কতিপয় ডায়লগ(১ম পর্ব)

আমি মানুষের ভাল চাই!! তাই খারাপ কাজটা করতে পারলাম না। নামগুলো আড়ালেই থাকল……

– তিতাস হাউসের আমাদের এক ক্লাসমেট ঝগড়ারত অবস্থায়ঃ
“রক্ত বাইর করতে সময় লাগে না”(আমি আগে আসলেই জানতাম না)

-আমাদের জ্বালায় অতিষ্ঠ সেই একই ক্লাসমেটঃ
“আমি তোকে কুপন(ক্যাডেটদের টাকা) দিব তুই আমাকে মুক্তি দে”(হু! বাছাধন মুক্তি পাওয়া অত সহজ)

– জনৈক স্যার ক্যাডেট মেসে এক ক্যাডেট উদ্দেশ্যেঃ
“খাও এক চুমুক বিস্কুট, এক কামড় চা”( আমি কখনই চেষ্টা করিনি, আপনি?)

-আন্তঃক্যাডেট কলেজ বাস্কেটবল প্রতিযোগীতায় মাসল পুল এর শিকার
তিতাস হাউসের এক ক্লাসমেট কাতর হয়েঃ
“কুমিল্লা ক্যাডেট কলেজ, আমি আর খেলতে পারলাম না”(আমি আসলে প্রথমে টের পাইনি কি বলছিল কারণ আমিও  খেলছিলাম)

– জনৈক স্যার ক্যাডেট মেসে:
“তরকারিটা ভুনা হলে ভাল ছিল, তাই না”(জানিনা ভাল ছিল কিনা তবে, তরকারি আর ভুনা হয়নি )

-জনৈক স্যারের সহধর্মিণী টার্ম এন্ড ডিনারেঃ
“ছালনে নোন কম হইসে” [টেবিলের ক্যাডেট নির্বিকার] ( আমার মন্তব্য নিষ্প্রয়োজন)

-জনৈক স্যার প্রেপ আওয়ারে ক্যাডেটদের ঘুমাতে দেখেঃ
“এই ঘুমায় খে?, ঘুমায় খে?”(কি লিখব?)

-ইনটেক ডায়লগঃ [বিশেষ করে যখন সবাই একত্রিত হতাম]
“জাগ বাহে, কুন্ঠে সবাই”

(চলবে)

৩,৮২৩ বার দেখা হয়েছে

২৯ টি মন্তব্য : “কতিপয় ডায়লগ(১ম পর্ব)”

  1. আমদের হাউস্মাস্টার মুস্তাফিজ ছ্যারের একটা মজার ক্লাজ ছিল। 3rd প্রেপের একেবারে শেষে (৯.৫০) উনি হটাৎ ঘুমন্ত একজনের কাছে জেয়ে হন্তদন্ত হয়ে ছুটে যেতেন। গায়ে ধাক্কা দিয়ে বলতেন সাইফ, আই সাইফ। (হন্তদন্ত হয়ে) জি দ্যার। : ঘুমাচ্ছিস বাবা, ঘুমা।

    জবাব দিন
  2. “খাও এক চুমুক বিস্কুট, এক কামড় চা”
    “তরকারিটা ভুনা হলে ভাল ছিল, তাই না”

    =)) =)) =)) =))
    আমরা একটা ডায়লগ আর্কাইভ করলে কেমন হয়? ব্লগের যাবতীয় ডায়লগ সব এক কইরা?

    জবাব দিন
  3. জাহিদুল (৯৪-০০)

    মির্জাপুরের ডাইনিং হল OIC ছিলেন গনিতের ফখরউদ্দিন স্যার ... স্যারের সামনে বেয়ারাকে মুরগির ঝোল আনতে বলাতে স্যারের মন্তব্য ... ...
    তোমাদের জন্য তো মুরগিগুলারে পুকুরে চুবায়া আনতে হবে ৷

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।