আমার ক্যাডেট কলেজের স্বর্ণালি দিনগুলি- (চার) আজিজুল হাকিম, এফ সি সি/১৯৭২~৭৮

প্রথম মাস সম্ভবত একটা ক্যাডেট এর জীবনে সব চেয়ে খারাপ মাস।সবে কৈশোর এর সূচনা লগ্নে পরিবার হীন একটা বৈরী পরিবেশ এ হঠাৎ খাপ খাওয়ানো খুবি দুরূহ একটা কাজ।তার উপর আছে সিনিয়র দের অমানবিক আচরণ, পানিশমেন্টের নরক যন্ত্রণা। জীবনটা অতিষ্ঠ হওয়ার জন্য যথেষ্ট। ট্যাকনিক্যাল টার্মে সময়টা  বেসিক ট্রেনিং, সিজনিং ও ট্রিমিং পিরিয়ড.আমার জন্য শেষটা অর্থাৎ ট্রিমিং টা প্রযোজ্য ছিল। আমি একটু মোটা-কাটা নাদুস নুদুস গোছের মানুষ ছিলাম। আমাদের হাউজ প্রিফেক্ট ওদুদ ভাই (বর্তমানে অবসর প্রাপ্ত মেজর জেনারেল) আমার এই মোটা শরীর এর বিরুদ্ধে ‘জিহাদ’ ঘোষণা করলেন। লাঞ্চ-ডিনারের পরে কন্টিনিয়াস রিপোর্টিং। আমার ওজন অর্ধেক না হওয়া পর্যন্ত।

ওদুদ ভাই সম্পর্কে কিছু না বললে লিখা টা অসম্পূর্ণ থেকে যাবে। উনার মত সলিড বিলট মানুষ খুব কমই চোখে পরে ।আমরা নিজেদের মধ্যে জোক করে বলতাম, ওদুদ ভাই কে কেউ গুলি করলে, উনার শরীর ফুটো করে গুলি বেরুবেনা।উনি আর্মি তে জয়েনের পরবর্তীতে বিশ্ব সেরা আর্মি ইনস্টিউট “সেন্ট হার্টস ” এ চান্স পেয়েছিলেন। ওদুদ ভাই এর ব্যাপারটা পজিটিভলি নিলেও অন্য রুম এর কিছু ‘পাতি’ সিনিয়র (ক্লাশ ৮ ) দের নিয়ে ছিলাম খুবই জ্বালায়। যখন তখন ফ্রন্টরোল, হ্যান্ডস ডাউন ইত্যাদি শাস্তি খেতে খেতে জীবনটা প্রায় ভেজিটেবল রোল হয়ে উঠলো। গুয়েতনামা বে’র কয়েদিদের মত নিজেদের মধ্যে ফিস ফিস আলাপ আর নিষ্ফল প্রতিহিংসার আগুন ধিক ধিক জ্বালিয়ে কাটাই দিন। আর রাত কাটে চোখের জল আর ক্লান্তির অঘোর ঘুমে। রিজোয়ান ভাই। আমাদের এক ক্লাস সিনিয়র। পাশের রুমে থাকে, এতো জ্বালাতন করে যে উনার জ্বালায় ভিতরে ভিতরে সবাই ফুঁসে উঠছি। কিছু একটা বিহিত করতেই হবে।কিন্তু কি ? আর পড়িও মাত্র ক্লাস সেভেন এ। একে বারে জুনিয়ার। তবুও।

প্ল্যান হয়ে গেল। সুযোগ এর অপেক্ষায় থাকলাম। একদিন টিপ টিপ করে বৃষ্টি পরছে। মাগরেব এর নামাজ অনেকক্ষণ আগে শেষ।রিজোয়ান ভাই তখনো মসজিদ থেকে বেরোয়নি দেখে কমান্ডো গ্রুপ তৈরি হয়ে গেলাম। অ্যামবুশ করলাম ঠিক জিমনেশিয়াম আর স্যুইমিং পুলের মাঝামাঝি জায়গায়। পেছন থেকে মাথা টা ঢেকেই চ্যাংদোলা করে সোজা স্যুইমিং পুলের পানিতে! সাঁতার জানিনা, মা রে, বাবা রে, কিসসু মানলাম না। টুপি আর স্পঞ্জের চপ্পল জোড়া পানিতে ভাসতে দেখে, হৃষ্ট চিত্তে হাউজে ফিরলাম। আজ অবধি উনি জানেন না, কার কাজ ছিল এটা ।

(চলবে)

১,২৭৪ বার দেখা হয়েছে

৯ টি মন্তব্য : “আমার ক্যাডেট কলেজের স্বর্ণালি দিনগুলি- (চার) আজিজুল হাকিম, এফ সি সি/১৯৭২~৭৮”

  1. রাজীব (১৯৯০-১৯৯৬)

    ভাইয়া
    আপনার গায়ের সাথে লিখে দেওয়া হোক

    এর থেকে সবসময় শত হস্ত দূরে থাকুন।
    সচেতনতায়ঃ ব্রাক


    এখনো বিষের পেয়ালা ঠোঁটের সামনে তুলে ধরা হয় নি, তুমি কথা বলো। (১২০) - হুমায়ুন আজাদ

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।