একটি বান্ধা গরুর আত্মকাহিনী

আমি একজন বান্ধা গরু। আজ ৩১ এ জুলাই এক বছর পূর্ণ হবে, কিন্তু আমি হিসাব করে দেখলাম এই ৩৬৫ দিনের অর্ধেকের ও কম সময় আমি বান্ধা ছিলাম। আমি বান্ধা গরু হয়েও মাঠে চড়ে বেড়াচ্ছিলাম ছাড়া গরু হিসাবে। বউ প্রতিনিয়ত তার শাসন মালা জারী রাখত আটলান্টিকের ওপার থেকে (যারা আমার আগের কথা জানতে চান তারা এখানে ক্লিক করতে পারেন ছাড়া গরু অথবা বউ দূরে থাকার অসুবিধা সমূহ)। আটলান্টিকের দুই পাড়ে দুইজন থাকতাম, একেবারে পুরা-

“এই কূলে আমি,
আর ওই কূলে তুমি,
মাঝখানে আটলান্টিক ওই বয়ে চলে যায়…”

কিন্তু মহাকবি শাহরুখ খান বলেছেন-“তুমি যদি জান প্রাণ দিয়ে কিছু চাও তো সারা দুনিয়া তোমাকে সেই জিনিস টা হাতে তুলে দেওয়ার জন্য সাহায্য করে”.

এই জন্যই শিরি-ফরহাদ, লাইলী-মজনু, রোমিও-জুলিয়েট, এরশাদ-রওশন এরশাদ, এরশাদ-বিদিশা, এবং পরবর্তীতে আবার এরশাদ-রওশন এরশাদ কে কোন শক্তি আটকায়ে রাখতে পারে নাই। এই একই শক্তির বলে বলীয়ান হয়ে যখন আগুন লেগে জুলেখা পুড়ে যেতে নেয় তখন নিজের রক্ত দিয়ে মেহবুব সেই আগুন নিভিয়ে ফেলে (সে এক অবিশ্বাস্যকর ব্যাপার, ডিরেক্টর সেই সিনের জন্য কেন অস্কার পায় নাই খোদা জানে)
মেহবুব জুলেখার প্রেম

এইভাবেই কোন এক শক্তিতে বলীয়ান হয়ে একদিন আমি প্লেনে উঠে বসলাম, পরেরদিন দেখি আমাকে এয়ারপোর্টে এ নিতে আসছে আমার বউ। ঠিক সেইদিন থেকে শুরু হলো আমার বান্ধা গরুর জীবন।

গৃহপালিত গরুর মতো আমার চারটা পা নাই, লেজ নাই, শিং নাই। অবশ্য শিং থাকলে মনে হয় খারাপ হতো না, ঝগড়া ঝাটি লাগলে শিং দিয়ে গুঁতাতে পারতাম। এখন ঝগড়া লাগলে শেষ কথা আমিই বলি, এতে করে দেখেছি সংসার বড়ই মধুর হয়ে উঠেছে। যারা ভবিষ্যতে বান্ধা গরু হবে তাদের জন্য শিখায়ে দেই শেষের সংলাপটা কি হবে, মুখটা একটু করূণ করে বলতে হবে – ‘আমারই ভুল হয়েছে, সরি, তুমিই ঠিক’। এই ডায়লগের অনেক সুবিধা আছে শত ব্যাবহারেও পুরানো হয় না, রং জ্ব্বলে না, উপরন্তু ভাগ্য ভালো হলে আর টাইমিং ভালো থাকলে বোনাস পাওয়া যায়। বড়ই মধুর সে বোনাস।

গত সাত বছর প্রবাস জীবনে একা হাত পুড়ায়ে রান্না করতাম। এখন বউ নিত্য নতুন রান্না করে। আগে যেখানে এক তরকারীতে এক সপ্তাহ যেতো, এখন প্রতি বেলা দুই তিন রকমের তরকারী। আমার কিচ্ছু করা লাগে না খালি খাওয়া শেষে বাসন ধোয়া ছাড়া। ও আরেকটা কাজ করি আমি খাবারের ছবি টবি তুলে আমি রান্না করছি বলে চালায়ে দেই। ভালো মন্দ খেয়ে এই এই চার মাসে আমার প্রায় বারো কেজি ওজন বাড়ছে। সেইদিন আমার মা আমার ছবি দেখে এসএমএস করেছে, সেখানে লেখা – ‘বাবা আর খাইস না, এখন থেকে দুই বেলা একটু হাঁটাহাটি কর’।

কিন্তু বললেই কি আর হাঁটাহাটি হয়? ইংল্যান্ডে থাকতে গাড়ী চালাতাম না। আর এখানে এখন বউ কে পাশে বসায়ে সমানে চালায়ে বেড়াই। আমার এখনো ফুল লাইসেন্স হয় নাই, হাফ লাইসেন্স, পুলিশ ধরলে খবর আছে কারণ বউয়ের ফুল লাইসেন্স থাকলেও মাত্র কয়েকদিন আগে পেয়েছে, তাই তার যথেষ্ঠ অভিজ্ঞতা নাই, আমার মনে আরো বেশী পুলক লাগে। গাড়ী চালাতে চালাতে নিজেকে বেশ উত্তম কুমার, উত্তম কুমার মনে হয় (আমি শিওর গাড়ীটা আরেকটু নতুন মডেলের হলে নিজেকে টম ক্রুজ মনে হতো)। রাতের বেলায় লং ড্রাইভে বের হয়ে নিজে থেকে হেড়ে গলায় গেয়ে উঠি ‘ এই পথ যদি না শেষ হয়…’। আমার বউ কানে হাত দিয়ে বসে থাকে।

আমরা দুইজনেই রাত জাগি। দুইজন পাশাপাশি বসে আর্ন্তজালে ভ্রমন করে বেড়াই। কিছুদিন আগেও যেখানে যোজন যোজন মাইলের দুরত্বে ছিলাম, এখন সেখানে নিঃশ্বাসের কাছাকাছি অবস্থান। রাতগুলো বড় মধুর লাগে। ‘ফর অ্যাডাল্টস ওনলি’ নামক ছড়ার বইটিতে এরকম রাত নিয়ে একটি ছড়া আছে –

‘কাল সারারাত গেয়েছিলাম রবীন্দ্রসংগীত
তুমি আমি হারিয়েছিলাম চেতনা-সম্বিত।
কাল সারারাত না ঘুমিয়ে জ্যোৎস্না দেখেছিলাম
স্নিগ্ধ নরম চাঁদের আলো অঙ্গে মেখেছিলাম।
কাল সারারাত শরীর জুড়ে কাঁপন লেগেছিল
শুকনো মরুভূমির বুকে ঝর্না জেগেছিল।
কাল সারারাত আকাশ জুড়ে হাজার তারার মেলা
নিবিড় ঘন ঘনিষ্ঠতায় কানামাছি খেলা।
কাল সারারাত হঠাৎ করেই বৃষ্টি নেমেছিল
এই পৃথিবীর সব কোলাহল হঠাৎ থেমেছিল।‘

তবে ভালো বান্ধা গরু হতে হলে কিছু নিয়ম কানুন মানতেই হবে। একটার কথা তো আগেই বলেছি আরো দুইটা বলি-

১। শপিং এ অসীম ধৈর্য্য নিয়ে হাসি মুখে ঘুরে বেড়াতে হবে। বউ কোন কিছু পছন্দ করে তাকে সেই পোষাকে কেমন লাগবে জানতে চাইলে, টেকনিক্যালি তার উত্তর দিতে হবে। ক্ষেত্র বিশেষে সরাসরি ভালো লাগবে না বললে ফলাফল বড়ই দুর্যোগ পূর্ণ হতে পারে।

২। আগে কোথাও বেড়োতে হলে আমি ধুম করে বেড়িয়ে পড়তে পারতাম। কিন্তু এখন আমি যেহেতু বান্ধা আমার খুঁটির কথা চিন্তা করতে হয়। যথাযথ কর্তৃপক্ষ কে অনেক আগে থেকে নোটিশ দিয়ে জানিয়ে রাখতে হয়, প্লাস তাকে রেডী হবার জন্য ঘন্টা খানেক সময় দিতে হয়। কয়েক দিন আগে না বুঝে আমি তাকে মাত্র দশ মিনিটের নোটিশ দিয়েছিলাম ফলশ্রুতিতে আমার এক ঘন্টা ধরে ঝারি খাওয়া লেগেছে। যাইহোক আমি আছিলাম বোকা এখন বুদ্ধিমান হয়েছি।

এখন কাছাকাছি থাকার জন্য আগেকার মতো অসাধারণ সব এস এম এস, ইমেইল পাওয়া হয় না। সেইদিন সে অনেক বলার পরে একটা ছড়া লিখে দিয়েছে –

‘ক্যাডেট ছেলে অনেক চতুর
তাদের কথা মিষ্টি মধুর
এইটা সবার জানা।
সকাল বিকাল ক্যাডেট ব্লগে
যখন তখন হানা।

জামাই খানা ক্যাডেট যাহার
দুঃসচিন্তার পাহাড় তাহার,
সবার সাথে টাঙ্কিবাজী
করতে থাকে জামাই।
Unstoppable জিনিসটাকে
কেমন করে থামাই?’

এই হলো সমস্যা আমার বউ বিশ্বাসই করে না আমি এখন ডানে বায়ে কোন দিকে তাকাই না। সামারে সবাই কত্তো ছোট ছোট জামা পড়ে বাইরে যায়, আমি তাদের দেখিও না, আমার মির্জাপুরের এক বন্ধু বিয়ে করার পরে বলেছিল সে এখন সন্ন্যাসী হয়ে গিয়েছে। আমিও এখন সন্ন্যাসী।

আহা বান্ধা গরুর জীবন বড়ই সুখময়।

১২,৩২০ বার দেখা হয়েছে

১০৮ টি মন্তব্য : “একটি বান্ধা গরুর আত্মকাহিনী”

  1. কাইয়ূম (১৯৯২-১৯৯৮)

    ব্যাপক মিজা পিলিম সামি ভাই =)) :pira: :khekz: :grr:
    এক্কেবারে কোপায়া লেখছেন বস্‌, যদিও টার্গেট রিডার গ্রপে আমরা নাই :grr: :grr:

    জামাই খানা ক্যাডেট যাহার
    দুঃসচিন্তার পাহাড় তাহার,
    সবার সাথে টাঙ্কিবাজী
    করতে থাকে জামাই।
    Unstoppable জিনিসটাকে
    কেমন করে থামাই?

    ভাবিরে কয়েকশ :salute: :salute:


    সংসারে প্রবল বৈরাগ্য!

    জবাব দিন
  2. বন্য (৯৯-০৫)

    সেইরকম ফাটাফাটি হইসে সামী ভাই... :thumbup: :thumbup:

    মহাকবি শাহরুখ খান

    ভিডিওটা অতিমাত্রায় ফাটাফাটি ;;; ..আগেই দেখসিলাম...ওইখানের একটা কমেন্ট পছন্দ হইসিলো... why didnt he pee there!! :khekz:

    বিবাহের একবছর পূর্তিতে আপনাকে এবং ভাবীকে একরাশ শুভেচ্ছা... :clap: :clap: :party: :party: :party:

    তয় লেখায় মাইনাস..কারন আপনে বান্ধা গরু..কিচ্ছু করার নাই... :grr: :grr:

    জবাব দিন
  3. সরাসরি প্রিয়তে,
    বান্ধা গরু হইতে মন চায়
    বোনাস পাইতে মন চায়
    লং ড্রাইভে বাইর হইতে মন চায়
    এই রকম আরো অসাধারণ কিছু ছড়া পড়তে মন চায়
    নিঃশ্বাসের কাছাকাছি যাইতে মন চায়
    বউয়ের রান্না খাইতে মন চায়

    ‘ক্যাডেট ছেলে অনেক চতুর
    তাদের কথা মিষ্টি মধুর
    এইটা সবার জানা।
    সকাল বিকাল ক্যাডেট ব্লগে
    যখন তখন হানা।

    জামাই খানা ক্যাডেট যাহার
    দুঃসচিন্তার পাহাড় তাহার,
    সবার সাথে টাঙ্কিবাজী
    করতে থাকে জামাই।
    Unstoppable জিনিসটাকে
    কেমন করে থামাই?’

    পুরা কোপানি লেখা।
    সিসিবির কোপানি লেখা গুলার মধ্যে অন্যতম।
    পাঁচ তারা দাগাইয়া গেলাম।

    জবাব দিন
  4. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    চরম লিখেছেন ভাইয়া =)) =))

    ভাবীর ছড়াও সেইরকম, ভাবীরে :salute:

    কবে যে বানাদ গরু হবো :dreamy: :dreamy: :dreamy:


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
  5. আশহাব (২০০২-০৮)

    সামি ভাই জটিল হইসে... :khekz: :khekz: :khekz:
    :goragori: :goragori: :goragori:

    ভাই এবং ভাবীরে... :salute: :salute: :salute:

    বান্ধা গরু... :grr:


    "Never think that you’re not supposed to be there. Cause you wouldn’t be there if you wasn’t supposed to be there."
    - A Concerto Is a Conversation

    জবাব দিন
  6. এহসান (৮৯-৯৫)

    ‘কাল সারারাত গেয়েছিলাম রবীন্দ্রসংগীত
    তুমি আমি হারিয়েছিলাম চেতনা-সম্বিত।
    কাল সারারাত না ঘুমিয়ে জ্যোৎস্না দেখেছিলাম
    স্নিগ্ধ নরম চাঁদের আলো অঙ্গে মেখেছিলাম।
    কাল সারারাত শরীর জুড়ে কাঁপন লেগেছিল
    শুকনো মরুভূমির বুকে ঝর্না জেগেছিল।
    কাল সারারাত আকাশ জুড়ে হাজার তারার মেলা
    নিবিড় ঘন ঘনিষ্ঠতায় কানামাছি খেলা।
    কাল সারারাত হঠাৎ করেই বৃষ্টি নেমেছিল
    এই পৃথিবীর সব কোলাহল হঠাৎ থেমেছিল।'

    ব্যাপক! ব্যাপক!ব্যাপক! ব্যাপক!

    বিবাহের একবছর পূর্তিতে অনেক অনেক শুভেচ্ছা সামী
    লেখা অতিশয় উপাদেয় হয়েছে :clap:

    জবাব দিন
  7. আরিফ (১৯৯৪-২০০০)

    এইরকম জটিল লেখা দিয়ে আমার মতো বিয়েফোবিকরে বান্ধা গরু হওয়ার মোটিভেশন দেয়ার জন্য সামি ভাই রে ব্যাঞ্চাই।

    ভাই আর ভাবীরে বর্ষপুর্তির শুভেচ্ছা।

    জবাব দিন
  8. দিহান আহসান

    অনেক অনেক শুভেচ্ছা ভাইয়া ও ভাবীকে। 🙂 🙂
    কি লিখলেন ভাইয়া ... জটিল, আপনাদের দুইজন কে :salute: :salute:
    আপনার লিখাটা আমার বরকে পড়াতে হবে, তারপর আপনার কাছে ট্রেনিং এর জন্য পাঠাবো। ভাইয়া একটু বিশেষ ভাবে ট্রেনিং দিয়ে দিয়েন পিলিজ লাগে। 😕
    ইয়ে, ভাইয়া ভাবী'কে সিসিবিতে আসতে বলেন পিলিজ। দল ভারী করতে হবেতো? :grr:

    জবাব দিন
  9. সানাউল্লাহ (৭৪ - ৮০)

    সামির এই মাসের কোটা তো শ্যাষ! :grr: :grr: :grr:

    কামরুল নাকি ফিল্ম বানাইতাছে, বান্ধা গরু জিন্দাবাদ! বেচারা!! ;;;

    লেখা পুরা জটিল। :thumbup:


    "মানুষে বিশ্বাস হারানো পাপ"

    জবাব দিন
  10. কামরুল হাসান (৯৪-০০)

    সামী ভাই পাথরায়। পুরা :gulli: লেখা।
    পৈড়া মজা পাইছি, কিন্তু বিয়ার শখ গ্যাছেগা। 🙁


    ---------------------------------------------------------------------------
    বালক জানে না তো কতোটা হেঁটে এলে
    ফেরার পথ নেই, থাকে না কোনো কালে।।

    জবাব দিন
  11. আব্দুল্লাহ্‌ আল ইমরান (৯৩-৯৯)
    ‘আমারই ভুল হয়েছে, সরি, তুমিই ঠিক’। এই ডায়লগের অনেক সুবিধা আছে শত ব্যাবহারেও পুরানো হয় না, রং জ্ব্বলে না, উপরন্তু ভাগ্য ভালো হলে আর টাইমিং ভালো থাকলে বোনাস পাওয়া যায়। বড়ই মধুর সে বোনাস।

    বোনাস পেতে মঞ্চায় :dreamy:

    জবাব দিন
  12. মাহমুদ (১৯৯০-৯৬)

    বন্ধু,

    বর্ষপুর্তির শুভেচ্ছা।

    আমার মির্জাপুরের এক বন্ধু বিয়ে করার পরে বলেছিল সে এখন সন্ন্যাসী হয়ে গিয়েছে। আমিও এখন সন্ন্যাসী।

    আমার এক আমেরিকান বান্ধবী ডিনার শেষে রাত ১১টার পর ডর্মে নামিয়ে দিয়ে যাওয়ার সময় আমাকে যা' কইছিলো তা'র অর্থ দাড়ায় আমি নাকি সন্যাসী-টাইপের B-) ।

    তাইলে কি বিয়ে না করেই আমি সন্যাসী হয়া গেছি?

    (ইহা একটি বিজ্ঞাপণ 😛 )


    There is no royal road to science, and only those who do not dread the fatiguing climb of its steep paths have a chance of gaining its luminous summits.- Karl Marx

    জবাব দিন
  13. তানভীর (৯৪-০০)

    যাহ্‌! দেরী করে ফেললাম। সামি ভাই, আপনাকে আর ভাবীকে বর্ষপূর্তির শুভেচ্ছা। :party:
    ছড়াটার জন্য ভাবীকে :salute: ভাবীর যদি এখানে লিখতে কষ্ট হয়, তাহলে ভাইয়া আপনিই মাঝে-মধ্যে উনার ছড়াগুলা আমাদের সাথে শেয়ার কইরেন। 🙂
    লেখাটা যথারীতি চমৎকার। :thumbup:

    জবাব দিন
  14. আছিব (২০০০-২০০৬)

    আল্লাহ রে.........সিসিবির রন্ধ্রে রন্ধ্রে কত যে মণি-মুক্তাব্লগ লুক্কায়িত আছে......তার হদিস নাই......।।
    সামি ভাই...............সিসিবি-তে আর সি সি র ঝান্ডা সুচ্চায়িত করবার জন্য আপনি ও ভাবী কে সালাম :salute:
    ৫ তারা+ প্রিয়......আর কি করা যায় দেখি......... :awesome:

    জবাব দিন
  15. লুবজানা (২০০৫-২০১১)

    কাজটা ঠিক হবে কি না বুঝতেসিনা, কিন্তু একটা অসাম লোক তার প্রাপ্য ক্রেডিট না পাইয়া পাবে শাহরুখ খান, তা মানতে পারবনা।

    কিন্তু মহাকবি শাহরুখ খান বলেছেন-“তুমি যদি জান প্রাণ দিয়ে কিছু চাও তো সারা দুনিয়া তোমাকে সেই জিনিস টা হাতে তুলে দেওয়ার জন্য সাহায্য করে”.

    এটা Paulo Coelho এর The Alchemist বই থেকে নেয়া। মূল লাইনটা হইলো,

    When a person really desires something, all the universe conspires to help that person to realize his dream.

    ধৃষ্টতা ক্ষমা করবেন
    :frontroll: :frontroll: :frontroll:


    নিজে যেমন, নিজেকে তেমনি ভালবাসি!!!

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।