আমার ব্যাচমেট দের জানাই ঈদ মোবারক

নতুন জুতা (সাদা ও কালো), নতুন স্যান্ডেল(চামড়ার ও স্পঞ্জ), জুতার কালি(সাদা ও কালো), জুতার ব্রাশ…। লিস্টে এগুলা দেখে আমি ভাবতেছিলাম পড়তে যাচ্ছি নাকি জুতা পালিশ করা শিখতে আল্লাহই জানে। সুঁই থেকে শুরু করে আন্ডারওয়ার সব কিছু নতুন নিয়ে ২০ইঞ্চি ট্রাভেলীং ব্যাগের ওজন প্রায় এক মণের কিছু বেশী বানিয়ে ১৯৯৮ সালের এই দিনে বিকেল বেলা স্বেচ্ছায় গিয়ে জেল খানায় ঢুকলাম। ঐ দিন এই সময়ে (দুপুর বেলা) পাবনা শহরে বসে বিরীয়ানী খাচ্ছিলাম আর বাপের দিকে তাকাইয়া তাকাইয়া ভাবতেছিলাম একটা লোক কতখানি হারামী হলে নিজের এতটুকুন নিস্পাপ ছেলেকে এরকম করে বাসা থেকে দূরে পাঠিয়ে দিতে পারে। গলা দিয়ে খাবার নামতেছে না আর বাপ আমারে ধমকায় খাইনা কেন!!! আমারে বলে আমার চুদুরবুদুর সব শেষ হয়ে যাবে। ইচ্ছা হলেই, যা ইচ্ছা তাই সেই দিন শেষ। আমি মনে মনে আল্লাহর কাছে দোয়া করতেছিলাম আল্লাহ এমন বাপ যেন কাউকে না দেয় আর চোখ দিয়ে যাতে পানি না আসে তাই আটকাইতে আপ্রাণ চেষ্টা করছিলাম। তাও পারি নাই এই ব্যাটার জন্য সেটা পরে বলতেছি। তো খাওয়ার পরে আমাকে বলে মিষ্টি খাবি, আমি বললাম, না। জোর করে মিষ্টি খাওয়াইল। তারপর রওনা দিলাম। পাবনা শহর থেকে আসতে কলেজ দেখা যাওয়ার অনেক আগেই পানির হলুদ ট্যাঙ্কটা দেখা যায়। ওইটা দেখাইয়া রিক্সাওয়ালা বলে ঐ যে “ক্যাড কলেজ”। মনে মনে বলি চুপ থাক শুয়োর।

তো কলেজে পৌছাইলাম, মনে হছিল বিয়ে বাড়ি, চকচক করতেছে, পতাকা মতাকা দিয়া সাজানো। একই রকম জামা কাপড় পড়ে শ’ শ’ পোলাপাইন দাত কেলাইতেছে। গেলাম, নাম ধাম বলার পর বলল সিরাজী হাউস। শুনলাম তিন তলায়। প্রথমেই মনে হল নীচ তলা হলে কি হইত? ব্যাগটা এখন কষ্ট কইরা ওপরে ঊঠাইতে হবে(আল্লার খুব পেয়ারের লোক আমি, এ জন্যই যে আমার কপালে সিরাজী হাউস নসীব হইছে তা আমি সাত দিনের মধ্যেই বুঝতে পারছিলাম)। তো আমার সমান একটা ছেলে আইসা বলল “আমি তারিক, তোমার গাইড।“ গাইড কি জিনিস সেটা না বুঝলেও দেখলাম পোলাডা সিরাম ভাল, জোর কইরা আমার ব্যাগটা নিয়া কোঁৎ মারতে মারতে রুমে নিয়া গেল। সব গোছাইয়া দিল। প্রথম জ্ঞান দিল এখানে সবাই সিনিওর। সবাইকে নাকি সালাম দিতে হবে। মনে মনে ভাবলাম শালা কয় কি, আমার সমান পোলা আমারে কয় সালাম দিতে। সালাম কি বাংলালিংক দামে পাইছ নাকি? রুমমেটদের দেখে মন খানিক ভাল হয়ে গেল। আমি মাঝে, একপাশে আলীরেজা; মালটাকে আমি আগে থেকে চিনি। আমাদের বাড়িও এক জায়গায়। আরেক পাশে অতি নাদান দেখতে ভদ্র, সুশ্রী, কচি একটা ছেলে মুসফিক। মাথায় টেরীকাটা লম্বা চুল* সহ পুরা নায়কের মত চেহারা। মাগরীবের নামাজের পর রুমে এসেই বুঝতে পারলাম যে ওর চেহারাটার মতই ওর মুখের কথাও সুন্দর। এত সুন্দর এবং এই বয়সের একটা ছেলে যে এত সাবলীল ভাবে এত বাজে কথা বলতে পারে ওকে না দেখলে আমি বিশ্বাসই করতাম না। অবাক হয়ে দেখলাম ছেলেটা দাড়ি, কমা, সেমিকোলোনের পরিবর্তে বাড়া(এটা যে গালি হতে পারে তা আমার ধারনার বাইরে ছিল তখন পর্যন্ত), বাল, শাইও(অর্থ এখনো জানি না) এগুলা ব্যবহার করে। মনে মনে ভাবলাম আম্মু এসব খারাপ ছেলেদের সাথে মিশতে মানা করে দিছে। কিন্তু কিভাবে যেন কলেজে ওর সাথেই আমার প্রথম ফ্রেণ্ডশিপ হয়ে গেল। ছোট বেলা থেকেই আমি বাপ-মায়ের অবাধ্য ছিলাম আসলে।
*[আহারে পরের দিন যখন নাপিত হিটলার(নিক নেম, কিন্তু আমরা ওর সামনে পিছনে সব সময়ই হিটলার ডাকতাম, আসল নাম জানি না) যখন ওর সেই সালমান খান মার্কা চুল কাইটা সাদা চামড়া বের করে দিল তখন ও দুঃখে কান্তেছিল, আর যে পরিমান গালি আর অভিশাপ দিছিলো ঐ বেটারে আসল হিটলারও সারা দুনিয়া থেকে এত গালি খায় নাই এখন পর্যন্ত]।

তো যাই হোক রেখে যাওয়ার টাইম হলে, দেখলাম আমার বাপ সাহেব চোখ মুছতেছে আর আমাকে বলতেছে মন খারাপ করিস না। দেখ তোর মত সবাই এখানে থাকে। আর ওরা দেখ কত খুশি। কারো মন খারাপ নাই। আমি মনে মনে ভাবি এখন কান্দো কেন চান্দু? ভর্তি করানোর আগে মনে ছিল না? শেষে যদি আবার বাপে ভাবে পোলাডা কি হারামী হইছে একটু মন খারাপও করল না, তাই আমিও একটু(খুবি কম পরিমানে, সত্যি কথা কিন্তু) কাঁদলাম।

আমাকে যদি এখন কেউ জিজ্ঞেস করে আমার জীবনের সবচেয়ে ভাল কাজ কি আমি বলতে একবারও ভাবি না যে “ক্যাডেট কলেজে ভর্তি হইছিলাম”। ভর্তি না হলে কি এই ১৫বছর পরও তোদের মত হারামীগুলাকে এত মিস করতাম? ক্যাডেট না হলে কি জানতাম গার্লফ্রেন্ড বা বৌয়ের কাছে তোদের মত হারামী বন্ধুবান্ধব সতীনের মত মনে হয়? তোরা প্লিজ আমার থেকে ১০০হাত দূরে থাকবি। আমি সংসারে শান্তি চাই, সতীন না। দোস্তরা তোদের সবাইকে ১৭জুনের ঈদ মোবারক।

২,৩৪৬ বার দেখা হয়েছে

২৪ টি মন্তব্য : “আমার ব্যাচমেট দের জানাই ঈদ মোবারক”

  1. সামিউল(২০০৪-১০)

    ভাই, ঈদ মুবারক, মারহাবা মারহাবা.....................।
    এইডা কী লিখছেন ভাই!!!!! =)) :clap: :boss: :grr: ::salute:: :gulli2: :brick: :awesome: :hatsoff: :tuski: :chup: :goragori: :frontroll: :khekz: O:-) :))


    ... কে হায় হৃদয় খুঁড়ে বেদনা জাগাতে ভালবাসে!

    জবাব দিন
  2. দিবস (২০০২-২০০৮)
    তোরা প্লিজ আমার থেকে ১০০হাত দূরে থাকবি। আমি সংসারে শান্তি চাই, সতীন না

    :)) :)) :))

    হ্যাপী ঈদ মোবারক্স ভাই :party: :guitar: :awesome:


    হেরে যাব বলে তো স্বপ্ন দেখি নি

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।