কতিপয় ডায়লগ(২য় পর্ব)

আমি ঝামেলা এড়ায়ে চলি। আর এর জন্য আমার বিশেষ খ্যাতি আছে!!! তাই নিচের ডায়লগ পরে কেউ যদি মর্মাহত হন, আমি এর দায়িত্ব নিতে মোটেও রাজি না। তাই সবাই নিজ দায়িত্বে পড়ুন…।আমার উদ্দেশ্য আনন্দ দেওয়া, কষ্ট দেওয়া নয়।

-অতি জ্বালানোয় অতিষ্ঠ আমাদের এক ক্লাসমেটঃ
“দেখ্‌ দেখ্‌….., আমি কিন্তু গালি দিব” (আমি ত মনে করলাম না জানি কি করবে!!!)

-মাঝখানে আমাদের কলেজে স্যারদের ক্যাডেটদের সাথে ইংরেজিতে কথা বলার নির্দেশ দেওয়া হয়। এমনই
অবস্থার করুণ শিকার এক স্যারের উক্তি, যখন এক জুনিয়র ক্যাডেট আমাদের এক ক্লাসমেটের সাথে দেখা করতে
আসেঃ
“junior!! what junior!!! give him go back” (স্যারের জন্য আমার মায়াই হয়েছিল…।)

-সেই একই স্যারের কাছে ধরা খাওয়া আমার এক ক্লাসমেটের প্রতিঃ
“i will throw u from the window to the door” (হুমম…চেষ্টা করে দেখতে পারেন যদি লাইনের আগা মাথা খুঁজে পান)

-ক্লাস সেভেন এর কথা, আমাদের হাউস ষ্টাফ ছিলেন………। তিনি আমাদের প্রায় সময় ডজ্‌ দেয়ার
চেষ্টা করতেনঃ
“এই প্রেট প্রেট, ডানেএএএপ ঘুরপেপ, বামেএএএএএএএ[লম্বা টান যাতে সবাই দ্বন্দ্বে পরে]……..,এই ঘুরসে কে? ঘুরসে কে?”
[আর এই ডজ্‌ খাইলে কোন মাফ নাই] (পানিষ্মেন্ট দেওয়ার কতই না পলিসি!!!)

-আরেক স্যারের কথা যিনি ক্যাডেট পাইলেই হল, নিজের “ঝেনাইদাহ”-র হিস্টোরী তাকে শুনাতেই হবেঃ
“আমি ছেলাম ঝেনাইদাহ্‌, ঐখানে আমার এক ক্যাডেট ছেল…[তারপর বিস্তারিত]” (হায়রে “ঝেনাইদাহ”, হায়রে স্যার)

-কলেজের নতুন স্যার, গায়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের গন্ধ যায় নি তখনো। ক্যাডেটদের সাথে ফ্রি হতে হবে তাকে, তা না হলে
তার জনপ্রিয়তার ঘাটতি হবে!! আর ক্যাডেটরাও কম যায় না, পাইছে ঠিকমত। আমাদের সবারি স্ত্রীজাতির প্রতি আগ্রহ তখন তুমুল পর্যায়ে, তাই আমাদের প্রশ্নও ঘুরেফিরে একই। তাই স্যারকে যখন সবাই তার বান্ধবীর কথা জিজ্ঞেস করল, স্যারের উক্তি ছিলঃ
“আরে মিয়া বয়সটাই এমন ছিল, রাস্তা দিয়া নেড়ি কুত্তা হাইটা গেলেও ভাল লাগত” (স্যারের উক্তির যথার্তথা এখন টের পাচ্ছি)

-আমার মেঘনা হাউসের এক ক্লাসমেট সদ্য কলেজে ঢুকা নতুন এক ম্যাডামের মধ্যে কি পেয়েছিল কে জানে? সে চান্স পাইলেই ম্যাডামকে বিরক্ত করত। একদিন ম্যাডাম ডি.এম. ছিলেন, তখন দুপুরবেলা, প্রেপে যাওয়ার টাইম হয়ে গেছে তাই সবাইকে তাড়া দিচ্ছিলেন।এমন সময়ে আবির্ভাব আমার সেই ক্লাসমেটের। ম্যাডাম তখন গোমতী হাউসে(দ্বিতীয় তলা) আর আমার ক্লাসমেট তখন মেঘনাতে(তৃতীয় তলা) একটার পর একটা গান গেয়ে যাচ্ছে ম্যাডামকে উদ্দেশ্য করে। বিরক্ত ম্যাডামের তখন হুমকিঃ
“কোন কুত্তা গান গায়? সাহস থাকলে সামনে আয়” (বলাই বাহুল্য আমার ক্লাসমেটের সেই সাহস হয় নাই )

-নতুন ক্লাস সেভেন তখন আমরা। এক সিনিয়র ভাই জুনিয়র প্রিফেক্ট হয়েছিলেন মাত্র তাই হাবভাব অন্যরকম। আমাদের এক সিনিয়র ভাইকে ডেকে তার সদম্ভ উক্তিঃ
“এই bitch!! তোদের ক্লাসে কয়টা bitch রে?” (sorry bhai)

(আর চলবে কিনা জানিনা, এম্নিতেই অনেকেই রেগে গেছে…হি হি হি)

২,২০২ বার দেখা হয়েছে

১৯ টি মন্তব্য : “কতিপয় ডায়লগ(২য় পর্ব)”

  1. ভাল হচ্ছে। চালায়া যা। আমাদের কলেজের ডায়ালগগুলা নিয়াও ব্লগ শুরু করা যায়। তবে কি-না আমার সেগুলো হুবহু মনে নাই। জিহাদ বা তুহিনের অনেক কিছুই মনে আছে বোধহয়।

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।