টুকলিফাইং-০২

তুমি স্বর্ণের বর্ণ চুরি করে তোমার অঙ্গে লুকিয়ে রেখেছ। চন্দ্রের কিরণ চুরি করে রেখেছ তোমার চন্দ্রাননে। মদনের ধনুকটা চুরি করে রেখেছ তোমার নিজের ভুরুর মাঝখানে। বনের হরিণীর কাছ থেকে তুমি হরণ করেছ তোমার চোখদুটি। পক্ক বিম্ভের শোভা চুরি করেছ তমার ওষ্ঠে। সাদা বেগুনের মসৃণতা চুরি করেছ তোমার চিবুকে। কোন মরালীকে নিঃশ্বেষ করে তৈরী করেছ তোমার গ্রীবা। সিংহের কাছ থেকে চুরি করেছ তোমার কোমরের খাঁজ। গজের কাছ থেকে চুরি করেছ তার গতি।

সুন্দরী রাধা, তুমি সরোবরময়ী। তোমার দেহের লাবণ্য তোমার জল, কুন্তলদাম যেমন তার শৈবাল, তোমার বদন একটি পদ্ম, তোমার নয়নদুটি নীলকান্তমণি, নাসিকা যেন স্রোতে ভাসা তিল ফুল। তোমার দুইগালে যেন মহুয়া মাখা। তোমার হাসিতে যেন লোধ্রোরেণু – রাধা, তুমি তো একবারো হাসোনি…

(রাধা-কৃষ্ণ / সুনীল গাঙ্গুলী)

৪,৩০৪ বার দেখা হয়েছে

৫২ টি মন্তব্য : “টুকলিফাইং-০২”

  1. বস
    যতোদূর মনে পড়ে আরো কিছু উপমা ছিলো, রাধার অন্যসব অংগ-প্রত্যংগ নিয়ে। ইচ্ছা কইরা বাদ দিছেন নাকি? 😉
    আমি অনেক আগে পড়ছিলাম, আমার ভুলও হইতে পারে। 😀

    জবাব দিন
  2. তাইফুর (৯২-৯৮)

    মাহফুজের লেখায় কমেন্ট কইরা লাভ কি ??
    কুন লেখাতেই কমেন্ট'এর ফলোয়াপ করেন না উনি। :no:


    পথ ভাবে 'আমি দেব', রথ ভাবে 'আমি',
    মূর্তি ভাবে 'আমি দেব', হাসে অন্তর্যামী॥

    জবাব দিন
  3. ফয়েজ (৮৭-৯৩)
    গজের কাছ থেকে চুরি করেছ তার গতি।

    এইটা কোন গজ? গজ=হাতি তো জানি। এইটার আবার গতি আছে নাকি। ক্যাম্নে কি? 😕

    কবিদের নিয়া এই এক মুস্কিল। কি কি কয় বুঝি না।


    পালটে দেবার স্বপ্ন আমার এখনও গেল না

    জবাব দিন
  4. আহসান আকাশ (৯৬-০২)
    মরালীকে নিঃশ্বেষ করে তৈরী করেছ তোমার গ্রীবা।

    বাংলা ব্যকরনে বরাবরই একটু দূর্বল তাই একটা ডাউট ছিল... এখানে মরালী বলতে কি বুঝানো হয়েছে, আমার মাথায় তো মুরালীধরণ বাদে আর কিছু আসছে না... :-B


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।