কোথায় আলো, কোথায় আঁধার

পড়ন্ত বিকেলের সোনালী রোদ্দুরটুকু ভালো লাগে।
সোনালী সূর্যটা রক্তিমাভা ধারণ করার আগেই,
দখিনের থাই এলুমিনিয়াম জানালার পাশে দাঁড়াই,
দৃষ্টি মিলিয়ে দেই সবুজ বৃক্ষাদির শাখা প্রশাখায়।
নিবিষ্ট মনে দেখি ক্লান্ত পাখিদের ঘরে ফিরে আসা,
সবুজ টিয়াদের ঝাঁকে ঝাঁকে এসে সবুজ গাছে বসা।

গোধূলির শেষ আলোটুকু দেখতে বড় ভালো লাগে,
দিনান্তের শেষ আয়োজনে প্রকৃতির অপূর্ব সমন্বয়।
ক্লান্ত মানুষের ন্যায় পাখিরাও নিজ ঘরে ফিরে আসে,
আঁধার নামার আগেই যে যার ঘরের সামনে বসে
নিমগ্ন কোরাসে দিনের শেষ বন্দনাটুকু গেয়ে নেয়।
আঁধার ঘনালে সাথীটারে পাশে নিয়ে ঘুমিয়ে যায়।

গোধূলির আলোটুকু যেন হঠাৎ করেই মিলিয়ে যায়
এভাবেই হয়তো একদিন আমিও শূণ্যে মিলিয়ে যাব।
সন্ধ্যা ঘনায়ে এলে মানুষের ঘরে ঘরে বাতি জ্বলে,
পাখিদের নীড়ে থাকে শুধুই নিকষ কালো অন্ধকার।
গভীর নিশীথে যখন যাপিত জীবনে্র কোলাহল থামে,
তখনই সময় ভাবার, কোথায় আলো, কোথায় আঁধার।
ঢাকা
০১ মে ২০১৫
স্বর্বস্বত্ব সংরক্ষিত।

১,১৪০ বার দেখা হয়েছে

১২ টি মন্তব্য : “কোথায় আলো, কোথায় আঁধার”

  1. সাইদুল (৭৬-৮২)

    গোধূলির আলোটুকু যেন হঠাৎ করেই মিলিয়ে যায়
    এভাবেই হয়তো একদিন আমিও শূণ্যে মিলিয়ে যাব।

    খুবই সত্যি কথা। নিষ্ঠুর সত্যি। কবিতাটা চমৎকার


    যে কথা কখনও বাজেনা হৃদয়ে গান হয়ে কোন, সে কথা ব্যর্থ , ম্লান

    জবাব দিন
  2. লুৎফুল (৭৮-৮৪)

    "ক্লান্ত মানুষের ন্যায় পাখিরাও নিজ ঘরে ফিরে আসে,
    আঁধার নামার আগেই যে যার ঘরের সামনে বসে
    নিমগ্ন কোরাসে দিনের শেষ বন্দনাটুকু গেয়ে নেয়।"

    পুরো কবিতাটাই সন্ধ্যার অপূর্ব আবেগ মাখা । আহা ।

    জবাব দিন
  3. রাজীব (১৯৯০-১৯৯৬)

    মনে হলো গদ্যে আকার দিলেও কবিতাই থাকতো।
    শরীর গদ্যের কিন্তু মন কবিতার। (সম্পাদিত) (সম্পাদিত)


    এখনো বিষের পেয়ালা ঠোঁটের সামনে তুলে ধরা হয় নি, তুমি কথা বলো। (১২০) - হুমায়ুন আজাদ

    জবাব দিন

মওন্তব্য করুন : খায়রুল আহসান (৬৭-৭৩)

জবাব দিতে না চাইলে এখানে ক্লিক করুন।

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।