কর্ণফুলীর মুহূর্তেরা

ফিরে যদি যেতেই হয়
তবে আজ আর দীর্ঘশ্বাস নয়;
আজ শুধু মেনে নেয়ার পালা।
যুদ্ধ করতে করতে সবগুলি তারা খসে গেছে
দূরত্ব ক্রমশ হয়েছে সমুদ্রের মত
তবুও একটি মুহূর্ত কোথাও উল্লেখিত হয়নি।

তুষারে কি ঢাকা পড়েছে তোমাদের শহর?
মধ্য রাতের নীল রঙ দেখার ইচ্ছায় কি রাত জাগা হয়?
চাঁদের সাথে মেঘেদের লুকোচুরি
আঙ্গুস এবং জুলিয়াস্টোনের গান এখনো কি বাজে?

এরকম নানা প্রশ্ন ভাবতে ভাবতে-
রাতগুলো মোমের মত গলে যায়;
সাদা পায়রার পালকের মত একেকটি ভোর আসে এখানে।

এখানে কদমতলি রেলস্টেশনে বিবর্ণ বাচ্চারা এখনো থাকে অপেক্ষায়,
কবে, কারো আবদারে একটি মোটরবাইকের পিছনে বসে শহর ঘুরে আসার ইচ্ছায়;

অপেক্ষার প্রহর কতোটা দীর্ঘ হয়,
কতটা কেড়ে নে,
কর্ণফুলী তা জানে তবুও বয়ে যায়।

ভাবছি, মুহূর্তগুলি বয়ে যায় আসলে কোথায়?

………………………..

১,৭৮৬ বার দেখা হয়েছে

২ টি মন্তব্য : “কর্ণফুলীর মুহূর্তেরা”

  1. সাবিনা চৌধুরী (৮৩-৮৮)

    :clap: :clap: :clap: :clap:

    সত্যি তো, মুহুর্ত গুলো আসলে কোথায় যায়!

    ওয়েলকাম ব্যাক! অনেক দিন পরে এদিকে এলে, জিয়া। তোমাকে মিস করছিল সিসিবি। ভাল আছো আশাকরি।

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।