এবার চলুন ক্রিকেট খেলিঃ সিসিবি চ্যাম্পিয়ন’স ট্রফি (ফ্যান্টাসি ক্রিকেট)

ফ্যান্টাসি ফুটবল নিয়ে জমে উঠেছে সিসিবি লীগ। প্রিমিয়ার লীগের ৫ম সপ্তাহ চলছে আর এর মধ্যেই সিসিবি’র ফুটবল ম্যানেজারদের মধ্যে শুরু হয়ে গেছে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই। ফুটবলের মত ক্রিকেট খেলাটা সারাবিশ্বে তেমন জনপ্রিয় না হলেও ক্রিকেটকে ঘিরে আমাদের দেশে আলাদা একটা ক্রেজ আছে। এই মাসের ২২ তারিখে শুরু হচ্ছে আইসিসি চ্যাম্পিয়ন’স ট্রফি ২০০৯। সকলের সাড়া পেলে ফ্যান্টাসি ফুটবলের মত ক্রিকেটপ্রেমী সিসিবি ম্যানেজাররাও মেতে উঠতে পারি ফ্যান্টাসি ক্রিকেট নিয়ে। শুরু করতে পারি ফ্যান্টাসি ক্রিকেটের “সিসিবি চ্যাম্পিয়ন’স ট্রফি”।

খেলা শুরু করার জন্য প্রথমিক ভাবে করনীয়ঃ

প্রথম এই সাইটে গিয়ে ক্রিকিনফো ফ্যান্টাসি ক্রিকেটে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। তারপর ফ্যান্টাসি ক্রিকেটের অনেকগুলো অপশনের মধ্য থেকে “চ্যাম্পিয়ন’স ট্রফি”কে নির্বাচন করে হবে। এর পরের কাজ টিম গঠন করা। সর্বমোট ১১ জন প্লেয়ার নিয়ে টিম গঠন করতে হবে যার জন্য প্রত্যেক ম্যানেজার পাবেন ১০,০০,০০০ ইউ এস ডলার। প্লেয়ার লিস্ট থেকে এই সিরিজে অংশগ্রহনকারী ০৮ টি দেশের সকল প্লেয়ারদের ক্যাটাগরি ও মূল্য তালিকা পাওয়া যাবে। একজন ম্যানেজার যে কোন একটি দেশ থেকে সর্বোচ্চ ৬ জন প্লেয়ারকে দলে নিতে পারবেন। ম্যানেজারের সুবিধামত নিচের ৩ টি ফরমেটের যে কোন একটি অনুসরন করে টিম গঠন করতে হবেঃ
৪ ব্যাটসম্যান, ২ অলরাউন্ডার, ১ উইকেটরক্ষক ও ৪ বোলার।
৫ ব্যাটসম্যান, ১ অলরাউন্ডার, ১ উইকেটরক্ষক ও ৪ বোলার।
৪ ব্যাটসম্যান, ৩ অলরাউন্ডার, ১ উইকেটরক্ষক ও ৩ বোলার।

এছাড়াও ১১ জন প্লেয়ারের মধ্য থেকে ১ জন প্লেয়ারকে “ট্রাম্প প্লেয়ার” নির্বাচন করতে হবে যার ক্ষেত্রে অর্জিত পয়েন্ট দ্বিগুন করে গননা করা হবে। ট্রাম্প প্লেয়ার পরিবর্তন করলে তা প্লেয়ার পরিবর্তনের কোটার অন্তর্গত হবে না।

প্লেয়ার পরিবর্তন এর নিয়মাবলীঃ

২২ সেপ্টেম্বর ২০০৯ তারিখ ১২৩০ ঘটিকা (জিএমটি) অর্থাৎ ১৯৩০ ঘটিকা (বাংলাদেশ সময়) পর্যন্ত আনলিমিটেড সংখ্যক প্লেয়ার পরিবর্তন করা যাবে। এর পর ৩০ সেপ্টেম্বর ২০০৯ তারিখ গ্রুপ পর্যায়ের সব খেলা শেষ হওয়ার পূর্ব পর্যন্ত ১২ টি প্লেয়ার পরিবর্তন করা যাবে। গ্রুপ পর্যায়ের সব খেলা শেষ হয়ে যাওয়ার পর পুনঃরায় ০২ অক্টোবর ২০০৯ তারিখ ১২৩০ ঘটিকা (জিএমটি) অর্থাৎ ১৯৩০ ঘটিকা (বাংলাদেশ সময়) পর্যন্ত আনলিমিটেড সংখ্যক প্লেয়ার পরিবর্তন করা যাবে।
প্রতিটি ম্যাচ শুরুর পুর্বে কাট অফ টাইম পর্যন্ত প্লেয়ার পরিবর্তন করা যাবে। কাট অফ টাইমের পরে প্লেয়ার পরিবর্তন করলে তা পরবর্তি খেলার জন্য প্রযোজ্য হবে। ম্যাচ অনুযায়ী কাট অফ টাইম এর বিস্তারিত বিবরন এখানে দেখুন।

স্কোর/পয়েন্ট গননার নিয়মাবলীঃ

ম্যান অব দ্যা ম্যাচের জন্য বোনাসঃ ৫০ পয়েন্ট
ট্রাম্প প্লেয়ারের জন্য সকল পয়েন্ট দ্বিগুন হবে।

ব্যাটিং পয়েন্টঃ

প্রতিটি রানের জন্যঃ ১ পয়েন্ট
ছক্কা মারার জন্য বোনাসঃ ৬ পয়েন্ট
শুন্য রানে আউট হলেঃ -১০ পয়েন্ট
৫০ রান করলে বোনাসঃ ১৫ পয়েন্ট
১০০ রান করলে বোনাসঃ ৩০ পয়েন্ট
১৫০ রান করলে বোনাসঃ ৫০ পয়েন্ট
রানরেট (প্রতি ১০০ বলে) বোনাস (শুধুমাত্র ২৫ ও তার উর্দ্ধে রান করা ব্যাটসম্যানদের জন্য)ঃ
০০.০০ – ২৪.০০ এর জন্যঃ -৫০ পয়েন্ট
২৫.০০ – ৪৯.৯৯ এর জন্যঃ -৩০ পয়েন্ট
৫০.০০ – ৭৪.৯৯ এর জন্যঃ -১৫ পয়েন্ট
৭৫.০০ – ৯৯.৯৯ এর জন্যঃ ০ পয়েন্ট
১০০.০০ – ১২৪.৯৯ এর জন্যঃ ১৫ পয়েন্ট
১২৫.০০ – ১৭৪.৯৯ এর জন্যঃ ৩০ পয়েন্ট
১৭৫.০০ এর উর্দ্ধেঃ ৫০ পয়েন্ট

বোলিং পয়েন্টঃ

কোন বোলারের উইকেট ব্যতিত যে কোন উইকেটঃ ৩০ পয়েন্ট
কোন বোলারের উইকেটঃ ১৫ পয়েন্ট
মেডেন ওভারঃ ৬ পয়েন্ট
২ উইকেট পেলেঃ ১৫ পয়েন্ট
৪ উইকেট পেলেঃ ৩০ পয়েন্ট
৬ উইকেট পেলেঃ ৫০ পয়েন্ট
ইকোনোমি রেট (ওভার প্রতি) বোনাস (সর্বনিম্ন ৩ ওভার বল করলে প্রযোজ্য)ঃ
০০.০০ – ০২.৯৯ এর জন্যঃ ৫০ পয়েন্ট
০৩.০০ – ০৩.৯৯ এর জন্যঃ ৩০ পয়েন্ট
০৪.০০ – ০৪.৯৯ এর জন্যঃ ১৫ পয়েন্ট
০৫.০০ – ০৬.৯৯ এর জন্যঃ ০ পয়েন্ট
০৭.০০ – ০৭.৯৯ এর জন্যঃ -১৫ পয়েন্ট
০৮.০০ – ০৮.৯৯ এর জন্যঃ -৩০ পয়েন্ট
০৯.০০ এর উর্দ্ধেঃ -৫০ পয়েন্ট

ফিল্ডিং পয়েন্টঃ

ক্যাচ (ফিল্ডার)ঃ ১০ পয়েন্ট
ক্যাচ (উইকেটরক্ষক)ঃ ১০ পয়েন্ট
স্ট্যাম্পিংঃ ১০ পয়েন্ট
রান আউট (ডাইরেক্ট)ঃ ২০ পয়েন্ট
রান আউট (ইনডাইরেক্ট/প্রতি প্লেয়ার)ঃ ১০ পয়েন্ট


সিসিবি চ্যাম্পিয়ন’স ট্রফিতে অন্তর্ভূক্তির নিয়মাবলীঃ

রেজিস্ট্রেশন করে টিম গঠনের পর “জয়েন এ লীগ” অপশনে ক্লিক করলে একটি ইউনিক ইনভাইটেশন কোড(LPIN) প্রয়োজন হবে। সিসিবি চ্যাম্পিয়ান’স ট্রফির জন্য এই কোডঃ 89642-015534595eb5b90a

যদি সিসিবি’র ক্রিকেট অনুরাগীদের কাছ থেকে আশানুরুপ সাড়া পাওয়া যায় তবে ফ্যান্টাসি ক্রিকেটের সিসিবি চ্যাম্পিয়ন’স ট্রফিও ফ্যান্টাসি ফুটবলের সিসিবি লীগের মত জমজমাট হবে। সকলের সহযোগিতা এবং মতামত কামনা করছি।

২৫ টি মন্তব্য : “এবার চলুন ক্রিকেট খেলিঃ সিসিবি চ্যাম্পিয়ন’স ট্রফি (ফ্যান্টাসি ক্রিকেট)”

  1. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    ক্রিকেট এখন আর তেমন টানে না, তার উপর বাংলাদেশ নাই, খেলা দেখাই হয়তো হবে না। তবে টিম একটা নামায় দিব, দেখি কপালে কি আছে।


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন

মওন্তব্য করুন : দিহান (অতিথি)

জবাব দিতে না চাইলে এখানে ক্লিক করুন।

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।