ফেক আইডি সনাক্তকরণের সহীহ্‌ তরিকা

fakeBookF ফর Facebook হলেও একটা সময় নিশ্চয়ই সবাই পার করে এসেছেন কিংবা এখনো করছেন যখন F ফর Fakebook মানতে বাধ্য হয়েছেন আপনি নিজেও। Fake ID-র খপ্পরে পড়েন নি, বা এই টার্ম সম্পর্কে একদমই জানেনই না, এমন লোককে ফেসবুক নামের এই সামাজিক ওয়েবসাইটে গুগলায়িত খোঁজ চালিয়েও পাওয়া যাবেনা শিওর। আজকাল ফেক একাউন্ট দিন দিন এতই বেড়ে যাচ্ছে যে মাঝে মাঝে অরজিনাল মানুষরেও ফেক ফেক লাগে। এইতো কিছুদিন আগেই তো, একজনরে ফেক ভেবে গালিগুলি দিয়া তার ফেসবুক দেয়ালখানা ভাসায় দেওয়ার পর জানতে পারলাম সে ফেক ছিলো না, অনুশোচনার অনলে পুড়ে আর বেদম লজ্জায় পড়ে তারে শেষ পর্যন্ত ব্লক কইরা রাখতে বাধ্য হইছিলাম। তাই এই নির্দয় বিড়ম্বনা এড়িয়ে কিভাবে একটি ফেক একাউন্ট সনাক্ত করে শত শত মাসুম ফেসবুক ইউজার-রে ব্লক হওয়া থেকে বাঁচায় দিবেন তা নিয়েই আজকের এই পোস্ট। :-B :-B

ম্যাক্সিমাম ক্ষেত্রেই এই ফেক একাউন্টগুলো তৈরি করেন ছেলেরা। এবং সাধারণত একাউন্টটি হয় কোনো একটি মেয়ের নামধারী। কেউ এটা করেন বন্ধুদেরকে ফাঁদে ফেলে মজা দেখার জন্য, আর কেউ করেন নিজে নিতান্তই আকাইম্যার ঢেকি হওয়ার দরুন (নাই কাম, তো কর আকাম)। আবার অনেকে মনে করেন অপরিচিত ছেলের রিকোয়েস্ট কোনো একটা মেয়ে এক্সসেপ্ট না করে থাকলেও, অন্তত মেয়ে হয়ে রিকোয়েস্ট পাঠালে হয়তোবা এক্সসেপ্ট করতেও পারে। কাজেই সেই মেয়ের প্রফাইলে একটু ঢু মেরে আসার লোভে নিজের gender চেঞ্জ করলে ক্ষতি কি? যাহোক, যাহোক প্যাঁচাল থুয়ে আসুন দেখা যাক কিভাবে একটি ফেক একাউন্ট হাতেনাতে সনাক্ত করবেন। B-)

১. পরিপূর্ণরূপে অপরিচিত মেয়ের ফ্রেন্ড রিকোয়েস্টঃ
সাধারণত একেবারে অপরিচিত মেয়েরা হঠাৎ করেই একটা ছেলেকে ফ্রেন্ড-রিকোয়েস্ট পাঠায় না (ইগোজনিত কারণেই হোক আর যেই কারণেই হোক, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এইটাই অলিখিত সত্য এবং চাক্ষুষ প্রমাণিতও)। কাজেই বলা নেই কওয়া নেই, আপনার সাথে কোনোভাবেই রিলেটেড না এমন কোনো মেয়ের একাউন্ট থেকে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট আসলেই লাফানো শুরু করবেন না, সেই মাইয়্যার প্রফাইল পিক্সচার যতই আবেদনময়ীই হউক না কেন। সাবধান! আই ডি ফেক হওয়ার সম্ভাবনা ৯০% :-B

২. আবেদনময়ী প্রফাইল পিকচারঃ
এইটা নিয়া বলার আর কিছুই নাই। মানব সন্তান (স্পেশালি পুং সন্তান) মাত্রই সুন্দরের পুঁজারী। অতীব সৌন্দর্য্যমন্ডিত প্রফাইল পিকচার ওয়ালা কোনো মাইয়্যার একাউন্ট দেখলেই ইট্টুশখানি ঢুকতে ইচ্ছা করে তার দেয়ালে (ফেসবুক দেয়ালের কথা বলা হইছে, অন্য কিছু না)। কাজেই ফেক একাউন্ট তৈরিকারক এই ব্যাপারটা মাথায় রেখেই অসাধারণ আর কিঞ্চিত আবেদনময়ী পিকচার ব্যবহার করে থাকেন। অবশ্য এখনকার ফেকার-রা বেশি চালাক হওয়াতে, এখন অনেকে নিতান্তই সিম্পল পিকচারও দিতে দেখা যায়। তবে সেই পিকচারও সনাক্ত করা সম্ভব। খেয়াল করবেন পিকচারে কোথাও না কোথাও কিছু না কিছু রহস্য করার চেষ্টা করা হয়েছে(যেমন, মেয়ের অর্ধেক মুখ দেখা যাচ্ছে, কিংবা শুধু চোখের মাদকতাপূর্ণ চাহনির ছবি, মুচকি হাসির ছবি ইত্যাদি) [গুগলে সার্চ দিয়ে এমন শত শত পিকচার কালেক্ট করা কোনো ব্যাপারই না]

৩. অসম্পূর্ণ ও অসংলগ্ন ইনফোঃ
Info পেজে ঢুকুন, দেখবেন সেই আই ডি-র তথ্য গুলো অসম্পূর্ণ আর অসংলগ্ন। এডুকেশন ইনফো-তে দেখবেন খুব নামীদামী কোনো স্কুল/কলেজের নাম ইউজ করা হয়েছে (বিশেষ করে- VNC, Scolastica, Holy Cross, ইডেন কলেজ এইসব প্রতিষ্ঠানের নাম ব্যবহার করা হয়)। অথচ একটু খেয়াল করে দেখুন যে স্কুলের নাম ইউজ করা হয়েছে , তার ফ্রেন্ড লিস্টে ঐ স্কুলের কোনো বন্ধুই পাবেন না। থাকবেই বা ক্যামনে, তাইলে তো পয়লা দিনেই পুরা ধরা। :no:

৪. আনকমন এবং হাই স্ট্যাটাস টাইপ ইউজার-নেমঃ
নাম দেখেও যেন মনে হয় এই মাইয়া অনেক বড়লোকের আদুরে এক কণ্যা, পাশ্চাত্যের ছোয়া তার অংগে অংগে সেইটা মাথায় রাইখা ফেকার-রা সাধারনত দেখবেন আনকমন কিছু আধুনিক নাম ইউজ করে থাকে। এইটারও উদাহরণ দেই- যেমন ধরুণ- সকিনা, মর্জিনা, কপিলা, আদুরি, জরিনা, রহিম এইসব নাম দিলে নিশ্চই কোনো পুং সন্তান নাই সেই প্রফাইলের দিকে ভুলেও একবার চোখ দেয়। কাজেই তারা সাধারণত ইউজ করে- অপ্সরা, নাইসা, সাদিয়া, বিন্তিয়া, সিন্থিয়া, অধোরা, শ্রাবন্তী এই টাইপ কিছু নাম। কাজেই নাম দেইখ্যাই পইটা যাইয়েন না। :gulti:

৫. ফটো এলবামে কমেন্টের বন্যাঃ
এইবার তার ফটো এলবামে আসুন। দেখতে পাবেন অসাধারণ আর মনোমুগ্ধকর কিছু পিকচার আপলোড করা। এবং সবচেয়ে মজার পার্ট সেইসব কমেন্টের নীচে লুইচ্চারাজ কিছু পোলার পটাইন্যা পটাইন্যা সব মন্তব্য (কিছু অশ্লীল ভাষাও পাইতে পারেন, অস্বাভাবিক না)
নিজের চোখে দেখা ফেক আই ডি থেকেই কয়েকটা উদাহরণ দেই-(শ্লীল থেকে অশ্লীলতর ক্রমানুসারে) :grr:

“hey, Lookn Preety”

“U, r toooo cute”

“Your Eyes r beautiful, wanna be your friend”

“Hye, apnar chokh-e ki jeno ache” (কী যে আছে হেয় জানে আর আল্লায় জানে)

“Your Lips r like piece of Orange (কমলার কোয়া)

“Hey, why r U too hot/sexy” ইত্যাদি ইত্যাদি।

ইউজুয়্যালি কোনো মেয়ে এইসব অচেনা লুইচ্চা লুইচ্চা কিছু Comment-er পর সেই লোকরে ফ্রেন্ডলিস্টে রাখবে না এটাই স্বাভাবিক। রাখবে শুধু সেই ফেক আই ডি তৈরিকারক-ই।

হ্যা, উপরের লেখাগুলা পইড়া এতক্ষনে নিশ্চয়ি সন্দেহভাজন হয়ে গেছি আপনাদের? যে আমিও ফেক আই ডি-র ফ্যাক্টরি না তো। তেনাদের জ্ঞাতার্থে বলি- হ্যা আমি নিজেও ২ টি ফেক একাউন্ট খুলেছিলাম- তয় আসল অর্থে ফেক ছিলোনা, কারণ সবাই সেইটা জানতোও এবং মজাও হতো অনেক। ভিক্টিম ছিলেন মানে যার নামে একাউন্টটি খুলেছিলাম তিনি আমাদের শ্রদ্ধেও গুরুভাজন “সাকা স্যার”, আরেকজন ছিলেন আরেক গুরুভাজন “নুরু পাগলা” (অবসর পাইছেন এখন)। আর অনেক আগে মাইয়্যার একটা একাউন্ট-ও খুলছিলাম অবশ্য। সেইটার নাম নাইবা জানলেন। সেইটা দিয়া লুইচ্চা এক সিনিয়র ভাইরে শায়েস্তা করতে কী রকম নাকানি-চুবানি আর হাবুডুবু খাওয়াইছিলাম সেই রসময় কাহিনীটা নাহয় আরেকদিন বলবো।

“ফেসবুকের আকাশ রাখিবো মুক্ত,

ফেক একাউন্টে হবোনা যুক্ত,

মাইয়্যা দেখলেও থাকি সংযত,

নিজ প্রেস্টিজ রাখি অক্ষত”।

এই মতাদর্শে উজ্জীবিত হয়ে উঠুক বাংলার প্রতিটা ফেসবুক সন্তান।

আজকের মত বিদায়। :hatsoff:

ভালো থাকবেন।
(এর বাইরেও অন্য কোনো তরিকা জানা থাকলে, আপনি সাদরে আমন্ত্রিত। শিঘ্রই আমাদেরকেও জানায়ে জ্ঞানভান্ডার বিকশিত করুন) 😀

৩৫ টি মন্তব্য : “ফেক আইডি সনাক্তকরণের সহীহ্‌ তরিকা”

  1. আশহাব (২০০২-০৮)

    ভাই, তরিকা গুলা ভালোই হইসে, কিন্তু সবগুলাই তো পোলাদের খোলা একাউন্টের বৈশিষ্ট্য, মেয়েরাও কিন্তু একাউন্ট খুলে জানেন তো, তাও আবার ফেক ;;; পোলাদেরই টেস্ট করার জন্য :gulti: :gulli2:
    তরিকা নং ৬: একদিন কিংবা দুইদিনের মধ্যেই দশ থেকে বিশ জনের মত ফ্রেন্ড জোগাড়, এবং বাড়তেই থাকবে (বেশীরভাগই থাকবে পোলা)। :chup:

    জবাব দিন
  2. খালিদ (১৯৯৮-২০০৪)

    কিছুদিন আগে একটা Friend request পেয়েছি..................Profile picture এ
    সুন্দরী মেয়ের ছবি দেখে সাথে সাথে info পেজ দেখার লোভ সামলাতে পারলাম না............info তে বড় বড় হরফে লেখা ছিল ..........."High School :Comilla Cadet College"
    :khekz: :khekz: :khekz:

    জবাব দিন
  3. ফেসবুকে প্রথমদিন ঢুকেই একাউন্ট করা মাত্র যে ব্যক্তির প্রোফাইল দেখলাম, এবং system কর্তৃক তাকে ফ্রেন্ড বানানোর সদুপদেশ পেলাম তার নাম হুমায়ূন আহমেদ। আমি কিছু বুঝে উঠার আগেই ক্লিক করে ফেললাম। ঘন্টা খানেকের মাথায় দেখি, তিনি আমার ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট অ্যাক্সেপ্ট করেছেন। আহা কী আনন্দ আকাশে বাতাসে! ... কিন্ত ওই পর্যন্তই, এর পর সাত চড়ে আর রা' নাই! এ কী তাজ্জব কথা, কোনও প্রকার স্ট্যাটাস আপডেট নাই, কমেন্ট নাই, ওয়ালপোস্ট-এর জবাব নাই, কোনও ধরণের কোনও এক্টিভিটি'ই নাই এই মহা(!)মানবের। কী উদ্ভট! হুমায়ূন আহমেদ আমার বন্ধু (তা হোক না ফেসবুক বন্ধু, তবু তো বন্ধু)- এই গর্ব আমার ক'দিনের মধ্যেই ভ্যানিশ হয়ে গেল। সন্দেহ হলো, এটাও কি তবে ফেক আইডি? কিন্তু একটা ব্যাপার, এটা যদি অন্য কারো দ্বারাই অপারেট হবে, তাহলে সেই ব্যক্তিকে এত ধৈর্য্য দিলো কে। উরে খাইছে রে... কী ভয়ানক আর বিভত্স গালাগাল যে তার ওয়ালে পোস্ট করা হয়! কী মারাত্মক আক্রমণাত্মক মন্তব্য ও প্রশ্ন তাকে করা হয়, অন্য কেউ হলে তো সেই প্রশ্নকর্তাদেরকে নির্দ্বিধায় ব্লক করে দিতো। এ হুমায়ূন আহমেদ-এর মতো "তারছিড়া" প্রতিভা বলেই বুঝি এত বেশি নির্বিকার...!

    এর প্রায় বছর খানেক পর। আমার এক ঘনিষ্ঠ বন্ধু (নাম হাসান) দেখি হুমায়ূন আহমেদ-এর ওয়ালে পোস্ট দিয়েছে: "আপনি দুই নাম্বার"। এই একটা বাক্যই, ফেসবুক যতবার এলাউ করেছে, ততোবার সে কপি পেস্ট করেছে। পুরো পাতাজুড়ে ওই একটাই মন্তব্য, সাধ মিটিয়ে ঝাল ঝেড়েছে হাসান।

    একটু পরেই দেখি কে একজন সেই পোস্টে কমেন্ট দিয়েছে,
    "হাসান ভাই, উনি আসলে তিন নাম্বার। এক নাম্বারটাই তো দুই নাম্বার হয়ে গেছে!"

    জবাব দিন
  4. আহমেদ মাশফিক রায়হান সিউল (১৯৯৮-২০০৪)

    আরে টেবিলমেট O:-) O:-) O:-)

    ফেসবুকে ফেক আইডি'র কাছে কেউ ধরা খায় নাকি ??? যারা মনে করে যেই প্রফাইলটাই দেখবো সেটাই আমার বন্ধু তাহলে কিভাবে হবে.......... ফেসবুককে ড্রয়িংরুমে না এনে বাসার চিলেকোঠায় রাখলেই হয় যেখানে কাছের মানুষজন ছাড়া আর কারো প্রবেশাধিকার নাই, ব্যস আর কোন ঝামেলা হওয়ার চান্স নাই

    জবাব দিন
    • ইফতেখার (৯৯-০৫)

      @মাশফিক ভাইঃ
      বস্‌, খবর কী? 😀 😀 আছেন ক্যামুন? 🙂

      ফেসবুককে ড্রয়িংরুমে না এনে বাসার চিলেকোঠায় রাখলেই হয় যেখানে কাছের মানুষজন ছাড়া আর কারো প্রবেশাধিকার নাই

      কোপা একখান কথা কইছেন। :thumbup: :thumbup:
      কিন্তু কী করমু, লুইচ্চামির অভ্যাস সারা গতরের রন্ধ্রে রন্ধ্রে ঢুইকা আছে যে...... শীরাআআম পিক্স ওয়ালা প্রফাইল দেখলেই কাবু হইতে মন চায় :bash:

      জবাব দিন
  5. আজহার (০১-০৭)

    আর কইয়েন না ভাই।আজকাল দেখি প্রীতি জিনতা,শাহরুখ খান,তামান্না ভাটিয়া(তামিল নায়িকা) এরাও ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠাইতেছে।ফ্রেন্ড সাজেসন্ এ দেখি রবীন্দ্রনাথ,রানি মুখারজি্‌
    x-(

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।