শিরোনামহীন ব্লগর ব্লগর

১। গত এক বছরে এই নিয়ে দুইবার বাসা বদল করছি। গত বছরের অক্টবরে একবার করলাম। মেয়ে যেহেতু নভেম্বরে হবে তাই এক বেডরুমের বাসা ছেড়ে দুই রুমের বাসায় উঠলাম। কিন্তু নতুন বাসা নেবার সময় চিন্তাভাবনা না করেই ডুপ্লেক্স স্টাইলের দোতলা বাসা নিয়ে খেলাম ধরা। গত এক বছর ধরে সিড়ি বেয়ে উঠতে নামতে বিরক্তি ধরে গেছে। কানে ধরছি, আর দোতলা বাসা না। পিচ্চিও ইদানিং চান্স পেলেই সিড়ি বেয়ে দোতলা উঠে যায়। অতএব, আবার বাসা বদলাও।

২। ভা্জিনিয়া তে যখন মাস্টার্স করছিলাম, বউ তো ঢাকায়। প্রতি সেমিস্টার পর পর দেশে যেতাম। মাসে বেতন পেতাম মাত্র ১১০০ ডলা্র। পিঁপড়ার গুড় গোনার মত করে পয়সা বাচাতাম প্লেনের টিকিট কেনার জন্য। প্রথম যেবার আসলাম, সেবার পকেটে ছিল প্রায় ৬০০ ডলার, কিন্তু প্লেনের ভাড়া প্রায় ১৫০০+। অন্য বাঙ্গালিদের কাছ থেকে ধার দেনা করে টিকেট কেটেছিলাম। এর পরে আরো পাচছবার গিয়ছি। টিকেট কাটার পর কি যে উত্তেজনা। রীতিমত ক্যালেন্ডা্রে দাগ কেটে দিন গোনা। তারপর যাবার দিনে এয়ারপোর্টে রওনা দেয়া। শেষ দেশে গিয়েছি ২০০৮ এর মার্চে।গত আড়াই বছর ধরে নাক গুজে পরে আছি এই কোনায়। নাহ আর না। শেষ পর্যন্ত টিকেট কেটেই ফেললাম। তিনজনের টিকেট কাটতে যথারীতি ব্যাঙ্ক খালি। তাতে কি, আমার দিন গোনা তো শুরু। তারপর এমিরেটসের ফ্লাইটে ৩০ ঘন্টা, অতঃপর ঢাকার জ্যাম, আহ। গিয়া আবার বিসিসির রি-ইউনিয়ন। :goragori:

৩। পত্রিকায় প্রাইভেট ভার্সিটির ভ্যাট বিষয়ক খবর দেখে বেশ উদ্দ্বেগিত হলাম।সরকার কি শিক্ষার উপরও কর বসাচ্ছে নাকি। তাহলে পাবলিক ভার্সিটি কি পুন্য করেছে যে তারা বাদ? হাস্যকর সব পদক্ষেপ। প্রাইভেট ভার্সিটি আইনে মালিকপক্ষ সরকারকে তাদের কর্মকান্ডের জন্য জবাব দিতে বাধ্য নয়, কিন্তু ভ্যাট দেবে সাধারন ছাত্র। বলিহারি যাই। প্রাইভেটের পোলাপাইন গুলারো বোঝা উচিত আসল সমস্যা মালিক পক্ষ যারা বছর বছর ফি বাড়ায়। ভাংচুর করলে মালিকের গাড়ি আগে করা উচিত।

৪। ব্লগে তো সাবিহা জিতুপ্পি দেখি মহা হিট। তাইফুরে্র স্মৃতির ডাটাবেজ পইড়া আমার ডাটাবেজা হানা দিলাম। আম্মার সাথে গরুর গাড়ি করে দাদা বাড়ি যাবার কথা মনে পড়ছে। কতদিন গরুর গাড়ি চড়ি না। কামরুলের প্রেম বিষয়ক গল্প বেশ বেদনাদায়ক। মাস্ফুদাকে অভিনন্দন ঠোলা বাহিনীতে সুযোগ পাবার জন্য। ক্লাস এইটে একবার কলেজ থেকে বাসা আসার সময় এক পিচ্চি আমারে দেইখা ঠোলা কয়া ডাক দিসিল। তোমার কস্ট আমি বুঝি মাসরুফ। তারপরো অভিনন্দন :thumbup: ।

৫। অবশেষে Starcraft 2 এর শুভমুক্তি হয়েছে এই ২৭ তারিখে। পিসিতে গেম খেলা ছাড়ছি বুয়েট ছাড়ার পর থেকেই। ইসস, কি খেলাই না খেলছি পাচ বছর হলে ল্যান কইরা। সারা রাত মাল্টিপ্লেয়ার গেম খেইলা ভোর বেলায় ঢাকা মেডিকেলের সামনে হোটেলে পরটা আর ডিম, আহ্। পরদিন আবার টেরান, জার্গ, আর প্রোটোস নিয়া মারামারি।

Starcraft প্রথমটা বের হয়েছিল মনে হয় ১৯৯৮ এর দিকে। দ্বিতীয়টা বের হইল বার বছর পর। এটাকে বলা হয় দি গ্রেটেস্ট স্ট্র্যাটেজি গেম অব অল টাইম। দক্ষিন কোরিয়ায় তো এটা জাতীয় খেলা। এজন্য ওদের তিনটা ডেডিকেটেড টিভি চ্যানেল পর্যন্ত আছে। বিশ্বাস না হলে সার্চ দিয়ে দেখ। কর্পোরেট কম্পানিগুলো রীতিমত পয়সা দিয়ে খেলোয়াড় পোষে ক্রিকেটারদের মত। এইসব খেলোয়াড়রা সেলিব্রেটিদের মত মর্যাদা পায় ওখানে।
আমিও ভাবছি নতুন বাসায় গিয়া একটা ডেস্কটপ কিন্যা ফালামু, কিসের কি। তারপর অনলাইনে ঢিসুম ঢিসুম। কোরিয়া যামু নাকি ভাবতাছি।

৬। অফিসে ভালই চাপ। ছিল না কখন, আমারে তো আর মাগনা বসায় রাখে না। তাও এখানে অনেক আরাম। আমার এক কলিগ গত মাসে মাইক্রোসফট ছেড়ে গোল্ডম্যান স্যাক্সে জয়েন করেছে নিউ ইয়র্কে। ওখানে নাকি অফিসে বাইরের কোন সাইট পর্যন্ত ব্রাউজ করতে দেয় না, ব্লগ তো দূরে থাক। এখানে আমার নিজের রুমে আমি আন্ডি পইরা থাকলেও কেউ কিছু কইব না। সেখানে নাকি সবাই পাশাপাশি ডেস্কে সকাল আটটা থেকে রাত আটটা। তয় বছরে ১০০,০০০ ডলার দিলে আপত্তি কিসের।

৭। ৪ জুলাই (এখানকার স্বাধীনতা দিবস) গিয়েছিলাম রোড ট্রিপে অরেগনের ক্রেটার লেকে, যেটা বিখ্যাত নীল রঙ এর পানির জন্য। কয়েক পিস ছবি দিলাম, সাথে আমার পিচ্চির লেটেস্ট আপডেট। ওর দিকে তাকিয়ে থেকেই এই মরার যায়গার পরে আছি আড়াই বছর, নইলে কবে…



৩,৭৯৩ বার দেখা হয়েছে

৬৯ টি মন্তব্য : “শিরোনামহীন ব্লগর ব্লগর”

  1. ইফতেখার (৯৫-০১)

    আপ্নের ছানাটা অতীব চুইট ... নামটা জানি কি? এদেশি মেয়েদের মতন দেখা মাত্র ঊঊঊঊঊঊঊঊঊঊঊ করে আওয়াজ দিতে পারলাম না, তবে ইচ্ছাটা উকি মেরে যে যায়নি তাও না।

    ক্রেটার লেকের ছবিটা দেখে টুডু লিস্টটা বড় করলাম ... এবং মোটামুটি উপরের দিকেই যোগ করলাম। আপনেরে নিয়া যাবো ... তবে ঘরের বাইরে থেকে ফোন দিয়া শিউর হয়ে নিতে হবে আন্ডি পড়ে বসে আছেন কিনা 😉

    ষ্টারক্রাফট ১ ধুমায়া খেলসি .... এই স্টারক্রাফটটা খেলার খুবই শখ, কিনার মতন অর্থ নাই (প্লেনের টিকিট পার্টটা রিভিজিটেড), আপনে তো মালদার পুরুষ (পুলাপাইন একদম চুপ থাক কৈলাম) .... আপনে কিনার পর ধার দেন না 😉 😉 ডেক্সটপটা কিনার সাথে সাথে ফেরৎ দিয়া দিবো কথা দিলাম 😉 😡 😡 ;)) ;))

    জবাব দিন
  2. আয়েশা ( মগকক) আয়েশা

    ভাইয়া, মেয়ে টা তো এন্জেল....
    বৃষ্টি কে ভালবাসতে শিখলে অরিগনও ভালো লাগবে ।সব সময় সবুজ, তুষার আবৃত পর্বতচূড়, লেক, ১৮০ ডিগ্রী র জোড়া রংধনুর মনোরম সৌন্দর্য আর বসন্তে টিউলিপের দিকে তাকাতে ভুলবেন না।
    নিউ ইয়র্ক সিটিতে লিভিং কস্ট টা এত বেশি যে সেখানে ১০০ k
    আর পোর্টল্যান্ডের ৭০ k এর কোনো পার্থক্য দেখিনা।
    চাইল্ড সেফটি স্টেযার গ্যেট লাগানোর কথা ভেবেছেন কি কখনো? আমি লাগিয়ে নিয়েছি।
    লিখার সাথে ছবি যোগ করাতে আরো প্রানবন্ত মনে হচ্ছে।

    জবাব দিন
    • মরতুজা (৯১-৯৭)

      ধন্যবাদ।
      নিউ ইয়র্কের ব্যাপারটা ঠিক। আপ ডাউন কমিউটে তিন ঘন্টা মেট্রোতে কাটিয়ে অফিস করা, হাই ইঙ্কাম ট্যাক্স, সেলস্ট্যাক্স, সে হিসাবে এখানে অনেক ভাল আছি কোন সন্দেহ নেই।

      চাইল্ড ডোর লাগানোর কথা ভেবেছিলাম। পরে দেখলাম বাসা যখন চেঞ্জ করছিই, কয়েকদিন ঠেকা দিয়ে চালাই। সিড়ির মুখে চেয়ার দিয়ে আটকে রাখি।

      জবাব দিন
  3. কামরুলতপু (৯৬-০২)

    যাক আপনার উছিলায় সিসিবির একটা গেট টুগেদার হবে। আমি আবার সেই সময় দেশে থাকব। লাকটা ভালই বলতে হচ্ছে।
    পিচ্চিটা মাশা আল্লাহ হেভভি কিউট হইছে।

    জবাব দিন
  4. মাসরুফ (১৯৯৭-২০০৩)

    মাস্ফুদাকে অভিনন্দন ঠোলা বাহিনীতে সুযোগ পাবার জন্য। ক্লাস এইটে একবার কলেজ থেকে বাসা আসার সময় এক পিচ্চি আমারে দেইখা ঠোলা কয়া ডাক দিসিল। তোমার কস্ট আমি বুঝি মাসরুফ। তারপরো অভিনন্দন
    আমার কেন জানি মনে হচ্ছে আমাকে বাঁশ দেয়া হলো :-B (কপিরাইট মইনুল ভাই)

    অফ টপিক- ১)আমার মাস্ফ্যু নামের সাথে "দা" লাগায় ব্লগের ছুডো পুলাপাইন,কিন্তু আপনি তো বড় ভাই,আমিই বরং আপনেরে মর্তুজাদা ডাকুম ভাবতেছি।
    ২) পরের বিসিএসেও রিটেনে টিকছি।ভাইভাটা ফাটাফাটি হইলে একটা অতি ক্ষীণ সম্ভাবনা আছে(না হওয়ার সম্ভাবনা ৯৯%) পরথম পছন্দ(ফরেন) পাওয়ার।ওইতা হইয়া গেলে শিফট কইরা ফেলুম,তখন আর কেউ ঠোলা কইয়া গালি দিতে পারবোনা :dreamy:
    ৩) ইয়ে বস, আপনার ওই কচিকাঁচার সিরিজের পরের পর্ব কবে পামু?সেই ইন্দাইয়ারবনাইন্টিন্সিক্সটিনাইন থিকা অপেক্ষায় আছি আইজুদ্দিন হয়া বইসা আছি...
    ৪) রাইহা মামনি তো অনেক বড় হইছে।ইনশা-আল্লাহ আরো বড় হয়ে ও ওর মাস্ফ্যু চাচার মত পুলিশ অফিসার হবে, সোয়াটের স্নাইপার ইউনিটে জয়েন করবে B-) :-B

    জবাব দিন
  5. আশিক (৯১-৯৭)

    মামা তোর ছানা তো মাশাল্লাহ অনেক cute. এইবার reunion এ তো তোর মেয়েকে নিয়ে টানাটানি পরে যাবে। তুই reunion এ থাকবি ....খুবই আনন্দ লাগছে...ছবিগুলো অসাধারন...আসতে মন চায়...ভালো থাকিস...দেখা হবে... 🙂

    জবাব দিন
  6. দিহান আহসান

    ইয়া আল্লাহ সেদিন না মামনী কিউমিউ করলো, মাশাল্লাহ খুব্বি কিউট হয়েছে। একদম পাকনা বুড়ি। :hug:
    এইখানে পোলা দুইটারে দেখে " ওহ হাই হ্যান্ডসাম কইয়া কাছে গিয়া গাল টাইনা দেয় ", আমার ভাইয়ে কয় " চিক ম্যাগনেট " কারন তাদের লইয়া বাইরে গেলেই মাইয়ারা কাসে আইসা কথা কয় :chup:
    যাভিয়ের যখন প্রথম সিঁড়ি দেখে কাছে গিয়া চিন্তা করে এক পা দিয়া নামবো কি নামবো না ;)) একবার ভয় ভাঙ্গার পরেতো তারে কি গেইট দিমু? ভাইঙ্গা ফেলানোর অবস্থা হইসে। বড়টা সে হিসেবে শান্ত হয়েছে। 🙂
    আর খাওয়া নিয়া চিন্তা কইরেননা, ফজু ভাইয়ের টেকনিক কাজে লাগতে পারে, আমিও একি সিস্টেম করে লাভ পাইসি। অবশ্য ভাইয়া সব বাচ্চা এক হয়না, যেমন আমার ছেলেরা দুই ভাই দুইরকম হয়েছে সব কিছুতে। সেটা খাওয়া, দুষ্টামী, পড়া, গোসল যাই বলেন্না কেন। 🙂
    ভাইয়া মামনী কি এখন কোন কথা বলে বা কোন শব্দ? এই সময়গুলা আর পাবেননা, কিভাবে সময় দ্রুত চলে যায়, তাইনা? আমিওতো ভাইয়া ওদের আর বড় করতে চাইনা, আমার কোলে এরকম করেই থাকুক আজীবন। 🙁
    লেকের ছবিটাও সুন্দর আসছে খুব। কথা হবে ভাইয়া, একদিন কল দিয়া মামনীর মা-বাবা ডাক শুনুমনে। 😀
    ভালো থাকবেন আপনারা 🙂

    জবাব দিন
  7. আশহাব (২০০২-০৮)

    অনেকদিন পর মরতুজা ভাই, লেখা দারুন হয়েছে। রাইহা মামনিকে অনেক অনেক আদর।
    রিইউনিয়নে দেখা হবে। 🙂


    "Never think that you’re not supposed to be there. Cause you wouldn’t be there if you wasn’t supposed to be there."
    - A Concerto Is a Conversation

    জবাব দিন
  8. সাকেব (মকক) (৯৩-৯৯)

    ভাই,
    আপনার পুতুলটারে কাজলের টিপ দিয়া রাইখেন...
    নজর লাইগা যাবে নাইলে...

    পুরা "হাট্টুম হুট্টুম কুট্টুম কা" একটা...


    "আমার মাঝে এক মানবীর ধবল বসবাস
    আমার সাথেই সেই মানবীর তুমুল সহবাস"

    জবাব দিন
  9. তানভীর (৯৪-০০)

    আপনি দেশে আসলে আপনার উছিলায় যদি একটা গেট-টুগেদার হয় তাইলে খুব খুশি হইতাম। আর গেট-টুগেদারে অবশ্যই রাইহা মামণিকে নিয়ে আসবেন।
    দেশে আসেন, অনেক অনেক মাস্তি কইরা যান। 🙂

    জবাব দিন
  10. কামরুল হাসান (৯৪-০০)

    আমার বাসার ছাদে একটা গেট টুগেদার করতে চাই।
    জলদি দেশে আসেন।


    ---------------------------------------------------------------------------
    বালক জানে না তো কতোটা হেঁটে এলে
    ফেরার পথ নেই, থাকে না কোনো কালে।।

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।