টঙ

ধাক্কাধাক্কি করে বাসে উঠা, মানুষের ভীড়ে দম ফেলে বাঁচার আকুলতা, কানের কাছে প্রচণ্ড জোরে হর্ন শুনে মনে মনে চালককে গালি দেয়া, চলন্ত গাড়ির মাঝেই রাস্তা পাড় হওয়া সব ই যেন কতই না গুরুত্ববহ।

টানা পাঁচদিন হরতাল আর দুইদিন সাপ্তাহিক ছুটির জন্য দেরী করে ঘুম থেকে উঠাও হয় না। অথবা ঈদ-পূজার টানা ছুটিও পাওয়া হয় না।

ব্যাস্ত রাস্তায়, মানুষের উপচে পড়া ভীড়ে চলার সময় বন্ধুদের বলা হয় না- দোস্ত দাঁড়া, চা খাইয়া নেই। টঙ দোকানীকে বলা হয় না- মামা চা দাও ৪টা, একটা চিনি বেশি আর ৩ টা বেনসন।
কোনো কারণ ছাড়াই কাউকে বলা হয় না- তোর না খাওয়ানোর কথা আছিল?? চল আজকে নান্নার বিরিয়ানি।

হলুদ অথবা সাদা নিওন লাইটে আলোকিত কোলাহলমুক্ত ঝকঝকে রাস্তায় পাওয়া যায় না এক প্লেট চটপটি-ফুচকা, ৫ টাকার ঝালমুড়ি-চানাচুর, অথবা রাস্তার পাশেই কোন হোটেলের বসিয়ে রাখা চুলায় ভাজতে থাকা গরম গরম পরোটা-পুড়ি-সিঙ্গারা।

(কয়েকদিন ধরেই মনে হচ্ছিল একটা টঙ-দোকান কতটা জরুরি……)
বি:দ্র: ★ধূমপান স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর★

১,০২৭ বার দেখা হয়েছে

১১ টি মন্তব্য : “টঙ”

  1. সামিউল(২০০৪-১০)
    ধূমপান স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর

    স্টার্ট ফ্রন্টরোল। এই পার্টি কেয়ামত পর্যন্ত ফ্রন্টরোল দিতে থাকবেপ...


    ... কে হায় হৃদয় খুঁড়ে বেদনা জাগাতে ভালবাসে!

    জবাব দিন
  2. মাহমুদ (১৯৯০-৯৬)

    প্রবাসে টং এর দোকান খুব মিস করি। তবে টোকিও তে অনেক খাবারের দোকান আমাদের দেশের টং এর দোকানের সাইজের 🙁


    There is no royal road to science, and only those who do not dread the fatiguing climb of its steep paths have a chance of gaining its luminous summits.- Karl Marx

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।