লেঃ কর্নেল এল এ খান।আমাদের আদুরে নাম “লেন্দু খান”

লেঃ কর্নেল এল এ খান।আমাদের আদর করে দেয়া নাম “লেন্দু খান”, পাকিস্তান ফেরত ডাক্তার সাহেব আমাদের FCC -র হসপিটাল এ জয়েন করলেন।সম্ভবত আমরা তখন ক্লাস এইট এ । এর আগে সিভিল ডাক্তার ইয়ুসুফ সাহেব ছিলেন , খুব ভাল মানুষ , দিল টা নরম । একটু কান্না কাটি করলেই Sick Report দিতেন। কিন্তু এই লোক বরই তেঁরা ধরনের, কিছু তেই Sick Report দেয় না। আর সব রোগের ঔষধ হিসাবে একি রকম একটা মলম আছে, …ওইটাই দেয়। ব্যাটাকে কি করা যায়, বোর্ড মিটিং বসালাম । সাব্যস্ত হল, ১০/১২ জন Sick Report করে হাসপাতালে যাবো, সবাই ওই মলম নিবো , আসার সময় সবাই ওই মলম স্যার এর সাধের পাকিস্তান থেকে Imported গাড়ীতে মাখিয়ে দিয়ে আসবো । So, “Operation MOLOM LAGANO” was approved! আমরা সেই মতে “চুলকানি” বলে স্যার থেকে প্রচুর মলম নিয়ে আসলাম। গাড়ীর আগা গোরা, দরজার হ্যান্ডেল সহ মলম লাগিয়ে আসলাম । কি যে মজা লাগলো । কিন্তু এই মজা বেশি ক্ষণ স্তায়ী হতে পারে নাই, প্রিঞ্চিপাল আর অ্যাডজুটান্ট (JCC’ র ‘জনি’, মেজর শাহেদ ) এর বেতের বারিতে । But it was real fun to remember for whole life !! Best Regards, -Aziz/FCC/72~78                                                                             
লেঃ কর্নেল এল এ খান ওরফে লান্দু খান – ২   
একটা প্রশ্নের উত্তর , মাইর খাবার পর কি করলাম ?
– আমাদের রিটালিএশন টা আসলেই ব্যাপক ছিল। স্যার এর বিরুদ্ধে আমরা জেহাদ ঘোষণা করলাম। আগে ” লেন্দু খান ” নাম করণ এর শানে নজুল বর্ণনা করছি ।দ্বিতীয় মহা যুদ্ধের আর্মি পোশাক উনি পরিধান করতেন।অসম্ভব ঢিলা- ঢালা, (মনে হতো Trouser নয় দুইটা বাদামি রঙের ঠুংগা পরে… আছেন ) মাথায় সম্ভবত ‘ ফিল্ড মার্শাল রোমেল এর দেয়া বেরেট কেপ। সাইজ টা full size চাপাতির সমান হবে । তো উনার বিরুদ্ধে একশ্যান প্ল্যান এর মধ্যে ১। হাইজিন ক্লাশ নেয়ার সময় আসহযোগ , মানে বাইরের দিকে তাকিয়ে থেকে প্রাকৃতিক শোভা অবলোকন । ২।Hand Break টানা না থাকলে (প্রায়ই উনি গাড়ির Hand Break টানতে ভুলে যেতেন ) গাড়িটি আলু ক্ষেতে পরিসরন ও তৃতীয় যেটা বেশি HiT করেছিল সেটাই আগে বলছি, লক্ষ করেছি স্যার ক্লাশে এসেই বেরেট ক্যাপ টা মাথা থেকে খুলে, Lectern এর ভেতরে রাখতেন এবং ওখান থেকে সরাসরি মাথায় পরে বেরিয়ে যেতেন ।So, মাথায় বুদ্ধি এলো Duster থেকে Chawk এর গুড়া ভরতি করে রাখলাম Lectern এর ভিতরে। ক্লাশে ঢুকে অভ্যাস মতো কালো বেরেট উল্টা করে রাখলেন Lectern এর ভিতর ,এবং যাবার সময় যেমনি মাথায় দিলেন, কালো বেরেট সাদা হয়ে যাওয়া চোখেই পোরলোনা উনার।পরবিত পর প্রিঞ্চিপাল সাহেব এর সামনে । কি লজ্জা ই না পেলেন উনি।আর উনার “সাধের লাউ-গাড়ী” সকালে আলু ক্ষেতের মাঝ খানে দেখতে ও দারুন হোয়েছিল …। Sorry Sir, our APOLOGY for those misdeeds ! Rgds, -Aziz/FCC/72~78

৮৬০ বার দেখা হয়েছে

৫ টি মন্তব্য : “লেঃ কর্নেল এল এ খান।আমাদের আদুরে নাম “লেন্দু খান””

  1. সানাউল্লাহ (৭৪ - ৮০)

    লে. কর্ণেল এল এ খান বা লুৎফে আলী খানের নিকনামটা উনার পোশাক থেকেই এসেছিল আজিজ ভাই। উনার ছেলে আমাদের ব্যাচমেট। সেও চিকিৎসক। তবে গবেষণায় জড়িত। ওর অগোচরে আমরাও ওই নিকনামেই ডাকতাম! 😀

    ক্যাডেট কলেজ ব্লগে স্বাগতম। আশা করি লিখতে থাকবেন।


    "মানুষে বিশ্বাস হারানো পাপ"

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।