বিয়ে(!!??!!)

বিয়ের হিসেব যদি করা হয়, তবে অনেকেরই সময় হয়ে আসছে। আর দেড় বছর পর স্নাতক। তারপর চাকরি। এরপরই শুরু আমার সতীর্থদের একের পর এক বিয়ে। যাদের রুজি-রুটির চিন্তা নেই, তাদের দেখা আবে পরিবার থেকেই দ্রুত বিয়ের ব্যাবস্থা হবে। আমার জনৈক বন্ধুর তো তৃতীয় বর্ষেই বিয়েই হয়ে গেল পারিবারিকভাবে। তিনি ধার্মিক মানুষ। তবে তার স্ত্রী……. x-( . থাক বলব না, আমি তো আর দেখিনি। তবে যারা দেখেছে  তারা বলে যে……..থাক, বাদ দেই, আমি তো আর দেখিনি!  মুঠোফনে মগ্ন বন্ধুদের যদি বলি, “ব্যাপার কী?” বন্ধুরা হেসে উত্তর দেয়, “বউ”।’ পরে শুনি যে এদেরই একজন নাকি আছাড় দিয়ে মুঠোফন নষ্ট করেছে :duel: । “ব্যাপার কী” “বউকে তালাক দিয়েছি।” এই হচ্ছে বিয়ের অবস্থা! এদের অধিকাংশেরই শেষমেশ বিয়ে হবে পারিবারিক পছন্দে। জেষ্ঠদের অবস্থা দেখে অন্তত এটাই প্রতীয়মান হয়। ক্লাসের পেছনে(backbench) বসে যখন এটা লিখছি, তখন সামনে যিনি পাঠ দান করছেন, তিনি সম্প্রতি “একলা” থেকে “দোকলা” হয়েছেন। তার মাঝে ইদানিং বেশ “শের-এ-খুলনা” জাতীয় ভাব এসেছে। আগে অবশ্য………(পুরুষ জাতীর লজ্জা).। তো তাকে দেখলে একটা কথা মনে আসে, “বাসর রাতে বিড়াল মার” জনাব বোধহয় সেটাই করেছেন।যুগ পাল্টাচ্ছে, সব আধুনিক হচ্ছে , আমাদের সময় দেখা যাবে,  “বাসর রাতে পি.সি ভাঙ”,   বধূবেশে সজ্জিত বউ বসে আছে, এমন সময় ভারী CRT MONITOR হাতে বরের প্রবেশ। মনিটরটা মাথার উপর তুলেই তারপর মাটির ওপর ধপাস…….। আরে, প্রবাদ কখনও পালটায় না। বিড়াল মারাই সই। বরের হাত বা কোমরে জোর কম থাকলে নিজেই ধপাস হবার সম্ভাবনা! :brick: সেরকম হলে বউ সারাজীবন “শেরনি-এ-(আপনার এলাকা)” হয়ে যাবে। সুখী বিবাহিতরা সংসার জাতীয় জ্ঞান বিতরনে সুখ বোধ করেন। অমন সুখ বোধ হয় প্রকৃতির ডাকেও নেই। একজন বলছেন, “blah blah blah etc etc….”। ওরে বাপ, বাইশ বছর বয়সি তরূণকে এই সাংসারিক জ্ঞান দেয়ার কি দরকার ছিল? তো আমিও কম যাই না, জিজ্ঞেস করলাম বিড়াল মারার ব্যাপারে। উনি বললেন কন দরকার নেই। আসলেই তো, বিড়াল যেমন বজ্জাত, ওটা নিয়ে বাসর ঘরে ঢোকার পর যদি অমন সুন্দর শেরওয়ানী/পাঞ্জাবীতে ইয়ে করে দেয়, আপনি শেষ। সারাজীবন বৌয়ের কাছে “বিল্লি” অপবাদ, খুব ভাল হবে কি ব্যাপারটা? ঘোড়া ডিঙিয়ে অনেক ঘাস খাওয়া হল। আসুন আগে ঘোড়ার পিঠে চড়ি। সবার মাথায়ই বিয়ের ব্যাপারটা আছে। কোন রোমান্টিক ছবি দেখলেই, “উফ! কবে যে বিয়ে করব!” আমি নিজেও এর বাইরে নই। কারন আমি আর দশজন একবিংশ/দ্বাবিংশ বয়সী তরুণের মতই। নিজের পায়ে দাড়ানোটা খুব জরুরী। পাঠক, ভাল থাকুন। শুভ দিন। O:-)

৪ মার্চ, ২০১২

সকাল ৯:২৭

Engineering Metallurgy class

বি.দ্র- বিবাহিতরা কেউ  মাইন্ড  করবেন না দয়া করে। যদি মাইন্ড  করেই  থাকেন, তাহলে এই যে

:frontroll:

১,১৭৪ বার দেখা হয়েছে

১২ টি মন্তব্য : “বিয়ে(!!??!!)”

  1. মুসতাকীম (২০০২-২০০৮)

    তুই দেখি ম্যালা জ্ঞানার্যন কইরা ফেলছিস :grr: :grr: :grr:
    লেখা ভালো ছিল =)) =)) =))
    দোস্ত নামটা বাংলা কইরা দে 🙂


    "আমি খুব ভাল করে জানি, ব্যক্তিগত জীবনে আমার অহংকার করার মত কিছু নেই। কিন্তু আমার ভাষাটা নিয়ে তো আমি অহংকার করতেই পারি।"

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।