চ্যাম্পিওন্স লীগ… আজকের খেলা… ১১ই মার্চ,২০০৯

বুধবার, ১১ই মার্চ , ২০০৯ ১৯৪৫ GMT

রোমা বনাম আর্সেনাল (০-১)
এফ সি পোর্তো বনাম এথলেটিকো মাদ্রিদ (২-২)
ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড বনাম ইন্টার মিলান(০-০)
বার্সেলোনা বনাম লিঁও (১-১)
.
এথলেটিকো মাদ্রিদ বনাম এফ সি পোর্তো সম্ভাবনায় কিছুটা ব্যালেন্সড। আর্সেনাল আর বার্সেলোনা নিজেদের খেলা গুলোতে বলা যায় ওরাই ফেবারিট। আর্সেনালের ডিফেন্ডার কোলু টুরে, মাঝ মাঠের সামির নাসরি, ডেনিলসন, থিও ওয়ালকট ও স্ট্রাইকার এডুয়ার্ডো সবাই ফিট আজকের খেলার জন্য। যদিও এডিবায়র নেই তারপরও এতো গুলো দ্রুতগতির ফরোয়ার্ড ফিরে আসায় আর্সেন ওয়েংগার হুংকার ছাঁড়ছে যে, শুধুমাত্র নিজের অর্ধে বসে থাকার জন্য ইতালীয় রাজধানীতে তারা আসেনি। অন্যদিকে রোমার আক্রমনাত্মক মানসিকতার রাইট ফুলব্যাক সিসিনহো পুরো মৌসুমের জন্য মাঠের বাইরে। অধিনায়ক টট্টি কেমন দলকে তাঁতাতে পারেন তাই দেখার বিষয়। ইতালীয় ক্লাব গুলোর সাথে আর্সেনালের রেকর্ড বেশ ভালো। ইতালীয়ান প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে গত ছয় ম্যাচে তারা হারেনি। জিতেছে চারটি আর ড্র হয়েছে দুটি। একটা এওয়ে গোল খেলার মোড় ঘুরিয়ে দেবার জন্য যথেস্ট আর আমি বিশ্বাস করি আর্সেনাল সেই গোলটি করতে পারবে।

সবচেয়ে জমজমাট খেলা হলো বর্তমান ইউরোপীয় চ্যাম্পিওন ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড আর ইন্টার মিলান। ইন্টার মিলান কাউন্টার এট্যাক নির্ভর খেলবে। ইন্টার মিলান গোলের জন্য খেলবে। প্রতিপক্ষের মাটিতে এক গোল করলে তা মুলতঃ দুই গোলের মর্যাদা পায়। তাই নিজের মাঠে ০-০ গোল ড্র করেও আর প্রতিপক্ষের মাটিতে ১-১ গোলে ড্র করে এওয়ে গোলের সুবাদে পরের রাউন্ডে চলে যাওয়া যায়। কিন্তু ইন্টার মিলান তাদের পছন্দের সেন্ট্রাল ডিফেন্স পাচ্ছে না। ইতালিয়ান মাতারাজ্জি খেলতে পারবে না। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড নিজের মাঠে খেলবে তাই জয় ছাড়া অন্যকিছু তারা ভাবছে না। কিন্তু যাতে কোন গোল খেয়ে না বসে এই দিকেও তাদের খেয়াল থাকবে।
.
সানসিরোতে নিজেদের নিরংকুশ আধিপত্য বিস্তার করতে না পারলেও ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের গোলরক্ষক ভ্যান ডার সার মনে করে তাদের আত্মবিশ্বাসের কোনো কমতি নেই। সে মনে করে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে ভালো করার মত যথেস্ট গোলাবারুদ তাদের আছে।
এই খেলার প্রিভিউ

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড হারুক।
স্বপ্ন দেখে মন…………

(ফাঁকিবাজি পোস্ট। 😛 কিন্তু মন্তব্যগুলো ভাল হবে নিশ্চয়ই।)

১,৫২৪ বার দেখা হয়েছে

৩৭ টি মন্তব্য : “চ্যাম্পিওন্স লীগ… আজকের খেলা… ১১ই মার্চ,২০০৯”

  1. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    ফার্গুসন এ পর্যন্ত মোট ১৩ বার মরিনহোর মুখোমুখি হয়েছে আর জিতেছে মাত্র একবার।

    মাতারাজ্জির পাশাপাশি ইন্টারের আরেক সেন্টার ব্যাক নিকোলাস বর্দিসু ও ইঞ্জুরড, অপ্র দিকে ম্যান ইউ এর রিও ফার্দিনান্দ ও জন ও'শে দুজনই ইঞ্জুরিমুক্ত হয়ে দলে ফিরে এসেছে।

    ব্যক্তিগতভাবে আমার মনে হচ্ছে একটা বোরিং খেলা হবে, অতিরিক্ত সময়ে যাবে( এটা না হলে খুব খুশি হব)


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
    • টানা দ্বিতীয়বারের মত ইংলিশ ৪টা টিম কোয়ার্টার ফাইনালে উঠলো......

      গতবার ও তার আগের বারেও ৩টা ইংলিশ টিম সেমিতে ছিল..... এবার দেখা যাক কি হয়.....

      Hail to English Football 🙂

      জবাব দিন
    • এহসান (৮৯-৯৫)

      বার্সেলোনা ফেবারিট কিন্তু কিছু ব্যাপার আছে। যেমন মূল ১১ জনের তিন ডিফেন্ডার নাই। সেন্ট্রাল ডিফেন্সে পুয়োল আর গ্যাবি মিলিটো নাই। লেফট ব্যাক এর প্রথম পছন্দ আবিদালও অনেকদিন মাঠের বাইরে। স্পেনিশ লীগের গত তিন ম্যাচের দুইটাতেই বার্সেলোনা হেরেছে। মেসি, ইনিয়েস্তা, জাভি, এতো আর থিয়েরী অনরি পৃথিবীর যে কোন ডিফেন্সের সাথেই গোল করতে পারবে।

      পঁচা শামুকেও পা কাটে। কিন্তু লিঁও পঁচা শামুক না খালি বেশ ধাঁরালো জিনিস। জুনিনহোর ফ্রি-কিক তো আছেই তার সাথে আছে দীর্ঘদিনের বার্সা, ইউণাইটেড টার্গেট কারিম বেনজেমা।

      আজকের খেলা শেষে বেন বেন বেন বেনজেমা... গান শুরু হয়ে গেলেও অবাক করার কিছু নাই। 😛

      জবাব দিন
      • বার্সার মেইন সমস্যা ওরা নিজেরাই, পরপর দুই ম্যাচে এস্পানিওল আর এথলেটিকোর কাছে হারার পর মোরাল ডাউন হয়ে গেছিল, গত ম্যাচ জেতার পর আশা করি আবার কনফিডেন্স পাবে ... তবে এটা ঠিক যে লীগের ফার্স্ট হাফ যাওয়ার পর বার্সাকে যেমন ইনভিন্সিবল মনে হচ্ছিল এখন ততটা হচ্ছে না ...

        বার্সার ডিফেন্স সবসময়ই একটু নড়বড়া, যত ভালো ডিফেন্ডারই নেক না কেন ... মিলিতো নাই সেটা সমস্যা না, কারণ মিলিতো প্রায় এক বছর হয় ইনজুরড, ও যে বার্সায় খেলে এটাই সবাই ভুলে গেছে ... আবিদাল ভালো, তবে ওর জায়গায় সিল্ভিনহোকে দিয়েও ঠ্যাকার কাজ চলবে [শুধু বার্সা না, সব ক্লাবেই যত ভাল রাইট ব্যাক থাকে তত ভাল লেফট ব্যাক কেন জানি থাকে না ... লাম আর ক্লিশি ছাড়া বলার মত ভালো আছে কে এখন?] ... পুয়োলের না থাকাটা একটা বিরাট ক্ষতি, বার্সার এই একটা ডিফেন্ডারই ওয়ার্ল্ড ক্লাস ... মার্কুয়েজ ভালো কিন্তু খুব ইনকনসিস্টেন্ট, প্রায়ই ভুল করে; পিকে এখনো পাকে নাই ... ক্যাসারাস পুরাই ফ্লপ খাইলো, দানি আল্ভেজ এটাকে যেইরকম ভয়ংকর ডিফেন্সে তত শার্প না ...

        বার্সার মেইন উইক লিংক ওদের গোল্কিপার, ভালদেস বেকুবটা [শুধু ক্যাটালান হওয়ার কারণে ও এত বড় একটা টিমের কিপিং করতেছে, মেজাজ খারাপ হয়] ... জুনিনহোর ফ্রী কিকে বাঘা বাঘা কীপার বীট হয় আর ভালদেস তো ভালদেসই ...

        বার্সার আসল ডিফেন্স হচ্ছে ওদের এটাকিং লাইন ... সেইটা ঠিকমত কাজ করলে লিঁওরে হারানো অসম্ভব হোয়ার কথা না ...

        বেনজেমা ভালো কিন্তু বিগ ম্যাচে এখনো পরীক্ষিত না, দেখা যাক কি করে আজকে ...

        আশা করি বার্সা জিতবে ... ইংল্যন্ডে কাপ যাওয়া ঠেকানোর মত এই একটা টিমই আছে এখন ...

        জবাব দিন
        • এহসান (৮৯-৯৫)

          লাম আর ক্লিশি ছাড়া বলার মত ভালো আছে কে এখন?] …

          কেনো ভাই এশ্লে কোল আর ওয়েইন ব্রিজ ভালো। কিন্তু আমারতো এখন লাম এর পর প্যাট্রিস এভ্রাকে বেশ ভালো মনে হয়। যদিও আমি দেখতে পারি না কিন্তু আমার ফ্যান্টাসী টিমে এভ্রা আছে।

          পিকে এখনো পাকে নাই... মানলাম এই কথাটাও। পিকে রে গত দুই বছর যাবত দেখছি আমার কাছে বেশ প্রতিশ্রুতিশীল খেলোয়াড় মনে হয়। ম্যান ইঊ যখন এইবার অরে বার্সায় যাইতে দিলো আমি বেশ অবাক হইসি। যাই হোক আমার মনে হয় মার্কুয়েজ কিংবা পুয়লের তুলোনায় পিকের রিফ্লেক্স ভালো। বয়সের একতা জোশতো আছেই।

          ইংল্যন্ডে কাপ যাওয়া ঠেকানোর মত এই একটা টিমই আছে এখন

          সহমত 🙂
          বার্সা ইতোমধ্যে জিতে গেছে। 🙂

          জবাব দিন
          • এভ্রার কথা ভুলে গেছিলাম 😛 ... কোল আর ব্রীজ মন্দ না, বাট ওরা ওদের পীকে পৌছায় গেছে, এর চেয়ে ভালো আর খেলবে না ...

            রাইট ব্যাক হিসাবে মাইকন, দানি আলভেজ, সার্জিও রামোস, বসিঙওয়া, কিংবা ম্যান ইউর নিউ সেনসেশন রাফায়েল; এদের পাশে লেফট ব্যাকের লিস্টটা দেখেন ...

            বার্সা জিতে নাই রে ভাই, লিঁও দুইটা দিয়ে ফেলছে ... যতক্ষণ ভালদেস আছে ততক্ষণ লিঁওর আশা আছে 😀

            জবাব দিন
  2. এহসান (৮৯-৯৫)

    Inter Milan: Julio Cesar, Maicon, Cordoba, Samuel, Santon, Zanetti, Cambiasso, Vieira, Stankovic, Ibrahimovic, Balotelli.

    যা ভেবেছিলাম, ইন্টার দুইজন হোল্ডিং মিডফিল্ডার নামিয়েছে। ভিয়েরা আর ক্যাম্বিয়াসো। ঠেকাইতে আইসে তারা। তরুন স্ট্রাইকার বালোটেলি প্রথম একাদশে!! ইন্টারেস্টিং। খেলা দেখি নাই। শুনেছি বেশ গতিময়... দেখা যাক।

    ইউনাইটেড প্রেডিক্টেবল টিম নামাইসে। কিন্তু স্কলস আর গিগস দুই বুইড়াই আছে। তার মানে ফার্গুসন অভিজ্ঞতারে দাম দিতেছে। হয়তো এক্সট্রা টাইমের আশংকায় তরুন ও ফ্রেশ লেগস ২য় অর্ধের জন্য রেখে দিয়েছে। ইন্টার কর্ডবার মত স্লো ডিফেন্ডার নামাইছে। তাই রুনী মনে হয় মহা খুশী।

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।