প্লিজ ফিরে এস

আজ অনেক গুলো দিন পার হয়ে গেল তোমাকে দেখিনা। সময় এর হিসেবটা ঠিক বলতে পারছিনা। কখনও মনে হয় কয়েক বছর , কখনও কয়েক যুগ। আগে তোমার ছবি দেখে দেখে দিন কাটাতাম এখন তাও করা হয়না। তোমার সাথে আমার এত এত ছবি , সেগুলা দেখি আর খারাপ লাগে। ছবিগুলা দেখে যেভাবে আমি কষ্ট পাই তুমি কি পাও? মনে হয়না।

আমি জানি তুমি এখন অন্য কারও সাথে আছ, যেমনটা আমার সাথে ছিলে। তোমার জন্য এসব ছেলেখেলা কিন্তু আমার জন্য যে তুমি আমার সব কিছু ছিলে… আমার বন্ধু, আমার প্রেমিকা, আমার পরিবার , আমার ভালোবাসা। আমি জানি তুমিই আমার প্রথম ভালোবাসা হলেও , আমি তেমনটা নই, আমার আগে তোমার জীবনে আরও অনেকে এসেছে এবং আরও অনেকেই আসবে। তুমি কখন ক্লান্ত হবে না , দমে যাবে না। আমার মত সবাই  তোমাকে বুক উজাড় করে ভালোবাসবে কিন্তু তুমি  শুধু নিজের প্রয়োজন মিটিয়েই সবাইকে ভাগিয়ে দেবে। সেই সব প্রেমিকরা দেবদাস হয়ে আমার মত ঘুরবে। কেউ কাঁদবে, কেউ তোমার সাথে কাঁটানো সময়গুলার কথা ভাববে আবার কেউ আমার মত করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেবে। কিন্তু তুমি তো পাষান। তাই তোমার কথা ভাবলে শুধু আসিফের গানের লাইন শুধুই কানে বাজে , “ ও পাষাণী বলে যাও কেন ভালোবাসনি “

আমার খুব আগের মত করে তোমার সাথে বৃষ্টিতে ভিজতে ইচ্ছে করে, তোমার সাথে খোলা আকাশের নিচে হেটে বেড়াতে ইচ্ছে করে , তোমার কোলে মাথা রেখে ঘুমোতে ইচ্ছে করে। আচ্ছা তোমার কি মনে আছে- আগে তুমি আমাকে রেখে একফোঁটাও থাকতে পারতে না। আমি যতই বাসায় থাকতে চাইতাম ঠিকই আমাকে ডেকে নিয়ে যেতে তোমার কাছে । আমি বাসায় যাওয়ার জন্য উদ্গ্রীব হয়ে থাকতাম আর তুমি মাকে ছাড়তেই চাইতে না। কেমন অদ্ভুত মোহ দিয়ে আটকে রাখতে আমায়। একসময় আমি ঠিকই বাইরের সবকিছু ভুলে যেতাম। আর  মাঝে মাঝে আমি অবাক হয়ে ভাবতাম , “ এত ফিলিংস আসে কোথা থেকে? “  কিন্তু আমি কি করে বুঝব যে এত ভালোবাসার আড়ালে তোমার কঠিন সহজ সত্য লুকানো আছে। আচ্ছা সত্যি করে বলতো আমাকে কি কখনও ভালবেসেছিলে, নাকি শুধুই …??? যাই হোক , শুনলাম তোমার নতুন শিকার জুটেছে। ভাল , আমাকে নাই ভালবাসলে কিন্তু কাউকে বেসো। প্লিজ …… আমার মত এরকম কষ্ট আর কতজনকে দেবে?  আমার পরে যে তোমার জীবন এ এসেছিল তাকেও শুনলাম ছুড়ে ফেলে দিয়েছ। ঐ বেচারার কি অবস্থা কে জানে? আর কতজনকে এই কষ্ট স্বীকার করতে হবে কে জানে? তোমার সাথে সম্পর্কের আগে অনেকেই তোমার সম্বন্ধে অনেক কিছু বলেছিলো, কেউ ভাল কথা , কেউ খারাপ কথা। কিন্তু তোমাকে পাবার আকাঙ্ক্ষা আমাকে এতটাই গ্রাস করেছিল যে কিছুই বুঝিনি। আমি জানি সিদ্ধান্তটা ভুল ছিলনা। যেসব মুহুর্ত তুমি আমাকে দিয়েছ তা কেই কি দিতে পারবে? কিন্তু সেসব তো ছিল অভিনয়। কিভাবে এত সুন্দর অভিনয় কর তুমি বলবে?

যত কিছুই হোক, যতই কষ্ট দাও তোমাকে কেউই ঘেন্না করতে পারবে না । তাই তো তোমার ছোট ছোট ডাকে গিয়ে আনন্দে বুক ভাসাই, তোমার জন্মদিনে হৈ চৈ করে তোমার কেক কাটি। দূর থেকে তোমার দেখি দু চোখ ভরে, আর দেখি কিভাবে তুমি তোমার সেই বহু পুরোন অভিনয় করে যাচ্ছ নতুন কারও সাথে। হিংসে হয়, রাগ হয় কিন্তু কি করার আছে আমার? আমি তো সবসময়ই তোমার ভালোবাসার কাঙাল।  আচ্ছা আর একবার কি ফিরে আসতে পারবে? প্লিজ। যদি একবার ডাক তাহলে তোমার সব দেয়া  সব কষ্টের মুহুর্ত ভুলে যাব, ভুলে যাব তোমার দেয়া সব অশ্রু । আবার আগের মত বুক উজাড় করে ভালবাসব তোমাকে। সত্যি বলছি। প্লিজ ফিরে এস ।

বি,দ্রঃ পাঠকগন যথেষ্টই বুদ্ধিমান। কিন্তু তবুও কেউ যদি ভুল করে ভুল কিছু ভেবে থাকেন তাহলেই গন্ডগোল। লেখাটা যাকে নিয়ে লেখা হয়েছে তার নাম অনেকেই জানতে চাইবেন। ভাবছেন কে সেই অনিন্দ্যসুন্দরী, যার জন্য এত এত ছেলেরা পাগল? অনেকেই বুঝে গেছেন আবার অনেকে বুঝেন নাই। অনেকে গালি গালাজ করতেও পারেন। কিন্তু আমার সেই ভালোবাসার নাম ফৌজদারহাট ক্যাডেট কলেজ। আমি জানি না আমার বহিঃপ্রকাশের ভঙ্গিটা ঠিক হল কিনা? ভুল হলে মাফ করবেন কিন্তু সত্যি বলছি- একফোঁটাও মিত্থ্যে বলিনি।

 

১,৩২৩ বার দেখা হয়েছে

৭ টি মন্তব্য : “প্লিজ ফিরে এস”

  1. সামিউল(২০০৪-১০)

    প্রথমে বুঝতে পারি নাই ছোট ভাই, পরে বুঝলাম ব্যাপারটা।

    কারণ, তোমার মত আমারও যে একজন প্রেমিকা আছে..................
    পাবনা ক্যাডেট কলেজ।

    লেখা সুন্দর হয়েছে।


    ... কে হায় হৃদয় খুঁড়ে বেদনা জাগাতে ভালবাসে!

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।