এ দেশে আরও খন্দকার দেলোয়ার দরকার অথবা একজন খন্দকার দেলোয়ার এবং একটি মাউস

Khondokar Delowar Hosain, General Secretary of “Bangladesh Nationalist Party” (BNP) er Pant Kholar Drissho… this is a real video from a program in Pressclub Dhaka on 1 March 2009 from www.youtube.com

দিনটি ছিল জানুয়ারী-র ১০ তারিখ। ইন্ডাস্ট্রিয়াল ট্যুর শেষ। এক বন্ধুর বাসায় জন্মদিনের দাওয়াত খেয়ে আই ইউ টি গিয়েছিলাম। ৫১৮ নাম্বার রুম। এই রুমের একটা বিশেষত্ব আছে।

এই রুমে কখনও কারও দাঁত মাজবার পেস্ট থাকে না। মাঝে মধ্যে আবার সাবানও থাকে না। তাই ঘুম থেকে উঠবার পরপরই বেসিনে কিংবা বাথরুমে যাবার আগে যেতে হয় অন্য রুমে। সময় নেই কারও। সবাই খুব ব্যস্ত। একটা পেস্ট কিনতে যাবার সময় নেই কারও। এটা ছাড়াও আরও একটা
বিশেষত্ব আছে এই রুমের।

যে রুম লাস্ট হবে মানে রুমে যে সবচেয়ে কম সিজিপিএ পাবে তার কাজ হচ্ছে এইসব টুথপেস্ট, সাবান কিনে আনা। কিছু করার নেই। নিয়মটা মেনে চলতে হবে। এইসব কেনাকাটা থেকে বিরত থাকার জন্য রেজাল্ট-টা তো ভাল হবে! আইডিয়া-টা খারাপ না। ভালোই। হোয়াট এন আইডিয়া স্যার জী!

যেদিন গিয়েছিলাম, দিনটি ছিল শনিবার। পরদিন থেকেই ওদের ক্লাস শুরু হবে। তাই বিশাল বন্ধের পর ঐ দিন আস্তে আস্তে সবাই আসা শুরু করেছে, সবাই রুম গোছানো শুরু করেছে যে যার যার মত। কেউ কেউ আবার আগে আগেই চলে এসেছে, তারা তাদের কম্পিউটার নিয়ে ব্যস্ত। কেউ আবার যায়-ই নি।

তো ৫১৮ নাম্বার রুমের একজন রুম গোছাতে গোছাতে হঠাৎ একটা নষ্ট মাউস খুঁজে পাওয়ার পর অনেক আগ্রহের সাথে আরেকজনের দিকে তাকিয়ে বলে, “এটা এখন কী করব?”

যাকে প্রশ্ন করা হল সে পায়ের উপর পা দিয়ে শোয়া অবস্থাতেই, সিগারেটের ধোঁয়া ছাড়তে ছাড়তে অনেকটা নির্বিকার ভঙ্গিতে বলল, “ মশারী টাঙ্গানোর জন্য রাখ অথবা- যা, খন্দকার দেলোয়ার-কে দিয়ে আয় গিয়ে যা”।

যার কথা বলা হল তিনি কিন্তু দেশের একজন মাথা। হ্যাঁ বন্ধুগণ, আপনারা যার কথা ভাবছেন তিনি সেই ব্যক্তি- বর্তমান বিরোধী দল বি এন পি-র মহাসচিব খন্দকার দেলোয়ার হোসেন।

২০০৮ সালের পহেলা মার্চ, শনিবার ঢাকা প্রেসক্লাবের এক সংবাদ সম্মেলনে বক্তৃতা দেওয়ার মাঝখানে হঠাৎ করেই তার পায়জামার ফিতা খুলে যায়! শুধু তাই নয়, সেই ফিতা কিন্তু উনি নিজে বাঁধেন নি, আবারও হঠাৎ করেই, একটি লোক এসে তার পায়জামার ফিতাটি বেঁধে দেন!

বিশ্বাস হচ্ছে না? হবে, একটু কষ্ট করে ইন্টারনেটে ‘ইউটিউব’ নামক ওয়েবসাইটে সার্চ দিলেই পাবেন। খন্দকার দেলোয়ার এর প্যাণ্ট খোলার দৃশ্য অথবা খন্দকার দেলোয়ার এর পায়জামা খোলার দৃশ্য-এমনকি খন্দকার দেলোয়ার এর সালোয়ার খোলার দৃশ্য লিখেও সার্চ দিলে পাবেন! বেশি না, ২১ কি ২২ সেকেণ্ডের একটা ভিডিও। খুবই ছোট। কিন্তু দেখার মত।

প্রিয় বন্ধুগণ, আপনাদের কি কিছু বলার আছে? আমার কিন্তু কিছুই বলার নেই। আমার মনে হয় আপনাদের ও কিছু বলার নেই। কারণ আমরা অনেক আগে থেকেই নীরব দর্শকের ভূমিকা পালন করে আসছি এবং ভবিষ্যতেও করে যাব। আমাদের দেশের রাজনীতিবিদদের কাজকর্ম দেখে আমরা অনেক আগেই ভাষাহীন হয়ে গেছি, অনেক আগেই নিষ্ক্রিয় হয়ে গেছি- আর এই পায়জামা কিংবা সালোয়ার-এর ঘটনা তো খুবই তুচ্ছ, নগণ্য। আরে ধুর্, এটা তো কোন ব্যাপার-ই না।

আমরা হতাশ হব? না, আমরা হতাশ হব না। আসলে আমরা হতাশ হতে চাইলেও পারব না। হতাশ হতে হতে আমরা অনুভূতিহীন হয়ে গেছি, হতাশ হবার অনুভূতিটাই হারিয়ে ফেলেছি। আর এটা তো হতাশ হবার মত কোন ঘটনা না।

আমরা কিন্তু লজ্জা-ও পাব না। আমাদের লজ্জা পাইতে নাই। যে দেশ দুর্নীতিতে এতবার চ্যাম্পিয়ন হতে পারে সে দেশের মানুষের লজ্জা পেতে হয় না। যে ব্যক্তির দেশ চালানোর কথা সেই ব্যক্তি যদি নিজের পায়জামার ফিতার খবর না রাখেন তাতে লজ্জা পাবার কিছু নেই।

* * *

নাহ্, আমরা মনে হয় ভুল বুঝছি! আসলে দেশের কথা চিন্তা করতে করতে, দেশের জন্য বক্তৃতা দিতে দিতে, দেশের জন্য কাজ করতে করতে তিনি তার পায়জামার ফিতার কথা ভুলেই গিয়েছিলেন। ঐ যে একটা কথা আছে না- বৃহত্তর স্বার্থে ক্ষুদ্রতর স্বার্থ বিসর্জন, অনেকটা ঐ রকমই।

কে একজন বলেছিল- যে নিজের পায়জামার ফিতা বাঁধতে পারে না সে আর কেমনে দেশ চালাবে?

খুব ভুল কথা বলেছিলেন ভাই আপনি। আপনি আসলে ব্যাপারটা বুঝেন নাই। আমিও বুঝি নাই প্রথমে। আসলে দেশ চালাতে উনি মহাব্যস্ত, নিজের দিকে টাইম দেয়ার মত টাইম কই বলেন? আসলে দেশ চালানোর জন্য এরকম নিবেদিত প্রাণ নেতাদেরই দরকার, দেশের উন্নতির জন্য এরকম আরও খন্দকার দেলোয়ার দরকার, তাই না?

১,১২৩ বার দেখা হয়েছে

১৩ টি মন্তব্য : “এ দেশে আরও খন্দকার দেলোয়ার দরকার অথবা একজন খন্দকার দেলোয়ার এবং একটি মাউস”

  1. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    ভিডিও টা তো দিলে না... তবে আগে মনে হয় একবার পোস্ট হয়ে ছিল।


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
  2. রায়হান আবীর (৯৯-০৫)

    কি আর কইতাম দোস্ত। দেলু শালার পুতের নাম শুনলেই বমি আসে। চোর হালায় রাস্তায় খাড়ায় খাড়ায় আবার নীতিবাক্য কপচায়।

    তয় লেখা চ্রম হইছে। ভিডিওটা আগেই দেখছি ...

    মহিবের মশারিতে ঐ মাউসের তার এখনও শোভা পাইতেছে। ভাগ্যিস দেলু হালা টের পায় নাই এখনো, পাইলে সিউর একদিন চুরি কইরা লইয়া যাইবো ...

    জবাব দিন
    • মইনুল (১৯৯২-১৯৯৮)
      ভাগ্যিস দেলু হালা টের পায় নাই এখনো, পাইলে সিউর একদিন চুরি কইরা লইয়া যাইবো

      যদি কোনো মেয়ে জানতে পারে, তুমি দেলু সাহেবকে শালা বা শালার পুত হিসেবে গণ্য কর, তোমাকে আর বিয়ে করবে না। কেউ নিজের ভাই বা ভাতিজাদের এত বড় অপমান সহ্য করবে না।

      জবাব দিন
  3. রকিব (০১-০৭)
    মহিবের মশারিতে ঐ মাউসের তার এখনও শোভা পাইতেছে। ভাগ্যিস দেলু হালা টের পায় নাই এখনো, পাইলে সিউর একদিন চুরি কইরা লইয়া যাইবো …

    :khekz:


    আমি তবু বলি:
    এখনো যে কটা দিন বেঁচে আছি সূর্যে সূর্যে চলি ..

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।