আমার লেখা একটি ড্যাশিং কবিতা

স্বর্ণলতা সেন
কবি তারক নারায়ণ ঠাকুর।

স্বর্ণলতা, হাজার বছর ধ’রে আমি পথ হাঁটিতেছি পৃথিবীর পথে
তুমি প্লিজ, বোলো নাকো কথা অই যুবকের সাথে
এসেছে নতুন শিশু, তাকে ছেড়ে দিতে হবে স্থান,
না জানি কেন রে এত দিন পরে জাগিয়া উঠিল প্রাণ।

কড়কড়ে রৌদ্র আর গোলগাল পূর্ণিমার চাঁদ
স্বর্ণলতা, আমি আর কত বড় হবো? আমার মাথা এ ঘরের ছাদ,
আমার জীবন ভালোবাসাহীন গেলে,

তেত্রিশ বছর ভিজায়ে রেখেছি দুই নয়নের জলে।

হায়, তোমার হৃদয় আজ ঘাস, 

আর এইখানে কলঙ্কের আবাস।

স্বর্ণলতা, অইখানে যেয়ো নাকো তুমি,
জন্মেই দেখি ক্ষুব্ধ স্বদেশভূমি।
আমি এমন ব্যবস্থা করবো যাতে সেনাবাহিনী
লুটাবে ধুলায় আর বলিবে, কেউ কথা রাখেনি
চলে যাব-তবু আজ যতক্ষণ দেহে আছে প্রাণ

কেমনে পশিল গুহার আঁধারে প্রভাতপাখির গান!

নোটিশঃ আমার লেখা কবিতা। জীবিত মৃত কিংবা অর্ধমৃত কারোর কীর্তিকলাপ এই কবিতার ভাব-উদ্রেকের জন্যে দায়ী নয়। কবিতা আমার লেখা কি না এই বিষয়ে কেউ সন্দেহ প্রকাশ করিতে চাইলে স্বাগতম, কিন্তু তাহার কল্লার গ্যারান্টি আমি দিতে পারবো না। তার জন্যে প্লিজ হিটলারের সাথে দেখা করুন।

কবিতার সাথে বোনাস গান।
গান নিয়াও সন্দেহ করা যাবে না। গানের মূল অংশ মানে গ্যাঙর গ্যাং আমার গাওয়া। সাথে সহকারী হিসেবে গেয়েছে আমার বৌ। এনি পোবলেম, প্লিজ সি হিটু।

৩,১৯০ বার দেখা হয়েছে

৩৭ টি মন্তব্য : “আমার লেখা একটি ড্যাশিং কবিতা”

  1. কাইয়ূম (১৯৯২-১৯৯৮)

    কবি তারক নারায়ণ ঠাকুরের কবিতা পড়ে তো পিরা গেলাম =)) =))

    বইমেলাতো কয়েক মাস পরেই, স্বর্ণলতা কাব্য সমগ্র বের করবি নাকি? :grr:


    সংসারে প্রবল বৈরাগ্য!

    জবাব দিন
  2. মাহমুদ (১৯৯০-৯৬)

    এমনিতে কবিতা বুঝিনা খুব একটা। তবে কবি তারক নারায়ণ ঠাকুরের কবিতা ভাল্লাগছে। 🙂


    There is no royal road to science, and only those who do not dread the fatiguing climb of its steep paths have a chance of gaining its luminous summits.- Karl Marx

    জবাব দিন
  3. মুজিব (১৯৮৬-৯২)

    :)) =)) =))
    জয় বাবা তারকনাথ! :boss:
    জয় বাবা তারকনাথ!! :boss:

    বাবা, এতদিন তো টুকটাক ছ্যাটায়ার-ম্যাটায়ার লিখে সিসিবিতে একটু আধটু বাহবা কুড়োচ্ছিলুম। এখন তোমার লেখা দেখে তো মনে হচ্চে সেটাও বুঝি হাত ছাড়া হয়ে যাবে! হায় হায় আমি এখন যাই কই? তোমার আশিব্বাদ পেলে লাইন পাল্টে দু-চার লাইন কাব্য- কবিতা লেখার চেস্টা করতে পারি।
    :clap: :clap:
    অসাধারন লিখেছো। প্রিয়তে রাখলাম :thumbup:


    গৌড় দেশে জন্ম মোর – নিখাঁদ বাঙ্গাল, তত্ত্ব আর অর্থশাস্ত্রের আজন্ম কাঙ্গাল। জাত-বংশ নাহি মানি – অন্তরে-প্রকাশে, সদাই নিজেতে খুঁজি, না খুঁজি আকাশে।

    জবাব দিন
  4. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    যাক, কোন এক উপলক্ষ্যে তো তারেক ভাই থুক্কু কবি তারক নারায়নের দেখা মিললো এতদিন পরে :p


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
  5. ইশহাদ (১৯৯৯-২০০৫)

    ইয়ে, কবিগুরু সবগুলো কবিতাই তো আমার বুকশেলফের দেরাজে খুঁজে পেলুম
    আমি কি কোনও 'ভিন্ডিকেশন' করছি? নাকি ম্যাস হিস্টিরিয়ায় আক্রান্ত হলুম? 😉

    যাকগে, দারুণ কাজ। গতকাল রাতে ঠিক এইরকম একটা মোজাইক পোস্ট সাজাচ্ছিলাম।
    কাজ কমে গেল। ভাবছি 'তথ্যসূত্রঃ ইন্টারনেট' উল্লেখ করে এই পোস্টটাই দিয়ে দেব কিনা? 😀



     

    এমন মানব জনম, আর কি হবে? মন যা কর, ত্বরায় কর এ ভবে...

    জবাব দিন
      • ইশহাদ (১৯৯৯-২০০৫)

        যত সমস্যা এই সিসিবিয়ানদের নিয়ে। আমাদের মধ্যে কেউ কেউ, হের হিটলারের সমালোচনা করে বেশ একটা আত্মতৃপ্তি পায়। কেন? হিটলারের বই পড়লে দেখবেন, মাস্টারপিস তার বই 'মেইন কাম্প'-এর 'কপি এন্ড পেইস্ট' অংশটি কি চমৎকার। তাছাড়া, হিটলার ইউরোপে বহু বছর কাটিয়েছেন। তিনটি আন্তর্জাতিক বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়ন করেছেন। কিন্তু ঐ যে আপনি বললেন লেলিয়ে দেবার কথা, ঘটনাটা ওখানেই। আপনার অবজার্ভেশনগুলো মেজর অবজার্ভেশন, জেনারেল নয়। হিটলার কখনোই কোনও ব্লগের বারোটা বাজাননি। সেখানে একজন সিসিবিয়ানের নিগৃহিত হওয়ার কোন কারণই নাই।

        plagiarist ব্লগাররা সবার উপরেই অত্যাচার করছে আপনার জানা নেই। পৃথিবীর ৯০% plagiarism এর পিছনে আছে এই ব্লগাররাই। আপিসের দেরাজ কিন্তু এনাদেরই সৃস্টি, একটি বিশেষ উদ্দেশ্যে। নন-ব্লগার হিটলারের লেখা বইটা একটু পড়ে দেখেন। হিটলারের একটা বাণী আপনাকে বলছি, "I could have annihilated all the persons of the world related to plagiarism, but I left some, so that one day the world understand why CCB was on fire with them." (সম্পাদিত)



         

        এমন মানব জনম, আর কি হবে? মন যা কর, ত্বরায় কর এ ভবে...

        জবাব দিন
  6. পারভেজ (৭৮-৮৪)

    আমি সাক্ষি, যে এই পুরা কাজটা একদম অরজিনিয়াল। নাথিং ফেইক। নো প্লেজিয়ারিজম ইনভল্বড।
    সকল রেফারেন্স ও ক্রেডিট এক্কেরে নিয়মানুযায়ি দেয়া হয়েছে...
    খালি একটা ব্যাপারে স্লাইট মন খচ খচ করতেছে। সেটা হলো
    গানের মূল শিল্পীর গ্যা গ্যা শুনে ব্যাকগ্রাউন্ডে যে মহা-মূল শিল্পীর হাসি শুনলাম, তাঁর সাইটেশন কুতায়?
    তথ্য প্রযুক্তির জামানায় এত্তো বড় জালিয়াতি, মানি না মানবো না।
    মহা-মূল শিল্পীর ক্রেডিট প্রকাশ না করার তেব্রো নিন্দা জ্ঞাপন করলাম।
    এর প্রীতিবাদে (প্রতিবাদের সময় প্রীতি বাদ দেয়া বয় বলে এটাই সিঠিক বানান) চার তারিখ থেকে দেশব্যাপি লাগাতার হরতাল.........


    Do not argue with an idiot they drag you down to their level and beat you with experience.

    জবাব দিন
  7. জুনায়েদ কবীর (৯৫-০১)

    তারেক ভাই,

    আমি নিশ্চিৎ মাইকেল মধুসূদনের পর স্বর্ণলতাকে নিয়ে এত চমৎকার কবিতা আর কেউ লেখেনি, টাইপিং করে নি কিংবা কপি পেস্টও করে নি...
    ব্রাভো!

    লতার জগতে আপনার নাম স্বর্ণাক্ষরে লেখা হয়ে থাকবে!
    আপনি কি একটু ঝেড়ে দৌঁড় দেবেন?
    আপনাকে তাহলে ফলো করতাম!


    ঐ দেখা যায় তালগাছ, তালগাছটি কিন্তু আমার...হুঁ

    জবাব দিন
  8. মোকাব্বির (৯৮-০৪)

    মাথা নষ্ট! এই রকম মিলাইসেন কেমনে?! =)) =))
    চয়েজ হইসে! 😀
    তিন মাস পর লিখলেন। একটু নিয়মিত লিখেন না। পড়ে মন খুলে একটু হাসি! 😀


    \\\তুমি আসবে বলে, হে স্বাধীনতা
    অবুঝ শিশু হামাগুড়ি দিল পিতামাতার লাশের ওপর।\\\

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।