এক মানবী কতটা আর কষ্ট দিবে?

মাঝে মাঝে কিছু কবিতা পড়ে চমকে উঠে। আমি যদি কবি হতাম তাহলে ঠিক এই কথাগুলোই আমার হাত দিয়ে বের হত। তখন ঠিক কেমন লাগে কাউকে বুঝানো যাবে না। আনমনা হয়ে পড়ি। যখন খেয়াল হয় তখন বার দশেক কবিতাখানা পড়া হয়ে গেছে। খুব কাউকে শোনাতে ইচ্ছে করে। কবিতার ছলে বলা নিজের অনুভূতি। হেলাল হাফিজ আমার সবচেয়ে পছন্দের কবি। তার যতগুলো কবিতা পড়েছি মনে হয়েছে এ তো আমার কথা।

প্রস্থান
– হেলাল হাফিজ

এখন তুমি কোথায় আছ, কেমন আছ? পত্র দিও।

এক বিকেলে মেলায় কেনা খামখেয়ালীর তালপাতাটা
খুব নিশীথে তোমার হাতে কেমন আছে পত্র দিও।
ক্যালেন্ডারের কোন পাতাটা আমার মত খুব ব্যথিত
ডাগর চোখে চেয়ে থাকে তোমার দিকে, পত্র দিও।
কোন কথাটা অষ্টপ্রহর কেবল বাজে মনের কানে,
কোন স্মৃতিটা উস্কানি দেয় ভাসতে বলে প্রেমের বাণে
পত্র দিও , পত্র দিও।

আর না হলে যত্ন করে ভুলে যেয়ো, আপত্তি নেই।
গিয়ে থাকলে আমার গেছে , কার কি তাতে?
আমি নাহয় ভালবেসে ভুল করেছি, ভুল করেছি
নষ্ট ফুলের পরাগ মেখে
পাঁচ দুপুরে নির্জনতা খুন করেছি, কি আসে যায়?

এক জীবন কতটা আর নষ্ট হবে,
এক মানবী কতটা আর কষ্ট দিবে?

১৬ টি মন্তব্য : “এক মানবী কতটা আর কষ্ট দিবে?”

মওন্তব্য করুন : ফয়েজ (৮৭-৯৩)

জবাব দিতে না চাইলে এখানে ক্লিক করুন।

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।