা দিয়ে জাতীয় সংগীত গাওয়া নিয়ে যে নাটক তা আর নাই বা উল্লেখ করলাম।

বন্ধু নাফিস উজরাতের স্ট্যাটাসটা এ বিষয়ে উল্লেখ করতে হয়-

“ইসলামী ব্যাঙ্ক তো হালাল উপায়ে টাকা লেনদেন করাতে প্রসিদ্ধ। তো তারা অতি সম্প্রতি গান গেয়ে গিনেজ বুকে নাম লেখানোর জন্য হাত খুলে কিছু অনুদান ও করলো। আচ্ছা উনারা কি জানেন যে “গিনেজ বুক অফ ওয়ার্ল্ডস রেকর্ড” এর গিনেজ শব্দটার উত্পত্তি কোথায়? না জানলেও সমস্যা নাই, তাহারা গিনেজ ব্রিউয়ারি র অতি উপাদেয় এলকোহলে ভরা Guiness beer পান করিলেই বুঝতে পারবেন । নিশ্চয় বলে দিতে হবেনা যে এলকোহল হারাম জিনিস। তাহলে এই হারাম স্পনসরড এই বইয়ে নাম তুলতে গিয়ে তারা কি তাদের দ্বৈত নীতির পরিচয় দিলো না? হালাল হারামের দুই নৌকায় একসাথে পা দেওয়া কি জায়েজ নাকি?কিউরিয়াস মাইন্ড ওয়ান্টস টু নো..
বটম লাইন: গিনেজ বুক একটা ওভাররেটেড জিনিস। অলমোস্ট নোওয়ান গিভস এ শিট এবাউট ইট.. এখানে নাম তুলে আত্মতুষ্টি তে ভোগার কিছু নাই.. একসাথে ১ কোটি মানুষ একত্রে কচুক্ষেতে বসে মলত্যাগ করেও গিনেজ বুকে নাম তোলা যায়.. টাকা খরচ করার প্রায়োরিটি লিস্ট টা কি একটু উন্নত করা যায়না? এইসব বুদ্ধি কার উর্বর মস্তিস্ক থেকে আসে?
N.B : কয়েকদিন আগে সবচেয়ে বড় জাতীয় পতাকা তৈরির যে রেকর্ড বাংলাদেশ করেছিল সেটা পাকিস্তান আবার গত মাসে ভেঙ্গে দিয়েছে। আসুন আমরা জোরসে বলি,-“মারহাবা”

আমার কথা হচ্ছে, লোক দেখানো মূল্যহীন কাজে দেশের টাকা নষ্ট না করে ভাল কাজে লাগানো উচিত। রাতের বেলা রাস্তায় বের হলে দেখা যায় কত মানুষ ফুটপাতে ঘুমাচ্ছে, শত শত ভিক্ষুক ঘুরে বেড়ায় দুটো টাকার জন্য প্রতিদিন। সেসব দিকে আমাদের নজর নেই। আমরা আছি ফালতু রেকর্ড নিয়ে।

রেকর্ড যদি করতেই হয় তো যার কোন সত্যিকারের মূল্য আছে তা নিয়ে করবো। আমরা করবো দারিদ্র্যকে লাথি মারার রেকর্ড। একটা মানুষও দারিদ্র্যসীমার নিচে না থাকার রেকর্ড। ১০০% মানুষকে সুশিক্ষিত করার রেকর্ড; সোনালী সুন্দর শত ভাগ সুখী মানুষের দেশের রেকর্ড।

৯১৮ বার দেখা হয়েছে

৮ টি মন্তব্য : ““জিনিস বুক” সরি “গিনেস বুক” নিয়ে লাফালাফি”

  1. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    এইটা একটা কাজ করলা! আমি পিনিক টাইপের সব রেকর্ড নিয়ে এরকম একটা পোস্ট লেখার জন্য কাললে থেকে বসে আছি, কিন্তু সময়ের অভাবে পারছিলাম না, ভাবলাম আজকে রাতে দিব, সিসিবিতে ঢুকে দেখি তুমি দিয়ে দিছো 🙁

    যাই হোক, কষ্ট কমিয়ে দিয়েছো। আমার যা বলার ছিল তা প্রায় বলে দিয়ে কষ্ট কমায় দিছো, থ্যাঙ্কু 😀

    এভাবে আয়োজন করে সবাই এক সাথে জাতীয় সঙ্গীত গাওয়ার আইডিয়া আমার ভালই লেগেছে, কিন্তু সেটার সাথে বিশ্ব রেকর্ডের রব তুলে, কোটী টাকার বানিজ্যিকরন দেখে মেজাজ গরম হইছে, সবাই গিয়ে এক সাথে জাতীয় সঙ্গীত গাবে, এতে টাকা খরচের আবার কি আছে?


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
  2. মোকাব্বির (৯৮-০৪)

    হাহাহাহাহা। বিনোদন কাহাকে বলে! এক কোটি কাক একসাথে হাগু! =)) =)) দ্যট উইল বি সাম ক্রেজি শিট! =))

    পাকিস্তান পতাকার রেকর্ড আবার ভাঙসে? এতবড় কথা?! 😡 এই বিজয় দিবসেই পাল্টা জবাব হবে। লাইনে আসুন!


    \\\তুমি আসবে বলে, হে স্বাধীনতা
    অবুঝ শিশু হামাগুড়ি দিল পিতামাতার লাশের ওপর।\\\

    জবাব দিন
    • সামিউল(২০০৪-১০)

      ভাই ক্রেজি শিট দিয়াই তো এই "জিনিস বুক" ভর্তি।

      পাকিস্তানের রেকর্ড ভাঙ্গার খবর মনে হয় সুশীলেরা এখনো জানতে পারে নাই। জানলে তো অনেক কান্নাকাটি আর হুঙ্কার শোনা যেত এতদিনে। 😛


      ... কে হায় হৃদয় খুঁড়ে বেদনা জাগাতে ভালবাসে!

      জবাব দিন
  3. ওয়াহিদা নূর আফজা (৮৫-৯১)

    এই ঘটনাটা দেখছিলাম - কিন্তু পুরো বিষয়টা এখনও বুঝতে পারিনি। হায়রে গরীব দেশের টাকা-পয়সা! কোন জবাবদিহি নাই।


    “Happiness is when what you think, what you say, and what you do are in harmony.”
    ― Mahatma Gandhi

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।