ঝরা পলেস্তারা

তুমি যখন পেরেক ঠুকো শক্ত হাতে,
ঠকঠকিয়ে ঠুকতে থাকো দিনমনে
আমার জীর্ণ মনের দেয়ালটাতে,
নিঠুর তোমার আপন মনে…

তখন সেথা ঝুরঝুরিয়ে ঝরে কত,
সকাল বিকেল যখন তখন অবিরত,
ইতিহাসের স্বাক্ষী যত পলেস্তারা,
তুমি জানো কি তা, নয়নতারা?

ঢাকা
১৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৬
সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত।

(ফেইসবুকে প্রকাশিত)

১,৮৮০ বার দেখা হয়েছে

৬ টি মন্তব্য : “ঝরা পলেস্তারা”

  1. নূপুর কান্তি দাশ (৮৪-৯০)

    বহুদিন আসা হয় না এদিকে। হঠাত ফেসবুকে আসক্ত হয়ে পড়েছি। লিখছিনা এমন নয় -- কিন্তু সিসিবিতে দেয়া হচ্ছেনা।
    এরই মধ্যে এই মাত্র আপনার এ-লেখাটা পড়ে মন্তুব্য করবো বলেই লগ ইন করা।
    অসম্ভব ভালো লাগলো খায়রুল ভাই!

    ঠিক এই মুহূর্তে শুনছিলাম ফিলিপ গ্লাস এর করা The Hours মুভির সাউণ্ডট্র্যাক --- বারে বারে শুনে আশ মেটেনা এমন সুর।
    আর এরই মধ্যে আপনার লেখা পড়ে
    যেন শুনতে পেলাম
    পলেস্তারার ঝরে পড়া
    ঝুর ঝুর ঝুর!

    আ হা! নেশা হয়ে গেল

    জবাব দিন
  2. লুৎফুল (৭৮-৮৪)

    জীর্ন মনের দেয়ালটাতে
    পেরেক ঠুকে শক্ত হাতে
    ঝুরঝুরিয়ে ঝরে কারা
    জানে শুধু নয়নতারা

    পাতা ঝরার এই উন্মনা বাতাসের দিনে মন উতলা করবার মতোন একখানা কবিতা।
    :boss: :boss:

    জবাব দিন
  3. পারভেজ (৭৮-৮৪)

    ছন্দবদ্ধ কবিতার এই এক সমস্যা, ছন্দ খুজে না পাওয়া পর্যন্ত মনেহয় একটা মেইজের মধ্যে আছি।
    দুইটা স্টেনজাতেই শেষ দুই পংক্তির ছন্দ বুঝতে ঝামেলা হচ্ছে।
    যদিও প্রথম দু'লাইন এক্কেবারেই ফকফকা.........


    Do not argue with an idiot they drag you down to their level and beat you with experience.

    জবাব দিন
  4. খায়রুল আহসান (৬৭-৭৩)

    মন্তব্যের জন্য ধন্যবাদ, পারভেজ। তোমার এই মন্তব্যটার উত্তর দিতে এত দেরী হয়ে গেল বলে অতীব দুঃখিত!
    দুইটা স্টেনজাতেই শেষ দুই পংক্তির ছন্দ বুঝতে ঝামেলা হচ্ছে। -- ছন্দ হয়তো মিলেনি। প্রথম স্তবকে কখকখ, আর দ্বিতীয়টাতে গগঘঘ।

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।