আর্সেনাল – লিভারপুল প্রিভিউ

আজকে আরেকটা বড় খেলা। বাংলাদেশ সময় রাত দশটায় কিক অফ। আর্সেনাল এর এমিরেটস (লন্ডন) স্টেডিয়ামে টেবিল টপার লিভারপুল মুখোমুখি হচ্ছে আর্সেনালর। দুই দলের জন্যই জয়টা খুব দরকার। এবারের লিগটা এতোটাই জমে উঠেছে যে কিছুই বলা যাচ্ছেনা যদিও আমরা সিজনের মাঝামাঝি চলে এসেছি। তাই এত তাড়াতাড়ি আরসেনাল কে টাইটেল রেস থেকে মুছে ফেলা যাচ্ছে না।

আর্সেনাল মৌসুমের শুরুতেই হাল সিটি আর ফুলহামের মত ছোট দলের কাছে হেরে গেছে। তাই ওরা এখন ৫ম। কিন্তু বড়দলের সাথে আর্সেনাল সবসময় জলে উঠে। ইতোমধ্যে আর্সেনাল চেলসি আর ম্যান ইউনাইটেড কে হারিয়েছে। তার উপর আছে গতবার চ্যাম্পিওন্স লিগের সেমি ফাইনালে লিভারপুল এর কাছে হেরে যাবার দুঃখ। তাই প্রতিশোধের একটা ব্যাপারও আছে। আর্সেনাল এর অনুপ্রেরনার অভাব নেই এই ম্যাচে। বাড়তি অনুপ্রেরনা হতে পারে সামির নাসরির ইঞ্জুরি থেকে ফিরে আসা। ফাব্রিগ্যাস, নাসরি, ভ্যান পারসি, এডিবায়র খুবি আকরষনীয় আক্রমনভাগ। এর সাথে আছে হোম সাপোরট। আরসেন ওয়েঙ্গার জয়ের আশা করতেই পারেন। আর্সেনাল ইংলিশ লিগের সবচেয়ে সেক্সি ফুটবল খেলে এটা সবাই কে মানতে হবে। ওদের ফ্লুইড আক্রমন ভাগ কে সহায়তা করার জন্য মিডফিল্ডে আছে ব্রাজিলিয়ান রুকি ডেনিলসন আর ফ্রেঞ্চ আবু ডিয়াবী। কিন্তু বাড়তি শক্তি আমি বলব গায়েল ক্লিশি আর সানিয়ার মত লেফট এন্ড রাইট ফুল ব্যাক। যারা রক্ষন সামলানোর চেয়ে আক্রমনে সহায়তা করতেই বেশি ভালবাসে। ইংলিশ রুকি থিও ওয়ালকট ছাড়া পু্রো শক্তির আরসেনাল আজ জয়ের জন্য ঝাপিয়ে পড়বে কোনো সন্দেহ নেই।

লিভারপুল এখন টেবিল এর শীর্ষে। কিন্ত ২য় স্থানের চেলসির সাথে পয়েন্টের ব্যাবধান মাত্র ১। কারন নিজের মাঠে ছোট দল গুলোর সাথে একের পর এক ম্যাচ ড্র করা। ছোট দল গুলো এনফিল্ডে এসে ১০ জন মিলে ডিফেন্ড করে তাই টোরেস কে ছাড়া সবসময় প্রতিপক্ষের ডিফেন্স ভাঙ্গা সোজা না। যাই হক প্রতিপক্ষের মাটিতেই লিভারপুল এই বছর ভাল খেলছে। আর্সেনাল এর মতো লিভারপুলও চেলসি আর ম্যান ইউনাইটেডকে হারিয়েছে। যদিও টোরেস আহত; লিভারপুল এর আছে খুবি শক্তিশালি মধ্যমাঠ। জেরারড, আলন্সো আর মাস্কেরানো্ যেকোনো আক্রমন কে থামাতে যথেষ্ট। এই জন্যই চেম্পিওন্স লিগে লিভারপুল এর সাথে ম্যাচ হওয়ায় রিয়াল মাদ্রিদের কোচ ওয়ান্ডে রামোস খুব হতাশ। যাই হোক আধুনিক ফুটবল শুধু সেক্সিনেস আর টেকনিক এ চলে না। ট্যাক্ট-টিক্স ও আজকাল খুব জরুরী। আর এই খানেই লিভারপুল সেরা। রাফায়েল বেনিটেজ এর মত ধুর্ত খেক শিয়াল খুব ভাল করে জানে প্রতিপক্ষের মাঠে কিভাবে জয় ছিনিয়ে আনতে হয়। আর দীর্ঘ ১৯ বছর পর লিভারপুল আবার চ্যাম্পিওনশিপের স্বপ্ন দেখছে। ডিফেন্সে এই মুহুর্তে লিভারপুল দেশ সেরা। আলন্সো আর মাস্কেরানো ডিফেন্সিভ মিডফিল্ডার হিসাবে ফেব্রিগ্যাস কে আটকে দিবে। সমস্যা হল গোল কোথা থেকে আসবে। স্ট্রাইকার থেকে রাইট উইঙ্গার বনে যাওয়া ডাচ ডিরিক কাইট কোনোমতেই প্রলিফিক গোল স্কোরার না, টোরেস নেই, টটেনহ্যাম থেকে লিভারপুল এ যোগ দেয়া রবি কীন গোল করাই ভুলে গেছে। তাই ভরসা হলো যথারীতি জেরারড। কিন্তু রিয়েরা, বাবেল কিংবা বেনায়ুন যে কেউ হয়ে উঠতে পারে হিরো। কারন টোরেস কে ছাড়াই এখন পর্যন্ত লিভারপুল পয়েন্ট টেবিল এর শীর্ষে। শীর্ষে থেকে ক্রিসমাসের ছুটি কাটাতে সবাই চাইবে।

তাই একটা জমজমাট খেলার আশা করতেই পারি।

দুই দলের ম্যানেজারের কথা জানতে হলে দেখুন এইখানে

Possible starting XIs
Arsenal:
Almunia, Sagna, Gallas, Djourou, Clichy, Nasri, Fabregas, Abu Diaby, Denilson, Van Persie, Adebayor.
Liverpool:
Reina, Arbeloa, Carragher, Agger, Aurelio, Kuyt, Alonso, Mascherano, Reira, Gerrard, Keane.

দিল বলছে ২-১ এ লিভারপুল জিতবে। আর মাথা বলছে ১-১। কিন্তু আরসেনাল জিতলে হবে অঘটন। সপ্তাহন্তটাও মাটি হয়ে যাবে।

১,৭৬৬ বার দেখা হয়েছে

২৮ টি মন্তব্য : “আর্সেনাল – লিভারপুল প্রিভিউ”

  1. এহসান (৮৯-৯৫)

    নিউজ অফ দ্যা ওয়ার্ল্ড এর লিঙ্কে গিয়ে আর্সেনাল ম্যানেজার আর্সেন ওয়েঙ্গার আর লিভারপুল এর আসিস্ট্যান্ট ম্যানেজার সামি লি এর প্রিম্যাচ প্রেস কনফারেন্স দেখা যাবে।

    জবাব দিন
  2. জিহাদ (৯৯-০৫)
    কিন্তু আরসেনাল জিতলে হবে অঘটন

    আর্সেনালের জন্য অঘটন ঘটানোটা তেমন কোন ঘটনা না। তারা হাল সিটির কাছে হেরেও অঘটন ঘটায় আবার চেলসির সাথে জিতেও।

    দেখা যাক।

    এহসান ভাইয়ের কাছ থেকে নিয়মিত প্রিভিউ চাচ্ছি।


    সাতেও নাই, পাঁচেও নাই

    জবাব দিন
  3. এহসান ভাই
    অনেক ধন্যবাদ ম্যাচ নিয়ে প্রিভিউ পোস্ট দেয়ার জন্য। :clap: আমি এমনিতে ম্যান-ইউ সাপোর্টার। তবে আজকে লিভারপুল। আজ আমি আর আপনি একই দলে। 😉

    আশা করছি আপনার কাছে নিয়মিত খেলাধুলা নিয়ে লেখা পাবো। সিসিবিতে খেলাধুলা নিয়ে পোস্ট হয় না বললেই চলে। আপনি সেই অভাব পুরন করবেন।

    বাকি সবাইকেঃ
    এহসান ভাই আর ভাবি ডাই-হার্ট লিভারপুল ফ্যান। আমি যতটুকু জানি লিভারপুল জিতলে খুশিতে সেদিন উনাদের বাসায় বাইরে থেকে ডিনার আসে :)) , আর হেরে গেলে সেদিন বাসায় রান্না বান্না বন্ধ। 🙁
    এছাড়াও এহসান ভাই বাকি সব খেলাধুলা খুব নিয়মিত দেখেন এবং খুব ভালো বোদ্বা :boss: । এমন একজনের কাছে আমরা খেলাধুলা নিয়ে আরো বেশি বেশি পোস্ট আশা করতেই পারি। কি বলেন ? 😉 😉

    জবাব দিন
  4. এহসান (৮৯-৯৫)

    "এহসান ভাই বাকি সব খেলাধুলা খুব নিয়মিত দেখেন এবং খুব ভালো বোদ্বা :boss: ।"
    এই চাপাবাজির মানে কি? খেলা দেখি কিন্তু বোদ্ধা?????? ওই টিজ করো কেন শয়তান পোলা!!

    "এমন একজনের কাছে আমরা খেলাধুলা নিয়ে আরো বেশি বেশি পোস্ট আশা করতেই পারি।"... না পারো না। টাইম নাই হে ভাই নিয়মিত লিখার। কিন্তু অনিয়মিত লিখব ইনশাল্লাহ ২০০৯ এ। New year resolution এ একটা আইটেম যোগ করলাম। 🙂

    জবাব দিন
  5. মুসতাকীম (২০০২-২০০৮)

    শাবাস এহসান ভাই :clap: :clap: :clap:
    কিন্তু বস, লিভারপুলরে আগে ভালই লাগতো। কিন্তু চেলসিরে হারানোর পর আর দেখবার পারি না। আশা করি আইজ ৩-০ তে হারবে।


    "আমি খুব ভাল করে জানি, ব্যক্তিগত জীবনে আমার অহংকার করার মত কিছু নেই। কিন্তু আমার ভাষাটা নিয়ে তো আমি অহংকার করতেই পারি।"

    জবাব দিন
  6. রায়হান আবীর (৯৯-০৫)

    আর্সেন ওয়েঙ্গারের চোখ যে একটা জিনিস তা বলার অপেক্ষা রাখেনা। ওয়ালকটকে গত বছরও দেখতে পারতাম না। এই মৌসুমের শুরুতে দেখা গেলো, সে ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো মতো খেলোয়াড় হবার যোগ্যতা রাখে- ওর ভেতর মাল আছে। কিন্তু আফসোস ইনজুরি। সেস এর অফ ফর্মে- আর্সেনাল তাই ওয়ালকটকে ভালোই মিস করবে। সেক্সি ফুটবল খেলা আর্সেনালের মূল একাদশের ডেনিলসন প্লেয়ারটা খুব একটা সুবিধার না (আগামী বছর দেখা যাবে সেও মাল টাইপ খেলোয়াড়ে পরিনত হয়েছে 😀 )। একি কথা প্রযোজ্য আবু দিয়াবির ক্ষেত্রে। ফরাসী এই খেলোয়াড়ের জায়গায় আমার পছন্দ রসিস্কি। এছাড়া প্রতিপক্ষের ডি- বক্সে ছোট ছোট পাসে তাদের ব্যতিব্যস্ত করে রাখাও এই মৌসুমে আর্সেনালের কমে গেছে হ্লেব এর অনুপস্থিতিতে।

    লিভারপুলের বিশ্বসেরা খেলোয়াড়ের অভাব নেই। আমার সবচে পছন্দ মাস্কেরানো (ইস ফ্লামিনি টা যদি আজকে থাকতো 🙁 )। সে এমন একজন খেলোয়াড় যাকে দুনিয়ার সকল ক্লাব দলে পেতে চাইবে। আছে জেরার্ড। তবে আজকে ম্যাচের ভাগ্য গড়ে দিবে রিয়েরা অথবা আনোলসো। আনোলসো কে যেভাবেই হোক আটকিয়ে রাখতে হবে- যদি আর্সেনাল জিততে চায়। রবি কিন বুড়ো হয়ে গেছে- ওরে নিয়ে বেশী আশা না করাই উত্তম।

    লিভারপুলের আরও ভালো সুবিধা হচ্ছে তাদের সমৃদ্ধ সাইড বেঞ্চ। সেখানে বেনায়ুমের মতো খেলোয়াড় আছে। আর্সেনালের সাইডবেঞ্চের কথা বলে লাভ নাই।

    সবচে বড় কথা- আজকের খেলা দেখে সুখ পাওয়ার সম্ভাবনা কম। বড় বড় দলগুলোর খেলায় সুন্দর ফুটবলের দেখা পাওয়া দুষ্কর। তবে দর্শকের সুখ দেওয়ার জন্য আমাদের প্যাথেটিক গালাস তো আছেই- সে নিশ্চিত আজকেও কোন ঘটনা ঘটিয়ে ফেলবে।

    আর্সেনাল জিতবে এই কামনা করি। তবে আমার প্রেডিকশন খেলা আজকে ড্র হবে। 0-0

    রিভিও দারুন লাগলো ভাই। এমন পোস্ট আরও আশা করি।

    জবাব দিন
    • এহসান (৮৯-৯৫)

      কি দারুন ফিনিশিং। দুইতা গোলই হইসে দারুন। প্রথমটা নাসরির ৪০ গজী পারফেক্ট পাস আর অসাধারন ১ম টাচ ও কুল ফিনিশ।

      ২য়টা অসাধারন ফিনিশ রবি কীন। কিন্তু আর্সেনাল এর বাজে ট্যাক্ট টিক্স ও দায়ী। টোরেস নাই দেখে আর্সেন ব্যাক ফোর কে অনেক উপরে খেলাচ্ছে। ভাবসে লিভারপুলের তো কুইক স্ট্রাইকার নাই। কিন্তু ভুলে গেসে আর্সেনালের ২ সেন্ট্রাল ডিফেন্ডার ও স্লো।

      কিন্তু ১ম হাফের শেষে জেরার্ড এইটা কি মিস করলো!!!!!

      এই বছর কিন্তু বড় দল গুলোর খেলাগুলা দারুন হইসে। এইটাও ভাল কিছুর প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে।

      জবাব দিন
  7. ফয়েজ (৮৭-৯৩)

    হায়রে দুনিয়া কই গেল, পাব্লিক ফুটবলেও সেক্স খুজে, যদিও শুধু পোলারাই পোলাদের সাথে খেলে, তাও খোলা মাঠে।

    নাহ, বাতিল হয়া গেলাম এহসান।

    যাক লিভারপুল গোল শোধ দিছে দেখলাম, এইবার একটু রিলাক্স কর


    পালটে দেবার স্বপ্ন আমার এখনও গেল না

    জবাব দিন
  8. রায়হান আবীর (৯৯-০৫)

    হাফ টাইম রিভিউঃ

    দুই দলের জন্যই আজকের খেলা সমান গুরুত্বপূর্ণ। আর্সেনাল যদি জিততে পারে, তাহলে লিভারপুলের সাথে তাদের পয়েন্ট ব্যবধান হবে মাত্র পাঁচ। আর যদি হেরে যায় তাহলে ১১। অপরদিকে ১৯৯০ সাল থেকে শুরু হওয়া প্রিমিয়ার লীগের শিরোপা বঞ্চিত একমাত্র বড় সারির দল লিভারপুল চাইবে চেলসির থেকে আরেকটু বেশী লীড নিয়ে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষ থাকতে।

    ভ্যান পার্সির ডান পা খুব একটা চলে না। কিন্তু ২৪ মিনিটে সামির নাসরির চিপ করা বল বুক দিয়ে রিসিভ করে ডান পায়ের মারাত্মক ফিনিসিং সত্যিই অনবদ্য ছিল।

    ভ্যান পার্সির গোলে এগিয়ে থাকলেও লিভারপুলের সাথের খেলায় নিশ্চিন্ত হওয়া যায় না। হলোও তাই। যেই রবি কিনকে একটু আগেই বাতিলের খাতায় ফেলে দিয়েছিলাম, সে শেষ বাশি দেওর য়াকয়েক মিনিট আগেই লিভারপুলকে খেলায় ফিরিয়ে আনলো ও। অসাধারণ এক গোলে। জোরু গান্ধাটারে দিয়া ডিফেন্স হবেনা। ওরে শুলে চড়ানো দরকার। x-( x-(

    দেখা যাক শেষ মেষ কি হয়।

    আপাতত ফলাফলঃ-

    আর্সেনাল ১- ১ লিভারপুল

    জবাব দিন
  9. কাইয়ূম (১৯৯২-১৯৯৮)

    খেলাটা ভালোই হইছে 😀

    যেযাই কউক, যরো ব্যাটা বস্ 😛 😀
    এহসান ভাই, বস্ নিউ ইয়ার রেজোলিউশনের প্র্যাকটিস প্যারেড কইরেন পুরা ডিসেম্বরেই এইভাবে 😀


    সংসারে প্রবল বৈরাগ্য!

    জবাব দিন
  10. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    হায় হায়, এইখানে তো দেখি লাইভ কমেন্ট্রি চলছিল, মিস করলাম, খেলা কিন্তু মিস করি নাই।
    সেই ১৯৯৮ থেকে EPL দেখছি, তখন থেকেই আর্সেনালের সাপোর্টার...in good times & bad times ,খুব বেশি কিছু হয়তো জিততে পারেনি, কিন্তু সত্যিকারের উপভোগ্য ফুটবলের জন্য আর্সেনালের বিকল্প নেই।
    তবে আর্সেনালে আমার প্রিয় ব্যক্তি হলো আর্সেন ওয়েঙ্গার, যার রাশিয়ান ( চেলসি) বা আমেরিকান (ম্যান ইউ, লিভারপুল) ট্রিলিয়নিয়ার প্রয়োজন হয়না।
    IN ARSEN WE TRUST

    ** চেলসির সমর্থকদের উদ্দেশ্যে একটি প্রশ্ন... ২০০০ সালের আগে আপনি কি এটুকু জানতেন যে চেলসি নামে একটা ক্লাব আছে বা সেখানে কারা খেলছে?


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
    • রায়হান আবীর (৯৯-০৫)

      চেলসির কথা কইয়েন না। আপনি ওদের সম্পর্কে যেই উদাহরণটা দিলেন আমিও আমার বন্ধুদের মধ্যে যারা চেলসির সাপোর্টার তাদের এই কথা কই। এরা হইলো লীগ লিডার দেইখা সাপোর্ট করে। ফাউল। 😀

      জবাব দিন
    • মুসতাকীম (২০০২-২০০৮)
      চেলসির সমর্থকদের উদ্দেশ্যে একটি প্রশ্ন… ২০০০ সালের আগে আপনি কি এটুকু জানতেন যে চেলসি নামে একটা ক্লাব আছে বা সেখানে কারা খেলছে?

      বস কি আমারে কইলেন নি 😕 😕 😕
      ভাই ২০০০ সালের আগে খেলা দেখবার বয়স এবং সুযোগ কোনোটাই হয় নাই :no: :no: :no: যখন দিয়া খেলা বুঝতে শিখছি তখন দেখছি চেলসি ভালোই খেলে। তাই চেলসির সাপোর্ট করি। এবং আজীবন করব ইনশাল্লাহ 😀 😀 😀


      "আমি খুব ভাল করে জানি, ব্যক্তিগত জীবনে আমার অহংকার করার মত কিছু নেই। কিন্তু আমার ভাষাটা নিয়ে তো আমি অহংকার করতেই পারি।"

      জবাব দিন
  11. তানভীর (৯৪-০০)

    নাহ! কমেন্ট করতে দেরী হয়ে গেল! 🙁

    আমি আর্সেনালের কঠিন ভক্ত, বিশেষ করে বলতে গেলে আর্সেন ওয়েঙ্গার। ওই ব্যাটার পুরা জহুরীর চোখ! প্রতিভা খুঁজে নেয়া আর তাদেরকে বিশ্বমানের ফুটবলার হিসেবে গড়ে তোলার ব্যাপারে ওয়েঙ্গারের জুড়ি নেই। মনমাতানো ফুটবল খেলা এই ক্লাবটা শিরোপা জিতুক আর না জিতুক, আমি ওদের সাথেই আছি যখন থেকে ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগ দেখি।

    এহসান ভাই, অনেক অনেক ধন্যবাদ এই চমৎকার পোস্টটির জন্য। :salute:
    কামরুল ঠিকই বলেছে, আপনি আসলেই একজন বোদ্ধা। একদম সঠিক ফলাফলটি আগেই বলে দিতে পেরেছেন। আপনাকে আবার :salute:

    জবাব দিন
  12. শার্লী (১৯৯৯-২০০৫)

    আমি ভাই ম্যান ইউর ভক্ত। তবে শৈল্পিক খেলার জন্য আর্সেনালের বিকল্প নাই এটা আমি মানি। আমার কাছে চেলসির খেলা কেমন যেনো যান্ত্রিক মনে হয়। ডেকো আসায় কিছুটা শৈল্পিকতার ছঁআপ পাওয়া যাচ্ছে অবশ্য। আমি আবার দলের থেকে খেলোয়ারদের ভক্ত বেশি। যেমন লিভারপুলের টরেস,চেলসির ল্যাম্পার্ড,আর্সেনালের পার্সি,ফ্যাব্রিগাস,বার্সার মেসি,জ্যাভি ওলনসো ইত্যাদি। আর ম্যান ইউর তো আছেই(সবাই)।

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।