কতিপয় ডায়লগ (ফাইনাল টাচ)

ক্যাডেট আছে আর ডায়লগ থাকবেনা এও হয় নাকি। ডায়লগ নিয়ে লেখা শুরু করেছিলাম। এখন অনেক লেখা দেখছি। সাবাস ক্যাডেট।।আনেক ডায়লগ আছে খুব জটিল কিন্তু এখন মনে পড়ছে না। যেগুলো মনে পড়ছে দিলাম। সংখ্যাগরিষ্ঠদের ভালর জন্য আমি কারও নাম দিলাম না।
(দিলেও কাল্পনিক নাম)

প্যারেড গ্রাউন্ড, সব ক্যাডেট প্যারেড নিয়ে ব্যাস্ত। এডজুটেন্ট স্যার দেখতে এসেছিলেন। ক্যাডেটরা তাদের স্বভাবসুলভ লুকিয়ে ফাজলামি নিয়ে ব্যাস্ত। কিন্তু স্যারের চোখ এড়ানো যায়নি।এমতাবস্তায় এডজুটেন্ট স্যার তখন ফায়ারঃ
“f******!!!! who is laughing there?”
আর তখন আমাদের বিজ্ঞ হাঊস ষ্টাফের বিজ্ঞ ঊক্তিঃ
“এই!! লাফাইতেসে কে? লাফাইতেসে কে?

আমাদের রসায়ন পড়াতেন এ ফরমের ফর্ম মাস্টার। উনার লেকচার উনি ছাড়া আর কেউ শুনতে পারত বলে কখনও শুনি নাই। ক্লাসে আসতেন বিড়বিড় করতেন আর ফ্লাইং কিক মারতেন(এ প্রসংগে পরে বলব)।
উনি একদিন ক্লাস শেষে একজন একজন করে সবাইকে বলছিলেন,
প্রথম জনকেঃ “তুমি বুঝছ”
দ্বিতীয় জনকেঃ “তুমি বুঝছ”
তৃতীয় জনকেঃ “তুমি বুঝ নাই, তুমি বুঝবাও না, বুঝার চেষ্টাও কইর না” (আমরাও আর বৃথা চেষ্টা করি নাই)

কলেজে নতুন জয়েন্ট করা স্যার, ক্যাডেটদের মত ডজ মারতেন। ভি.পি. স্যার ওনাকে জ্বলাতেন। আর তাই ভি.পি. স্যারের প্রতি বিরক্ত নতুন স্যারের উক্তিঃ
“ওরে লইয়া মুশকিল ” (হুমম… স্যার আমার মনের কথাই বলেছিলেন, thank you sir)

এক ক্যাডেট আর এডজুটেন্ট স্যারের কথোপকথন,
এডজুটেন্ট স্যারঃ “whats ur name?”
ক্যাডেটঃ “ahsan sir”
এডজুটেন্ট স্যারঃ “what ahsan? sweeper ahsan?”

-আমার এক ক্লাসমেট কলেজ থেকে বের হওয়ার পর এককের পিকনিকে কলেজে গেছে। যথারিতি বিকালে কলেজের সাথে ফুটবল ম্যাচ।কলেজের সদ্য JP রা খুব জুনিয়র কন্ট্রোলে ব্যস্ত। দুনিয়াতে এর চেয়ে বোধহয় বড় কাজ আর হয়না ভাবটাই এমন।তিতাস হাউসের জনৈক জে.পি আমার সেই ক্লাসমেটের কাছে এসে বিশ্বজয়ের ভঙ্গিমায়ঃ
“ভাইয়া আমি JP হইছি ” (ছেলে আমার বড় হবে, হি হি হি)

১,২৫৯ বার দেখা হয়েছে

১২ টি মন্তব্য : “কতিপয় ডায়লগ (ফাইনাল টাচ)”

  1. ডায়লগের ব্লগুগুলা পড়তেই সবচেয়ে মজা লাগে। এইটা পড়েও মজা পাইলাম।

    আর পাশে দেখলাম এই ব্লগের হিট সংখ্যা "৩০০০" হয়েছে। সবাইকে এত্তো এত্তো হিট করার জন্য কোটি কোটি ধন্যবাদ। অবশ্য এই হিটগুলা শুধু তাদের করা যারা এখনও অথর হন নাই।

    যারা হইছেন তাদের হিট তো আর যোগ করার কিছু নাই। যা বুঝতাছি তারা এই ব্লগ ছেড়ে উঠতেই পারেন না। তাদেরটা যোগ করলে প্রোগ্রাম হ্যাং করতো বোধ হয়।

    জবাব দিন
  2. আবিদ (০২-০৮)

    এখানে সব গুলা ডায়লগই স্যার , স্টাফ বা অ্যাডজুটেন্টদের করা । একটি ক্যাডেট দের করা ডায়লগ বলি । বিকালে টী টেবিলের কাহিনী । তখন নতুন নতুন ক্লাস ইলেভেন এর ভাইরা এসেছেন । তারা সবসময়ই টেবিলে খুব গম্ভীর মুখে বসে থাকেন আর সময়ে সময়ে জুনিঅরদের এটা ওটা পাস দিতে বলেন ।
    নিয়ম ছিল সবাই প্রথমে নাস্তা করবে , তারপর চা খাবে । কিন্তু সিনিয়ররা অনেকেই আগে চা খায় পরে নাস্তা খায়, সাধারনত সিনিয়রিটি দেখানোর জন্য । তো ইলেভেন এর ভাই যথারিতী গম্ভীর মুখে বসে জুনিঅরের কাছে চা খাওয়ার জন্য কাপ পাস চাইছেন : 'ইউ, কাপ দ্য পাস ।'

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।