সাইফুল স্যার ও আমার ২য় পোস্ট

সিসিবি তে এটা আমার ২য় লেখা। প্রথম ব্লগ এর অসাধারণ(!) সাফল্যের ধারাবাহিকতায় আজকের লেখার জন্ম। আজও আপাতত ১ টা ঘটনা দিচ্ছি।

**ক্লাস টেন এ তখন। ১৪ নং রুমে থাকি। করিডোর এর সাইডে জানালার পাশেই আমার বেড। গেমস এর পর এসেই ড্রেস চেঞ্জ না করেই সদ্য পাওয়া মাসুদ রানা সিরিজের “নীল ছবি” নিয়ে বসলাম। করিডোর দিয়ে যাচ্ছিলেন হাউজ ডিউটি মাস্টার সাইফুল ইসলাম(ইতিহাস) স্যার।তিনি আমার পড়ালেখা সম্পর্কে ভালই খোঁজ খবর রাখতেন!হঠাৎ কোন পূর্বাভাস ছাড়া রুমে ঢুকেই বললেন,”জাবীর,তুমি তো এত পড়ালেখা সচরাচর করো না!” আউউউউউচচচচচককক(ঢেঁকুড়-স্যারের গ্যাস্ট্রিক এর সমস্যা ছিল।)”এটা কি পড়ছ,দেখি”বলেই বইটা আমার থেকে কেড়ে নিলেন। আর যায় কই!বললেন,”রাতে হাউজ অফিসে এস”। বুঝলাম আজ কপালে শনি আছে!সেদিন শনি বার ছিল কিনা!থার্ড প্রেপ পর্যন্ত অনেক ভয়ে ভয়ে থেকে প্রেপ শেষ করেই হাউজ অফিসের সামনে গেলাম,অবশ্যই ড্রেস চেঞ্জ করে(স্লিপিং ড্রেস)।যা দেখলাম,তা অভাবনীয়!সাইফুল স্যার সবেমাএ বই টার লাস্ট পেজ পরা শেষ করলেন।”মে আই কাম ইন,স্যার?”স্যারের সামনে দাঁড়ালাম।নিজের ডিপোতে জমা থাকা শেষ বিন্দু তেল খরচ করেও স্যারকে ওনার পারসোনাল ডিপো থেকে তেল খরচ(!) থেকে ওনাকে বিরত রাখতে পারলাম না।অনেক অনুনয় বিনয় করলাম,লাভ হল না।হাজার হোক,ক্যাডেট তো!বেশিক্ষণ মাথা নিচু করে থাকতে পারি না।চোয়াল শক্ত করে এক দৃষ্টে তাকিয়ে থাকলাম স্যারের দিকে।যে দৃষ্টিতে একাধারে অনুরোধ আর ঘৃণা ছিল!কিছুক্ষণ পর মোঘল রাজাদের মত করে হাউস মাস্টার হান্নান স্যার(ইংরেজী) এর আগমন।আর যায় কই।সাইফুল স্যার হাউজ মাস্টার স্যার এর দিকে বই টা এগিয়ে দিয়ে বললেন,”স্যার,এই ছেলের কাছে এই বই টা পাওয়া গেছে।বইটার অমুক পেজে এটা আছে অমুক পেজে ওটা আছে(প্যতিটা পেজের চুম্বক অংশগুলো বের করে হাউজ মাস্টার কে দেখালেন!)।আর স্যার,লাস্ট পেজে এই কথা লেখা আছে।”যারা মাসুদ রানার কমপক্ষে একটা বইও পরেছেন,তার কাছে এটা ব্যাখ্যা করতে হবে না যে,এই বই গুলোর লাস্ট পেজে কি থাকতে পারে!আর সাইফুল স্যার যে আমাকে অফচাঞ্ছ মেরে বইটা আগেই পড়েছেন,তা আর কে জানত!এর পরের ঘটনা আরো ভয়াবহ!হান্নান স্যার বললেন,”বাবু(এই সম্বোধন ওনার সহজাত),তুই এই বয়সে ‘ব্লু ফিল্ম’ পড়িস!”স্যার ইংরেজীর মানুষ,’নীল ছবি’র ইংরেজী যে ‘ব্লু ফিল্ম’ তা ওনাকে বলে দিতে হয় নি।’নীল ছবি’ সম্পর্কে কারও ধারণা না থাকলেও’ব্লু ফিল্ম’সম্পর্কে মোটামুটি সবারই যে ‘হাফেজিয়া’ ডিগ্রী আছে তা তো বলাই বাহুল্য!”এই বয়সে তোর বিয়ে করার শখ হয়েছে?”ভাই আপনারাই বলুন,ওই বয়সে কার না বিয়ে করার শখ হয়!কিন্তু বইটার সাথে বিয়ে করার কি সম্পর্ক তা আজ অব্দি আমার বোধগম্য হয় নি।”তোকে আমি বিয়ে করিয়ে দেব”।তৎক্ষনাৎ আমার মাথায় ‘গুগল’ সার্চ মারলাম,হান্নান স্যারের কয়টা মেয়ে আছে! কারণ ওই বয়সে আমাকে তো কেউ মেয়ে দিবে না,দিলে একমাএ স্যারই দিবে।২ সেকেন্ডে ফলাফল।’নো পেজেস ফাউন্ড!'( আসলে তার কোনো মেয়ে থাকলেও আমার জানা ছিল না)।”তোর বাবাকে বল,তোকে বিয়ে করিয়ে দিতে”।শুনুন স্যারের কথা!এখনই আমার আব্বা (যাকে ফোনবুকে ‘গডফাদার’ নামে সেভ করেছি!) বলে,আরও ১০ বছর পর এইগুলা নিয়ে চিন্তা করতে!সেই আব্বাকে বলব আমাকে বিয়ে করাতে!……১০:৪৫ এ লাইটস অফ এর বেল দেওয়া পর্যন্ত চলল ঝাড়ি!বইয়ের ওপর স্যার লিখলেন,”সিজড!” …..চলে আসলাম..নো ই ডি!…

বইটা স্যারের ড্রয়ারে ছিল।২ দিন পর কোয়াইট আওয়ারে যেয়ে নিয়ে আসছি।হুরররররররররররররেএএএএএএএএএএএ….

৫,৫০১ বার দেখা হয়েছে

৮৩ টি মন্তব্য : “সাইফুল স্যার ও আমার ২য় পোস্ট”

  1. জাফর (৯৫-০১)
    নীল ছবি’ সম্পর্কে কারও ধারণা না থাকলেও’ব্লু ফিল্ম’সম্পর্কে মোটামুটি সবারই যে ‘হাফেজিয়া’ ডিগ্রী আছে তা তো বলাই বাহুল্য!”

    ভাই, তুমি হাফেয???? !!! :)) :)) :khekz:
    just kidding....

    জবাব দিন
  2. ইফতেখার (৯৫-০১)

    লেকু (সাইফুল) এর কথা পড়ে মনে পড়লো -

    আমাদের আর্টস পার্টি ছিলো ১১ জন ( এই যন্ত্রনায় সাইন্স পার্টির খবর হোইতো) ... একজনের হাতের লেখা একটু খারাপ আর লেকু রে পচাইতে তার জুড়ি নাই, তারে লেকু গ্যারান্টি দিয়া বলসে যে সে এস এস সি তে সেকেন্ড ডিভিসন পাবে, লগে ইতিহাসে ৫০ এর নিচে। রেজাল্ট দেয়ার পর দেখা গেলো, সে ১-৫ এর ভিতর স্ট্যান্ড, ইতিহাসে ৯২ (যারা জানেন তারা বুঝতেসেন এইটা বোর্ড হাইয়েস্ট ছিলো বিগত ৫ বছর এ)। যাউগ্গা, তখন লেকু এর ভাব দেখে কে, বলতেসে, আমি আগে থেকেই জানতাম ... আগেই বলসিলাম এই ছেলে খুবি খুবি ভালো করবে। x-( x-(

    জবাব দিন
  3. সানাউল্লাহ (৭৪ - ৮০)

    না এই পোলার ভাগ্যে খারাপ। আমার হাতে পরেছে। নীল ছবি পড়ে (দেখে) ক্লাস টেনে থাকতেই?? বলে কি? আমরা তো কলেজ থেইক্যা বাইরোনোর পর বেগম বাজারে গিয়া ভিডিও পার্লারে দেখছি। আর হেয় কলেজে থাকতেই............

    লাগাও ১০০ :frontroll:


    "মানুষে বিশ্বাস হারানো পাপ"

    জবাব দিন
  4. তৌফিক (৯৬-০২)

    শিক্ষক সম্পর্কে খারাপ কিছু বলতে এখন রুচিতে বাঁধে। খালি একটা কথাই বলি, লেকু সম্পর্কে যা বলছো তা একেবারে সঠিক।

    হান্নান স্যার অবশ্য খুব ভালো মানুষ ছিলেন। মজার কথা হলো তার ডায়লগ "shocking" পঁচাইতে গিয়া এইটা এখন আমার মুদ্রাদোষ হয়া গেছে। আমি এখন পাঁচ বাক্যের একটাতে শকিং ব্যবহার করি। 🙁

    জবাব দিন
  5. সায়েদ (১৯৯২-১৯৯৮)

    আগেই বলছিলাম,

    জম্পেশ কিছুর সম্ভাবনা দেখা যায়।

    লেখার ধরণটাই অসাধারণ লাগতেছে।
    কোথায় থেকে কিসের সাথে যে তুলনা বাইর করে পোলাডা.......মজা লাগে :clap: :clap: ।

    নীল ছবি'টা ভারতীয় কোন মন্ত্রী বা ঐরকম কারও মেয়েরে নিয়া গল্প না 😉 ????


    Life is Mad.

    জবাব দিন
  6. আশিক (১৯৯৬-২০০২)

    একবার সাধারণ জ্ঞান পরীক্ষায় প্রশ্ন আসছিল মাসুদ রানা সিরিজের প্রথম বইটার নাম কি? সেই প্রশ্ন দেখে বাংলার শারমিন রহমান ম্যাডামের মাথার বহ্মতালু জ্বলে পুড়ে খাক হয়ে গেল রাগে দুঃখে :khekz: ......কে জানি বলছিল ঐবার প্রশ্ন নাকি লেকুর করা ছিল...... :grr:

    জাবীরের থেকে আরো লেখা বের হোক :thumbup:

    জবাব দিন
  7. তানভীর (৯৪-০০)

    জাবীর ছেলেটাকে আমি খুবই ভালো ছেলে মনে করেছিলাম। কিন্তু, "নীল ছবি"??? যদিও এইটা কি জিনিস বুঝিনা, তারপরও উপরের কমেন্টগুলা দেইখা মনে হচ্ছে খুব খারাপ ব্যাপার! :-B

    লেখা পইড়া মজা পেলাম জাবীর। :clap: :clap:

    জবাব দিন
  8. টিটো রহমান (৯৪-০০)
    বুঝলাম আজ কপালে শনি আছে!সেদিন শনি বার ছিল কিনা!...............
    আমার মাথায় ‘গুগল’ সার্চ মারলাম,হান্নান স্যারের কয়টা মেয়ে আছে! কারণ ওই বয়সে আমাকে তো কেউ মেয়ে দিবে না,দিলে একমাএ স্যারই দিবে


    আপনারে আমি খুঁজিয়া বেড়াই

    জবাব দিন
  9. কলেজে আবুল হোসেন স্যার একবার আমার কাছ থেকে মাসুদ রানার পিশাচ দ্বীপ বইটা সীজ করেছিলেন। তারপরের কাহিনী ত একি। খুব মজা লাগছে ক্যাডট কলেজ ব্লগে এসে। সব পূরোনো কাহিনী মনে পড়ে যাচ্ছে।

    জবাব দিন
  10. সাকেব (মকক) (৯৩-৯৯)

    পুরা পাংখা...
    জাবীর এর লেখা পইড়া হাসতে হাসতে পিরা গেসি... :goragori:
    লেকু স্যার এর কথাও খুব মনে পড়তেসে...আমরা ক্লাস এইট এ থাকতে জয়েন করসিলো...সারাটা ক্যাডেট লাইফ অসীম আনন্দ দিয়া গেসে... :dreamy:


    "আমার মাঝে এক মানবীর ধবল বসবাস
    আমার সাথেই সেই মানবীর তুমুল সহবাস"

    জবাব দিন
  11. হাসান (১৯৯৬-২০০২)

    আরে মিয়া তুমি তো আমারে পুরাই নস্টালজিক বানায়ে দিলা । :(( আচ্ছা ‘নীল ছবি’ আর ‘মূল্য এক কোটি টাকা মাত্র’ কি এক মলাটে দুই কাহিনী ছিলো না? :dreamy:

    কলেজে থাকতে আমি নিয়া যাইতাম মাসুদ রানা :shy: কিন্তু ইমিডিয়েট সিনিয়র বদরুদ্দোজা ভাই সব নিয়া যাইত পড়তে, মাগার পাঙ্গানি মিস যাইত না । =(( ক্লাস এইটে থাকতে আমারে একবার স্টিলের স্কেল দিয়ে গুনে গুনে ১০০টা বাড়ি দিছিল । :bash:

    জবাব দিন
  12. হাসান (১৯৯৬-২০০২)
    একবার সাধারণ জ্ঞান পরীক্ষায় প্রশ্ন আসছিল মাসুদ রানা সিরিজের প্রথম বইটার নাম কি?

    আমার ধারণা তখন বাংলাদেশে প্রথম প্যাকেজ নাটক শুরু হয় যেটা ছিল মাসুদ রানার একটা উপন্যাস অবলম্বনে, তাই ওই প্রশ্নটা ছিল ।

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।