স্বপ্নবাজ

মানুষ নাকি ভাবে এক আর হয় আরেক। অনেকে নাও মানতে পারেন কিন্তু আমি মানি। কারণ ভাবতে ভাবতেই অনেকটা সময় পার করেছি একদা। সেই ভাবনার ফলগুলো যে মিঠা হয় নাই একথা মুখ বন্ধ করেও বলতে পারি। মানে চোখ বন্ধ করে মাথা এক পাশে কাত, এইবার বোঝতে পেরেছেন-ত। দিন যায়; নিত্য-নতুন মানুষ আসে, সাথে ইংরেজীতে জেনারেশন বদলে যায়। মানুষগুলো ‘ইয়ো’ থেকে ‘ইয়োতর’ হয়ে যায়। স্বপ্নগুলোর রংও বদলায় চাহিদার সাথে। এখনকার মানুষগুলো দিবাস্বপ্ন আরো বেশি দেখে। পেপারে পড়লাম কোন এক কিশোর বল বয় নাকি টেনিস সুন্দরী আনা ইভানোভিচকে লিখিত বিয়ের প্রস্তাব দিয়েছে। সুন্দরীও এক কাঠি সরেস, “তুমি বড় হও, বড় হয়ে আমাকে বিয়ের প্রস্তাব দিও” :dreamy: । পাকিস্তানের ক্রিকেট টিম যখন বাংলাদেশে আসল; শহীদ অফ্রিদিকে উদ্দেশ্য করে বাঙালী ললনার “ম্যারি মি” প্লাকার্ড নিশ্চয় অনেকের চোখে পরেছিল টিভিতে।

ইংরেজ মহাশয়রা জেনারেশন শব্দটার উৎপত্তি করে কি অঘটনটাই ঘটালেন!! বাইরে যাব না ঘরেই থাকি। নানী এসেছেন বাসায়, উদ্দেশ্য চিকিৎসা করাবেন ঢাকায়। আমিও আই.ইঊ.টি-এর দেশখ্যাত ম্যারাথন ছুটিতে, নানীও নিজ পরিবার থেকে ছুটিতে। দুইজনে বেশ মিলেছে, একসাথে বসে টেলিভিশনের উপযোগ তুলি। একটা খবরে লাইভ দেখালো গাজাতে ইসরাইলীদের হামলা, কয়েকজন রক্তাক্ত ফিলিস্তিনিকে দেখা গেল। নানীকে বললাম, “বোঝলেন নানী এটা এখন চলছে” :-B । একটূপর ছোটটা এসে কাচুমাচু করে বলল সনিতে CID দেখবে। এমনে তার চান্স নাই, তাও একটু ভাব মেরে দিলাম আরকি। কিছুক্ষণ পরেই কংকাল দেখালো সেখানে, নানী বললেন,”এত তাড়াতাড়ি কংকাল হয়ে গেল”। আমি আর কিছু বলি না, এই বার শুধু মাথা নাড়ি; উপর-নিচ 😐 । এরপর যেটাই জিজ্ঞেস করেন আমার মাথা উপর-নিচ। সাথে আমার এম টিভিতে ধুম ধারাক্কা নাচ-ও বনধ। 🙁

ছোটকালের অনেক কিছুই নাকি মনে থাকে না, হক কথা। তবে স্বপ্নগুলোর কথা মনে আছে বেশ। বড় ভাইয়ের সাথে আমার বয়সের পার্থক্য দেড় কি পৌনে দুই বছরের, সোজা বাংলায় পিঠাপিঠি ভাই। মারপিটের কোন কমতি রাখতাম না দুইজন। সুতরাং বাচচা পয়দা ভুলেও যেন পিঠাপিঠি না হয়। সাবধান… টাইমিংটা যেন ঠিক থাকে। অবশ্য লাভও আছে, সম্পর্কটা হয় বন্ধুর মত। কিন্তু আপনারা-ত আর ভাই-বোন হবেন না, হবেন বাপ অথবা মা। থাক এই বিষয় আর না বাড়াই। কথা হচ্ছিল স্বপ্ন নিয়ে!! বড় ভাইয়ের ছোটবেলার স্বপ্ন ছিল নাপিত হবে। কারণ জিজ্ঞেস করাতে জানা গেল নাপিত হলে নাকি প্রেসিডেন্ট, জেনারেল এদের মাথা ধরা যায়। কথাটা ভুল বলে নাই কি বলেন? 😀 আমার স্বপ্ন ছিল দুইটা। ছোটবেলায় হতে চেয়েছিলাম লজেন্সের দোকানের দোকানদার :party: । ভাবতাম আহা দোকানদারের কত্ত সুখ, ইচ্ছে হলেই বয়াম খুলে গপাগপ খেতে পারে। আরেকটু বড় হয়ে যখন পাকলাম ইচ্ছে হ্ল সিনেমার নায়ক হব B-) , আর নায়িকা বানাবো ক্লাসের ঐ মেয়েটাকে 😡 । এক যুগ পরে জন্ম নেওয়া ছোটটাকে স্বপ্নের কথা জিজ্ঞেস করলে স্মার্টলি বলে, “জানি না”। আমরা না হয় ডি-জুশ জেনারেশন, এই পোলা কি হবে কে জানে!! :-/

নায়ক কিংবা লজেন্সের দোকানদার কোনটাই হওয়া হল না। গুনীজনরা ঠিকই বলেন, “আল্লাহ যা করেন ভালর জন্যই করেন”। সাত ঘাটে নাকানি-চুবানি খেয়ে একজন সার্টিফিকেটধারী মেকানিক হচ্ছি। আমার স্বপ্নের কথা-ত জেনেই ফেললেন। এবার আপনাদের পালা। কমেন্ট আকারে আমাদের সাথে শেয়ার করুন সেই পূরণ না হওয়া ছোটবেলার কল্পনাপ্রসূত স্বপ্নগুলোর কথা। জানি ফ্যান্টাসি ছিল সেগুলো, কিন্তু নিষ্পাপও ছিল। এখনকার স্বপ্নগুলোর মত এত স্বার্থ ছিল না তাতে। অতএব শুরু করুন……

৩,৬০০ বার দেখা হয়েছে

৫০ টি মন্তব্য : “স্বপ্নবাজ”

  1. কামরুলতপু (৯৬-০২)

    স্বপ্ন দেখতাম আমার একটা বড় আপু আছে আমাকে অসম্ভব আদর করে। আর স্বপ্ন ছিল ডাক্তার হব কিন্তু হচ্ছি কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার। আরেকটা স্বপ্ন ছিল বাসায় আমার নিজের একটা রুম থাকবে সেখানে একটা বিশাল তাক ভরা শুধু গল্পের বই থাকবে, এই স্বপ্ন এখনো দেখি।

    জবাব দিন
    • হাসনাইন (৯৯-০৫)
      স্বপ্ন দেখতাম আমার একটা বড় আপু আছে আমাকে অসম্ভব আদর করে

      এটা আমি আগেই সন্দেহ করছিলাম ভাই। :thumbup:

      আরেকটা স্বপ্ন ছিল বাসায় আমার নিজের একটা রুম থাকবে সেখানে একটা বিশাল তাক ভরা শুধু গল্পের বই থাকবে, এই স্বপ্ন এখনো দেখি।

      এটা মনে হয় অচিরেই পূরণ করতে পারবেন। আমারে আপনার লাইব্রেরীতে একটূ চান্স দিয়েন ভাই, জীবনে বই বহুত কম পড়ছি। 🙁

      জবাব দিন
  2. ফয়েজ (৮৭-৯৩)

    এর আগে কার যেন একটা পোষ্টে কমেন্টে কইছিলাম কি হইতে চাইছিলাম।

    যাউজ্ঞা, আবার কই, প্ল্যান ছিল ফুটবলার হমু, ঢাকা ষ্টেডিয়ামে ফুটবল খেলুম আবাহনীর হইয়া।

    প্ল্যান মত কুনু কাম হয় নাইক্যা।


    পালটে দেবার স্বপ্ন আমার এখনও গেল না

    জবাব দিন
    • আহসান আকাশ (৯৬-০২)

      ফয়েজ ভাই, স্বপ্নতো এক্কেবারে ১০০% কমন পইড়া গেল, ক্যাম্নে কি? 😕

      স্বপ্ন ছিল আবাহনীর গোলকিপার হবো...ICCFM এ কলেজ টিমের গোলকিপার পর্যন্ত হইতে পারছিলাম। 🙂


      আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
      আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

      জবাব দিন
      • ফয়েজ (৮৭-৯৩)

        😀

        আমারটা শুনবা, আমি যদিও কলেজ ফুটবল টিমে ছিলাম কিন্তু আমদের সময় প্রথম শুরু হইছে ইন্টার কলেজ গুতাগুতি। এর আগে তো হইত না। আমরা পাইছি ভলিবল আর বাস্কেটবল। আমি ছিলাম ভলিবলে।

        প্রথমেই ধরা, হইতে চাইলাম ফুটবলার, হইলাম ভলিবলার।


        পালটে দেবার স্বপ্ন আমার এখনও গেল না

        জবাব দিন
  3. তৌফিক (৯৬-০২)

    আমার ছেলেবেলার স্বপ্ন ছিল জলদস্যু হওয়া। ট্রেজার আইল্যান্ড পড়েই মনে হয় জলদস্যু হওয়ার শখ হয়েছিল। কৈশোরে হতে চাইতাম পাইলট-প্লেনের পাইলট। তারুণ্যের স্বপ্নটুকু না বলি। যৌবনের স্বপ্ন এখন, ভালো একজন ইঞ্জিনিয়ার ও ফ্যামিলি ম্যান হওয়া।

    এই তো। স্বপ্ন তাড়া করতে করতেই জীবনের ২৫ টি বসন্ত চলে গেল।

    জবাব দিন

মওন্তব্য করুন : জিহাদ (৯৯-০৫)

জবাব দিতে না চাইলে এখানে ক্লিক করুন।

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।