আহ্বান

প্রিয়তমা,
তোমার রাগ ভাঙানোর সময় নেই এখন,
এখন জ্বলে পুড়ে ছারখার হয়ে যাওয়া আমাদের মানবতা
কি নিদারুন পাশবিকতায় ধ্বংস যজ্ঞ চালায় বিধর্মীর ঘরে ঘরে।
প্রিয়তমা,
আমার বাংলা এখন সীমান্ত নদীর মত খরস্রোতা
আগ্নেয় গিরির মত উত্তপ্ত
আর গন্ধক ফলের মত অভিশপ্ত।
এখন রাজপথের ধুলো মাখা কবিতার প্রত্যেকটি শব্দ,অক্ষর মধ্যঅন্ত্যমিল
অজস্র কান্নার বৃষ্টিতে ভিজে একাকার।
প্রিয়তমা,
আমাদের বয়ে চলা সময়ে এখন নিদারুন অস্থিরতা,
এখন রক্তে আগুন লাগা অভিমানের চাপা কান্নায়
অনুভূতির দেয়াল জুড়ে নিকষ বেদনার বুনো আঁধার।
এখন অজস্র নিরীহ সংখ্যা লঘু চোখে ভয়াবহ আতঙ্ক।
ধর্মের অনুভূতি অজস্র প্রতিশ্রুতির দেয়াল ভেঙে
ভুল পথে ধাবমান।
এসবের মাঝে তোমার অভিমান
নিতান্তই সামান্য নয় কি?
প্রিয়তমা,
এখন ই রাজপথে নামার সময়,
আসাম্প্রদায়িক চেতনায়
জেগে ওঠার সময়,
এখন ই ভগবান আর আল্লাহকে এক করার সময়,
এখন ই আমার পাশে থাকার সময়।
তোমার আঁচলের প্রত্যেকটি সুতোয় বোনা
অবিচ্ছিন্ন আবেগে
আরো একবার বিষন্ন বাংলাকে ঢেকে দেবার সময়।
এখন কোন কবিতা নয় প্রিয়তমা,
কঠিন গদ্যে প্রতিবাদ মুখর আমাদের ভাষা
এখন অজস্র উস্কানীতে জাগিয়ে দেবে তারুন্য কে।
এখন মুক্ত চিন্তার আকাশে বাতাসে
হবে বজ্রপাত,হবে সুপার নোভার বিস্ফোরন।
এখন অবরুদ্ধের কন্ঠস্বর তোমার কন্ঠে কন্ঠে রেখে
বলবে ভালোবাসার কথা।
প্রিয়তমা এখন শান্ত নয় শান্তি খোঁজার সময়,
বিশ্ব জুড়ে শান্তি খোঁজার সময়
বাংলা জুড়ে শান্তি খোঁজার সময়
তোমার চোখের মাঝে শান্তি খোঁজার সময়।
অজস্র সীমাবদ্ধতাকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে
ভালোবাসা জড়িয়ে গায়
প্রিয়তমা তুমি চলে এসো, চলে এসো রাজপথে
শব্দ বিহীন পায়. . . . . . .

রামুতে ঘটে যাওয়া ঘটনার প্রাসঙ্গিকতায়

রাব্বী আহমেদ

৫৭৫ বার দেখা হয়েছে

৮ টি মন্তব্য : “আহ্বান”

  1. নূপুর কান্তি দাশ (৮৪-৯০)

    রাব্বী,
    তোমার কবিতায় শুভ বোধ দেখে আশাবাদী হতে ইচ্ছে করে। এতদিনে একবারো নিরাশ হইনি কখনো।কিন্তু এবারে যেনো একেবারে ভেঙে পড়েছি।কোথাও কোন আশা দেখতে পাচ্ছিনা আমার।মনে হচ্ছে বাংলাদেশ আর শুধরোবেনা।এটা বোধ হয় শুধু আমারি মানসিক সমস্যা।ভীষণভাবে চাই আমার এ মনে হওয়া ভুল প্রমাণিত হোক।

    জবাব দিন
  2. দিবস (২০০২-২০০৮)
    কি নিদারুন পাশবিকতায় ধ্বংস যজ্ঞ চালায় বিধর্মীর ঘরে ঘরে।

    "বিধর্মী" শব্দটা চোখে লাগে কানেও লাগে। 'বিধর্মী' আর ভিন্ন ধর্মীর মধ্যে পার্থক্য আছে। যেমন পার্থক্য আছে "বিপথে যাওয়া " এবং "ভিন্নপথে যাওয়া" এই দুটি বাক্যের মধ্যে।

    প্রতিদিনের কথা বলার সময় নিজের অজান্তেই বিধর্মী শব্দটা অনেকেই ব্যবহার করে,কিন্তু ভেবে দেখা উচিৎ শব্দটা যাদের উপর প্রয়োগ করা হচ্ছে তারা কি খুব স্বাভাবিক ভাবে নিচ্ছে?নেওয়াটা উচিৎ নাকি?এবং আসলে শব্দটার বিশ্লেষণ করলে কি দাঁড়ায়?হিন্দু,বৌদ্ধ এরা বিধর্মী না বরং ভিন্ন ধর্মী।


    হেরে যাব বলে তো স্বপ্ন দেখি নি

    জবাব দিন
      • দিবস (২০০২-২০০৮)

        তুমি কি বুঝাতে চাইছ সেটা আমি বুঝছি।কিন্তু "বিধর্মী" কথাটার বিশ্লেষণ করে দেখ বেধর্মী আর বিধর্মী তে খুব বেশী তফাৎ পাই না।কাঠমোল্লারা খুব বেশী ব্যাঙ্গাত্নক অর্থে বেধর্মী ব্যবহার করে হয়তো,কিন্তু বিধর্মী শব্দটা শিক্ষিত লোকজনেরা না জেনেই নিজের অজান্তেই ভুলভাবে ব্যবহার করে।বিধর্মী আর ভিন্নধর্মী শব্দ দুটোর মধ্যে পার্থক্য খুঁজে পাও?যেমনটা পাও বিপথ আর ভিন্ন পথ এদুটোর মধ্যে?


        হেরে যাব বলে তো স্বপ্ন দেখি নি

        জবাব দিন
  3. শেখ সাদী (০৬-১২)

    অজস্র সীমাবদ্ধতাকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে
    ভালোবাসা জড়িয়ে গায়
    প্রিয়তমা তুমি চলে এসো, চলে এসো রাজপথে
    শব্দ বিহীন পায়. . . . . . .

    অসাধারণ! কোন এক সময় আমি প্রচুর কবিতা পড়তাম,(লিখারও চেষ্টা করতাম, কবিতা হত কিনা জানিনা), ভালবাসতাম কবিতাকে, তার পর ছুটি দিলাম কবিতাকে, নূপুর'দার কবিতা ছাড়া বহু দিন কবিতা পড়া হয়নি! আজ পড়লাম এবং মনে হল......... ফিরে আসার সময় হয়তো হয়েছে! অনেক ধন্যবাদ! এটা না পড়লে হয়তো কবিতার সাথে আমার অকারণ অভিমান থেকেই যেত!


    \"why does the weasel go pop? does it matter?
    if life is enjoyable, does it have to make sense?\"

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।