কৈফিয়ত

কৈফিয়ত

মাঝে মাঝে তোমার চোখে থমকে তাকাই কেন?
বোঝনা তা! জানিও বুঝবে না।
কারন কবিদের চোখে বিশাল আকাশ,
যার আসমানী বুকে পেঁজা পেঁজা মেঘ; হঠাত কখনো,
গোধুলী আলোয় তাতে অনেক অচেনা রঙ।
কবিরা উলুখড়, যেন বিদেশী হাওয়ার প্রেমে
চিরচেনা ঘাস-মাটি ছেড়ে-ছুঁড়ে চলে যেতে চায়।
তারা প্রেমিকাকে পাশে রেখে তার পানে চায়নাকো!
বরং উদাত্ত আকাশ বা শিরীষ গাছের দিকে চেয়ে
কি উদাস কল্পনায় তার ঠোঁটে রাখে ঠোঁট!
কখনো তার চোখের তারায় খুঁজে মরে অবোধ্য ভাষা।
আবার পুকুরে গিয়ে মাছ ধরা ভুলে যায়;
খুব মনোযোগে উড়ন্ত কাক আর মেঘের ছাঁয়াকে ধরে।
এরা যাকে ভালোবাসে তার সাথে খুনসুটি করে।
তারে জ্বালা দেয় যত ভালোবাসে, তত বেশী।
তারে মুখে নয়, গানেগানে, চোখেচোখে প্রণয় জানায়।
এরা পাগলের মত ভালোবেসে, পাগল বানায়।
এরা স্বপ্নে স্বপ্নে পাড়ি দেয় আসমুদ্র-হিমাচল,
দুঃখে অঝোর কাঁদে, ক্ষুধায় পৃথিবী খায়,
রেগে গেলে আগুন জ্বালায়।
এইসব কবিদের রীতি, যারা-
হয় পাগল নয়তো বাউল হয়, আমার মতন।
কিন্তু তুমি তা বুঝবে না। তুমি তো পাগল নও!

১,০৯০ বার দেখা হয়েছে

১৫ টি মন্তব্য : “কৈফিয়ত”

  1. সিউল ( ১৯৯৮- ২০০৪ )

    প্রাসঙ্গিক কিনা জানিনা, তবে একটা কথা মনে পড়ে গেল:

    আমি তাকে পছন্দ করিনা, কিন্তু ভালবাসি.........

    গোলমেলে কথা কিন্তু পৃথিবীর সবচেয়ে ভয়ঙ্কর কথাগুলোর একটা.......

    জবাব দিন
      • নাহ ভাইয়া........ ডিজুস ভালবাসার মত ভালবাসা না এইটা...... আমি আসলে বুঝাইতে পারব না ব্যাপারটা.......

        তবে ব্যাপারটা মোটামুটি এরকম: আপনার ভালবাসার মানুষটিকে আপনি কল্পনা করতেন যেভাবে সে সেইরকমই ছিল কিন্তু নানা কারনে একসময় আপনি তাকে অপছন্দ করতে শুরু করলেন কিন্তু এরপরেও আপনার মনের ভালবাসাটিকে মেরে ফেলতে পারলেন না........ ফলাফল: এমন একটা মানুষকে ভালবাসলেন যাকে আপনি পছন্দ করেন না.....

        জবাব দিন
  2. সাজিদ (১৯৯৩-৯৯)

    তোমাকে অসংখ্য ধন্যবাদ ভাইয়া। তোমার উক্তি...

    আমি তাকে পছন্দ করিনা, কিন্তু ভালবাসি

    এই কথাটাও আমার কাছে জটিল লাগছে।


    অভিলাষী মন চন্দ্রে না পাক,
    জ্যোস্নায় পাক সামান্য ঠাঁই,
    কিছুটাতো চাই, কিছুটাতো চাই।

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।