ওয়াচ ম্যান

আমি যখন ক্লাস টুয়েলভ এ তখনকার কথা . আমার হাউস মাস্টার ছিলেন “পেরেক” . এটা যে তাঁর নিক নেম তা নিশ্চই বুঝতে পারছেন . আমি হাউস প্রিফেক্ট ছিলাম বলে আমার সাথে স্যার এর রিলেশনটা একটু ভালো থাকা টাই স্বাভাবিক ছিল . কিন্তু অজ্ঞাত কারণে তিনি আমাকে অত্যধিক পছন্দ ও বিশ্বাস করতেন . সেটার মাত্রা যে কেমন ছিল এই ঘটনা টা পরলেই পরিষ্কার হযে যাবে.

হাউস মাস্টার স্যার আবার ভিপি স্যার এর খুব ই ক্লোজ লোক ছিলেন . হাউস এর কোনো ঘটনাই ভিপির জানতে দেরী হতনা . এই কারণে আমাদের বহুত পোলাপাইন অনেক পেইন সিচুএশন এ মাঝে মাঝেই পড়ত . যাই হোক আসল ঘটনায় আসি .
আমাদের কিছু স্মোকার পোলাপান ছিল . একদিন রাতে বাথরুম এ স্মোকিং চলতেসে , আর ভিপি স্যার বাইরে রাস্তায় হাটতে বাইর হইসে . বাথরুম এর ভেন্টিলেটর দিয়ে ধোঁয়া বের হইতেসিলো …. ভিপি স্যার তো দ্খেই বুঝতে পারসে ঘটনা কি . তাড়াতাড়ি হাউস এ ঢুকেও কাউকে ধরতে পারলেন না . যে জুনিয়র গার্ড ছিল , সে আগেই ওয়ার্নিং দিয়ে দিসে . এর পর আর স্যার কাউকে কিছু না বলে চলে গেলেন.

পরদিন স্টাফ লাউঞ্জ এ বিশেষ মিটিং বসলো . অথরিটি আমাদের ধরার জন্য বিরাট মাস্টার প্ল্যান রেডি করলো . আমরা কিন্তু এসবের কিছুই জানিনা . প্রতিদিনের মত সেকেন্ড প্রেপ এর পর হাউস অফিস এ গেলাম . আর তখন হাউস মাস্টার এক কান্ড করলেন .. যে হাউস টিউটর ছিলেন ডিউটি তে তাঁকে বললেন চলে যেতে . আমার সাথে তাঁর নাকি জরুরি কথা আছে . আমি তো অবাক . অপেক্ষা করছি আর ভাবছি কি এমন কথা ….এরপর স্যার যা বললেন তা তাঁর ভাষাতেই তুলে দিলাম …..

“””” এই হায়দার মানে তুমি কি খবর রাখো তোমার হাউস এ মানে রাত বিরাতে কি হয় ? মানে কাডেট রা সিগারেট খাইসে আর ভিপি স্যার এর কাসে মানে ধরা পরসে . তুমি মানে আমারে আগে এই সব ক্যাডেট রে ধরাইয়া দিবানা ? এখন হাউস এর মান ইজ্জত তো সব ই গেল. আমরা এই সব ক্যাডেট ধরার জন্য একটা প্ল্যান বানাইসি . ওই প্ল্যান টা আলোচনা তোমার সাথে করার জন্যই টিউটর কে বিদায় দিলাম . বলা যায়না জুনিয়র টিচার তো ক্যাডেট দের সাথে ভালো খাতির . দেখা যাবে সব বলে দিয়ে প্ল্যান বানচাল করে দিবে. (!!!!!!!) যাই হোক , ক্যাডেটরা তো মানে সুইপার আর গ্রাউন্ডস ম্যান দিয়াই সিগারেট আনায় . আমরা দুই নম্বর গেইট এ কিছু ওয়াচ ম্যান বসায়সি . যদি কোনো গ্রাউন্ডস ম্যান বা সুইপার কে বেনসন / গোল্ড লিফ জাতীয় সিগারেট কিনতে দেখা যায়, তাইলে তারে ফলো কইরা ক্যাডেট পর্যন্ত পৌছা যাবে. কি প্ল্যান টা কেমন হইলো বল দেখি ?(!!!!!!!!!) এখন তুমি চিন্তা কইরা আমারে জানাও যে সন্দেহ জনক সুইপার বা গ্রাউন্ডস ম্যান কারে মনে হয় তোমার কাছে . তাহলে ওই দিকে বিশেষ নজর দেয়া যাবে. ঠিক আসে এখন যাও . একটু চোখ কান খোলা রাখো . হাউস লিডার হইসো দায়িত্ব তো কিসু আসে, নাকি?”””
এরপর প্ল্যান টার বারোটা কে বাজাইসে তা নিশ্চই ক্লিয়ার ? হা হা হা .

২,৬৮২ বার দেখা হয়েছে

৪৫ টি মন্তব্য : “ওয়াচ ম্যান”

  1. জুনায়েদ কবীর (৯৫-০১)

    হা হা... :))
    পেরেক রে আমরাও পাইছিলাম...আইটেম একটা... ;))
    শুভ লেখালেখি... :thumbup:

    অফ টপিকঃ লেখা একাধিক প্যারায় দিলে পড়তে আরাম লাগে...পরেরবার একটূ মাথায় রাখিস... :-B


    ঐ দেখা যায় তালগাছ, তালগাছটি কিন্তু আমার...হুঁ

    জবাব দিন
  2. মাসরুফ (১৯৯৭-২০০৩)

    আমার একটা জিনিস আশ্চর্য লাগে,স্যাররা কিভাবে ভাবেন যে একজন ক্যাডেট তার সারাজীবনের সাথী ক্যাডেটদের সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করে তাদের সহায়তা করবে? কি অদ্ভুত ব্যাপার!

    মানে...সিরিয়াস কমেন্ট করছি মানে...সরি...মানে...লেখাটা ভাল হইছে...মানে অনেক মজা পাইছি...

    জবাব দিন
  3. নাজমুল (০২-০৮)

    আমার একটা জিনিস আশ্চর্য লাগে,স্যাররা কিভাবে ভাবেন যে একজন ক্যাডেট তার সারাজীবনের সাথী ক্যাডেটদের সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করে তাদের সহায়তা করবে? কি অদ্ভুত ব্যাপার!

    মানে…সিরিয়াস কমেন্ট করছি মানে…সরি…মানে…লেখাটা ভাল হইছে…মানে অনেক মজা পাইছি
    =))
    (কপি রাইটঃ নাজমুল হাসান) x-(

    জবাব দিন
  4. রহমান (৯২-৯৮)

    ব্লগে স্বাগতম :hatsoff: । এই ব্লগের প্রিন্সিপাল, ভিপি আর এ্যাডজুটেন্ট এসে তোমাকে কিছু শারীরিক কসরৎ করাবে। তার জন্য মানষিকভাবে প্রস্তুতি নাও। 😀

    লেখা ভাল হয়েছে। কিছু বানান এর দিকে লক্ষ্য রেখো। যেমন "স্যার" শব্দটা "সার" লিখেছ? বাড়ি কোথায়? চাপাই নাকি? 😉

    জবাব দিন
  5. মইনুল (১৯৯২-১৯৯৮)

    আমার একটা জিনিস আশ্চর্য লাগে,স্যাররা কিভাবে ভাবেন যে একজন ক্যাডেট তার সারাজীবনের সাথী ক্যাডেটদের সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করে তাদের সহায়তা করবে? কি অদ্ভুত ব্যাপার!

    মানে…সিরিয়াস কমেন্ট করছি মানে…সরি…মানে…লেখাটা ভাল হইছে…মানে অনেক মজা পাইছি

    জবাব দিন
  6. আন্দালিব (৯৬-০২)

    লেখা দুর্দান্ত হয়েছে হায়দার!
    পেরেক স্যার আমাদের ক্লাস সেভেনে হাউস টিউটর ছিলেন, সাথে আমাদের ক্লাসের ইনচার্জ। তো, বাসায় বাবা-মায়ের কাছে চিঠি লেখা নিয়ে বহু যন্ত্রণা দিতেন। ইংরেজিতে লিখতেই হবে, আবার আমার চিঠির ইংরেজি পড়ে বলতেন এত কঠিন করে কেনো লিখলাম! বড়ৈ বৈচিত্র্যময় চরিত্র!!
    আমরা যখন ক্লাস টেন বা ইলেভেনে তখন থেকে উনি আমাদেরও হাউস মাস্টার ছিলেন। খুব ভীতু ভীতু হয়ে থাকতেন বলে মাঝে মাঝে জ্বালাতেন, তবে সব মিলিয়ে মানুষ খুব ভালো ছিলেন।

    লেখা খুবই মজার হয়েছে। আরো চাই। আর পরেরটা লেখার আগে ১০টা ফ্রন্টরোল... :grr: :grr:

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।