মুক্তিযুদ্ধ আমার অজ্ঞানতা

অনেকদিন ধরে লেখা পরেই যাচ্ছি, কিছু লেখা আর হচ্ছেনা । আলসেমি কাজের চাপ বলতে গেলে কেন যেন হয়ে উঠছিলনা । আজকে মাস্ফুর পোস্টটা পরে কিছু লিখতে ইচ্ছ করছে । মুক্তিযুদ্ধের পর থেকেই মুক্তিযুদ্ধ , বংগবন্ধু , জিয়া ,আওয়ামী লীগ, বি এন পি, রাজাকার, এরশাদ সবকিছু নিয়ে কম বানিজ্য হ্য়নি । মুক্তিযুদ্ধের অনেক পরের প্রজন্ম হিসেবে মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে আমার এবং আরো অনেকেরই সম্যক ধারনা নেই । ব্যক্তিগতভাবে আমি যেকজন মুক্তিযোদ্ধাকে চিনি তারা কেন যেন কিছু শেয়ার করেন না । আর কোন আড্ডাতে মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে কথা হলেই শুরু হয় আজাইরা গলাবাজি, মুজিব বড় না জিয়া বড় । ক্লান্ত হয়ে এরপর খাওয়া দাওয়া তারপর ঘুম। এরপর আছে সিজনাল দেশপ্রেমী উনাদের ফেব্রুয়ারী, মার্চ, আর ডিসেম্বরে বেশ সরব দেখা যায় । মনে পরে রাজাকার শব্দটা প্রথম শুনেছিলাম বহুব্রিহী নাটকে । এরপর হালকা পাতলা জাফর ইকবাল, হুমায়ূন আহমেদ , কিছু স্মৃতিচারণ আমার মুক্তিযুদ্ধের রেফারেন্স । গাফফার চৌধুরীর কলাম পরে পরে একসময় আড্ডা গরম করতাম আর ভাবতাম আহা আমি কি হনু রে। এরপর উনার নির্লজ্জ আওয়ামী প্রীতি দেখে ভক্তি উঠে গিয়েছে।

আমার এই পোস্টটা নিতান্তই এলেবেলে ধরনের মনে হচ্ছে । আসলে আমি অনেক কনফিউজড । রাজনীতিবিদদের ডিগবাজী পাল্টা ডিগবাজী দেখে দেখে মনটা বিষিয়ে গেছে । ভেবেছিলাম ওয়ান ইলেভেন এর পর একটা পরিবর্তন হবে । কিসের কি যেই লাউ সেই কদু । যখন কোন অযি বাংলাদেশীদের আড্ডায় শুনি বাংলাদেশের কিচ্ছু হবেনা তখন সেই সব আঁতেলদের পাছায় গদাম লাথি মারতে ইচ্ছা করে । কিছুই করা হয়না । মাঝে মাঝে আবোল তাবোল ভাবা ছারা।

আমি অপেক্ষায় আছি সত্যকে অনুসরন করার জন্য।

২,৪৬৫ বার দেখা হয়েছে

২৫ টি মন্তব্য : “মুক্তিযুদ্ধ আমার অজ্ঞানতা”

  1. ফয়েজ (৮৭-৯৩)

    মাস্ফুর পোষ্টে বলেছি একবার, আবার বলি,

    নেতা ঠিক না হলে নেতাকে সরে যেতে হবে। আমরা নেতৃত্ব দেব, আমরা এই দেশকে গড়বই, শকুন তাড়াবোই।


    পালটে দেবার স্বপ্ন আমার এখনও গেল না

    জবাব দিন
  2. মুহাম্মদ (৯৯-০৫)

    একসময় মুক্তিযুদ্ধকে অনেক দূরের কিছু মনে হতো। ইতিহাস পড়ে সম্যক পরিস্থিতিটা আসলে বোঝা যায় না। আর ভালো উপন্যাস তো খুব বেশী লেখাই হয়নি। কিন্তু "গেরিলা থেকে সম্মুখ যুদ্ধ" পরার পর মুক্তিযুদ্ধকে খুব আপন আপন মনে হয়। মনে হয় আমিই যেন সে সময় যুদ্ধের ময়দানে ছিলাম।

    বাংলাদেশের মতো এমন অবস্থা বোধহয় আর কোন দেশের নেই। এই দেশে থেকে নিজেদের জন্মের ইতিহাস জানতেও কষ্ট করতে হয়। ওয়ান ইলেভেনের পর আমিও ভেবেছিলাম বিছু পরিবর্তন আসবে। কিন্তু এই সরকার যে মূলত সামরিক সরকার সে বোঝার পরই সব আশা জলে ভেসে গেল। যেই লাউ সেই কদু। ঘুরে ফিরে আবার এলো সামরিক শাসন। সামরিক বাহিনীর ম্যানেজমেন্ট যতই জোড়ালো হোক না কেন, দেশ শাসনে যে এই বাহিনী কোন ভূমিকাই রাখতে পারে না সে বিষয়ে কোন সন্দেহ নেই।
    তাই খুব আগ্রহভরে আবার গণতন্ত্রে ফিরে যাওয়ার আশায় আছি। চেয়ে আছি এই নির্বাচনের দিকে।
    তবে রাজনীতিবিদদের দিয়ে যে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বিকাশ হবে না তা বুঝে গেছি। যা করার তা দেশের প্রকৃত শিক্ষিত সমাজের মানুষেদেরই করতে হবে। আপনার মতো আমিও সেই সত্যকে অনুসরণের অপেক্ষায় আছি।

    জবাব দিন
    • ফয়েজ (৮৭-৯৩)

      বিচক্ষনতা আর শৃংখলা এক নয়। সামরিক বাহিনী সুশৃংখল, ঠিক আছে, কিন্তু আমাদের দরকার বিচক্ষন লোকের। বড় অভাব এটার।

      আমাদের সবচেয়ে বড় ক্ষতি হয়েছে ১৪ই ডিসেম্বরে। সমস্ত বিচক্ষন লোকগুলোকে বেছে বেছে মেরে ফেলা হয়েছে। পুরো এক প্রজন্ম পংগু হয়ে গেছে। এটা থেকে এখনও আমরা বেরুতে পারিনি।

      তবে পারব, না পারার কোন কারন নেই।


      পালটে দেবার স্বপ্ন আমার এখনও গেল না

      জবাব দিন
  3. তাইফুর (৯২-৯৮)

    আদনান,
    এরকম এলেবেলে ভাবতে ভাবতে'ই একদিন 'দিন বদলের' জন্য কিছু একটা করার সুজোগ চলে আসবে। সেই প্রত্যাশায় ...


    পথ ভাবে 'আমি দেব', রথ ভাবে 'আমি',
    মূর্তি ভাবে 'আমি দেব', হাসে অন্তর্যামী॥

    জবাব দিন
  4. জিহাদ (৯৯-০৫)

    সবাইরে আমি এই উপদেশটা দিয়ে বেড়াই। সম্ভব হলে সবাই অবশ্যই যেন গেরিলা থেকে সম্মুখ যুদ্ধে বইটা পড়ে দেখে। বইটা শেষ করে আমার মনে হয়েছিল মাত্র যেন নয় মাসের যুদ্ধ শেষ করে বইটা ছেড়ে উঠলাম।


    সাতেও নাই, পাঁচেও নাই

    জবাব দিন
  5. সাকেব (মকক) (৯৩-৯৯)

    ;))

    যখন কোন অযি বাংলাদেশীদের আড্ডায় শুনি বাংলাদেশের কিচ্ছু হবেনা তখন সেই সব আঁতেলদের পাছায় গদাম লাথি মারতে ইচ্ছা করে

    সাবাশ!দ্যাটস দা স্পিরিট... :salute: লেখাটা ভালো হইসে... ;))

    অফটপিকঃ তোমার ক্যাডেট নাম 'আদনান' হইলো কবে থিকা?


    "আমার মাঝে এক মানবীর ধবল বসবাস
    আমার সাথেই সেই মানবীর তুমুল সহবাস"

    জবাব দিন
  6. মুসতাকীম (২০০২-২০০৮)
    কনফিউশনের কিছু নেই। আমার দেশ, আমিই গড়ব। বাকি সব ফাকিবাজি।

    আদনান ভাই :clap: :clap: :clap:


    "আমি খুব ভাল করে জানি, ব্যক্তিগত জীবনে আমার অহংকার করার মত কিছু নেই। কিন্তু আমার ভাষাটা নিয়ে তো আমি অহংকার করতেই পারি।"

    জবাব দিন
  7. আদনান (১৯৯৪-২০০০)

    এই লেখাটার উদ্দেশ্য ছিল আমরা যারা মুক্তিযুদ্ধ প্রত্যক্ষ করিনি তাদের জন্য একটা রেফারেন্স পয়েন্ট তৈরি করা । জিহাদ, মুহাম্মদকে ধন্যবাদ রেফারেন্সের জন্য । আর বাকিদের :salute:

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।