বেতন-ভাতা নিয়া বড়দের গপসপ

বেতন বাড়াইছে সরকার। তবে তা কেবল সরকারি লোকজনদের জন্য। পত্রিকায় খবরটা পড়ে বসের কাছে হাজির হলো জুলমাত খোন্দকার।
-স্যার আমারও বেতন বাড়াইতে হইবে। আমার পেছনে কিন্তু তিনটা কোস্পানি লেগে আছে।
বস-রিয়েলি? তা কোম্পানিগুলো কে কে?
-স্যার, গ্যাস কোম্পানি, টেলিফোন কোম্পানি ও বিদ্যুৎ কোম্পানি। ~x(

গল্পটা খুব নিরস হয়ে গেল। তাইলে বরং একটা সরস গল্প বলি। বহু পুরোনো এবং খানিকটা অশ্লীল। তারপরেও গল্পটা আমার ব্যাপক পছন্দের।
বেতন হলো মেয়েদের পিরিয়ডের মতো। সারা মাস অপেক্ষা করতে হয়, কিন্তু তিনদিনেই শেষ হয়ে যায়। 😛

কপাল কুচকাইলেন কেউ? তাইলে বেতন নিয়া একটা শিক্ষামূলক গল্প বলি-

কিসমত মিয়া অফিসে পৌঁছেই চলে গেল বসের কাছে-
-স্যার আমার বেতন বাড়ান।
বস-কেন, বেতন বাড়াবো?
-স্যার, আমি বিয়ে করেছি।
বস খুব গম্ভীর ভাবে বললো, অফিসের নিয়ম অনুযায়ী অফিসের বাইরের কোনো দূর্ঘটনার জন্য অফিস দায়ী নন। ~x(

এবার বেতন নিয়া আরেকটা গল্প বলি।
শেষ পর্যন্ত তিনিও বেতন-ভাতা বাড়ানোর আবেদন করলেন। বেতন-ভাতা বাড়ানোর কারণ হিসাবে লম্বা একটা দরখাস্ত করলেন। সেখানে একটি একটি করে কারণ ব্যাখ্যা করলেন তিনি।
১. আমি কায়িক পরিশ্রম করি
২. আমাকে অনেক গভীরে যেয়ে কাজ করতে হয়
৩. শুরুতেই আমাকে মাথা দিয়ে কাজ করতে হয়, তারপর পুরো শরীর ;;;
৪. আমার কোনো সাপ্তাহিক বা সরকারি ছুটি নেই
৫. আমাকে স্যাতস্যাতে পরিবেশে কাজ করতে হয়
৬. আমাকে কোনো ওভারটাইম দেওয়া হয় না ~x(
৭. কাজের জায়গায় ভ্যান্টিলেশন বলতে কিছু নেই, দমবন্ধ অবস্থা
৮. তীব্র গরমের মধ্যে কাজ করতে হয়, এবং
৯. রোগাক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা থাকে।

প্রশাসনিক বিভাগ অত্যন্ত সক্রিয়। দ্রুত বেতন-ভাতা দেওয়ার দরখাস্তের জবাব দেওয়া হল।

প্রিয়………আপনার অনুরোধ মূল্যায়ন করে প্রশাসন আপনার আবেদন বাতিল করেছে। কেন গ্রহণযোগ্য হয়নি, তার কারণও দেওয়া হল-

১. আপনি টানা ৮ ঘন্টা কাজ করতে পারেন না
২. অত্যন্ত সংক্ষিপ্ত সময় কাজ করেই আপনি কান্ত হয়ে ঘুমিয়ে পড়েন
৩. আপনি সর্বদা আপনার কর্তৃপক্ষের আদেশ অনুসরণ করতে পারেন না
৪. আপনি সর্বদা আপনার জন্য নির্ধারিত স্থানে থাকেন না, অন্যত্রও চলে যান ~x(
৫. আপনি নিজ উদ্যোগী হয়ে কোনো কাজ করেন না। সর্বদা কাজ শুরু করার জন্য আপনারে প্রণোদনা বা উদ্দীপনা দিতে হয়
৬. কাজ শেষ করার পর কর্মক্ষেত্র আপনি নোংরা করে রাখেন
৭. সর্বদা প্রয়োজনীয় সেফটি রেগুলেশন মানেন না, নির্ধারিত প্রতিরোধক পোশাক পড়েন না
৮. ৬৫ বছর হওয়ার আগেই অবসরে চলে যান
৯. ডাবল শিফট-এ কাজ করতে পারেন না
১০. আপনি সর্বদা আপনার কর্মেক্ষেত্রে যাওয়া-আসার মধ্যে থাকেন, সঙ্গে থাকে দুটো সন্দেহজনক ব্যাগ বা লাগেজ
১১. কেবল তাই না, আপনি অনেক সময় আপনার জন্য নির্ধারিত পুরো কাজটি করতেও পারেন না।

এ কারণেই আপনার আবেদন গ্রহণযোগ্য হল না।

আবেদনকারীর নামটা ভুলে গেছি। 😛

৩,৭৪২ বার দেখা হয়েছে

৪৮ টি মন্তব্য : “বেতন-ভাতা নিয়া বড়দের গপসপ”

  1. কামরুল হাসান (৯৪-০০)

    শুনলাম মাসুম ভাইয়ের নাকি বেতন অনেক বাড়ছে। 😛


    ---------------------------------------------------------------------------
    বালক জানে না তো কতোটা হেঁটে এলে
    ফেরার পথ নেই, থাকে না কোনো কালে।।

    জবাব দিন
  2. আব্দুল্লাহ্‌ আল ইমরান (৯৩-৯৯)

    ছিঃ ছিঃ ঐদিন টিভিতে টকশো'তে ত বেতন বাড়ানোর এই টপিক ই ছিল।ঐখানে ত এইগুলা বলেন নাই।ভালই সেন্সর করেছেন।এইখানে এত খ্রাপ কথা কেনু কেনু?? 😕
    তাও ***** দাগাইলাম। 😛

    জবাব দিন
  3. একটা জোক্স শেয়ার করিঃ
    মেরিন অফিসার তার বসকে বলছে,
    -- স্যার আমাকে ছুটি দিন, আমার বউয়ের বাচ্চা হবে।
    ** ঠিক আছে, নাও। তা ডেলিভারির ডেট কবে?
    -- আমি যাবার দশ মাস পরে।

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।