একটা জরিপ/ভোটাভুটি করলে কেমন হয়?

অনেক দিন ব্লগে আসা হয় না। আজকে হঠাৎ খুলে বসলাম। খোলার সাথে সাথেই একটা কথা মনে হল। এই কারণেই বোধয় বিয়ে-শাদী করার পরে লোকজন হালকা বোরিং হয়ে যায়। কারন কথাটা আমার বিবাহ করার জন্যই মনে হয়েছে। মানে বউয়ের সাথে বাত-চিত কালীন। বউয়ের সাথে কথা হচ্ছিল ক্যাডেট কলেজ নিয়ে। সে তার ছেলে মেয়েদের কে ক্যাডেট কলেজে দিব কি দিবে না -এই বিষয়ে। আমি তার ইচ্ছা শুনে একটু মনক্ষুন্নই হইছিলাম। এরপরে ক্যাডেট কলেজ সংক্রান্ত কথা আসলেই সেই কথা মনে পড়ে।
এখন আমার খুব জানতে ইচ্ছা করছে ব্লগের বাদ-বাকি ক্যাডেটদের কি অবস্থা? আমারটা পরে বলি। সবারটা জানার পর।
কারা কারা তাদের ছেলেমেয়েদেরকে ক্যাডেট কলেজে দিবে বা দিবে না?
ম্যাক্সিমাম মন্ত্যব্য আশাকরি। যদি সম্ভব হয় কারণ সহ লিখা হউক।
ধন্যবাদ।

১২,০২৩ বার দেখা হয়েছে

১৭৭ টি মন্তব্য : “একটা জরিপ/ভোটাভুটি করলে কেমন হয়?”

  1. দিহান আহসান

    সালাম ভাইয়া।
    আমার জামাই অবশ্যই ক্যাডেট কলেজে দিতে চায়। ভালো মানুষ হবে, রেসপনসিবল হবে,
    সেই সাথে আরো অনেক কিছুই শিখবে।
    কিন্তু আমি দিতে চাইনা, মা'তো। ওকে ছেড়ে থাকতে কষ্ট হবে আর ওর অনুভুতিগুলো তখন প্রকাশ করতে হয়ত লজ্জা পাবে। যা আমি মানতেই পারছিনা, 🙁
    আমার না শুনে তখন বলে ছেলেকে জিজ্ঞেস করব, ও যেতে চাইলে তখনতো দিতেই হবে।
    আমি " না " করি, তাতো মায়ের মন তাই।
    কিন্তু যখন সময় হবে তখন হয়ত না করবনা।

    ভোটঃ আমরা দুইজনে'ই পক্ষে। 🙂

    জবাব দিন
  2. নাজমুল (০২-০৮)

    আমি আমার সবগুলারে দিব :shy:
    ইচ্ছা আছে ১২টাকে ১২টাতে দেয়ার যদি না হয় তাহলে পালক এনে ভর্তি করবো।
    আমার কাছে এর থেকে ভালো আর কিছু মনে হয়না B-)
    যদিও ক্যাডেট কলেজে সবাই খাপ খাওয়াতে পারেনা তাই নিজে থেকে কলেজ থেকে চলে আসে। 🙁
    কিন্তু তারাও পরে আফসোস করে 🙁

    জবাব দিন
  3. কালবেলা নামের মানুষটা যে আসলেই ৯৯ ব্যাচের? নাম নাই, ক্যাডেট নাম্বার নাই......আমি কালকে উত্তরাধিকার নাম দিয়া শুরু করি ভাই?সমরেশের পরের পার্ট 😀 😀

    জবাব দিন
  4. এহসান (৮৯-৯৫)

    আমি আমার ছেলে মেয়ে কাউকেই দিবো না। আমার সবচেয়ে আনন্দের সময় ছিলো ক্যাডেট কলেজ। কিন্তু আমি দিতে চাই না। সোহরাব আলীর মত কেউ আমার ছেলেরে শারীরিক অথবা মানসিক নির্যাতন করার সম্ভাবনা যত দিন থাকবে ততদিন আমার কোনো ইচ্ছা নাই।

    আমার বউ এর খুব ইচ্ছা ক্যাডেট কলেজে দেবার। দুনিয়াটা ফেস করার জন্য প্রস্তুত হতে নাকি ক্যাডেট কলেজে যাওয়া দরকার।

    এখন পর্যন্ত সিদ্ধান্ত হলো আমি বেচে থাকলে আমার ছেলে ক্যাডেটে পড়বে না। কিন্তু এর আগেই আমি মরে গেলে ক্যাডেটে দেয়া হবে।

    জবাব দিন
    • কালবেলা (৯৩-৯৯)

      :)) :)) এহসান ভাই.....দারুন!! আসলে এইখানে একটা বিশাল ট্রাজেডি কাজ করতেছে কিন্তু দেখেন আপনি! আমরা নিজেরা হেব্বি মজা কইরা ক্যাডেট লাইফ কাটায়া আসলাম মাগার নিজের ছেলে-মেয়ে রে ক্যাডেটে দিতে কিন্তু ভীষণ চিন্তার মধ্যে পইড়া যাই......

      এইখানে কি জানি একটা বোঝার ব্যাপার আছে...বুঝতে হবে। B-)

      ধন্যবাদ আপনার মন্তব্যের জন্য ভাইয়া। 🙂

      জবাব দিন
  5. সন্তান পালনের মত ভয়ংকর( দায়িত্বের পরিমাণের দিক দিয়ে) টপিকটা নিয়ে কোনদিন ভাবিনাই তাই অন্য কেউ আমার সাজেশন চাইলে যা বলি সেটাই লিখছি:

    আমি বলব, বাইরে কোন ছেলে / মেয়ের লাইফ যথেষ্ঠই নিয়মতান্ত্রিক হলে, তার বাবা-মা দুইজনই তার ইন্টার পাস করা পর্যন্ত তার জন্যে পর্যাপ্ত সময় বের করতে সক্ষম তাহলে ক্যাডেট কলেজে দেয়ার কোন কারণ নাই.............. নয়তো দেয়া উচিত.......

    জবাব দিন
    • কালবেলা (৯৩-৯৯)

      :-B
      কথাটা মনে ধরছে। তারপরও কিছু কথা থেকে যায়। অনেকের মতে এখনো বাংলাদেশের শিক্ষাদান পদ্ধতি+ শিক্ষাঙ্গন প্রেক্ষাপটে " ক্যাডেট কলেজ "গুলো শীর্ষে । সেক্ষেত্রে একটি দম্পতি তাদের ছেলেমেয়ে মানুষ করার জন্য যথেষ্ট টাইম, মানি এন্ড এনার্জি পজেস করা সত্বেও কেন ক্যাডেট কলেজে দিবে না?

      জবাব দিন
      • ভাইয়া শিক্ষাদান পদ্ধতিতে শীর্ষে এইটা কিভাবে বলেন ???

        আমাদের কলেজে কোন ডিপার্টমেন্টের টিচাররা অসাধারন ছিল বলেন ??? এনাম স্যার, রইস স্যার ছাড়া আর কোন টিচারকেই আমার অসাধারন লাগে নাই............( পড়ানোর দিক দিয়ে )
        বাইরে কিন্তু আপনার সামনে অনেক অপশন থাকবে সন্তানকে বেছে বেছে কোন একজন শিক্ষকের কাছে পড়ানোর কিন্তু কলেজে এই সুযোগটা নাই..........

        ক্যাডেট কলেজে ভাল রেজাল্ট নিয়ে টিচাররা এটাকে তাদের কৃতিত্ব বলে অনেক গর্ব করেন কিন্তু আমি কোনদিনই মানবো না এইটা...........আমি অবশ্যই বলব ভাল রেজাল্ট করে শুধু সহপাঠীদের জন্য........... শিক্ষক/শিক্ষাদান পদ্ধতির অবদান একশতে বড়জোর ৩০%

        ********************************************************************

        আর ভাইয়া দ্বিতীয় পয়েন্টে বলব, যখন আপনার কাছে পর্যাপ্ত সময়,সুযোগ আছে সন্তানকে দেখাশোনা করার তখন কেন সন্তানকে দূরে পাঠাবেন ???? আর বহু ভাল ছেলে বাইরে ভাল রেজাল্ট করলেও কলেজে এসে নষ্ট হয়ে গিয়েছে এমন উদাহরন আছে..... সুতরাং বাইরে নিজের সন্তানের বেড়ে ওঠায় যদি সন্তুষ্ট থাকেন তাহলে কি দরকার রিস্ক নেয়ার ????? ( আমি বরাবরই ডিফেন্সিভ মাইন্ডেড )

        তবে হ্যা, দূরে পাঠানো উচিত ভার্সিটি লাইফে........ কারণ ভার্সিটি লাইফে হলে থাকা খুবই প্রয়োজন বলে মনে করি....... প্রত্যেক বাপ-মা'র উচিত সন্তানকে ভার্সিটি লাইফটা তার মত করে লিড করতে দেয়া......

        জবাব দিন
        • মাসরুফ (১৯৯৭-২০০৩)

          সিউলের কথাগুলোর সাথে আমি এক মত।ক্যাডেট কলেজে ছেলেমেয়ে পাঠানো অনেক ক্ষেত্রেই জুয়াখেলার মত হয়ে যায় যেখানে জয়ের সম্ভাবনা অনেক বেশি কিন্তু সেই সাথে হারার সম্ভাবনাও থাকে।বাইরেও থাকে, কিন্তু নিজের হাতের কাছে ছেলে থাকলে আফসোসটা কিছুটা কম হয়।

          জবাব দিন
        • এহসান (৮৯-৯৫)
          যখন আপনার কাছে পর্যাপ্ত সময়,সুযোগ আছে সন্তানকে দেখাশোনা করার তখন কেন সন্তানকে দূরে পাঠাবেন? তবে হ্যা, দূরে পাঠানো উচিত ভার্সিটি লাইফে…….. কারণ ভার্সিটি লাইফে হলে থাকা খুবই প্রয়োজন বলে মনে করি। প্রত্যেক বাপ-মা’র উচিত সন্তানকে ভার্সিটি লাইফটা তার মত করে লিড করতে দেয়া।

          :thumbup:

          জবাব দিন
        • রাব্বি (১৯৯৮-২০০৪)

          দিহান ভাবিরে অনারারি ক্যাডেটশিপ দেবার জোরালো দাবি জানাচ্ছি।

          কালবেলা ভাই বিয়াই হইলো না, তার আবার পুলামাইয়া আর তারও আবার ক্যাডেট। 😕 😕

          তয় আমি ক্যাডেট এ দিব। কারন আমার ছোট বোনের পড়ালেখা নিয়ে আমার মা যে টেনশ্ ন করে আমারে নিয়া তার half ও করতে হয় নাই। coz আমি একটা সিস্টেম এর মধে্য ছিলাম।
          এখন সিস্টেমটা কে কিভাবে নিবে সেটাই Question.

          আর 2nd কারন হল আমি চাই আমার পুলাও আমার মত proud করে বলতে পারে যে আমি ক্যাডেট, তার এই দেশ এর জন্য কিছু responsibility আছে। এই বোধটা ক্যাডেট কলেজ অনেক অল্প বয়স থেকেই grow করায়ে দেয়। আমি চাই না আমার পুলা আমদের রাজনীতিবিদের মত half মানুষ হবে। তার মানে এই না যে বাইরে ভাল করা সম্ভব না।

          আর ৩য় কারন হল আমার মনে হয় যেহেতু আমিও ক্যাডেট তাই আমি আমার ছেলে বা মেয়ের mentality সহজে বুজবো। like CCB এখানে আমরা অনেকেই অনেক্কে দেখিনাই but আমার মনে হয় না একে অপরকে বুজতে আমাদের কোন সম্সস্যা হইছে।

          জবাব দিন
          • জটিল কথা কইছেন রাব্বি ভাই
            আমি তো আপনের যুক্তি শুইন্না ফিদা হইয়া গেলাম গা :hug: :hug:

            like CCB এখানে আমরা অনেকেই অনেক্কে দেখিনাই but আমার মনে হয় না একে অপরকে বুজতে আমাদের কোন সম্সস্যা হইছে।

            :thumbup: :thumbup: :thumbup: :boss:

            জবাব দিন
      • "অনেকের মতে এখনো বাংলাদেশের শিক্ষাদান পদ্ধতি+ শিক্ষাঙ্গন প্রেক্ষাপটে ” ক্যাডেট কলেজ “গুলো শীর্ষে । "
        ক্যাডেট কলেজ শিক্ষাদান পদ্ধতিতে শীর্ষে....without any doubt. আমাদেরকে ৭/৮/৯/১০ এ যারা পড়াতেন, তারা সবাই ইউনিভার্সিটির প্রফেসর ছিলেন - স্কুলটিচার না। তার উপর ইউনিভার্সিটির ভাল ছাত্রদেরকেই কলেজে টিচার নিয়োগ দেয়া হত। আমাদের ভাগ্য যে আমরা অল্প বয়সেই অনেক expert মানুষ টিচার হিসাবে পেয়েছি। কেউ খারাপ না ভালো লেকচার দেয় সেটা এখানে গৌণ। সপ্তম শ্রেণীতেই যে আমাদের ইউনিভার্সিটির প্রফেসররা পড়াতেন - এ ব্যাপারটা বুঝতে আমার অনেক সময় লেগেছে -কলেজ থেকে বেরোনোর অনেক পরে এটা উপলব্ধি করেছি।

        জবাব দিন
  6. জাবীর রিজভী (৯৯-০৫)

    আমার বউ যদি হয় এক্স ক্যাডেট, তাইলে সবগুলারে দিব।

    আর যদি না হয়, তখন দুইজনে মিল্যা decision নেয়া যাইব।

    তয় আমি ক্যডেট কলেজে পড়ানোর ঘোরতর পক্ষপাতী। কারণ, ওই শিক্ষাটুকু পরের জীবনে অনেক কাজে লাগে। আমি এখন বুঝি......

    জবাব দিন
  7. কামরুল হাসান (৯৪-০০)

    খুব কঠিন প্রশ্ন।
    একটু দাঁড়ান ভাইয়া , আমার বউকে জিজ্ঞেস করে আসি। B-)


    ---------------------------------------------------------------------------
    বালক জানে না তো কতোটা হেঁটে এলে
    ফেরার পথ নেই, থাকে না কোনো কালে।।

    জবাব দিন
  8. মাসরুফ (১৯৯৭-২০০৩)

    আমি দিতে চাই কিন্তু আমার "ইয়ে" এর ঘোরতর বিরোধী 🙁 তার বাপ ক্যাডেট কিন্তু সে মনে করে যে ছোট ছোট ছেলেমেয়েদের ক্যাডেটে পাঠানো নাকি অনেক কঠোর একটা কাজ।আর আমিও মনে করি যে এইটা অনেক রিস্কি-ক্যাডেট কলেজে ৯৯% ছেলে খুব ভাল মানুষ হয় আর ওইখানে থেকে প্রতিকূল পরিস্থিতে লড়াই করার যে ক্ষমতা জন্মায় দুনিয়ার আর কোন প্রতিষ্ঠান এই জিনিসটা দিতে পারবেনা-কিন্তু এই ১% যে নষ্ট হয় সেইটাও কিন্তু খুব দুঃখজনক কারণ ক্যাডেট কলেজে বেছে বেছে সাধারণত পড়াশোনায় খুব ভাল ছেলেদেরকেই নেয়া হয়।

    কি হবে জানি না কিন্তু যদি ক্যাডেট কলেজে আমার ছেলে চান্স পায়(চান্স পাওয়াটাও এত্ত সহজ না) তাহলেও দেবার সময় ভাজার বার বার চিন্তা করব 🙁 🙁

    জবাব দিন
  9. সামিয়া (৯৯-০৫)

    ভাল টপিক, এখনও যেহেতু চিন্তা করার সুযোগ আসে নাই তাই বলা যাচ্ছে না একদম সেই পরিস্থিতে কি করব, তবে আপাত দৃষ্টিতে মনে হচ্ছে যদি আমার সাধ্য থাকে, তাইলে কান ধরে সবকয়টারে পাঠায় দিব, (শুধু নিজেরগুলা তাই না, বোন, ভাই যে যে আছে সবার বাচ্চাকাচ্চাকে) ছেলে হলে দুইবার ভাবব, কিন্তু মেয়ে হইলে অবশ্যই, একসাথে থেকে মানুষ চিনুক, পঞ্চাশ রকমের জায়গা থেকে পঞ্চাশ রকমের মানুষের কষ্ট, দুঃখ ভালবাসা ভাগ করে নিতে শিখুক।

    জবাব দিন
  10. আহসান আকাশ (৯৬-০২)

    যদিও ভাবার সময় আসে নাই... তবে আমার ইচ্ছা আছে দেবার, তবে ঐ পক্ষের খুব একটা সায় নেই 🙁


    আমি বাংলায় মাতি উল্লাসে, করি বাংলায় হাহাকার
    আমি সব দেখে শুনে, ক্ষেপে গিয়ে করি বাংলায় চিৎকার ৷

    জবাব দিন
  11. সেলিনা (১৯৮৮-১৯৯৪)

    কাল বেলা
    দিল্লীকা লাড্ডু খেয়ে পস্তানোর সিদ্ধান্ত নেয়ায় অভিনন্দন
    :clap: :clap:

    তুমি মনে হয় এর আগেও প্রসঙ্গটা তুলেছিলে তোমার একটা লেখায়, ঐ রকম আরো লেখা দাও, বিষয়টা আসলেই আলোচনার যোগ্য, ১% ছেলে-মেয়ে কেন মানিয়ে নিতে পারছেনা, তারপর বাইরে থাকলেই কি ভালো? মনেতো হয়না, কয়েকদিন আগে নটরডেম কলেজে সহপাঠীর হাতে সহপাঠীর মৃত্যু সেটাই প্রমান করে, তারপরও আলোচনা চলুক, দেখি আমরা বুঝতে পারি কিনা, কি করা যায়।

    জবাব দিন
  12. হাসান (১৯৯৬-২০০২)
    তবে ভাবীর অবস্থা চিন্তা করে একটু কষ্ট লাগছে……হাউভার ব্যাপার না।
    ১২ সন্তানের জননী হতে পারবে এমন পাত্রীর সন্ধানে পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিতে হবে……

    আচ্ছা ভাই নাজমুল কি কোথাও বলছে যে ওর বউ একজনই হবে? 😉 টেনশন নিয়েন না :khekz:

    জবাব দিন
  13. রায়হান আবীর (৯৯-০৫)

    আমার ছোট ভাইয়ের সময় হয়েছে। আব্বু ক্যাডেটে দিতে চায়। আমি অবশ্য "না" বলেছি।

    কারণটা খুবি সাধারণ। আমি প্রচন্ড মানসিক চাপে ক্যাডেট কলেজ পার করেছি। ভাগ্য ভালো এই চাপটা যেইভাবেই হোক সহ্যও করে গেছি। কিন্তু আমার কাজিন আমার একবছর সিনিয়র সে পারে নাই। ফলে কলেজ থেকে চলে আসতে হয়েছে।

    আমার পিচ্চি ভাইকে এই মানসিক চাপের পরীক্ষার মধ্যে ফালানোর ইচ্ছে নাই। তবে ওর যদি খুব ইচ্ছে থাকে তাহলে মানা করবো না।

    জবাব দিন
  14. রাব্বি (১৯৯৮-২০০৪)

    কালবেলা ভাই বিয়ে দেবার একটা ব্যাবস্থা করে দেন। সংসার করি তখন ভেবে একটা কিছু জানাবো। :grr: :grr:
    অ.ফ. (চামে পাত্রী চাই advertise টা দিয়া দিলাম। দিহান ভাবিপু বেপারটা এক্তু দেইকেন.... B-) )

    জবাব দিন
  15. বন্য (৯৯-০৫)

    ক্লাস সিক্স পর্যন্ত দেখুম...যদি দেখি পোলা/মাইয়া বান্দর টাইপের...তাইলে দিমু...যাতে একেবারে পাক্কা-বান্দর হইয়া আসতে পারে...বান্দর পুলাপাইন আমার খুব পছন্দ :thumbup: :thumbup: :awesome: :grr:

    আর যদি ভদ্র-সভ্য টাইপের হয়...তাইলে দিমুনা... :thumbdown:

    জবাব দিন
  16. সানাউল্লাহ (৭৪ - ৮০)

    তোমার পোস্টে আমি মন্তব্য করতে চাচ্ছি না, সেটা অবশ্য বলা দরকার। সিসিবিতে আমরা খোলামেলা সম্পর্কে বিশ্বাস করি। ক্যাডেট কলেজ সূত্রে পাওয়া সিনিয়র-জুনিয়র সম্পর্কের বাইরেও এই সম্পর্কটা আশা করি অধিকাংশ জেনে-বুঝে গেছে। তুমি নিক নিয়ে ব্লগে বিচরণ করলেও তাতে আমাদের কারো আপত্তি নেই। যেমন আছে স্বপ্নচারী কিম্বা কুচ্ছিত হাঁসের ছানা। ওরা যে মইনুল আর তুহিন সেটা প্রোফাইলে আমরা জানতে পারছি।

    তোমার প্রোফাইলে ক্যাডেট নাম, নম্বর ও ব্যাচের বিষয়গুলো উহ্য রেখেছ। তাই আমার অস্বস্তি হচ্ছে। অন্য কোনো ব্লগে হলে এ নিয়ে বিন্দুমাত্র আপত্তি থাকতো না। কিন্তু সিসিবিতে এই সম্পর্কটা ঠিক যায় না। বিষয়টি জানানোর জন্য মন্তব্য করলাম। তোমার লেখার বিষয় নিয়ে কিছু বলছি না।


    "মানুষে বিশ্বাস হারানো পাপ"

    জবাব দিন
    • কালবেলা (৯৩-৯৯)

      সানাউল্লাহ ভাই,
      আপনার এই মন্তব্যের পরে আমার পক্ষে আর ক্যাডেট নাম, ক্যাডেট নাম্বার না দিয়ে থাকা অসম্ভব হয়ে পড়ল।

      এখন বিষয় সম্পর্কে কিছু বলবেন তো?

      জবাব দিন
      • সানাউল্লাহ (৭৪ - ৮০)

        কালবেলা : ধন্যবাদ। মানুষটা চেনা গেলে কথা বলে আরাম। এখন তোমাকে কালবেলা ডাকতেও আপত্তি নেই।

        তোমার বিষয় নিয়ে বলি। আমার ছেলে এখন অষ্টম শ্রেণীতে পড়ে। ক্যাডেট কলেজে দেওয়ার চিন্তাও করিনি। ভালো-মন্দ বিবেচনা এখানে ছিল না। বিবেচনায় এসেছে ব্যক্তিস্বার্থ!! আমাদের একটাই সন্তান। ওর মা এখন ওকে নিয়ে ব্যস্ত থাকে। ওকে ক্যাডেট কলেজে পাঠালে আমার খবর ছিল! ইন্টারমিডিয়েটের পর তো আর ছেলেকে চাইলেও কাছে রাখতে পারবো না।

        আর সন্তানকে ক্যাডেট কলেজে পাঠানোর বিষয়ে প্রত্যেকের আলাদা মত আছে। পক্ষে-বিপক্ষে। আমার মত হলো, বাইরে যদি বাবা-মা সন্তানের যত্ন ঠিকমতো নিতে পারে তাহলে ক্যাডেট কলেজে পাঠানোর দরকার কি? আমাদের সময় বাবা-মারা ডজন, আধা-ডজন পোলাপাইন নিত। সবগুলোর দিকে ভালো করে নজরও দিতে পারতো না। এখন আমরা নিই, একটা কি দুইটা। এরা এখন অনেক বেশি যত্ন, তদারকি পায়। আর তাছাড়া ক্যাডেট কলেজগুলো কি আর আগের মতো আছে? ভালো শিক্ষকরা কি ক্যাডেট কলেজে যায়? নাকি ছেকে ছেকে ভালো ছেলেমেয়েদের নেয় বলে কলেজগুলো ভালো ফল পায়? যেমন আইডিয়াল, ভিকারুননিসা?


        "মানুষে বিশ্বাস হারানো পাপ"

        জবাব দিন
  17. নাজমুল (০২-০৮)
    সোহরাব আলীর মত কেউ আমার ছেলেরে শারীরিক অথবা মানসিক নির্যাতন করার সম্ভাবনা যত দিন থাকবে ততদিন আমার কোনো ইচ্ছা নাই।

    এহসান ভাই কথাটা এখনকার ক্ষেত্রে আর সত্য না। কলেজে এখন এই ব্যাপারে অনেক রেস্ট্রিকসান। তারপরো আমার মনে হয়েছে। আগের চাইতে কলেজের মান খারাপ হয়েছে সিনিয়ররা জুনিয়রদের নিয়ে বেশি ডিলিংস করতে পারেনা বলে। আমাদের সময়(আমরা যখন জুনিয়র ছিলাম তখন)আমাদের পিটিতে এক্সকীউজ নেয়ার জন্য ষ্টাফ এর কাছে গেলে ষ্টাফ বলতো হাউজ লিডার এর কাছে যাও কিন্তু এখন একজিন হাউজ প্রিফেক্ট এর ও ষ্টাফ এর কাছ থেকে পারমিশন নিতে হয়। আমাদের কলেজে মেজর নুরুল আলম থাকাকালীন ক্রসবেল্ট হোল্ডার/প্রিফেক্ট/ক্লাস ১২ কেও সবার সানে মারা হতো পানিশ্মেন্ট ও দেয়া হতো। তাই আমি মনে করি পানিশমেন্ট না উঠিয়ে সিনিয়র দের আগের
    মতো সম্মান দেয়া উচিত।

    আমাদের কলেজে কোন ডিপার্টমেন্টের টিচাররা অসাধারন ছিল বলেন ??? এনাম স্যার, রইস স্যার ছাড়া আর কোন টিচারকেই আমার অসাধারন লাগে নাই…………( পড়ানোর দিক দিয়ে )

    আমি কলেজে যাবার আগে ঢাকার উদয়ন স্কুলে পড়তাম। সেখানে আমি দেখেছি আমাদের যারা খুব বিখ্যাত শিক্ষক আছেন খুব নাম করা সবাই চেনে যারা স্কুলের টিচার হয়ে দামি গাড়িতে আসে তারা পরিক্ষার খাতায় নাম্বার দিতনা যদি কেউ তাদের কাছে কোচিং না করে।
    এটা শুধু আমাদের স্কুলেই না।
    আমি এমন একজন টিচার এর নাম শুনেছি যিনি তার প্রাইভেট স্টুডেন্ট
    দের যেই নোট দিতেন দেয়ার আগে সেই নোট ছুয়ে কসম কাটাতেন যে এই নোট যদি আমি আর কাউকে দেই তাহলে আমার রেজাল্ট খারাপ হবে।
    সেই ক্ষেত্রে আমি মনে করি আমরা অনেক ভালো ছিলাম।
    যদিও কলেজে কিছু শিক্ষক ছিলেন যারা নাম দেখে নাম্বার দিতেন কিন্তু টাকা দেখেতো নাম্বার দিতেননা 🙂

    জবাব দিন
    • রকিব (০১-০৭)

      কথাগুলো ভুল নয়। ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা থেকে বলছি, আমি এবং আমার ছোট ভাই দুজনই আইডিয়াল স্কুলে ছিলাম। এবং কোচিং ছাড়া ভালো মার্ক খুব দুরূহ ছিল, সব শিক্ষক এমন ছিলেন না, কিন্তু অধিকাংশ ক্ষেত্রেই এই ব্যাপারটা দেখেছি। প্রিন্সিপাল ফয়জুর রহমান স্যারকে আমাদের সামনেই অন্যান্য স্যারদের কাছে লাঞ্চিত হতে দেখেছি কোচিং ব্যাবসার প্রতিবাদ করায়। কাজিনটা পড়ে ভিকারুন্নেসায়, সেখানেও নাকি ঘুরে ফিরে এরকমটাই দেখা যায়। অথচ এরা কিন্তু ভালো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের তালিকায় পড়ে।
      সবচেয়ে বড় কথা, ক্যাডেট কলেজে দিলে আমার সন্তান শুধু পড়াশুনা শিখবে না, বরং নিজেকে ট্রেইনড সিভিলিয়ান হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে পারবে এ আমার বিশ্বাস। আর মানসিক চাপ- এব্যাপারে বলবো, বাইরেও এমনটা আছে, হয়তো বাবামার কাছে থাকে বলে তা কিছুটা কম; কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই আমি দেখেছি সুযোগ্য তত্ত্বাবধানে থাকার পরো বখে যাবার ঘটনা। সেদিক দিয়ে তো ভালো থাকবে। পানিশমেন্টের কথা বললে একটা জিনিস জানাই, এটা আমাদের ব্যাচে দেখেছি; যে সিনিয়র সবচেয়ে বেশি পানিশমেন্ট দিয়েছেন, তার জন্যই বোধহয় সবচেয়ে বেশি কেদেছি বিদায়বেলায়। আসলে পানিশমেন্ট আর স্নেহ দুটো যেন পরিপূরক ছিল।
      একজন ক্যাডেট অবশ্যই দশজনের থেকে আলাদা, সবার মাঝে মিশেও সে স্বকীয়, সমাজ বহির্ভুত না, বরং সমাজের অলংকার হিসেবেই সে বেচে থাকে। আমি যে আত্মার বাধনে বাধা পড়ে আছি, সে বাধন যে তার জন্য আশা করি মঙ্গল বয়ে আনবে। ভবিষ্যতে হয়তো আমার এ চিন্তা ধারা বদলে যেতে পারে, কিন্তু আপাতত এরকমই ভাবছি।


      আমি তবু বলি:
      এখনো যে কটা দিন বেঁচে আছি সূর্যে সূর্যে চলি ..

      জবাব দিন
  18. মো. তারিক মাহমুদ (২০০১-০৭)

    আমি সরাসরি ক্যাডেট কলেজের বিপক্ষে নয়। আগে নিজের সন্তানকে বুঝতে চেষ্টা করব যে , সে ক্যাডেট কলেজের উপযুক্ত কি না ; তারপর সে অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নেব। তবে আমার ব্যাক্তিগত মতামত হচ্ছে , ক্যাডেট কলেজ একটা শিশুর জন্যে খুব একটা অনুকূল পরিবেশ নয়; অন্তত পক্ষে ক্লাস সিক্সে পড়া একটা ছেলে/মেয়ের জন্যে এটাকে প্রতিকূলই বলা যায়।

    জবাব দিন
    • মাসরুফ (১৯৯৭-২০০৩)

      এটা অবশ্যি প্রতিকূল,বিশেষ করে ক্লাস সেভেন আর এইটে যে সাঙ্ঘাতিক প্রতিকূল অবস্থার মধ্যে দিয়ে যেতে হয়েছে আমাকে সেটা ভাবলে এখনো শিহরিত হই।কিন্তু এই প্রতিকূল পরিবেশে নিজেকে খাপ খাইয়ে নিতে পারার ফলে এমন একটা আত্মবিশ্বাস জন্মেগেছে যে কোন কঠিন কাজ দেখলে নিজেকে বলি-আমি ক্যাডেট,এ ধরণের কঠিন কাজ করবার জন্যই আমাকে বিশেষ ভাবে প্রশিক্ষণ দেয়া হয়েছে।আমি পারবই।

      এই বিশ্বাসটা কিন্তু খুব,খুব,খুব জরুরী।

      জবাব দিন
  19. ফয়েজ (৮৭-৯৩)

    ব্যাপক জন-গুরুত্বপূর্ন পোষ্ট মনে হইল।

    ব্যাচেলার ছেলে-মেয়েরা যেভাবে সন্তানের চিন্তায় কাতর। ;;)

    নাহ, আমি আশাবাদী, দেশ এগিয়ে যাচ্ছে :thumbup:


    পালটে দেবার স্বপ্ন আমার এখনও গেল না

    জবাব দিন
  20. সামীউর (৯৭-০৩)
    ব্যাচেলার ছেলে-মেয়েরা যেভাবে সন্তানের চিন্তায় কাতর

    সব কথার শেষ কথা এইটাই!
    পোলাপাইনরে ক্যাডেট কলেজে দেবার আগে তো পোলাপাইনের মা দরকার, এখন পোলাপাইনের মা যে কোথায় পাই?

    জবাব দিন
  21. ওবায়দুল্লাহ (১৯৮৮-১৯৯৪)

    কালবেলা,
    তোর এই স্টাইলটাই লক্ষ্যনীয়।
    এর আগে তোর 'ক্যাডেট কলেজ এর ভিতর - বাহির' প্রসঙ্গে লেখাটাও দারন জীবন্ত ছিল।
    এখানেও তার ব্যতিক্রম নেই। ফয়েজ ভাই তো বলেছেন- দেশ নিয়ে তিনি অনেক আশাবাদী।

    ভবিষ্যত ফুটবল দল থেকে শুরু করে বউ খোঁজা পর্যন্ত সব গুলা মন্তব্যই পড়লাম।
    চমৎকার।
    আমরা দু'ভাই মির্জাপুর এর। বাবা আর্মিতে ছিলেন বলে তার বদলীর চাকরীতে এর থেকে ভাল অপশন ছিল না তখন। সীমিত খরচে শৃংখলাবব্ধ জীবন মেনে নিয়ে এত ভাল পড়াশোনা আর পরবর্তীতে সরাসরি আই এস এস বি'তে আসার সুযোগ - সব মিলিয়ে বোধকরি সেটাই সঙ্গত ছিল।
    আমি পরে আর্মিতে আসি - আমার ছোটটা (মামুন, ম,ক,ক, ২৯ তম ব্যাচ) দুবার আই এস এস বি টরকিয়ে বাইরে ভালই আছে।
    ক্যাডেট কলেজ এ পড়ে কি দারুন লাভবান হয়েছি আমি সে গান গাইবো না এখানে। অবশ্যই আজ কে আমি যা - তার মাঝে অনেক খানি তারই অবদান। কিন্তু তার আগে - সে সময় - পরে এবং এখনও বাবা মা - আর পরিবারের শেয়ারটুকুও অনেক জরুরী। তোর আগের লেখা গুলোর সাথে এর ধারাবাহিকতা টানলে বিষয় গুলো সহজ হয়ে উঠতো।
    যাই হোক আমার কাছে মনে হয় আমার একটাই সন্তান হলে হয়তো আমি দিব না। (দুইটি হলে একজন কে দিতেও পারি। 😉 )
    লাবলু ভাইয়ের সুরেই হয়তো বলবো নিজেদের কথা ভেবেই দিব না ক্যাডেটে।
    আর গাছে এখনো কাঁঠাল আসে নি - তাই এত আগে তেল লাগিয়ে কি করবো বল।
    সময় আসুক - নিজেরদের কাছে রেখে কয়টি বছর পেরুনোর পর পরিস্থিতি বলে দেবে করনীয় কি।
    তবে দিনে দিনে পড়ালেখার ক্ষেত্র গুলো ভীষন অসুস্থ প্রতিযোগিতায় ছেয়ে যাচ্ছে। কি জানি কি হয়।
    বড়রা যথার্থই বলেন - 'যায় দিন ভালো'।
    যারা অনেক দূর পর্যন্ত দেখতে পারেন - তাদের farsightedness কে আমি কদর করি - ।
    কিন্তু আমার কেন জানি মনে হচ্ছে এই স্পর্শকাতর সিদ্ধান্তটি আমি real time এ নিতে চাই - আমাদের সন্তান এবং তখনকার পারিপার্শ্বিক প্রেক্ষাপট এর অপেক্ষা করবো আমি।

    বেহুদা প্যাঁচাল পাড়লাম অনেক ক্ষন - আর শেষে এসে কিছুই বলা হলো না।
    আমার ব্যান চামু না কি? :bash:


    সৈয়দ সাফী

    জবাব দিন
    • কালবেলা (৯৩-৯৯)

      প্রিয় ওবায়দুল্লাহ ভাই,
      দারুন ভালো লাগল আপনার কমেন্ট পেয়ে। যথার্থই বলেছেন এবং সঠিকই ধরেছেন...।অনেক দিন পর সিসিবি তে লগইন করে দেখি আমার একাউন্টে বরাবরের মতই একটা সিরিয়াল(ক্যাডেট কলেজের ভিতর-বাহির) পড়ে আছে অসম্পূর্ন অবস্থায়। এযাবৎ যা কিছু শুরু করেছি তার বেশিরভাগই এরকম সম্পূর্নের আশায় অসম্পূর্ন হয়ে মুখ থুবরে পড়ে থাকে। শুধু লেখালেখির ক্ষেত্রেই না...জীবনের অন্যান্য বিষয়েও যদি একটু সিরিয়াস হতাম তাহলে হয়ত অনেক ক্ষেত্রেই অনেক চিত্র আমার পালটে যেত।
      হাউভার। কথা সেটা না। কথা হল...অসম্পূর্ণ সিরিয়ালটা শেষ করতে ইচ্ছা করল। যেই না লিখতে বসেছি ৩ নম্বর পর্ব অমনি আনমনা হয়ে গেলাম। অনেক বড় প্লট অনেক কিছু লিখতে হবে। তাও নানান রকম বিতর্কের অবকাশ রয়ে যায়। বিতর্কে বিতর্কে দেখা যাবে হয়ত মেইন প্রসংগটাই হারায় যাবে। যা তুলে ধরতে চাই সেটা আর তুলে ধরা হবে না। বেশ আলসেমি তে ভর করল...সাথে "না বুঝাতে পারার" সম্ভাবনা ...সব মিলিয়ে লেখা বাদ দিয়ে চুপ-চাপ বসে ছিলাম। হঠাৎই মনে হল লেখাটার মেইন ফ্লেভারটা কোথায় লুকায়িত আছে এইটা পাঠকদের বুঝাতে হলে ঠিক এই ধরনের একটা চিন্তার মধ্য দিয়ে নিয়ে যাওয়া দরকার। আমি কি কারণে " ক্যাডেট কলেজের ভিতর-বাহির" শুরু করেছিলাম সেটা এক্কেবারে টু-দ্যা পয়েন্ট বোঝানোর জন্যে এই ভাবনাটাই যথেষ্ট। ক্যাডেট রা তাদের নিজের ছেলে-মেয়েদের কে ক্যাডেট কলেজে দিবে কি দিবে না...এই জিনিসটা নিয়ে ভাবতে বসলেই সে যে যে ভাবনার সম্মুখীন হবে আমি ঠিক সেই সেই ভাবনা গুলোই তুলে আনতে চেয়েছিলাম " ক্যাডেট কলেজের ভিতর-বাহির" লেখাটার মাধ্যমে। দিতে চাওয়া বা না চাওয়া উভয় ক্ষেত্রেই কিছু ইম্পর্টেন্ট ভাবনা আমাদের ভাবতে হয়েছে...
      ফলশ্রুতিতে, এই জরিপ / ভোটাভুটি করার পরে আমার মনে হয়েছে ......" ক্যাডেট কলেজের ভিতর-বাহির" লেখাটা আর শেষ করার দরকার নাই। আমি যা চেয়েছিলাম সেটা পেয়ে গেছি।

      ধন্যবাদ সব্বাইকে, স্বতঃস্ফুর্ত অংশগ্রহনের জন্যে।

      (বিঃ দ্রঃ কেউ একজন যদি রেজাল্টটা কাউন্ট করে আউট করতো তাইলে কৃতজ্ঞ হইতাম। অনুমান করা যায় দিতে চাওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। আমি আমার ছেলে মেয়েদেরকে দেয়ার ইচ্ছা রাখি।)

      জবাব দিন
  22. কামরুলতপু (৯৬-০২)

    ব্যাচেলর দের এখানে আসা বন্ধ করা দরকার ছিল শুধু ব্যাচেলর না যারা এখনো পিতা হয়নি তারাও। বাপ না হইলে ছেলের ব্যাপারে কোন ফিলিংস জন্মাবার কথা না কোন ফিলিংস ও না কোন চিন্তা করার ক্ষমতাও না আমার ধারণা অবশ্য। তাই এই ব্যাপারে কোন মন্তব্যই করতে পারলাম না।
    তবে আমার ও মনে হয় ক্যাডেট কলেজ অনেক চৌকষ মানুষ তৈরি করে।

    জবাব দিন
  23. রুম্মান (১৯৯৩-৯৯)

    আমার তো খুবই দেয়ার ইচ্ছা । দেখা যাক,কি হয় । আল্লাহ ভরসা


    আমার কি সমস্ত কিছুই হলো ভুল
    ভুল কথা, ভুল সম্মোধন
    ভুল পথ, ভুল বাড়ি, ভুল ঘোরাফেরা
    সারাটা জীবন ভুল চিঠি লেখা হলো শুধু,
    ভুল দরজায় হলো ব্যর্থ করাঘাত
    আমার কেবল হলো সমস্ত জীবন শুধু ভুল বই পড়া ।

    জবাব দিন
  24. মঞ্জুর (২০০২-২০০৮)

    আমার তাদের প্রতি খুব করুনা হয় যারা স্কুল থেকে বের হয়ে ৪ -৫ টা private এর পেছনে ঘুরে।তাদের লাইফ এ কিছু আছে পরাশুনা ছাড়া?CADET COLLEGE এ গেলে নিজেকে জানা যায়।এরকম একটা heaven এ কেন নিজের সন্তান কে দেব না?

    জবাব দিন

মন্তব্য করুন

দয়া করে বাংলায় মন্তব্য করুন। ইংরেজীতে প্রদানকৃত মন্তব্য প্রকাশ অথবা প্রদর্শনের নিশ্চয়তা আপনাকে দেয়া হচ্ছেনা।