আমার যতো প্রেমিকারা

আমার যতো প্রেমিকারা নষ্ট নারীর মতো
নেশায় পাওয়া ভূতের মতো ,

লালসার দৃষ্টিকে আড়াল করে প্লাষ্টিকের হাসি
চোখের কোণে চিকচিক করে ছলনাময়ী…

আরেকটি চোখ মনে পড়ে আমার
যেখানে না পাওয়ার হাহাকার-
সেটা কৈশোরের শুরুতে…

‘সেই চোখে অশ্রু ছিল এই চোখে পানি’
চোখগুলো সব ধূর্ত শেয়াল ,সাচ্চা ধোঁকাবাজি

যৌবনের প্রেমিকারা দু’চোখে প্রতারণা মেখে
শরীরটা দুলিয়ে দুলিয়ে হেটে..
চোখের আড়াল হলেই বসে অন্য কোথাও, সঙ্গোপনে।

তারপরও চোখতো,আচমকা মনের কথা কয়,
অদম্য প্রমিকের কাছে প্রেমিকারা ধরা পড়ে যায়
চোখ ভেসে যায় গোপন অভিষারের অনুশোচনায়!

প্রেমিকারা তারপর আরো বেশী সতী হতে চায়
ডুমুর ফুলের মতো সতীপনায়।

আরেকটি মেয়েকে মনে পড়ে আমার
নিশি পাওয়া কাব্যের মতো ছুটে আসত-
ছিপছিপে সাধারণের এক অসাধারণ ময়ূরী
-ফিরিয়েছিলাম হেলায়!

কাগজফুলের বাগানে বসে, প্লাষ্টিকের পরীদের সাথে
গন্ধহীন এই ফুলের বনে আর কত থাকা যায়!

বন-বাদারে পড়ে থাকা বকুল কুঁড়ি
সন্ধ্যাবেলার হাসনাহেনা, এখনো আমায় পোড়ায়!

১,১২৫ বার দেখা হয়েছে

১৫ টি মন্তব্য : “আমার যতো প্রেমিকারা”

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।