বিদেশে পড়াশোনা

আমার অনার্স প্রায় শেষ এখন কি করব এই চিন্তায় ঘুম আসেনা।চাকরি চেষ্টা করলে হতনা তা না কিন্তু আমার ইচ্ছা দেশের বাইরে যেয়ে পড়াশোনা করা।কিন্তু কিভা্বে কি করব আসলেই জানা নেই ঠিক সেই সময়ে ইরাসমাস বৃত্তির্ খবরটা আমাকে একটা জিনিষ ভাবিয়ে তুলল তা হল আমাদের অনেকেই বিদেশে বৃত্তি নিয়ে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করছি বা দেশে বসে বিভিন্ন বৃত্তির জন্য চেষ্টা করছি আমরা যদি আমাদের অভিজ্ঞতা গুলো সবার সাথে ভাগ করে নেই তাহলে অনেকের উপকার হবে বলে আমার মনে হয়।

আমি আশা করব আমরা এগিয় আশব।

২,৫০২ বার দেখা হয়েছে

২৭ টি মন্তব্য : “বিদেশে পড়াশোনা”

  1. ওয়াহিদা নূর আফজা (৮৫-৯১)

    আমার পড়াশোনা শেষ করে বিদেশে উচ্চশিক্ষায় যাব এই ব্যাপারে আমি প্রতিজ্ঞাবদ্ধ ছিলাম। ৪র্থ বর্ষে থাকতে তাই টোফেল শেষ করে জিআরইর প্রস্তুতি নিচ্ছিলাম। আমার একটা সুবিধা ছিল যে আমার বড় ভাই এবং আরো অনেক ঘনিষ্ঠ আত্মীয়স্বজন (মামা, খালা) এই ক্যালিফর্নিয়ার সিলিকন ভ্যালিতে থাকতো। পড়াশোনা শেষ করে তারা এখানে চাকরী করতো। পেশায় প্রায় ৯০% ছিল তড়িৎ প্রকৌশলী। আমি নিজেও তড়িৎ প্রকৌশলে পড়াশোনা করেছিলাম। বিদেশ থেকে আমার বড়ভাই আমাকে গাইড করছিলো। এখানকার ভার্সিটির ফর্ম পাঠিয়েছিলো। সেই ফর্ম পূরণ করে পাঠিয়ে দিই। যা আজকাল অনলাইনে হরহামেশা করা যায়। কিন্তু দুঃখ কিম্বা সুখের বিষয় হলো এই যে নিজের সব রকম প্রস্তুতি থাকা সত্ত্বেও জনৈক নির্ঝর নামের একজনের সাথে পরিচয় হয়ে যাওয়াতে শেষে সেই ভদ্রলোকের লেজ ধরে আমার আমেরিকায় আসা হয়।

    তুমি যদি জান তুমি 'কী' করতে চাও তাহলে 'কিভাবে করবে' লেগে থাকলে তা ঠিকই বের করে ফেলতে পারবে। আমাদের জীবনে 'কী' টা সত্যিকার অর্থেই keyএর কাজ করে।

    তোমার পড়াশোনার বিষয়বস্তু জানতে পারলে আরেকটু খোঁজ খবর নিয়ে তথ্য দিতে পারতাম।


    “Happiness is when what you think, what you say, and what you do are in harmony.”
    ― Mahatma Gandhi

    জবাব দিন
  2. আব্দুল্লাহ্‌ আল ইমরান (৯৩-৯৯)
    তুমি যদি জান তুমি ‘কী’ করতে চাও তাহলে ‘কিভাবে করবে’ লেগে থাকলে তা ঠিকই বের করে ফেলতে পারবে। আমাদের জীবনে ‘কী’ টা সত্যিকার অর্থেই keyএর কাজ করে

    শান্তাপু রক্‌স :clap:

    জবাব দিন
  3. রাব্বি (১৯৯৮-২০০৪)

    UK তে MS এর জন্য সব থেকে ভাল হল কমনওয়েলথ স্কলারশিপ লিঙ্ক
    , নিজের টাকায় পরতে চাইলে সোজা বাংলায় বলি মা্ঝারি মানের like Queens marry uni তে টিউশন + থাকা খাওয়া সব মিলে ১৫-১৮ লাখ বাজেট করলেই হইপে।
    আর uni এর under এর কলেজ গুলাতে ৯/১০ লাখ হলেই হইপে। তয় কলেজ selection এ সাবধান।

    জবাব দিন
  4. রাব্বি (১৯৯৮-২০০৪)

    UK তে MS এর জন্য সব থেকে ভাল হল কমনওয়েলথ স্কলারশিপ।google mama re বললেই হইপে। সব info আনি দিবে।
    নিজের টাকায় পরতে চাইলে সোজা বাংলায় বলি মা্ঝারি মানের like Queens marry uni তে টিউশন + থাকা খাওয়া সব মিলে ১৫-১৮ লাখ বাজেট করলেই হইপে।
    আর uni এর under এর কলেজ গুলাতে ৯/১০ লাখ হলেই হইপে। তয় কলেজ selection এ সাবধান। 😛

    জবাব দিন
  5. মাহমুদ (১৯৯০-৯৬)

    সাদিক,
    বাইরে পড়তে গেলে সবার প্রথম যেটা দরকার তা' হলো একটা TOEFL/IELTS স্কোর। টোফেল হলে কমপক্ষে ১০০ আর আইইএলটিএস হলে ৭। পরিচিতদের কাছ থেকে শুনে মনে হয় ২ থেকে ৩ মাসের ক্র্যাশ প্রোগ্রাম হাতে নিলে এর থেকেও বেশি স্কোর করা যায় বাংলাদেশে।

    ফার্মাসীতে পড়ার জন্য কোন দেশ ভালো বলতে পারবো না। তবে মোটের উপরে কানাডাই আমার কাছে তুলনামূলক ভাবে সহজ মনে হয়। সেখানে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ওয়েবসাইটে গিয়ে তোমার ডিপার্টমেণ্টে ফ্যাকাল্টি লিষ্ট দেখ- পছন্দের বিষয়ে গবেষণা/পাব্লিকেশন আছে এমন প্রফেসরদের কাছে নিজের আগ্রহের কথা জানিয়ে "পারসুয়েসিভ" মেইল লিখতে শুরু করো। কেউ ভর্তির আবেদন করার জন্য বললে বুঝে নিও অর্ধেক-ডান। (মেইল লিখে শুরু করলে আমাকে জানিও, হালকা উপরে দেখিয়ে দিবা নে...... 🙂 )

    কানাডার মতো অষ্ট্রেলিয়াতেও একই ভাবে ট্রাই করতে পারো, কাজ হবে আশা করি।

    একইভাবে জাপানে প্রফেসরদের কাচেহ লিখো। তাদের কেউ ইনভাইট করলেই ত স্কলারশিপসহ ভর্তি! তবে আমি ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থেকে জাপানে যেতে নিরুৎসাহিত করি যদি কেউ পড়াশোনা করতে চায়।

    আর ইউরোপের যে স্কলারশিপের কথা বলেছি, সেটা ছাড়াও নরওয়েতে Quota-scholarship আছে। সেটাও ট্রাই করে দেখতে পারো।

    সব কথার আগে- টোফেল বা আইইএলটিএস দিয়ে ফেল, বাইরে পড়তে যাওয়ার পথে এটাই প্রথম পদক্ষেপ।


    There is no royal road to science, and only those who do not dread the fatiguing climb of its steep paths have a chance of gaining its luminous summits.- Karl Marx

    জবাব দিন
  6. কিন্তু দুঃখ কিম্বা সুখের বিষয় হলো এই যে নিজের সব রকম প্রস্তুতি থাকা সত্ত্বেও জনৈক নির্ঝর নামের একজনের সাথে পরিচয় হয়ে যাওয়াতে শেষে সেই ভদ্রলোকের লেজ ধরে আমার আমেরিকায় আসা হয়।

    তুমি যদি জান তুমি ‘কী’ করতে চাও তাহলে ‘কিভাবে করবে’ লেগে থাকলে তা ঠিকই বের করে ফেলতে পারবে। আমাদের জীবনে ‘কী’ টা সত্যিকার অর্থেই keyএর কাজ করে

    আপু, কঠিন হইছে। আপনি এখন কোথায় আছেন ?

    জবাব দিন
  7. রাকিব

    কিন্তু দুঃখ কিম্বা সুখের বিষয় হলো এই যে নিজের সব রকম প্রস্তুতি থাকা সত্ত্বেও জনৈক নির্ঝর নামের একজনের সাথে পরিচয় হয়ে যাওয়াতে শেষে সেই ভদ্রলোকের লেজ ধরে আমার আমেরিকায় আসা হয়।

    তুমি যদি জান তুমি ‘কী’ করতে চাও তাহলে ‘কিভাবে করবে’ লেগে থাকলে তা ঠিকই বের করে ফেলতে পারবে। আমাদের জীবনে ‘কী’ টা সত্যিকার অর্থেই keyএর কাজ করে.

    আপু, দারুন হইছে। আপ্নি এখন কথায় আছেন?

    জবাব দিন
  8. Karim (1988-1994)

    তুমি ইরাসমুস মানডুস পেয়েছ, নাকি চেষ্টা করতে চাও?
    এটির একটা সুবিধা হচ্ছে, নির্ঝঞ্ঝাটে পড়াশুনা করা যায়। scholarship এর পরিমাণ ৪০,০০০ ইউরো। দুই বছর থাকা খাওয়ার জন্য more than enough। আমেরিকার মতো TA/RA এর খোজ করতে হবেনা। কিন্তু এটি কিন্তু শুধু ইউরোপে এবং কমপক্ষে দুটো দেশের দুটো পৃথক বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে হবে।

    আমি mobile computing masters করে ইউরোপে চাকরি করছি। ইউরোপের positive or negative দুটি দিক্ই আছে। প্রথমত: একমাত্র UK ছাড়া বাকি দেশগুলোতে ইংরেজী অতটা চলেনা। But you can have a lot of cultural varieties. You can travel a lot of countries, enriched with medieval civilization.
    Personally I think, you can manage to go to USA then go there. But education in USA is very expensive. To much hazards for application. Sometimes I feel why to spend so much money for a degree. You can get a same quality degree from Europe (esp. in Erasmus Mundus) without paying anything.
    Everything depends on your future plan. If you want to settle and live in a first world, then USA have a better future. At the same time European countries offer good social values. But global circumstances is not always the same. Racism is another important factor. Its no so explicit in Europe. I am not sure, may be in USA everybody feels better, since it is more open there.
    If you have any further question, just write me.

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।