কেন?

এই বছর কলেজ ছেড়েছি। বুকের ভেতরে ঘা টা এখনো দগদগে,আনকোরা নতুন। একটু খোঁচা লাগলেই যন্ত্রনা হয়। কিছু দেখলেই কলেজের সাথে তুলনা করি। খালি মনে হয় কলেজ কত ভাল ছিল। ডাইনিং হলে কত চিল্লাইছি ‘বাদল ভাই গ্লাসে ময়লা ক্যান?’ এখন নিজের রান্না নিজে করতে হয়! কিছুদিন আগে কলেজে গেলাম,আমি একা না,আমার সাথে আরো ৩২ জন ছিল! রিইউিনয়ন টাইপ অবস্থা। সবার মুখে এক কথা,চল বুয়েটে পরীক্ষা না দিয়ে ক্যাডেট কলেজ ইনটেক পরীক্ষা দেই!

যেদিন কলেজ ছাড়লাম, ২৯ শে মে,মনে পড়ে সবার কি কান্না! আমি ছয় বছরের ক্যাডেট জীবনে কবে কেঁদেছি মনে করতে পারিনা! কিন্তু যেদিন কলেজ থেকে চিরবিদায় নিলাম সেদিন কারো কান্নাই যেন বাধ মানছিল না!সিলেট শহরে গিয়ে সবাই দেখি ঢাকা যাবে,খালি আমি,হিরা আর সিহানুক যাব টাংগাইল আর জামালপুর। রাতে বাস,তাই হোটেলে উঠলাম। সময় যেন আর কাটেনা। তিন জনই চুপ। কারো মুখে কথা নেই। বিকেলে আমার এক বার মনে হল কলেজে যাই। সিহানুককে বলতেই ও রবি ঠাকুরের হৈমন্তী থেকে একটা কোট করল, ‘ “অধিকার ছাড়িয়া দিয়া অধিকার রাখিতে যাইবার মত বিড়ম্বনা আর নাই!” এখন কলেজে গিয়া কি করবি?’। আমি কিছু ভেবে চিন্তে কলেজে যাবার প্রস্তাব করি নাই। মনে হচ্ছিল কলেজ কাছেই আছে ঘুরে আসা যায় শেষ বারের মত। কিন্তু ওর কথা শুনে মনে হল সত্যিইতো এখন কলেজ এ গিয়ে কি হবে! অধিকার ছেড়ে দিয়েছি! সে অধিকার আর দাবি করা যায় না! যে কলেজে ছয় বছর কাটিয়েছি কৈশোরের হাসি কান্না আনন্দ বেদনা সব যেখানে মিলেমিশে একাকার হয়ে ছিল, সেই কলেজ কত কাছে থেকেও কত দুরে! তাও মাত্র কয়েক ঘন্টার ব্যাবধানে! এর নাম জীবন!

মাঝে মাঝে যখন বৃষ্টি হয়,মনে পড়ে কলেজের বৃষ্টি ভেজা রাত গুলোর কথা! আহ কী অপূর্ব ছিল সেই মধুর সময় গুলি! রাতের বেলা চানাচুর দিয়ে মুড়ি মেখে খাওয়ার ভেতরে যে আনন্দ যে উত্তেজনা ছিল সেটা এখন রোলার কোস্টারে চড়েও পাওয়া যায়না। চাঁদনী রাতে গীটার নিয়ে বন্ধুরা যে সংগীত সমস্যা সৃষ্টি করতো তার তুলনা কোনো কনসার্ট এর সাথে হয়না। নতুন একটা গল্প লিখে যখন কেউ পড়তে দিত, তার সাথে তুলনা হয় না নোবেল জয়ী কোনো সাহিত্যের। কক্সবাজার এর সমুদ্র তীর আর কোনোদিন এত সুন্দর লাগবেনা। কোনোদিন আর কার্ডের টুয়েন্টিনাইন খেলায় জিতে পাঁচ ফুট ওপরে লাফ দেবনা। রাতের বেলা লুকিয়ে ক্রিকেট খেলা,কিংবা টিভি দেখার মধ্যে আর কখনো থাকবেনা সেই উত্তেজনা।

আবাক হয়ে মাঝে মাঝে ভাবি দীর্ঘ ছয়টা বছর কতো ক্ষুদ্রইনা ছিল। চোখের পলক ফেলার আগেই শেষ হয়ে গেল! মৃত্যুর আগে নাকি মানুষের সমস্ত স্মৃতি চোখের সামনে দিয়ে ভেসে যায়,কলেজ শেষবারের মত ছাড়ার আগে আমারোতো ছয় বছরের সমস্ত স্মৃতি ভেসে যাচ্ছিল চোখের সামনে দিয়ে! আমারো কি তবে মৃত্যু হলো!? তা তো বটেই,আনন্দ বিষাদ মাখা ক্যাডেট জীবনের ইতি যে এখানেই!

মনে প্রশ্ন জাগে, সৃষ্টিকর্তা এত নিষ্ঠুর কেন? কেন আমরা বারবার বাধ্য হই প্রিয়জনকে ছেড়ে যেতে? কেন ধরে রাখতে পারিনা ভালবাসাকে? এর উত্তর হয়তো শেক্সপীয়র দিয়ে গেছেন বহু আগেঃ

“Ours not to reason why,
ours but to do and die!”

১,৫১১ বার দেখা হয়েছে

১৫ টি মন্তব্য : “কেন?”

  1. সেলিম ১৯৯৯-২০০৫

    ডাইনিং হলে কত চিল্লাইছি ‘বাদল ভাই গ্লাসে ময়লা ক্যান?’ এখন নিজের রান্না নিজে করতে হয়!

    শুধু কি তাই............ এখন ময়লা গ্লাসেই পানি পান করতে হয়........ (সম্পাদিত)

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।