বউকে আমি একটুও ভয় পাই না : ছবিব্লগ

দরবার বসেছে রাজার। সেখানে উজির-নাজির, পাইক-পেয়াদা থেকে শুরু করে রাজ্যের মানুষ হাজির। খুবই দুশ্চিন্তায় আছেন রাজা। রাজ্যে বউকে ভয় পায় না এমন মানুষ পাওয়া যাচ্ছে না! এইটা একটা কথা হইলো? রাজা বলে, আমি ভয় পাই, উজির ভয় পায়, এমনকি তাবৎ দুনিয়ার মানুষ যারে ডরায় আমার যুদ্ধবাজ সেনাপতি- সেও নাকি বউরে ভয় পায়!! কথা হইলো এইডা? রাজার পন বউকে ভয় পায় না এমন একজন প্রজা খুঁজে পেতেই হবে।

দরবারে বসে রাজা হাক দিলেন, “এই যারা বউরে ভয় পাও তারা আমার হাতের ডান দিকে আর যারা ভয় পাও না তারা বাম দিকে যাও।” সঙ্গে সঙ্গে প্রজাদের মধ্যে হুটোপুটি লেগে গেল। কয়েক মিনিট পর দেখা গেল বাম দিকে খালি আমি একলা খাড়াইয়া আছি! রাজা আমারে জিগায়, “যাউক একটা তো পাওয়া গেল! কি মিয়া তোমার দেখি ভীষণ সাহস! বউরে ডরাও না? ঘটনা কি কও তো। আমাদেরও জ্ঞান দাও কেমনে বউয়ের হাত থেইক্কা বাঁচন যায়!” আমি হাত কচলাইতে কচলাইতে কইলাম, “রাজা মশাই আমার বউ কইছে সবাই যেদিকে যায় সেদিকে যেন আমি না যাই। হের লাইগ্যাই তো আমি বাম দিকে খাড়াইয়া আছি।”

এই তো, সিসিবির পোলাপাইন সব চিক্কুর দেওয়া শুরু করছে!! আমারে ধুর ধুর কইতাছে! এইডা একটা জুক্স হইলো? পঁচা-পুরান-ধুরান জিনিশ দিয়া, লগে কাতুকুতু দিয়াও তো হাসাইতে পারবেন না! কথাটা ঠিক। আমি তোমাদের হাসানোর কোনো অপচেষ্টা করতাছি না! সেই দুঃসাহস আমার নাই।

আমি বউরে ভয় পাওয়ার গল্প কইতে চাইতাছি। আমাদের শওকত হোসেন মাসুম বউরে ভয় পায় না, বর্তমানে চট্টগ্রামবাসী ফয়েজও পায় না, এমনকি কানাডা প্রবাসী মইন তো নয়ই!! আমিও পাই না!! ;;;

খালি কথায় কথায় তোমাদের ভাবী হুমকি দেয়। আর নারী জাতির হুমকিকে কে না ভয় পায়! ওর অভিযোগ আমি তাকে সময় দিই না। বলে, আমি নিজের বন্ধুদের জন্য যেভাবে পারি ঠিকই সময় বের করে নিই। কিন্তু শ্বশুর বাড়ি বা ওর বন্ধুদের জন্য সময় চাইলে কাজের অজুহাত দেখাই। অভিযোগ‍ অসত্য নয়। বউয়ের এবারের হুমকিটা পেয়েছিলাম সপ্তাহখানেক আগে। এড়ানোর উপায় ছিল না।

তাই কাজ-টাজ সব ছুড়ে ফেলে গতকাল শনিবার সকালে একটা দল বেরিয়ে গেলাম ঢাকা ছেড়ে। এই বেড়ানোর উদ্যোক্তা নারী জাতি। আমরা পুরুষরা তাদের দেহরক্ষী, এসএসএফ আর কি! দুইজন ব্যবসায়ী, বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন অধ্যাপক, একজন বেসরকারি চাকুরে আর এক সাংবাদিক- ঢাকা থেকে ৫ সদস্যের এসএসএফ বাহিনী দলটির নিরাপত্তা দেয়। পরে কুমিল্লা থেকে কলেজ পড়ুয়া ছেলেসহ এক সামরিক কর্মকর্তা নিরাপত্তা দলে অংশ নিয়েছে। দলে নারী ছিল ৭ জন, পুরুষ ৬ জন, শিশু-সন্তান ৬ জন।

গেলাম মেঘনাঘাট। ওখানে কটেজ ভাড়া নেওয়া হয়েছে। পৌঁছুতে পৌঁছুতে দুপুর একটা বেজে গেছে। পিকনিক পিকনিক ভাব। আড্ডা গল্প চাপাবাজি চললো। তারপর খাওয়া দাওয়া। ইলিশ পোলাও, খাসির রেজালা, টক দই, মিস্টি দই, রসমালাই ইত্যাদি ইত্যাদি। ইচ্ছে করেই খাবারের ছবি দিলাম না। তোমাদের মেজাজ খারাপ করতে চাই না।

খাওন-দাওনের পর আবার আড্ডা। আমি এই ফাঁকে চামে একটা নাকডাকা ঘুম সেরে নিলাম। বিকেলে বেরুলাম মেঘনায় নৌ-বিহারে। ঢাকায় ফিরতে ফিরতে রাত।

না, কথা বেশি হইয়া গেল। এইবার ছবি দেখো আর মাথার চুল ছিড়ো ~x( ~x( ~x(

কালা কুর্তা বাহিনী থেকে সাবধান
মেঘনা ভিলেজে ঢুকতেই দেখলাম কামরুল, রবিনের জন্য সতর্কবার্তা!! এইখানেও তাইফুর? B-)

মেঘনা ভিলেজের ভেতরে ২
মাস্ফ্যু চাইলে :just: ফ্রেন্ডরে নিয়া এই ছাতা কাজে লাগাইতে পারো…..

মাঝের মানুষটা ককক'র অধ্যক্ষ উইং কমান্ডার আমিরুল আহসান
মাঝখানে উইং কমান্ডার আমিরুল আহসান, আমাদের এসএসএফ চিফ। কুমিল্লার পোলাপাইন কলেজে গেলে আমার কাছ থেকে অনুমতি লইয়া যাইও…… :-B

আকাশের ভয় দেখানো চেহারা
নৌ ভ্রমণে আমাদের ভয় দেখাচ্ছিল (আহসান) আকাশ…. :chup:

নদীর কূল নাই....
নদী আর নারীর মধ্যে মিল কি? দুইটাতেই ডুব দিতে ইচ্ছা হয়! :guitar:

নৌ যাত্রী বন্ধুরা, সাদা ওড়নায় তোমাদের ভাবী
এই বাহিনীর নিরাপত্তা দিতেই এতো সব! মাঝখানে সাদা ওড়নায় ওই নারীরে আমি মোটেও ভয় পাই না!! :shy:

৬,১৯৬ বার দেখা হয়েছে

২১৪ টি মন্তব্য : “বউকে আমি একটুও ভয় পাই না : ছবিব্লগ”

  1. ইউসুফ (১৯৮৩-৮৯)

    আমিও সুন্দরবন যাওয়ার পথে, সেনানিবাস থেকে যোগ দিয়ে বসের দলের এস এস এফ চীফ হপো! আর ইলিশ পোলাও, খাসির রেজালা, টক দই, মিস্টি দই, রসমালাই ইত্যাদি ইত্যাদি খাপো! মাস্ফ্যু আমার সাথে থাকবে - মুখে ডাকটেপ মারা অবস্থায়....

    জবাব দিন
  2. কামরুল হাসান (৯৪-০০)
    নৌ ভ্রমণে আমাদের ভয় দেখাচ্ছিল (আহসান) আকাশ….

    :khekz:

    লাবলু ভাইয়ের বিরুদ্ধে মানহানি মামলা করুম আমি আর রবিন। দশ কোটি টাকা ক্ষতিপূরন নিমু, তারপর সেই টাকা দিয়া ভদকা লাইম খামু। :grr:

    কি কস রবিন! ;;;


    ---------------------------------------------------------------------------
    বালক জানে না তো কতোটা হেঁটে এলে
    ফেরার পথ নেই, থাকে না কোনো কালে।।

    জবাব দিন
  3. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    হায় হায়, আমি আবার কোত্থেকে ভয় দেখাইলাম? খালি একটু ছায়া দেয়ার ব্যবস্থা করছিলাম আর কি... ( সানা ভাইয়ের পোস্টে আমার নাম 😀 :awesome: :awesome: )


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
  4. রেশাদ (৮৯-৯৫)

    "মাস্ফ্যু চাইলে :just: ফ্রেন্ডরে নিয়া এই ছাতা কাজে লাগাইতে পারো….."
    - পারেনা বস... পারেনা, পোলাপান এত উঁচা ছাতা চায়না, তাঁবু টাইপ হইলেও কথা ছিলো...

    "নদী আর নারীর মধ্যে মিল কি? দুইটাতেই ডুব দিতে ইচ্ছা হয়!"
    - কথা সত্য, আরো সত্যি কথা হইলো... দুইটাতেই বেশিক্ষণ ডুব দিয়া থাকন যায়না 🙁

    "সানা ভাই চান্স পাইলেই আমারে নিয়া অশ্লীল ইঙ্গিত দ্যান"
    - সত্য বড়ই অশ্লীল...

    জবাব দিন
  5. রবিন (৯৪-০০/ককক)
    মেঘনা ভিলেজে ঢুকতেই দেখলাম কামরুল, রবিনের জন্য সতর্কবার্তা!! এইখানেও তাইফুর?

    কামস, ক্ষতিপূরনের টাকাটা আরেকটু বেশি কইরা দে। তাইলে দেশের বাইরে গিয়া খামু নে।

    সানা ভাই, দেখি আমাদের মতো ভাবিরে ভয় পান না। আমাদের দলে আসলেন তাইলে। এই দলের নেতা কিন্তু কাইয়ূম ভাই। 😉

    জবাব দিন
  6. মুসতাকীম (২০০২-২০০৮)

    বউরে একটুও ভয় না পাইতে মঞ্চায় 😡 😡 😡


    "আমি খুব ভাল করে জানি, ব্যক্তিগত জীবনে আমার অহংকার করার মত কিছু নেই। কিন্তু আমার ভাষাটা নিয়ে তো আমি অহংকার করতেই পারি।"

    জবাব দিন
  7. সানাউল্লাহ (৭৪ - ৮০)
    মাঝখানে উইং কমান্ডার আমিরুল আহসান, আমাদের এসএসএফ চিফ। কুমিল্লার পোলাপাইন কলেজে গেলে আমার কাছ থেকে অনুমতি লইয়া যাইও…… :-B

    রবিন, বন্য, রাশেদের বোধহয় ক্যাপশনটা নজরে পড়ে নাই?? :grr: ককক-এ বলে এইমাসে কি একটা আছে? বন্ধ কইরা দিমু!! ;;; ;;; ;;;


    "মানুষে বিশ্বাস হারানো পাপ"

    জবাব দিন
  8. টিটো রহমান (৯৪-০০)

    সকল বউযের ভ্যাঞ্চাই............(বউ দেখনের আগে ভাগি)
    বস লেখা পইড়া নচিকেতার গানটা মনে পড়ল

    আমার বউ বলেছে মরতে আমায় জীবন রাখতে পারব না
    .......ও আমার সোনামনির পেলতে কথা পারব না......রেললাইনে বডি দেব মাথা দেব না :no: :no: :no: :no: :no: :no:


    আপনারে আমি খুঁজিয়া বেড়াই

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।