মুনিয়া

আমার একজোড়া মুনিয়া চাই
কলাপাতা সবুজ আর নীল মেশানো ধুসর
কিংবা আকাশী নীলের মাঝে সাদা ফুটকি,
ওদের জন্য খুব শিগগির বানাব প্রাসাদ
শিকের পরে শিক,লোহার ছোট্ট ফটক
আংটায় লাগাবো ঝালর মখমলী
লাল,নীল,বেগুনী।

খেয়েদেয়ে ভরপেট
শিকের ফাঁকে লম্বা ঠোঁট গলিয়ে
মুনিয়া আমায় শোনাবে কিচিরমিচির,
নরম পালকে হাত বুলিয়ে
দিন ছুটবে তন্দ্রা ভেঙ্গে,
বারেবারে চুম্বক টানে দেখব
দুই মুনিয়ার ঘরসংসার,
ঘাড়ের পালক ফুলিয়ে ঝগড়াঝাঁটি শেষে
আবেশে বন্ধ চোখ অথবা খুনসুটি ।

বারান্দার গ্রীলে বসা একটা চড়ুই অথবা
সামনের নিমগাছে পাকা নিমফল ঠোঁটে
চেটেপুটে খাওয়া একটা শালিক দেখে
মুনিয়া দুটোর সে কি আস্ফালন !

কখনো অস্থির ডানা ঝাপটানো দেখে
হয়ত মনে হবে
বড্ড দুষ্টু হয়েছে তো মুনিয়া দুটো!
খাঁচার দরজায় অবিরত
ঠক ঠক ঠোকর শুনে মনে হবে
খিদে পেয়েছে বুঝি ওদের,
দুমুঠো খুদ ছিটিয়ে অপেক্ষা
ওদের শান্ত হবার,
স্থির শান্ত চোখের আলোড়নে
শেকল ছেঁড়ার উন্মাদনা
দেখেও এড়িয়ে যাব !

এতোটুকুন একটা খাঁচার আবর্তে
বন্দী মুনিয়ার ডানা ঝাপটানো দেখতে
নাকি
ঈশ্বরের সাথে পাল্লা দিয়ে
দুটো মুনিয়ার মালিকানা পাবার

খয়েরী কাল বাদামী এ কি গভীর সুখ…কে জানে !!

 

মুনিয়া

১,৯৩১ বার দেখা হয়েছে

২৭ টি মন্তব্য : “মুনিয়া”

  1. জিয়া হায়দার সোহেল (৮৯-৯৫)

    মুনিয়াদের সুখের মাঝে নিজের সুখ খুজলেও বুঝতে হবে মুনিয়াদের মালিকের একটি সুন্দর মন আছে ।
    খুব সুন্দর হইছে। আজ সকালে তোমার ডেইলি প্যাসেঞ্জার পড়ে খুব মজা পাইছি...

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।