ডায়েরীর পাতা থেকে

কলেজ ছেড়েছি বহু বছর হয়ে গেল । অনেক কিছুই হারিয়ে গেছে, শুধু আমার ডাইরীটা আছে । ডাইরীতে আমার সব বন্ধু কিছু না কিছু লিখেছে । প্রবাসের সদা ব্যস্ত জীবনে যখন কিছু ভাল লাগেনা, ডাইরীর পাতা উল্টাই । আমার আত্মার ছোট ছোট অংশ গুলো ছুঁয়ে দেখি । আমি কবিতা তেমন বুঝিনা । তবে এই কবিতাটা আমার অনেকবার পড়া । কামরুল তুই কি এখনো কবিতা লিখিস??

এই কবিতার কোন নাম নেই,

আকাশ একবার
ছুঁয়ে দেখতে চেয়েছিল মাটিকে ।
মাটির মানুষগুলোকে যে
তার অদ্ভূত মনে হতো ।
আকাশকে পেয়ে মাটির কিযে হলো –
বুক চিরে বেরুলো লাভা
বিচিত্র কীট সেগুলো
কথা বলতে পারে।
আকাশ দগ্ধ হলো, বিস্মিত হলো
আর মাটি?
সে যে তার বুক থেকে
দূষিত রক্ত দিয়ে ভিজিয়ে দিল
আকাশের আবার বড় বেশি অভিমান হলো ।
ভালবাসার বিশুদ্ধ প্রহসন পৃথিবী
ছেড়ে সে ফিরে গেল চিরদিনের জন্য
আর, আজো তাই তার কান্না বৃষ্টি হয়ে ঝরে ।

Disclaimer: কবিতাটার শেষ লাইনটা দেয়া হলো না । আর কবিতাটা ওর নিজের লেখা কিনা আমি কখনো জিজ্ঞেস করিনি । থাকনা কিছু ব্যাপার অজানা ।

৮৮৯ বার দেখা হয়েছে

৬ টি মন্তব্য : “ডায়েরীর পাতা থেকে”

  1. জিহাদ (৯৯-০৫)

    কলেজ জার্নালে কামরুল ভাইয়ের লেখাগুলা বড়ই ভাল পাইতাম। উনি হুমায়ুন আহমেদ এর একটা গল্প দিসিলনা জার্নালে? আমি তো ঐটার পুরা পাংখা ফ্যান ছিলাম 😀

    আদনান ভাই, কামরুল ভাইরে ব্লগে ধইরা আনা যায়না কোনভাবে?


    সাতেও নাই, পাঁচেও নাই

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।