ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ও লিভারপুল শোডাউন

Venue: Old Trafford Date: Saturday, 14 March Kick-off: 1245 GMT
পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকা ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড নিজের মাঠে খেলবে লিভারপুলের সাথে। পরিস্কার ৭ পয়েন্টের ব্যবধানে এগিয়ে আছে। লিভারপুলের সাথে জিতলে নিশ্চিত শিরোপা হাতের মুঠোয় চলে আসবে। অন্যদিকে দীর্ঘ ১৯ বছর পর লিভারপুল শিরোপার স্বপ্ন দেখছে। কিন্তু ক্রিস্টমাসের পর ফর্মের অবনতি তাদের শিরোপা থেকে দূরে ঠেলে দিয়েছে। যাই হোক এই ম্যাচে জয় লিভারপুল ফ্যানদের আবার আশা ফিরিয়ে আনবে।.
এই খেলায় হেরে গেলেও ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড শিরোপার জন্য ফেবারিট। কিন্তু কালকের খেলায় হেরে গেলে মনোবল একটু দুর্বল হয়ে যাবে। আর ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড লীগের শেষের দিকে পয়েন্ট টেবিলের নিচের দলগুলোর সাথে খেলবে যারা তখন রেলিগেশনের ভয়ে নিজেদের অস্তিত্বের জন্য খেলবে তাই তখন সব ম্যাচেই ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড জিতবে তা বলা যায় না বরং পয়েন্ট হারানোর সম্ভাবনাই বেশী। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড এর শেষ খেলা গুলো হলোঃ
ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ফিকচারঃ
Sunday, 05 April 2009 Man Utd v Aston Villa, 16:00 এস্টনভিলা চ্যাম্পিওন্স লীগের যোগ্যতার জন্য খেলছে। তাই আর্সেনালের আগে ৪র্থ স্থানে থাকতে হলে তাদের জিততে হবে।
Saturday, 11 April 2009 Sunderland v Man Utd, 15:00 সান্ডারল্যান্ড রেলিগেশন ফাইট দিচ্ছে।
Wednesday, 22 April 2009 Man Utd v Portsmouth, 20:00 পোর্টসমিথও রেলিগেশন ফাইট দিচ্ছে।
Saturday, 25 April 2009 Man Utd v Tottenham, 15:00 টটেনহ্যামও রেলিগেশন ফাইট দিচ্ছে।
Saturday, 02 May 2009 Middlesbrough v Man Utd, 15:00 মিডলসবোরোও রেলিগেশন ফাইট দিচ্ছে।
Saturday, 16 May 2009 Man Utd v Arsenal, 15:00 আর্সেনাল যে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে ছেড়ে দিবে না তা তো বলাই যায়। তার উপর আগামী বছর চ্যাম্পিওন্স লীগে খেলা এখন অনিশ্চিত। তাই তারাও ফাইট দিবে।
Sunday, 24 May 2009 Hull v Man Utd, 16:00 হাল ও রেলিগেশন ফাইট দিচ্ছে।
.
লিভারপুলের তুরুপের তাস টরেস। টরেস শুধু স্কিলফুল না বরং যথেস্ট শক্তিশালী। তাই ডিফেন্ডারদের ধাক্কায় সহজে মাটিতে না পড়ে গিয়ে গোলের জন্য এগিয়ে যায়। দুই পায়েই সমান দক্ষ টরেস একাই পারে খেলার মোড় ঘুরিয়ে দিতে।
.
লিভারপুলের আছে অনুপ্রেরনাদায়ী অধিনায়ক স্টিফেন জেরার্ড। যে একাই পুরা দলের ড্রাইভিং ফোর্স হিসাবে কাজ করে। আর মধ্যমাঠের সহযোগী যোদ্ধা হিসাবে আলন্সো আর মাশকেরানো দারুন। ডানদিকে আছে পরিশ্রমী ডিরিক কুট আর বামদিকে রিয়েরার বদলে রিয়ালের সাথে দারুন খেলা বাবেল খেলবে।
.
ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বড় শক্তি আজকাল তাদের ডিফেন্স। ভিদিচ আমার মতে বিশ্বের সেরা ডিফেন্ডার। ভিদিচ ফার্ডিনান্ড জুটি দারুন খেলছে। আর গোলবারে ভ্যান ডার সার লিগের শুরুরদিকের অনিয়শ্চতাময় পারফরম্যান্স কাটিয়ে এখন সেরা ফর্মে। তাই ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিরুদ্ধে গোল করা এখন একটা বড় ব্যাপার।
.
ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের আক্রমনভাগ নিয়ে আর কি বলবো। যেই দলে ৩০ মিলিওন পাউন্ডের কার্লোস তেভেজের বেঞ্চে বসে থাকতে হয়। রুনী, রোনাল্ডো আর বারবাতভ যেকোনো দলের জন্য ভয়ংকর। কিন্তু ইন্টার মিলানের সাথে না খেলায় নিশ্চিতভাবে বলা যায় তেভেজ খেলবে। আর আমার মতে ইউনাইটেডের সেরা খেলোয়াড় এই তেভেজ। এই মফিজের গায়েরথ পুরো টিমের চেয়ে বেশী। যেহেতু কালকের খেলায় ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড মধ্যমাঠ জমাট করে খেলবে, তাই তেভেজের পরিশ্রমী খেলা কালকে খুব কাজে লাগবে। আর এই মৌসুমে যখনই তেভেজ নেমেছে তখনই খেলার ধার বদলে দিয়েছে। একজন লিভারপুল ফ্যান হিসাবে কালকে আমার ভয় এই তেভেজ আর ফারগুসনের অনুগত রেফারীকে নিয়ে।
.
এই খেলা লিভারপুলের জন্য জিততেই হবে। কিন্তু আমার মনে হয় না লিভারপুল রিয়াল মাদ্রিদের সাথে যেভাবে অল আউট এট্যাক করেছে সেভাবে এট্যাক করবে। কারন এইটা নেগেটিভ অথবা অতিমাত্রায় সতর্ক বেনিটেজ়ের স্টাইল না। লিভারপুল গোল না খাওয়ার চেস্টায় থেকে ফাঁক তালে গোল পায় কিনা সে আশায় খেলবে। রিয়ালের সাথে এই রকম পারফরম্যান্স আসলে টরেস এর জন্য। প্রাক্তন এথলেটিকো মাদ্রিদ খেলোয়াড় হিসাবে টরেস এমনিতেই তেঁতে ছিলো। তাই ইঞ্জুরী নিয়েও সে শতভাগ উজাড় করে খেলেছে। এছাড়াও স্পেনিশ মিডিয়াকে দেখিয়ে দেবার একটা আকাঙ্ক্ষাও ছিলো। জেরার্ড খেলা শেষে স্বীকার করেছে টরেস ড্রেসিংরুমেও সবাইকে উজ্জীবিত করে তুলেছিলো।

আসলে রিয়ালের সাথে প্রেসিং গেম মানে খুব দ্রুত Close Down করা খুব কাজে লেগেছিলো। এমনকি এনফিল্ডেও যখন লিভারপুল ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডকে হারিয়ে ছিলো তার কারনও ছিল প্রেসিং গেম। তাই কালকে জেরার্ডের নেতৃত্বে লিভারপুল মধ্যমাঠ কেমনভাবে নিয়ন্ত্রন করে তাই দেখার বিষয়। খেলার প্রথম দিকের একটা ফ্লাইং ট্যাকল খেলার টোন ঠিক করে দিবে। ১ম গোল খুব জরুরী একটা ব্যাপার। শুরুর দিকে একটা গোল খেলার গতি পরিবর্তন করে দিতে পারে যেমনটি ঘটেছিলো ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড আর ইন্টার মিলানের খেলায়। শুরুতে গোল খেয়ে বসায় ডিফেন্সিভ দল নিয়ে নামলেও ইন্টার আক্রমনাত্বক ফুটবল খেলেছিলো। সেইরকম কিছু হলে কালকেও দারুন খেলা হবে। তা না হলে হয়তো সাবধানী বোরিং খেলা হবে যা শুধু মাত্র শেষ ৩০ মিনিটে জমে উঠবে।

২,০০৭ বার দেখা হয়েছে

২৯ টি মন্তব্য : “ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ও লিভারপুল শোডাউন”

  1. মইনুল (১৯৯২-১৯৯৮)

    চমৎকার বিশ্লেষন আহসান ভাই। তবে ফার্গুসন আর রেফারী নিয়ে যেটা বললেন সেটা ছাড়া। আশা করছি ম্যান ইউ অ্যানফিল্ডের হারের প্রতিশোধ না নিতে পারলেও হারবে না। 🙂 🙂 🙂

    জবাব দিন
  2. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    আলোনসো ইঞ্জুরড...ওর জায়গায় খেলবে লুকাস... লিভারপুলের জন্য আরো টাফ হয়ে গেল।


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
  3. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    ম্যান ইউ'র মাঠে ওদের বিরুদ্ধে পেনাল্টি 😮 শেষ কবে দেখছিলাম মনে পড়ছে না,

    পেনাল্টির আগে কামলা তেভেজ ভ্যান দার সারকে একটু জ্ঞান দিতে চেস্টা করছিল...কিন্তু জেরার্ড কিক নেয় উল্টা দিকে :D, মজা পাইছি।


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
  4. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    সূর্য আজকে কোনদিকে উঠছে? পেনাল্টির পর এবার লাল কার্ড 😮 , ভিডিচতো মনে হয় আজকে ইউনাইতেডের বদলে লিবারপুলের হয়ে খেলতে নামছিল :)) লিভারপুলের উচিত ওরে ম্যাচ বোনাসের একটা শেয়ার দেয়া।

    লিভারপুল ৩ - ম্যান ইউ ১


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
  5. ফয়েজ (৮৭-৯৩)

    ও এহসান, পার্টি কই দিবা? আমাগো ডাকবা না? এত কইরা চিল্লাইতেছি লিভারপুলের লাইগা? 😉

    আইজকা ম্যান ইউয়ের কি হইল, ম্যাচে মহড়া দিছে

    ওই আরেকটা খাইল,


    পালটে দেবার স্বপ্ন আমার এখনও গেল না

    জবাব দিন
  6. এহসান (৮৯-৯৫)

    খেলার শুরুতেই আলন্সো আর আরবেলোয়া ইঞ্জুরড হয়ে যাওয়ায় লিভারপুল বেশ ধাক্কা খাইসিলো। স্পেশালি আলন্সো ছিল অপূরনীয় ক্ষতি। কিন্তু আরবেলোয়ার ইঞ্জুরী সাপে বর হইসে। কারন মুল ডিফেন্স ছেড়ে ক্যারাঘার চলে গেছে রাইটে। আর বুড়া হুইপিয়ারে রেখে গেছে মাঝখানে। কিন্তু হুইপিয়া আজকে তার জীবনের সেরা খেলা খেলেছে। আমার মতে ম্যান অফ দ্য ম্যাচ হুইপিয়া। গেম রিডিং, পারফেক্ট টাইমড ট্যাকল সব কিছুতে বস ছিলো। লুকাস আর মাশকেরানো অরেলিওরে ভালোই সাপোর্ট দিছে রোনাল্ডোরে থামানোর জন্য।

    বারবাটভরে বেঞ্চে রাইখা ইউনাইটেড প্রমান করেছে আজ কে লক্ষ্য ছিলো ড্র। কারন রুনী অথবা টেভেজ দুই জনই বেঁটে। তাই একক টার্গেট স্ট্রাইকার হিসাবে বারবাটভের বিকল্প তারা কেউই হতে পারে নাই।

    রেফারীং আজকে ভালোই হয়ে ছিলো। দুইটা পেনাল্টি আমার কাছে জেনুইন মনে হয়েছে। মাশকেরানো আর স্করটেলরে হুদাই হলুদ কার্ড দিসে। অল্ড ট্র্যাফোর্ড না হইলে এইগুলা কার্ড হইতো না। সারা খেলায় ভিদিচ অনবরত টরেস রে মারসে, অনেক আগেই ওরে হলুদ কার্ড দেখানো দরকার ছিলো। কিন্তু সরাসরি লাল কার্ডের সিদ্ধান্ত ভুল ছিলো। কারন শেষ ডিফেন্ডার ভিদিচ ছিলো না। আর শেষ ডিফেন্ডার না হলে লাল কার্ডের যুক্তি নাই। কিন্তু রেফারী্র পজিশন থেকে বুঝা যায় নাই ব্যাপারটা। তাই আমি রেফারীং নিয়ে মহা খুশী। রীতিমত চান রাইতের খুশী।

    @ তারেক,

    ভাই ভিদিচের আজকে অফ ডে ছিলো। তাছাড়া তারে আইজকা বিশ্বের সেরা স্ট্রাইকারকে সামলাইতে হইসে। ৫০-৫০ বল ছিলো আর টরেস ফোর্সড হিম টু কমিট দ্যাট মিস্টেক। এখনো আমি বলবো ভিদিচই সেরা। কিন্তু লিভারপুলের সাথে অর অফ ডে গেলে আমার কোনো সমস্যা নাই।

    @ ফয়েজ ভাই,

    ম্যানচেস্টারের খ্যাতা পুড়ি

    :thumbup:
    আজকে শুধু আমি না চেলসির মালিক আব্রাহোমোভিচও পার্টি দিবো। আমার বউ ৩-১ এর পরের থেইকাই কইতাছে আজকে নাকি ঘরের খানা খাইবো না। আমিও বেরী হ্যাফি।

    হই হই রই রই :tuski:
    আমিন, স্বপ্নচারী, সামি এইডি গেলো কই। :awesome:

    জবাব দিন
  7. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    এহসান ভাই, স্প্যানিস লীগ আর ইটালিয়ান লীগের ডিটেইল খবরাখবরের জন্য কিছু ভাল ওয়েবসাইট সাজেস্ট করবেন কাইন্ডলি...আর ইংলিশ লীগের জন্য আমি বিবিসির সাইটে যাই, এর চেয়ে ভাল কোন সাইট আছে ?


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।