আমাদের মোল্লা স্যার

একটা কথা ছিলো না……সেই ১৯৫৩ সাল থেকে…..তেমনি, সেই কোন সাল থেকে মোল্লা স্যার আমাদের ক্যাডেট কলেজ প্রাঙ্গনকে উনার পদভারে কম্পিত করেছিলেন, তা আমার এই মুহুর্তে মনে পড়ছে না। তবে আমার মতো আন্ডাবাচ্চা থেকে শুরু করে আন্ডাবাচ্চার বাপ হওয়া পর্যন্ত সব এক্স ক্যাডটরা যে মোল্লা স্যারকে চেনেন, এ ব্যাপারে আমার বিন্দুমাত্র সন্দেহ নেই। তিনি আমাদের নুরুজ্জামান মোল্লা স্যার, গণিতের শিক্ষক।
মোল্লা স্যারের যে জিনিসটা সবচেয়ে ইউনিক, সেটা হলো ওনার থাপ্পর। থাপ্পর না বলে খাবা বলাই ভালো। মোল্লা স্যারের ক্যাডেট ছিলেন অখচ ওই থাপ্পরের স্বাদ একবারও খেতে হয়নি এমন পুন্যবান ক্যাডেট যদি কেউ থেকে থাকেন, আওয়াজ দিয়েন, আমি উনার পায়ের ধূলা নিবো। থাপ্পর মারার আগে পূর্বাভাস পাওয়া যেতো কিন্তু ইনকামিং থাপ্পরটাকে কখনোই দৃষ্টি দিয়ে অনুসরণ করা যেতো না। এই অত্যাধুনিক যুগের মিসাইল ভুল যায়গায় আঘাত করতে পারে কিন্তু মোল্লা স্যারের থাপ্পর কখনো মিস হয়েছে, এরকম রেকর্ড শুনিনি। সারা মুখ হাত দিয়ে ডিফেন্ড করার পরেও মিস হতোনা। এবং সবাই, যারা একবারের জন্যও এ স্বাদ পেয়েছেন, সবাই এ কথা একবাক্যে স্বীকার যাবেন যে, থাপ্পর খাবার পরে একটা নির্দিষ্ট সময়ের জন্যে মাথার কাজ বন্ধ হয়ে যায়। কেমন যেন একটা ট্রেনের শব্দের মতো হয়। একনাগাড়ে যারা একাধিক রাউন্ড খেয়েছেন, তাদের কথা তাদের মুখ থেকে শোনাই উত্তম।
এ তো গেল আনআর্মড অ্যাটাক, য়খন উনি যে কোন ধরণের অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে নাযিল হতেন………থাক সেই মহাদুর্যোগের কথা নাইবা মনে করলাম। :no:
আজকে কেন জানি মোল্লা স্যারের কথা মনে পড়লো। যত ভয়াবহ মারই আমরা স্যারের কাছ খেকে খেয়ে খাকি, মোল্লা স্যারকে অন্তর থেকে শ্রদ্ধা করেনা এমন কাউকে পাওয়া যাবেনা। নীতির সাথে কখনোই আপোষ করতেন না, নিয়মিত নামায পড়তেন। কোন ক্যাডেটের ক্ষতি হয়েছে তাঁর দ্বারা, এমন কখনো শুনি নি। রিইউনিয়নের সময় কত ভাইয়াকে দেখেছি শুধু মোল্লা স্যারের কাহিনী বলতে, কিন্তু স্যারের কাছ থেকে দোয়া নিতে কারো ভুল হয়নি। স্যার সবাইকে হাসিমুখে দোয়া করেছেন, কারো কোন দরকার থাকলে ক্যাম্পাসে নিজের বাসায় রেখেছেন। তাঁর পিতৃতুল্য স্নেহের ছায়ায় ঋণী করেছেন আমাদের।
সবসময় দোয়া করি, স্যার যেখানেই থাকুন, ভাল থাকবেন, আপনায় দয়ায় হলেও আমার ডান গালটা স্বর্গবাসী হবে।

২,৯৮৫ বার দেখা হয়েছে

৩১ টি মন্তব্য : “আমাদের মোল্লা স্যার”

  1. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    রাহাত আমার পায়ের ধূলা নিতে পারো... আমি স্যারের থাবা খাইনি 😀

    মোল্লা স্যারের জন্য শ্রদ্ধা


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
  2. মোল্লা স্যারকে :salute: :salute:
    স্যারের ছেলে তোদের ব্যাচমেট ছিল নাকি রাহাত?
    আমার আব্বা বলছিলেন তাঁর ডিপার্টমেন্টে(ঢাবি আইন) নাকি বিসিসির একটা ছেলে ভর্তি হয়েছে,তোদের ব্যাচের,নাম এমরান মোল্লা।এই কি সেই মোল্লা স্যারের ছেলে?

    জবাব দিন
  3. মিল্টন (৯৩-৯৯)

    মোল্লা স্যার এর বিখ্যাত ঘটনাটা কেউ জানো কিনা ? ঊনার প্রথম ক্লাস BCC তে( I mean life er first class in a Cadet College) স্যার ক্লাস এ আস্লেনঃ বললেন আমি নুরুজ্জামান মোল্লা, ওম্নি পিছন থেকে কোনো ক্যাডেট বল্লো "আমি একটি কবিতা আবৃত্তি করবো"। আর কোথায় যায়... বেশ কটা থাপ্পড়...। গল্প টা শুনেছি পুরান ক্যাডেট দের কাছে।

    জবাব দিন
  4. মাশহার (১৯৯৭-২০০৩)

    @রাহাত: আমি মোল্লা স্যার এর মাইর খাইছি, কিন্তু থাপ্পর খাই নাই।
    @মিল্টন ভাই: মোল্লা স্যার এর ক্লাসে পিছনে ওই কথা বলছিলেন, বিসিসি-র ১ম ব্যাচ এর আহসান ভা।

    জবাব দিন
  5. রেজওয়ান (৯৯-০৫)

    আমি ওনার সম্পর্কে কোন মন্তব্য করতে চাই না 😕 😕
    আমারে টানা ৩২ টা থাবা মারছিল x-( x-(
    আর তাও টেস্ট পরিক্ষার আগে ডাইনিং হলে বইসা 🙁
    আর গোড়ালি থাইক্যা ঘার পর্যন্ত পিটাইছিল বাশের কঞ্চি দিয়া...... x-(
    আমি তারে ভুলি নাই......আর্টস দিসিল আমারে x-( x-(
    তার পোলা তার মাইরের ভয়ে দোতলা থিকা লাফ দিছিল।
    লিমিট এর বাইরে কোন কিছুই ঠিক না... 😐 😐

    জবাব দিন
  6. শোভন (২০০১-২০০৭)

    রাহাত ভাই আপনি তো আর আমার পায়ের দোয়া নিতে পারবেন না.......শত হইলেও ইমিডিয়েট জুনিওর......আমি ও থাপ্পর খাই নাই....
    কিন্তু আট'স পাটি' বইলা বহুত ঝারি খাইছি......রেজওয়ান ভাই আপনি ও তো আমার মত পাপী বান্দা(আট'স পাটি')......

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।