আমাদের সময়ের সেইসব গান

আমরা হলাম ববিতা-শাবানা যুগের মানুষ। আমাদের সময়ে জনপ্রিয় গানগুলোর সাথে কণ্ঠ মিলাতো ববিতা না হয় শাবানা। পাশাপাশি ছিল সুচরিতা অলিভিয়া এরা। পরে আসলো রোজিনা ও অঞ্জু। গানগুলাও ছিল জোস। অশ্লিল গান ছিল না তেমন। বড় জোর শাবানা সমুদ্রের পানিতে ঝাপাঝাপি করে গাইতো ‘ও দরিয়ার পানি তোর মতলব জানি। তোর ছোঁয়ায় যৌবনে মোর লাগলো শিহরণ, লাগলোরে কাঁপন……….’। আফসুস, এই গানটা বহু খুঁজলাম, পাইলাম না। 😛
তবে খুঁজতে যেয়ে পেলাম সেই সময়ের বিখ্যাত কিছু গান। বড়ই নষ্টালজিক হইলাম। এইগুলাই ছিল সে সময়ের গরম মশল্লা টাইপ গান। বেশিরভাগ গানের শিল্পী রুনা লায়লা।
‘মনে মনে যৌবনে/ লাগলো রে আগুন, জল দিলে নিভে না/ জ্বলে যে দ্বিগুন’-এই গানটা কারে উৎসর্গ করবো তাই ভাবতাছি। কোন সিনেমার গান মনে নাই। পুরা গানটা শুইনা দেখলে একটু একটু অশ্লিল লাগলে লাগতেও পারে। ‘…..এই মধু তোমার তরে আমি রেখেছি যতন করে, ওগো প্রানেরও প্রাণ তুমি জানেরও জান…..’। আহা…..
‘রূপে আমার আগুন জ্বলে/ যৌবন ভরা অঙ্গে,/ প্রেমের সুধা পান করে নাও/ হায়রে আমার দিওয়ানা……….এইটা সম্ভবত বেদ্বীন সিনেমার গান। শাবানার গলায়। অলিভিয়াও ছিল কী? আহা……..কি গান। এইটা পাড়ার পোলাপারে জাতীয় সঙ্গীত ছিল একসময়।
তোমাকে চাই আমি আরো কাছে/ তোমাকে বলার অনেক কথা আছে/ আমি বলতে পারি না মুখে তওবা তওবা/দিলে যখম হলো উহু আহা/ একি শরম লাগে লাগে উহু আহা……এইটা নসিব সিনেমার গান। আবারও শাবানা। শাবানা আফায় সে সময়ই এই জাতীয় সিনেমাই বেশি করতো। পরে না হয় স্বামীর দোয়া, স্বামীর আদর, স্বামীর আদেশ, স্বামীর প্রেম-টাইপ ছবি করছে বেশি।
অলিভিয়ার কথা কী আর বলবো। বিখ্যাত ছবি দি রেইন বা যখন বৃষ্টি এলো। সাথে ছিল ওয়াসিম। সম্পর্কে ভাবী-দেবর তারা। সব বিখ্যাত গান ছিল এইটায়। আনোয়ার পারভেজ সুরকার। যেমন, চোখে যদি চোখ পড়ে যায় লজ্জা কেন পাও বাবু/ তোমাকে আমি কিছু বলতে চাই/ বলবো কেমন করে ভাবছি চাই………যারা যারা কিছু বলবেন বলে ভাবছেন তারা আর দেরি কইরেন না।
আর যদি না বলতে পারেন তাহলে দি রেইন-এর গানটাই গাইতে হবে খালি-একা একা কেন ভাল লাগে না, কোনো কাজে মন কেন বসে না/ আমার কী হতে কী হয়ে গেল/ আমি নিজেই কিছু বুঝি না।
সেই বয়সে ববিতার প্রেমে পড়ছিলাম। আহা……..কী কঠিন প্রেম। কী যে সুন্দর ছিল। এই গানটা ববিতার গলায়। ফকির মজনু শাহ সিনেমার। সাথে জাফর ইকবাল। ‘প্রেমের আগুনে/প্রেমের আগুনে জ্বলে গেলাম সজনি গো/ সেই আগুন চোখে দেখলাম না…গানটাও সুন্দর। যারা বিয়ে করেন নাই তাদের জন্য একটা লাইন আছে……..আমও মিঠা জামও মিঠা/আরও মিঠা ফুলেরও মৌ/সেই না মিঠা লাগে রে তিতা/না থাকলে কাছে সুন্দরী বউ।
তারপর আসলো অঞ্জুর যুগ। আবে হায়াত সিনেমার একটা গান ছিল, চাকভুম চাকভুম চাদনী রাতে…….গানটা খুঁেজ পেলাম না। তারচেয়ে নরম গরম সিনেমার এই গানটা শুনতে পারি। আহা………মনটা জুড়ায় গানটা শুনলে। ‘এই বৃষ্টি ভেজা রাতে চলে যেও না/বৃষ্টিরও গন্ধে বকুলেরও ছন্দে…….
এতো গানের কথা বললাম। আসলটাই তো বলা হয় নাই। অঞ্জুর কথা থাকবে অথচ বেদের মেয়ে জোৎস্না থাকবে না তাই কী হয়……..বেদের মেয়ে জোছনা আমার কথা দিয়েছে/ আসি আমি বলে জোসনা ফাকি দিয়েছে……..

৪,৮৫৮ বার দেখা হয়েছে

৫৩ টি মন্তব্য : “আমাদের সময়ের সেইসব গান”

  1. কামরুল হাসান (৯৪-০০)

    আর দুইটা সেইরকম গান দিলে এইটা 'মাহে রমজান টপ টেন' হইয়া যাইতো। 😛


    ---------------------------------------------------------------------------
    বালক জানে না তো কতোটা হেঁটে এলে
    ফেরার পথ নেই, থাকে না কোনো কালে।।

    জবাব দিন
  2. ছোটকালে দেখা বাংলা সিনেমাগুলোর মাঝে আমার একটা গানই মনে আছে.... সেটা জাফর ইকবাল ( নামটা মনে নাই, মারা গেছেন অনেক আগে) এর একটা সিনেমার...... "সেইখানে তোমাকে রেখেছি আমি, আর কোথাও যাবনা জীবনে" এরকম কোন একটা লিরিক্সের....

    এই লিস্টের শেষেরটা বাদে আর একটাও শুনিনাই..... 🙁

    নিজেরেই মাইনাস

    জবাব দিন
  3. তৌফিক (৯৬-০২)

    বয়েসকালে ববিতা শিশু হৃদয়ে অনেক ঝড় উঠাইছিলেন। মহিলা দেখতে অনেক অনেক সুন্দরী ছিলেন।

    বাংলা সিনেমা খুব দেখা হয় নাই। তবু অনেক পুরানা কথা মনে পড়ে গেল।

    শওকত ভাই :hatsoff:

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।