একখানা নির্দোষ গল্প

রহিম মিয়ার থুতনিতে গুনিয়া গুনিয়া মাত্র সাতটা দাঁড়ি। থুতনির এই সাতটা দাঁড়ি অন্যরকম সৌন্দর্য ছড়াইতেছিল। অনেকবার ভাবিয়াছে এই কয়টি রাখিয়াই বা কি হইবে। কিন্তু কাটিতে মন চায় না। রেজর চালাইতে ইচ্ছা হয় না। থাকুক না হয় ৭ খানা দুষ্প্রাপ্য দাঁড়ি।
রহিম মিয়ার কিন্তু শান্তি নাই। শান্তি হরণ করিয়াছে পাড়ারই কয়টি ফাজিল পোলা। তাহাকে দেখিলেই পিছনে লাগে আর চিৎকার দিতে থাকে। -ও রহিম মিয়া, দাঁড়ি কয়ডাবেচবা নি।
ইহা প্রতিদিনকার নিয়মিত ঘটনা হইয়া দাঁড়াইয়াছে।
একদিন বড়ই ক্ষেপিয়া গেলেন রহিম মিয়া। আর সহ্য করিতে পারিলেন না। ফাজিলগুলার দিকে তাকাইয়া বলিয়া উঠিল-হ, বেচুম। তোরা নিবি?
ফাজিল সর্দার বলিল-কয় টাকা লাগবো ৭টা দাঁড়ি কিনতে?
রহিম মিয়া-৭ দাঁড়ি ৭০ টাকা লাগবো. কিনবি?
ফাজিলগুলা সত্যি সত্যিই পকেট হাতরাইয়া ৭০ টাকা বাহির করিয়া রহিম মিয়ার হাতে দিল। কহিল- এইবার দেন।

রহিম মিয়া তার একখানি হাত পাজামার মধ্যে ঢুকাইয়া কিছুক্ষন পর বাহির করিয়া আনিয়া হাতের জিনিষগুলা ছেলেগুলার হাতে দিয়া কহিল এই নেয়ে সাত খানা।

ফাজিলগুলা এমনটা আশা করে নাই। প্রতিবাদ করিয়া কহিল- এইটা কি হইলো। দেখাইলেন একজায়গার জিনিষ, আর দিলেন অন্য জায়গার।
থুতনির সাতটি দাঁড়িতে আদরমাখা হাত বুলাইয়া রহিম মিয়া সহাস্যে কহিল-আরে বেটা, এইটা তো শো রুম। আর তোগো দিলাম গোডাউন থেইক্যা।

১,৯৪৭ বার দেখা হয়েছে

২৬ টি মন্তব্য : “একখানা নির্দোষ গল্প”

  1. ফয়েজ (৮৭-৯৩)

    :khekz: :khekz: :khekz:

    বস মনটা ভালো করে দিলেন। একদম ঋনী করে দেয়া যাকে বলে।

    সিসিবি আসাটা অনেকটা স্ট্রেস রিলিফের মত হয়ে গেছে।


    পালটে দেবার স্বপ্ন আমার এখনও গেল না

    জবাব দিন
  2. জ়ে এম সারোয়ার মুজিব ( এডিসন) (১৯৭৯-১৯৮৫)

    এইডা কি? ফান না জোকস।

    বি এম এর ঘটনা। আমদের ড্রিল স্টাফরা জানতেন এবং ফিল করতেন ক্যাডেট আর স্টাফদের মধ্যে মুল পার্থক্য একাডেমিক কুয়ালিফিকেসন।আমরা ইংরেজী পারি আর উনারা পারেননা।তাই উনারা সুযোগ পাইলে ইংরেজী শব্দ ব্যবহার করতেন।

    একবার আমদের এক স্টাফের খায়েস হলো উনি একজন ক্যডেটের সাথে একটা ইংরেজী শব্দ ব্যবহার করবেন। তা উনার জোক (মানুষের রক্ত খায়) এর ইংরেজী জানতে চাইলেন আমার কোর্সমেট কাম্রুলের কাছে। "কাম্রুল সাহেব জোকের ইংরেজী কি ?" কাম্রুল ভাবলো স্টাফ কৌতুকের কথা কথা জিজ্ঞাসা করছেন। সে বললো " স্টাফ, ফান"
    স্টাফ অন্য প্লাটুনে গিয়ে আর এক স্টাফকে খূব উচ্চস্বরে সবায়কে শুনিয়ে বললেন যে ক্যাডেটরা ড্রিল ঠিকমত করবেনা তদের ঘাষের ভিতর নিয়ে "ফান" ধরাই দেন।

    জবাব দিন
  3. রহমান (৯২-৯৮)

    এই কোতুকটা অনেক আগেই শুনেছিলাম কিন্তু শওকত ভেই এখানে গল্পের মধ্যে এই কৌতুক নিয়ে আসবেন ভাবিনি। খুব মজা পেলাম শওকত ভাই

    ফয়েজ ভাই এর ডায়লগঃ

    সিসিবি আসাটা অনেকটা স্ট্রেস রিলিফের মত হয়ে গেছে

    :thumbup: সহমত

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।