৬ বছর বা ২২০৩ দিন – ১৮তম পর্ব

কেমন আছেন আমার সুপ্রিয় ক্যাডেট ভাই ও বোনেরা ? আজ অনেকদিন পর ব্লগটা খুললাম। ভেবেছিলাম পাসওয়ার্ড ভুলে গেছি। কিন্তু ভাগ্য ভাল, মনে ছিল। খুলেই আমার খুব রাগ হলো নিজের উপর। নিজেকে নিয়মিত করতে পারি না কোন কাজেই। তাই ভাবলাম ফর দ্যা সেক অব মাইসেলফ এবং ক্যাডেটকলেজব্লগ আজ একটা পোস্ট দেয়া উচিৎ।

আজকে যে বিষয়ে স্মৃতিচারণ করব তা ছিলো ২০০৬ সালে, যখন আমরা টুএলভের ক্যাডেট। ঐ বছর বোধহয় সবচেয়ে আলোচিত ঘটনা ছিল বিশ্বকাপ ফুটবল। আর ঠিক ঐ সময়কালেই চলছিলো আমাদের এইচ এস সি পরীক্ষা। নির্দিষ্ট তারিখটা মনে নেই, তবে ঐদিন ছিলো আর্জেন্টিনা বনাম আইভরিকোষ্টের খেলা। তার আগের বেশকিছু খেলা আমরা টিভিরুমের দরজা ফাঁক করে দেখেছি। এটা কর্তৃপক্ষ টের পেলেও কে বা কারা দেখেছে তা ধরতে পারেনি। তাই তারা সিদ্ধান্ত নিয়ে টিভিরুমের ভেতর থেকে আড়াআড়িভাবে লোহার রড লাগিয়ে দেয়। এটা আমাদের মাথায় আগুন ধরিয়ে দেয়।

যদিও আমি ব্রাজিলের অন্ধভক্ত, তথাপিও আর্জেন্টিনার খেলা দেখার ইচ্ছা আমার কোন অংশে কম ছিলো না। খেলা শুরু হওয়ার আধাঘন্টা আগে থেকেই আমরা বিমর্ষ মনে অথরিটির মুন্ডুপাত করতে লাগলাম। খেলা শুরু হওয়ার মিনিট পাঁচেক পর আমরা সবাই দলবেধে টিভিরুমের দরজার সামনে এসে দরজায় গুতোগুতি শুরু করলাম। আস্তে আস্তে তা মৃদুধাক্কাধাক্কিতে রূপ নিলো। হঠাৎ কি জানি মনে হয়েছিল, আমি ডান পা দিয়ে দরজার বাম পাশে নিচের দিকে কষে এক লাথি দিলাম। কাঠের দরজার বাম পাশের পাল্লার নিচের অংশ ভেঙে গেল। আমরা সবাই বিকট শব্দে বুঝলাম ডিউটি মাস্টার যদি শুনতে পায় তাহলে খবর আছে। সবাই এক দৌড়ে যার যার রুমে অবস্থান নিলাম।

সেদিন ভাগ্যদেবী মনে হয় আমাদের পক্ষে ছিলো। সেই বিকট শব্দে কেউই জেগে উঠল না। এরপর আমরা সবাই বেশকিছু কম্বল নিয়ে টিভিরুমের দিকে ছুটলাম। তারপর সেই ভাঙা দরজার ফাঁকা অংশ এক এক করে সবাই ঢুকে গেলাম। তারপর সবগুলো জানালায় কম্বলগুলো লাগিয়ে টিভি অন করে খেলাটা দেখলাম। খেলা ফলাফল ছিলো আর্জেন্টিনা ২ – ১ আইভরিকোষ্ট। সেই উত্তেজনাপূর্ণ খেলা দেখেই সবাই ঘুমাতে গেলাম।

যে রাতে খেলা হয়েছিলো তার পরদিন আমাদের কোন পরীক্ষা ছিল না। পরদিন এই ঘটনা সবাই টের পেয়েছিল। পরে আমাদের হাউস প্রিফেক্টকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলেও সে বরাবরের মতই কিছুই জানাতে ব্যর্থ হল। যদিও অথরিটি ঠিক জানত কাজটা কারা করেছিল, তথাপিও তাদের কিছু করার ছিল না শুধুমাত্র যথাযথ প্রমাণের অভাবে।……………………..(চলতে থাকবে)

৬৮০ বার দেখা হয়েছে

৫ টি মন্তব্য : “৬ বছর বা ২২০৩ দিন – ১৮তম পর্ব”

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।