অনেক পুরোনো একটা প্রেমে পড়ার গল্প

ভালবাসা নিয়ে ছোট বয়সে একটা ছোটগল্প লিখেছিলাম। কালের অতলে হারাবার আগেই, তোমাদের জন্য –

বেশ কয়েকদিন ধরে ভালবাসা নিয়ে ভাবছি, কিন্তু কোন মানে খুঁজে পাচ্ছিনা । আমাদের কলেজে বৃষ্টি পড়ে। বৃষ্টি রহমান সুন্দরী এবং কিছুটা রহস্যময়ী।
ওর সাথে এতদিন মিশেও ওর মনের কোন কিনারা পাইনা, কোথায় যেন ওকে বুঝতে পারিনা।যদিও সবার সাথে ওর ব্যবহার খুব সাবলীল। সবার!!
সবার মানে আমি, নাফিস আর বাকিরা গুরুত্বহীন। আমরা দুজনেই ওর খুব কাছের বন্ধু এবং আমরা দুজনেই বৃষ্টির সাথে একা সময় কাটাবেনা। আর ওর মা এর যন্ত্রনায় ওদের বাসার আশেপাশে আমাদের জন্য No Fly Zone। মাঝে মাঝে মনে হয় বৃষ্টি আমাদের নিয়ে খেলছে। এমন তো না যে কিছু বুঝেনা। তবু কোন সারা পাই না। মনে হয় Ice Princess। আমার চেয়ে নাফিস এর প্রকাশ বেশি। সবসময় বৃষ্টির আশেপাশে থাকা চাই। আর প্রতিদিন আমাকে একবার করে বলে আজকেই একটা কিছু করে ফেলবে। নাফিস যখনি ওকে প্রেমময় কিছু বলা শুরু করে বৃষ্টি তখনি বলে আজকের নোটগুলো দাও তো টুকে রাখি। আর আমি হাঁপ ছেরে বাঁচি। কারণ মনে মনে তো আমি চাই বৃষ্টি একদিন নাফিস কে বলবে তুমি একটু যাও তো ওর সাথে আমার জরুরী কথা আছে। বৃষ্টি কখনোই একথা বলেনা আর আমিও অপেক্ষায় আছি কবে বলবে?

প্রায় রাতে বৃষ্টির বাসায় ফোন করি, বৃষ্টি ধরলে কোন কথা না বলে রিসিভারে কান ঠেকিয়ে বসে থাকি। ওদিকে বৃষ্টি বলে যাচ্ছে – হ্যালো কাকে চান?
কথা বলুন। আমার কিছুই বলা হয় না। আর পরদিন বৃষ্টির প্রশ্ন ফোন করেছিলে কেন? মুখে একটা হাসি ঝুলিয়ে মনে মনে বলি সব বুঝেও কেন প্রশ্ন করছ?
বৃষ্টির আগেও অন্য অনেক মেয়ের সাথে বন্ধুত্ব হয়েছে। এইতো পাশের বাসার মীরা আমেরিকায় চলে না গেলে হয়তো ওর হাত ধরে বলেই বসতাম ভালবাসি।
আর মৌ এর সাথে কথা না বললে তো রাতে ঘুমাতে পারতাম না। কিন্তু ওকে যেদিন বইমেলায় আরিফ ভাই এর হাত ধরে ঘুরতে দেখলাম তখনি মুভিতে দেখা কথাটার Just friends এর মানে বুঝলাম।

কিন্তু বৃষ্টির চোখে আমি আকাশের ছায়া দেখি, হাসিতে রোদের ঝিলিক দেখতে পাই। ওর কাছে আসার অনুভূতিটাই অন্যরকম। তাইতো অল্প যে বন্ধুত্ব আছে সেটা ধরে রাখার জন্য মুখ ফুটে ভালবাসার কথা বলতে পারিনা। এসব ভাবতে ভাবতে কখন যে বৃষ্টির ছবি নিয়ে টেলিফোনের সামনে এসে পরেছি টের পাইনি। অম্নি ফোনবেজে উঠলো। কে হতে পারে?
– হ্যালো। কাকে চান?
– আমি বৃষ্টি। তোমার সাথে একটা জরুরী কথা ছিল।
– বল শুনছি।
বৃষ্টি কাঁদছে। বাইরেও ভীষণ বৃষ্টি হচ্ছে।

৬,০০৮ বার দেখা হয়েছে

৫৩ টি মন্তব্য : “অনেক পুরোনো একটা প্রেমে পড়ার গল্প”

  1. আদনান (১৯৯৪-২০০০)

    ছোট গল্প তো, মাঝখানের painful lengthy process বাদ পরেছে । আর এটা লিখেছি ৯৯ এ, তখনতো মোবাইল, চ্যাট কিছুই ছিলনা, তাই একটু vintage flavor আছে। এখন যদি আবার কোন গল্প লিখি তাহলে অন্যরকম ভাবে লিখব। দেখা জাক ইচ্ছা আছে। brother কোন college/batch আমি MCC 32nd (94--00)। ভাল লেগেছে পরে ভাল লাগলো।

    জবাব দিন
    • জিহাদ বলেছেন,

      জুন ২২, ২০০৮ @ ১:২৩ পূর্বাহ্ন · সম্পাদনা

      হুম… ৯৯ এ লেখা। তার মানে নতুন টুয়েলভ এ ঊঠসেন তখন।

      তখনই আবার নতুন নতুন বর্ষা, বৃষ্টির আনাগোনা… বেশ…

      গল্পটা মিষ্টি।
      *******************************

      আইক...ওই তোর সব কথায় খালি বর্ষা বর্ষা করস ক্যান?
      কাহিনী কি মামা?

      কিছু একটা পাইলেই যেমনে পারুক বর্ষা লইয়া আইবো।
      আইক...

      আর মিষ্টি তো লাগবোই.... বর্ষার নাম লইলেই তো তোর মুখে মধু আইয়া পড়ে.. আইক...
      মুবাইলে চান্দ দেখস দুইজনে... আইক..

      জবাব দিন
  2. আদনান (১৯৯৪-২০০০)

    নারে ব্যাটা ইলেভেন এ উঠসি। এবার aus background নিয়ে একটা লিখব। এই জিহাদ after lunch দেখা করবা with খাতা কলম আমি dictation দিবো তুমি লিখবা।lolzz..thanx for the comments..polapan নিজেদের experience দিয়ে গল্প বানিয়ে লিখে ফেল।

    জবাব দিন
  3. আদনান (১৯৯৪-২০০০)

    রাখো ভাই মনে করার কিছু নাই। জিহাদ এর জন্য সব নায়িকা Borsha..বাংলায় লিখতে পারছিনা ধুর! আর আমার experience সুবিধার না। গল্প তো happily ever after হয়েছে।lolzz..আর ছ্যাঁকা কাহিনী তো ভাল চলে।

    জবাব দিন
  4. আদনান (১৯৯৪-২০০০)

    আরে লজ্জা পাস কেন? তুই চাঁদ তারা দেখাস দেখে হংস ছানা তোকে হিংসা করে। আর আমি তো SH এ। তুই FH এর না? ভুল হইলে sorry আর তোর ভুল হইলে ১০ টা front roll..আর তোর sugestion এ অন্য নাম থাকলে বল বিবেচনা করব।next একজন লিখে ফেল তাড়াতাড়ি। হংস তুমি তোমার হংসীর গল্পটা আমাদের শোনাও।

    জবাব দিন
    • জিহাদ (৯৯-০৫)

      স্যরি ভাই। মিসটেক হয়া গেসে। আসলে আপনের নাম দেখলেই অস্ট্রেলিয়া নামটা মাথায় আসে। আর অস্ট্রেলিয়ার কথা ভাবলেই "জাহিদ রেজা" নামটা মাথার মধ্যে ঘুরপাক খায় । তালে গোলে বইলা ফালাইসি। 🙁


      সাতেও নাই, পাঁচেও নাই

      জবাব দিন
  5. সাইফ (৯৪-০০)

    কিরে দাদা,পার্থ এর গান মনে আছে.........।বৃষ্টি দেখে অনেক কেদেছি............তোমাকে আজ কাদাবো বলে............।তোকেই কাদিয়ে দিল ............ভাল হইছে ,ভাল লাগলো.........।।বেশি করে লিখতে থাক...............সাইফ............কুমিল্লা...............৯৪............২০০০

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।