অতঃপর……

গতকাল্য বগুড়া ভ্রমণে গিয়া পুরোণো অনেক বন্ধুবর্গের সহিত সাক্ষাত হইল…অনেক দিন পর একত্রিত হইলে যাহা হয় আর কি…কলেজ এর বেশ কিছু মজার ঘটনার কথা মনে করিয়া অনেক হাসাহাসি হইল…তখনি ভাবিলাম এই ঘটনাটা আসিয়াই লিখিয়া ফেলিব । যেই ভাবা সেই কাজ……

তখন অষ্টম শ্রেনীতে অধ্যয়নরত । একদিন বৈকালে খেলাধুলার পার্ট চুকাইয়া যখন হাউজে ক্লান্ত দেহে প্রবেশ করিতেছি… হঠাৎ মনে হইল আমার পাশ দিয়া গুলির বেগে কি একটা যেন বাহির হইয়া গেল । অবাক হইয়া অনেকেই চাহিয়া রইল…কি কারনে যেন ওই দিন প্রেপ ছিল না । তাই বাথরুম এর সিরিয়ালের ও টেনশন খুব একটা ছিল না । সকলেই ( যাহারা জুনিয়র ব্লকে থাকিতাম ) পিছন পিছন গেলাম । ঘটনাটা চাক্ষুষ করিবার প্রত্যাশায় । ততক্ষনে সেই ব্যাক্তি টয়লেট এর অভ্যন্তরে প্রবেশ করিয়াছেন । আর আমরা যাহারা বাহিরে অবস্থান করিতেছিলাম তাহারা শুধু দুইটা আওয়াজ পাইলাম ।

সবাই ধারনা করিয়া লইল যে একটা ছিল দরজা বন্ধের আর অপরটি ছিল…আর কি…!!!! তো যাই হোক ততক্ষনে অনেকেই বারান্দায় জড়ো হইয়া গিয়াছে বান্দার চেহারাটি দর্শণ করিবার আশায় । কিছুক্ষন পর সকলেই শুনিল ক্ষীণ কন্ঠে জনৈক ক্যাডেট এর নাম ধরিয়া কে যেন ভিতর হইতে ডাকিতেছে । বেশ কিছু উদার মানসিকতার ছেলেরা উহাকে ডাকিয়া নিয়া আসিল । সে যখন ভিতর হইতে বাহির হইল সকলেই তাহাকে ঘিরিয়া ধরিল । সে হাস্যজ্জল মুখে কহিল ‘ আমার রুমমেট ভিতরে । বেচারা ঢূকিতে পারিয়াছে ঠিকই কিনতু প্যান্ট খোলার সময় পায় নাই । এখন তোরা যদি একটু সরিস তাহা হইলে বেচারা বাহির হইতে পারে । আমাকে ডাকিয়াছে একখানি প্যান্ট আনিয়া দেবার জন্য ‘ ভাইয়েরা সকলেই বুঝিতে পারিতেছেন অতঃপর যে দৃশ্যের অবতারণা হইয়া ছিল……তাহা আজো ভুলিবার নহে …………..

১,৩৬৭ বার দেখা হয়েছে

১৪ টি মন্তব্য : “অতঃপর……”

  1. জুনায়েদ কবীর (৯৫-০১)

    কাহারো নিকট কক্ষ সতেজকারী সুগন্ধি থাকিলে তাহা সবেগে নিক্ষেপ করিবার জন্য বিনীত অনুরোধ জানাইতেছি... :-B


    ঐ দেখা যায় তালগাছ, তালগাছটি কিন্তু আমার...হুঁ

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।