একজন স্বপ্নবাজ মানুষের দুইটি স্বপ্ন…

স্বপ্নবাজ মানুষ মাত্রই স্বপ্ন দেখতে আর দেখাতে পারে। আমি স্বপ্নবাজ কিনা জানি না, আমি শুধু স্বপ্নই দেখে যাই, কাউকে কোন স্বপ্ন দেখাতে পারি না। তবুও মাঝে মাঝে নিজেকে স্বপ্নবাজ বলেই মনে হয়। আমি জেগে জেগে… ঘুমের মাঝে সব সময়ই স্বপ্ন দেখি।

একবার স্বপ্ন দেখি- আমি শৈশব এ ফিরে গেছি আবার দেখি আমি মৃত্যু শয্যায়। কিছু স্বপ্ন নষ্টালজিয়ার ভিন্ন রূপ কিনা সেটাও বুঝতে পারি না।

আমি দেখি , প্রাচীর ঘেরা হলুদ দেওয়াল এর একটা বাড়ী – বাড়ীর সাথেই পুকুর – শান বাধানো ঘাট – ঘাট এর দুই পাশেই দু’টি ছাতিম গাছ। নতুন সাঁতার শেখার পর ঘন্টার পর ঘন্টা পুকুর এ সাঁতার কাটছি। আমার মা আমাকে পানি থেকে উঠে আসার জন্য বার বার শাসন মাখানো অনুরোধ করছেন। কিন্তু ঐসব শোনার সময় কোথায়? আমি সাঁতার কেটেই যাচ্ছি । অবশেষে সাঁতার শেষে ওঠার পর মা লাঠি নিয়ে তাড়া করলে দৌড়াতে দৌড়াতে আমি একসময় পড়ে গেলে আমার মা লাঠি ফেলে দিয়ে আমাকে মাটি থেকে তুলে নিয়ে কোলে করে আমাকে বাড়ী নিয়ে যাচ্ছে ।

আমি দেখি, আমি মৃত্যু শয্যায়। আমার সময় ফুরিয়ে আসছে। সবাই সেটা বুঝতে পারলেও সবাই এই সত্যিটা মানতে নারাজ। আমার চারপাশে আমার সব প্রিয় মুখ । আমার মাথা আমার মা এর কোলে। আমার মা অনবরত কাঁদছেন। তাঁর গাল বেয়ে পড়া চোখের পানি আমার কপাল এ পড়লে আমি তার উষ্ণতা টের পাচ্ছি। আমার মায়ের মাড় দেওয়া শাড়ীর গন্ধ পাচ্ছি । আমার মায়ের ঠান্ডা হাত স্পর্শ অনুভব করছি। চারদিকের প্রিয় মানুষ গুলোর মুখ ঝাপসা হয়ে আসছে। তারপরও সবাই আমাকে বাচাঁর আশ্বাস দিচ্ছে। আমার মা আমাকে বুকের সাথে শক্ত করে ধরে রেখেছেন যেন আমাকে তাঁর কাছ থেকে কেউ কেড়ে নিতে না পারে। আমার চারিদিকে শুধুই অন্ধকার…।।

আমি আমার বন্ধুকে জিজ্ঞাসা করেছিলাম, আমি কেন আমার মৃত্যুর স্বপ্ন দেখি ?? সে উত্তর দিয়েছিল, আমি মৃত্যুকে ভয় পাই বলেই মায়ের কোলে মরার স্বপ্ন দেখি। কেননা ছোট বড় সবাই নাকি মায়ের কোল’কে সবচেয়ে নিরাপদ বলে মনে করে। সবার ধারণা, মায়ের কোলের মাঝে থাকলে কোন আপদ বিপদ স্পর্শ করতে পারবে না। আমি সাধারন মানুষ, অতশত লজিক বুঝি না। আমি শুধু এটুকু বুঝি যে, সৃষ্টিকর্তা মৃত্যু কেমন হবে এটা ঠিক করতে দিলে এমন মৃত্যুই কামনা করব…।

৩,৩২৬ বার দেখা হয়েছে

৩৬ টি মন্তব্য : “একজন স্বপ্নবাজ মানুষের দুইটি স্বপ্ন…”

  1. দিহান আহসান
    প্রাচীর ঘেরা হলুদ দেওয়াল এর একটা বাড়ী - বাড়ীর সাথেই পুকুর - শান বাধানো ঘাট - ঘাট এর দুই পাশেই দু’টি ছাতিম গাছ।

    আমিও এমন স্বপ্ন দেখি।

    মায়ের কোলের মাঝে থাকলে কোন আপদ বিপদ স্পর্শ করতে পারবে না। আমি সাধারন মানুষ, অতশত লজিক বুঝি না। আমি শুধু এটুকু বুঝি যে, সৃষ্টিকর্তা মৃত্যু কেমন হবে এটা ঠিক করতে দিলে এমন মৃত্যুই কামনা করব…।

    ঠিক বলেছ ভাইয়া।
    লেখালেখি থামাবেন না, চলতে থাকুক।

    অফটপিকঃ রৌপ্য পদকের জন্য ধন্যবাদ। 🙂

    জবাব দিন
  2. মুসতাকীম (২০০২-২০০৮)

    অসম্ভব সুন্দর লেখা :boss: :boss: :boss:


    "আমি খুব ভাল করে জানি, ব্যক্তিগত জীবনে আমার অহংকার করার মত কিছু নেই। কিন্তু আমার ভাষাটা নিয়ে তো আমি অহংকার করতেই পারি।"

    জবাব দিন
  3. তানভীর (৯৪-০০)

    তুমি না হয় তোমার মায়ের কোলে মরতে চাও, কিন্তু তখন তোমার মায়ের কি অবস্থা হবে চিন্তা করেছ?
    স্বপ্ন দেখা ছেড়ে দিও না রে ভাই, এই পৃথিবীতে স্বপ্নবাজ মানুষদের খুবই প্রয়োজন।

    জবাব দিন
  4. কামরুলতপু (৯৬-০২)

    কোথায় পড়েছিলাম মনে নেই এক মা এবং ছেলের গল্প। তাদের দুজনেরই ইচ্ছা তার আগে যেন অন্য জনের মৃত্যু হয়। কারণ হিসেবে মা টা বলেছিল আমার ছেলেটি আমাকে ছাড়া কিচ্ছু বুঝে না ওকে কে দেখে রাখবে যদি আমি আগে মরে যাই ওর যে খুব কষ্ট হবে আমার টুকু আমি সহ্য করতে পারব ও তো ছোট ও পারবে না। আর ছেলে বলেছিল, আমার মায়ের আমি ছাড়া কেউ নাই , আমি যদি আগে মরে যাই তাহলে আমার মায়ের যে কষ্ট হবে সেটা মা ছাড়া আমার কষ্টের তুলনায় অনেক অনেক বেশি তাই আমি চাই আমার মা আগে মারা যাক।
    কি অদ্ভুত ভালবাসা।

    জবাব দিন
  5. আহ্সান (৮৮-৯৪)

    জাফর,
    মায়ের কাছ থেকে সেই সেভেনে বেড় হবার পর থেকে আর ফেরা হয়নি... এমনকি মায়ের অসুস্থ্যতার সময়েও কাছে থাকতে পারিনি এমন ঘটনার নজীর অনেক। আজ তাই তোমার লেখাটা পরে নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারিনি। ফোন দিয়েছিলাম মা'কে। কথা বলতে পারিনি। কি যেন একটা গলায় আটকে ছিল...। মা কিছুক্ষণ হ্যালো হ্যালো বলে আপন মনে "সম্ভবত নেটওয়ার্ক খারাপ" বলে ফোন রেখে দিলেন।

    সৃষ্টিকর্তা মৃত্যু কেমন হবে এটা ঠিক করতে দিলে এমন মৃত্যুই কামনা করব…।

    আমার জন্য এই দোয়াটা করো...।

    লেখাটি প্রিয়'তে রাখলাম।

    জবাব দিন
    • জাফর (৯৫-০১)

      ধন্যবাদ আহসান ভাই। আমি ও আপনার মতো সেই ক্লাস ৭ থেকেই বাইরে বাইরে আছি। আমি আমার মা'কে সহ পুরো পরিবার'কে দারুন মিস করি। মাঝে মাঝে মাকে নিয়ে কোন দুঃস্বপ্ন দেখলে আমি মা'কে ফোন দেই, কিন্তু কথা বলতে পারি না।

      স্রষ্ঠার কাছে প্রার্থনা করি, আমার মা তার সন্তানদের'কে যতটা ভালবাসে , আমরা যেন তাকে তার প্রাপ্য ভালবাসাটুকু দিতে পারি।

      জবাব দিন
  6. আদনান (১৯৯৪-২০০০)

    লেখাটা পড়ে মাকে অনেক মনে পরছে । আমারো আহসান ভাইয়ের মত অবস্থা । ক্লাশ সেভেন থেকে ঘর ছাড়া । ছুটছি তো ছুটছি, আমার ছোটা আর শেষ হয়না । যেদিন শেষ হবে সেদিন যেন মায়ের কোলে গিয়ে বিশ্রাম নিতে পারি ।

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।