আহসান ভাই ও আমার প্রথম ব্লগ

সিসিবি তে এটাই আমার প্রথম লেখা। প্রায় নিয়মিত ব্লগগুলো দেখা হলেও সাধারণত কি লিখব কি লিখব করে লিখা হয় না।আজ আপাতত ১ টা ঘটনা দিয়েই শুরু করি।

**তখন ক্লাস এইটের শেষ টার্ম। মির্জাপুর ক্যাডেট কলেজের সোহরাওয়ার্দী হাইজের ১১ নং রুমে থাকি। রুমে সাৱির ভাই,মুশফিক ভাই এর কল্যাণে গিটার ও ড্রামস শেখার হাতেখরি। রাতদিন (দুখিঃত..কোয়াইট আওয়ার,গেমসের পর,রাতে থার্ড প্রেপের পর..) চলত আমার মিউজিসিয়ান হওয়ার অক্লান্ত সাধনা। কিন্তু বেশিদিন এই সাধনা চলেনি। কেন? শুনুন তাইলে।

একদিন গেমসের পর আমার ড্রামস এর সব ইন্স্ট্রুমেন্ট নিয়ে রেডি। ইন্স্ট্রুমেন্ট বলতে আর্ট ব্রাস(স্টিক),বালতি(বিগ ড্রাম),বিভিন্ন কৌটা(পাউডার,বডি স্প্রে) (ফ্রন্ট ড্রামস),কলেজ বেল্ট (স্নেয়ার)। তুমুল উদ্দামে চলছে আমার সঙ্গীত সাধনা। ১২ নং রুমে থাকতো আহসান ভাই (ক্লাস টেন-৩৫ তম ইনটেক)। আমাদের পোলাপান তাকে জমের মতো ভয় করতো। তিনি গোসল করে মনের সুখে গান গাইতে গাইতে আমাদের রুমের সামনে দিয়ে যাচ্ছিলেন। দরজায় দাড়িয়ে আস্তে করে বললেন,”জাবীর,একটু রুমে আস।” আমি ভালো মানুষের মতো বললাম,”কাইন্ডলি (সিনিয়রের সাথে কথা বলার সময় এটা বলা আবশ্যক),এখন আমার টার্ন না।” উনি কিছু না বলে চলে গেলেন। এখানে একটি কথা বলে রাখা ভালো,পাশের রুমের সিনিয়ররা তাদের ফাই ফরমায়েস খাটার জন্য কাঠের নেমপ্লেট দিয়ে দেয়ালে শব্দ করতেন, আর আমাদের ক্যাডেট নং অনুসারে তাদের আহ্বানে সাড়া দিয়ে জীবন সার্থক করতে হতো। আমার সিরিয়াল না থেকেও যখন আহসান ভাইয়ের সাথে দেখা করতে গেলাম, তার রুমমেটদের(সবাই ক্লাসমেট) দেখিয়ে আমাকে বললেন,”ব্লাডি ফা.. নাট, :grr: তোমার ড্রামস শেখার ইচ্ছা হইছে? ওকে। ড্রামস শিখতে হইলে পা ফ্রি করতে হয়। স্টার্ট ফ্রগজাম্প।” রুমের ভিতর ৪টা রাউন্ড দিতেই বললেন,”ড্রামস শিখতে হইলে হাতও ফ্রি করতে হয়। ডাউন ইওর হ্যান্ডস।”বাধ্য জুনিয়র এর মত পালন করছি একে একে সব শাস্তি..নিল ডিউন..হাফ নিল ডিউন (দু হাত সামনে দিয়ে চেয়ারে বসার মত করে চেয়ার ছাড়া বাতাসে বসা)..পৃথিবী ঘোরে সূর্য ঘোরে(জুতার ফিতা ধরে ঘোরা)..ফ্রন্ট রোল..সাইড রোল…এক পায়ের ওপর জাম্প….আল্লার কাছে মনে মনে বললাম,”জিন্দেগিতে আর ড্রামস প্র্যাকটিস করমু না”….৪৫ মিনিট পর ছাড়া পাইলাম।…অলরেডি ঘেমে গোছল করে ফেলছি।..ভাবছিলাম এখানেই শেষ। হায়রে কপাল! উনি বললেন,”কাল থেকে প্রতি গেমস এর পর আমার সাথে দেখা করবা।”এরপর থেকে প্রতি গেমস

এর পর তার কাছে যাওয়া বাধ্যতামূলক হয়ে গেল। উনি আরামে আমারে পাঙ্গাইতেন আর রুমমেটদের বলতেন,”এই পোলারে আমি খুব পছন্দ করি। “হায়রে কপাল! আমি মরি আমার জ্বালায় আর উনি করেন জোকস! এইবার আমারে পাঙ্গানোর কারণ শোনেন! উনি আমাকে বলতেন,”তোমাকে পাঙ্গাই কেন,জানো? তুমি অনেক খাটো।তোমাকে লম্বা হইতে হবে। লম্বা না হইলে কোন মাইয়া তোমাকে পছন্দ করব না।সো, প্রতিদিন বাস্কেটবল খেলবা,আর গেমসের পর আমার সাথে দেখা করবা।” ক্লাস এইটে ৫ ফুট সাড়ে ৩ ইঞ্চি হওয়ার পরও এই কারনে আমাকে পাঙ্গা খাইতে হয়! প্রায় ২ টার্ম আমারে এভাবে জ্বালাইছে। আমার উন্নতি:কলেজে একটাই গেমস একটু ভালো পারতাম, বাস্কেটবল।+ওনার বদৌলতে (!) আমার উচ্‌চতা এখন ৫ ফুট ৬ ইঞ্চি+ আর মাইয়া!, ময়মনসিংহ গার্লস ক্যডেট কলেজের এক সুইট মেয়ে 😡 আপাতত এই সাড়ে ৫ ফুটি হতচ্ছারা মানুষটিকে ৩ বছর ধরে অন্য কোন মেয়ের দিকে তাকাতে দিচ্ছে না।+ সবচেয়ে বেশি লাভ হল, আহসান ভাইয়ের মতো খুব ভাল একটা বন্ধু পাওয়া। অন্তত তাকে তো আর কম জ্বালাইনি!!!

(সে কাহিনি আর এক দিন বলব)

৪,৫৭৭ বার দেখা হয়েছে

৫৮ টি মন্তব্য : “আহসান ভাই ও আমার প্রথম ব্লগ”

  1. সায়েদ (১৯৯২-১৯৯৮)
    ময়মনসিংহ গার্লস ক্যডেট কলেজের এক সুইট মেয়ে আপাতত এই সাড়ে ৫ ফুটি হতচ্ছারা মানুষটিকে ৩ বছর ধরে অন্য কোন মেয়ের দিকে তাকাতে দিচ্ছে না।+ সবচেয়ে বেশি লাভ হল, আহসান ভাইয়ের মতো খুব ভাল একটা বন্ধু পাওয়া। অন্তত তাকে তো আর কম জ্বালাইনি!!!

    =)) =)) =))

    জম্পেশ কিছুর সম্ভাবনা দেখা যায় :clap: :clap: :clap:


    Life is Mad.

    জবাব দিন
  2. জিহাদ (৯৯-০৫)

    সুইট মেয়েটা ক্যামনে হস্তগত হৈলো সেইটা নিয়া একটা ব্লগ লিখুম নাকি? কি বলিস ? 😉

    ব্লগে স্বাগতম দোস্ত। আশা করি দুই দিন পরে আবার উধাও হয়ে যাবিনা। 🙂


    সাতেও নাই, পাঁচেও নাই

    জবাব দিন
  3. আহ্সান (৮৮-৯৪)

    সাবাশ।
    শুরুটা মনে হইতেছে তো ভালোভাবেই করলা...
    আগাইয়া যাইতে থাকো...
    ভাবী (কিংবা হবু ভাবী নাকি বোন বলবো?)'র জন্য রইল শুভেচ্ছা...। আশা করি তোমাকে যেন আর কারো দিকে তাকানোর মত কষ্টকর কাজটি উনি আর করতে না দেন...
    শুভ ব্লগিং...।

    জবাব দিন
  4. সামিয়া (৯৯-০৫)
    ময়মনসিংহ গার্লস ক্যডেট কলেজের এক সুইট মেয়ে আপাতত এই সাড়ে ৫ ফুটি হতচ্ছারা মানুষটিকে ৩ বছর ধরে অন্য কোন মেয়ের দিকে তাকাতে দিচ্ছে না

    😮 😮 কে? কে?? কে??? ঝাতি ঝানতে ছায় :-B
    স্বাগতম ... 🙂 লিখা যেন থেমে না যায় :thumbup: :thumbup:

    জবাব দিন
  5. জাবীর রিজভী (৯৯-০৫)

    ব্লগে পদচারনাকারী সকল গডফাদার(ইনক্লুডিং ব্লগ এডু)দের জ্ঞাতার্থে জানাচ্ছি,আমার প্রথম ব্লগ এত সুন্দরভাবে গ্রহন করার জন্য সবাইকে ধন্যবাদ।আর সামিয়ার ভাষায় সেই "ডাইনোসর" টিকে নিয়ে পরবর্তীতে লিখব,ইনশাল্লাহ। 😉

    জবাব দিন
  6. যাক অবশেষে জে.আর. ব্লগে আসলো,
    সবাই মুখ দিয়া মিউজিক দেন বাংলা ছবির নায়ক জসিম আসলে যেই রকম মিউজিক বাজে...

    টিগ ডিগ ঢিস..টিগ ডিগ ঢিস.. জেএএ...আআর...
    টিগ ডিগ ঢিস..টিগ ডিগ ঢিস.. জেএএ...আআর...

    অথবা চাইলে নির্বাচনী আমেজে মিছিলও করতে পারেন,
    ***** কার.. জে আর
    ***** কার.. জে আর

    জবাব দিন
  7. মুহাম্মদ (৯৯-০৫)

    সেভেন-এইটে নিজের হাউজ ছাড়া বাকি সব হাউজই এলিয়েন এলিয়েন লাগত, ইটি-র এলিয়েন না, এলিয়েনের এলিয়েন। গেছিও খুব কম আর গেলেও মনে হইত বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত বরাবর হাটতাছি, যেকোন সময় বিএসএফ এর গুল্লি খায়া মাটিশায়ী হবার সমূহ সম্ভাবনা।
    কলেজ জীবনের পাঙ্গগুলা মনে পইড়া গেল। অল্টানেটদের কাছেই সবচেয়ে বেশী পাঙ্গ খাইছিলাম, নজরুল হাউজে যম ছিল দোতলার ক্লাস টেনের রুমটা।
    লেখা ভাল লাগছে, আরও লেখা চাই।

    আর সবশেষে, ব্লগে সংগ্রামী (সামনে নির্বাচন তো!) শুভেচ্ছা।

    জবাব দিন
  8. হাসনাইন (৯৯-০৫)

    ৯৯ :awesome: :awesome: :awesome:

    ময়মনসিংহ গার্লস ক্যডেট কলেজের এক সুইট মেয়ে আপাতত এই সাড়ে ৫ ফুটি হতচ্ছারা মানুষটিকে ৩ বছর ধরে অন্য কোন মেয়ের দিকে তাকাতে দিচ্ছে না।

    চান্সে......... 😉 হা হা... আগামী দুই-তিনটা ঝগড়া থেকে বেঁচে গেলি।

    জবাব দিন
  9. রকিবুল ইসলাম (৯৯-০৫)
    যাক অবশেষে জে.আর. ব্লগে আসলো,
    সবাই মুখ দিয়া মিউজিক দেন বাংলা ছবির নায়ক জসিম আসলে যেই রকম মিউজিক বাজে…

    টিগ ডিগ ঢিস..টিগ ডিগ ঢিস.. জেএএ…আআর…
    টিগ ডিগ ঢিস..টিগ ডিগ ঢিস.. জেএএ…আআর…

    অথবা চাইলে নির্বাচনী আমেজে মিছিলও করতে পারেন,
    ***** কার.. জে আর
    ***** কার.. জে আর

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।