এই লেখার কোন শিরোনাম নাই

খারাপ ছাত্র হওয়ার কিছু বৈশিষ্ট্য থাকে। আমার মধ্যে তার সবটা বিদ্যমান। উদাহরণস্বরূপ, কলেজে আমি মানবিক বিভাগের একজন গর্বিত ছাত্র ছিলাম, বিজ্ঞানের ছাত্রদের যন্ত্রণা দেয়া ছিল আমার সবচাইতে প্রিয় কাজ। তাই কলেজ হতে বের হয়ে আমি খুবই চিন্তায় পরে গিয়েছিলাম যে আমার মত ছাত্র কীভাবে কোথাও চান্স পাবে তা নিয়ে। আইএসএসবিতে লাল কার্ড পাবার পর আমি নিশ্চিত ছিলাম যে এই জীবনে মনে পড়াশুনা করা আর হল না। কারণ কোনদিন প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ব এইরকম চিন্তা করি নি। কিন্তু পরবর্তিতে আমার বন্ধুরা যখন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় চান্স পেল তখন বুঝলাম যে চান্স হয়তো পাওয়া যেত কিন্তু স্নাতক শেষ করা হতো না। শেষ পর্যন্ত যেই অদ্ভুত একটা স্থানে আইন বিষয়ে স্নাতক শুরু করলাম তাকে আর যাই বলা যাক বিশ্ববিদ্যালয় বলা যাবে না। ভূঁইয়া একাডেমিকে বড়জোর একটি খুবই ভালো কোচিং সেন্টার বলা যেতে পারে, কিন্তু এর বেশি কিছুই না।

যাই হোক খারাপ ছাত্র হওয়ার আর একটি বৈশিষ্ট্য হল এমন কোন স্থানে পড়া যার নাম বললে বেশিরভাগ মানুষই চিনতে পারবে না। কি যে বলার জন্য এই পোস্ট লিখতে বসেছিলাম তাই মনে করতে পারছি না। খারাপ ছাত্রদের আর একটা বৈশিষ্ট্য হল তাদের অনেক কিছুই মনে থাকে না। কি আর করা। একটা কবিতা?!?!?!?!?!? দিয়ে শেষ করছি। একদিন ক্লাসে(ভূঁইয়াতে) বসে আছি এবং যথারীতি বিরক্ত লাগছে। আমি খাতা খুলে পেনসিল দিয়ে আঁকিবুকি করছিলাম। এমন সময় আমার এক বন্ধু বলল যে আয় কবিতা লিখি,আর আমি তো ঝোঁকের বশে রাজী হয়ে একটা ক্ষুদ্র কবিতা লিখে ফেললাম।

আজ মেঘহীন পৌষের বিকালে সুনীল আকাশ,
তার মাঝে হাঁটতে ইচ্ছা করে, কিন্তু মানুষ
তার ইচ্ছেমত চলতে পারে না। তাই এই সময়
খোলা আকাশের নীচে না হেঁটে একজন বিরক্তিকর
শিক্ষকের লেকচার শুনছি ক্লাসের ভেতর বসে।
সত্যি কি শুনছি? নাকি মনের ভেতরের মানুষটা
আকাশের নিচে হেঁটে বেড়াচ্ছে আর এই শহরের
কালো ধোঁয়া ছাড়া বাস ও দামী গাড়ি দেখছে।
হয়তো এক সুন্দরীর হাত ধরে চলতে থাকা অপর
পুরুষের দিকে ঈর্ষান্বিত হয়ে তাকিয়ে আছে।
ইচ্ছে করে মনের মানুষকে নিয়ে ঘুরে বেড়াই
রিকশা চড়ে ঢাকার রাস্তায় বৃষ্টিতে ভিজি।
অথবা হয়তো মন পড়ে আছে ঘরে
প্রিয় মানুষেরে চিন্তা করে। কিংবা ক্লাসে
বন্ধুদের ভিড়ে আবার ফিরে যেতে ইচ্ছা করে,
তাই ফিরে যাই,কারণ ফিরে যেতে হয় সবসময়।

১,৭৭৩ বার দেখা হয়েছে

১৯ টি মন্তব্য : “এই লেখার কোন শিরোনাম নাই”

  1. রায়হান আবীর (৯৯-০৫)

    ব্যাপার হইলো গিয়া- আমার এই ধরণের লেখা পড়তে বিরাট ভালো লাগে। মানে নিজের জীবনে কি ঘটছে- সেইটা সহজ করে বলা। সবার সাথে শেয়ার করা। আরও লিখিস।

    জবাব দিন
  2. কাইল্কা কমেন্ট ক্লোজ্রাক্সিলি ক্যান? :chup: :chup: :chup: পুরাই াউয়া...

    নাকি মনের ভেতরের মানুষটা
    আকাশের নিচে হেটে বেড়াচ্ছে আর এই শহরের
    কালো ধোঁয়া ছাড়া বাস ও দামী গাড়ি দেখছে।

    ঝোটিল্লাগ্চে।

    জবাব দিন
  3. জাহিদ (১৯৯৯-২০০৫)
    ইচ্ছে করে মনের মানুষকে নিয়ে ঘুরে বেরাই
    রিক্সায় চড়ে ঢাকার রাস্তায় বৃষ্টিতে ভিজি।

    পুরাই :gulli2: :gulli2:
    কিন্তু ব্যাপারটা ঠিক বুজলাম না 😮 😮 😮 😮 ।
    সে কে?

    জবাব দিন
  4. জাবীর রিজভী (৯৯-০৫)
    ব্যাপার হইলো গিয়া- আমার এই ধরণের লেখা পড়তে বিরাট ভালো লাগে। মানে নিজের জীবনে কি ঘটছে- সেইটা সহজ করে বলা। সবার সাথে শেয়ার করা। আরও লিখিস।

    বালা অইছে,দুস্ত।আরো লিখিস :clap: :clap:

    জবাব দিন
  5. জুনায়েদ কবীর (৯৫-০১)
    আইএসএসবিতে লাল কার্ড পাবার পর...

    আমি লাল কার্ডও পাই নাই... :((
    স্ক্রিন্‌ড আউট হইছিলাম... 🙁
    আইকিউ'র প্রশ্ন এত কঠিন ছিল... :bash: :thumbdown:


    ঐ দেখা যায় তালগাছ, তালগাছটি কিন্তু আমার...হুঁ

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।