দুশ্চরিত্রের ছড়া

ভার্সিটিতে প্রথম আসার পর এক বড় ভাই রিক্সার তলে চলা কপোত কপোতীদের কুটির শিল্প সম্পরকে অনেক সাবধান বানী দিয়েছিলেন কিন্তু হায় কিছু দিন পর ওনাকে যখন আবিষ্কার করলাম এক বৃষ্টি দিনে ফুলার রোডে রিক্সার হুডের তলে কুটির শিল্পে ব্যস্ত তখন ব্যাপক ক্ষেপে এই ছড়া লিখেছিলাম । এইখানে কেও কোন অশ্লীলতার গন্ধ পাইলে আমার কোন দোষ নাই দোষ সব ঐ বড় ভাইয়ের ।
………………………………………………………………………………………………………………………………………………
টুপ টুপা টুপ
বৃষ্টি পড়ে
ফুলার রোডে রিক্সা চলে
হুড তুলে সব খেলা চলে,
দুই জোড়া মুখ এক সাথে
বিলীন হয় পরষ্পরে।

তা দেখে সব শালা ছি ছি করে
কিন্তু মনে উপায় খুজে
কি ভাবে যে বিলীন হবে
কোন এক হুড এর তলে
নিজের প্রিয়ার অধরটাতে ।

নিবিড়
nibir110@hotmail.com

২,১৯৫ বার দেখা হয়েছে

৩৪ টি মন্তব্য : “দুশ্চরিত্রের ছড়া”

  1. মামা গো কি মনে করায় দিলেন-২ বছর হইছে বেরেক আপ হইছে তাও ফুলার রোডের সেই উত্তাল দিন গুলার কথা মনে পড়লে মাইয়াটার উপ্র কেন জানি রাগ করতে পারিনা।সব রাগ, ক্ষোভ ছাড়ায় সেই মুহূর্তগুলাই যাবতীয় রাগ ভুলায় দেয় 🙁 🙁 🙁

    অফ টপিক-উত্তাল বলতে কেউ অশালীন কিছু ভাববেন না প্লিজ।আমি খুব ভালো ছেলে।

    জবাব দিন
  2. কে আমি?রাশেদ সাহেব আপনি কেমন আছেন?উত্তাল মুহূর্তের কথা মনের করে আমার শর্ট টাইম মেমরী লস(গজনী দ্রষ্টব্য) হয়েছে।কেউ কি আমাকে স্মৃতি ফিরে পেতে সহায়তা করবেন??

    জবাব দিন
  3. কাইয়ূম (১৯৯২-১৯৯৮)

    রাশেদ ক্ষেপবিতা (ক্ষেপে লেখা যা কবিতা :-B ) সোন্দর হইছে :grr: :grr:
    ফয়েজ ভাইরে কইলা ক্ষেপার কারণ আরেকদিন কইবা, আরেকদিনতো আইসা গেলো, এখন কয়া ফালাও :thumbup:


    সংসারে প্রবল বৈরাগ্য!

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।